Logo
শিরোনাম

আদিতমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষ

প্রকাশিত:Saturday ২৬ November ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ


লালমনিরহাটে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের অনন্ত ২০ জন আহত হয়েছে।বর্তমানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে উপজেলা শহরে।

২৬ নভেম্বর(শনিবার) বিকেলে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর সামনে এ সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদ্য ঘোষিত নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ দেশব্যাপী বিএনপি ও জামাতের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে উপজেলার জিএস স্কুলের মাঠে এক বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল আয়োজন করে।একই সময়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের পদ বঞ্চিত নেতারা উপজেলা আঃ লীগ কার্যালয় এর সামনে সমাবেশে ডাকে।

আজকে উভয় পক্ষের পাল্টা পাল্টি সমাবেশ ডাকাকে ঘিরে সকাল থেকে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিলো।নব নির্বাচিত কমিটির সভাপতি, সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ অন্যান্য নেতাদের নেতৃত্ব দেওয়া সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল উপজেলা শহরের মুল সড়ক প্রদক্ষিণ করার জন্য বের হয়।মিছিলটি উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় অতিক্রম করার সময় উপজেলা আওয়ামী কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেওয়া গ্রুপের সাথে বাকবিতন্ডা হয়।পরে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর পিছন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা মিছিলকে লক্ষ করে ঢিল ছোড়ে এতে মিছিল ও আশপাশে আতংক ছড়িয়ে পরে।পরে মিছিল ছুট নেতাকর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর সামনে অবস্থান নেওয়া গ্রুপের সাথে থেমে থেমে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে।এসময় দু গ্রুপ ঢিল ছোড়ে এবং দেশীয় অস্ত্র প্রদর্শন করে আতংক ছড়াতে থাকে।বৃহৎ সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশ টানা দু'ঘন্টা চেষ্টা ও তিনটি সাউন্ড গেনেট ছুড়লে উভয় পক্ষের নেতাকর্মীরা দুদিকে চলে যায়।সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পুলিশ সহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।

এ বিষয়ে আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ মোক্তারুল ইসলাম জানান,আদিতমারী আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশের ৫/৬  সদস্যসহ উভয় পক্ষের কয়েকজন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিনটি সাউন্ড গেনেট ছোড়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

উল্লেখ;চলতি বছরের গত ১৯ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ আলীকে সভাপতি ও রফিকুল আলমকে সাধারণ সম্পাদকসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে।ঘোষিত কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মাহমুদ ওমর চিশতী পদ না পেয়ে কমিটি ঘোষণার পর থেকে নব নির্বাচিত কমিটির বিরোধীতা করে আসছে।


আরও খবর



ঊনসত্তরের শহিদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

অধ্যাপক আ ব ম ফারুক :

আজ ছিল শহিদ আসাদ দিবস। ১৯৬৯ সালের এই দিনে অর্থাৎ ২০শে জানুয়ারি পাকিস্তানের কুখ্যাত স্বৈরাচার আইয়ুব খানের কুশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত ছাত্র-গণমিছিলে পুলিশের গুলিবর্ষণে আসাদ (পুরো নাম আমানউল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান) শহিদ হন। তিনি ছিলেন ঊনসত্তরের তীব্র গণ-আন্দোলনে পথিকৃত শহিদ। এই আন্দোলনে অগণিত শহিদদের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত অন্য দুজন হলেন শহিদ রুস্তম ও শহিদ মতিউর। 

১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর ঐতিহাসিক ৬-দফা দাবিনামা পেশের পর থেকে বাঙালি এর স্বপক্ষে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলে। এই আন্দোলনে ৬-দফাকে সমর্থন করে তার সাথে গণমুখী শিক্ষার দাবি একত্রিত করে দেওয়া ছাত্রদের ১১-দফা দাবি পেশ এই আন্দোলনকে সুতীব্র করে। এই আন্দোলন-হরতালের সাথে আইয়ুব খানের ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা’ দায়ের ও কথিত এই মামলায় ‘প্রধান আসামী’ শেখ মুজিবসহ (তিনি তখনও ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি লাভ করেননি) মোট ৩৫ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ৬-দফা ও ১১-দফার সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে ১৯৬৯ সালের ৪ঠা জানুয়ারি। দেশের সর্বত্র এই প্রতিবাদ-আন্দোলন আরো বেগবান হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভা থেকে ছাত্র-নেতৃবৃন্দ কর্তৃক ১৭ই জানুয়ারি দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ডাকে । এর বিরুদ্ধে তখনকার পূর্ব পাকিস্তানের কুখ্যাত গভর্নর মোনায়েম খান দেশব্যাপী ১৪৪ ধারা জারি করে। কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ২০শে জানুয়ারি দুপুরে এক ছাত্র-গণমিছিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের পাশে চাঁন খাঁর পুলে সমবেত হলে পুলিশের গুলিতে আসাদ শহীদ হন। এর প্রতিবাদে লাখো ছাত্র-জনতা কান্না ও ক্ষোভে  পুনরায় আসাদের রক্তমাখা শার্ট পতাকার মতো নিয়ে সমবেত হয়ে মিছিল নিয়ে শহিদ মিনারে আসে। সেখানে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ২২, ২৩ ও ২৪শে জানুয়ারি শহিদ আসাদের স্মরণে সারা দেশে ধর্মঘট ও গণ-বিক্ষোভের ডাক দেয় এবং দেশবাসী তা শ্রদ্ধার সাথে পালন করে। এর শেষ দিনে অর্থাৎ ২৪শে জানুয়ারি পুলিশ আবার ক্ষোভে উত্তাল ছাত্র-জনতার উপর গুলিবর্ষণ করে এবং ঢাকার মালিবাগ মোড়ে মতিউর রহমান শহিদ হন। 

ঊনসত্তরে সারা দেশব্যাপী এই গণ-আন্দোলনের ফলস্বরূপ বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন আরো বেগবান হয়, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা তুলে নিতে সরকার বাধ্য হয়, বাংলার অবিসংবাদিত জননেতা শেখ মুজিব ষড়যন্ত্রমূলক মৃত্যুর হাত থেকে ফিরে আসেন এবং স্বৈরাচারী আইয়ুব সরকারের পতন হয়।

শহিদ আসাদ, শহিদ মতিউর ও ঊনসত্তরের আরো অগণিত নাম না জানা শহিদদের আত্মদান দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের জন্য প্রবল শোক ও সেই সাথে প্রবল অনুপ্রেরণার উৎস। এই ঐতিহাসিক গণ-আন্দোলন পাকিস্তানের অমানবিক শোষণের প্রতি বাঙালির তীব্র ঘৃণা ও প্রতিবাদের প্রতীক এবং অধিকার আদায়ের আন্দোলনের প্রেরণা হয়ে বেঁচে থাকবে।

আসাদের আত্মদানের খবরে সমগ্র দেশ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিক্ষুব্ধ জনতা সর্বত্র আইয়ুবের ছবি অপসারণ করে, ঢাকার আইয়ুব গেটের নামফলক ভেঙ্গে নতুন নামকরণ করে ‘আসাদ গেট’, আইয়ুব রোডের নাম রাখে ‘আসাদ রোড’ এবং আইয়ুব পার্কের নাম রাখে ‘আসাদ পার্ক’।

এই গণ-আন্দোলন ও আত্মত্যাগের স্মরণে আমাদের কবি-সাহিত্যিকরাও অনেক প্রবন্ধ-কবিতা-গল্প লিখেছেন। কয়েকটি বিখ্যাত কবিতা হলো কবি শামসুর রাহমানের ‘আসাদের শার্ট’, কবি হেলাল হাফিজের ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয়’ এবং তখনকার পাকিস্তানি সৈন্য আর পুলিশ বোঝাই  অসংখ্য ট্রাক নিয়ে কবি আল মাহমুদের নিম্নরূপ কবিতাটি -

‘ট্রাক ট্রাক ট্রাক

শুয়োরমুখো ট্রাক আসছে 

দুয়োর বেঁধে রাখ।

বাঁধবো কেন দুয়ার ওগো

তুলবো কেন খিল।

আসাদ গেছে মিছিল নিয়ে

আসবে সে মিছিল।

ট্রাক ট্রাক ট্রাক 

ট্রাকের বুকে আগুন দিতে

মতিউরকে ডাক।

কোথায় পাবো মতিউরকে

ঘুমিয়ে আছে সে।

তোরাই তবে সোনা মাণিক

আগুন জ্বেলে দে।’

বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে শহিদ আসাদ ও শহিদ মতিউরসহ ঊনসত্তরের সব বীর শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।

জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

লেখক ঃ

সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু পরিষদ


আরও খবর



গত বছর দেশে ৪৪৬ শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে

প্রকাশিত:Friday ২৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

২০২২ সালে দেশে স্কুল ও কলেজের ৪৪৬ জন শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। দেশের পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত খবরের ওপর ভিত্তি করে এই পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে বেসরকারি সংস্থা আঁচল ফাউন্ডেশন।

শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আত্মহত্যা করা এসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ও সমমান পর্যায়ের ৩৪০ এবং কলেজ পর্যায়ে ১০৬ জন রয়েছেন। এদের মধ্যে ৫৪ জন মাদরাসার শিক্ষার্থী। এসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে নারী ২৮৫ জন এবং পুরুষ ১৬১ জন। 

এছাড়া ২০২২ সালে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত ৮৬ জন শিক্ষার্থী আত্মহত্যার পথ বেঁছে নিয়েছেন বলেও জানিয়েছে আঁচল ফাউন্ডেশন।

এদিকে, আত্মহত্যার পেছনের কারণ হিসেবে মান-অভিমানই বেশি। ২৭ দশমিক ০৬ শতাংশ স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থী অভিমানে আত্মহত্যা করেছে। এদের বড় অংশই অভিমান করেছিল পরিবারের সদস্যদের ওপর। 


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




জুনের মধ্যে খুলে দেয়া হবে পদ্মা রেল সেতু

প্রকাশিত:Saturday ১৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল :


রেল মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন,  আগামী জুন মাসের মধ্যে ঢাকা থেকে ভাঙা র্পযন্ত পদ্মা সেতু দিয়ে রলে পথ চলাচল উপযোগী করা হবে। উন্নয়নের প্রয়োজনে রেলওয়ের নিজস্ব জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। এ নিয়ে কোন দ্বিমত নেই। যে সমস্ত জায়গা উন্নয়নের জন্য ব্যবহার করতে পারছিনা কিন্তু রেলওয়ের দখলে আছে তা চাহিদা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল রেললাইনের কারনে সড়কে যাতে যানজট সৃষ্টি হতে না পারে এ কারনে বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে আলাপ আলোচনা চলছে। দুপুরে নারায়ণগঞ্জে ডাবল রেললাইন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শণ শেষে নগরের শেখ রাসেল পার্কে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল হাই ও রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্মকতা সহ অনেকে।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




নোয়াখালীতে ভিপি নূরের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধি:


বাংলাদেশ গণ-অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নূরুল হক নূরের বিরুদ্ধে নোয়াখালীর সুধারাম মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নোয়াখালী জেলা শাখার সভাপতি সাফায়েত হোসেন।  


রোববার (৮ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে এই অভিযোগ দেওয়া হয়।  


অভিযোগে পত্রে বলা হয়েছে,  গত ৩ জানুয়ারি বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদ নামক তথাকথিত রাজনৈতিক দলের সদস্য সচিব নূরুল হক নূর ওমরা হজ করার কথা বলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে গিয়ে অস্বীকৃত ইজরাইল রাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্ট মেন্দি এন সাফাদির সাথে বৈঠক করে বাংলাদেশের নির্বাচিত সরকার উৎখাতের দেশবিরোধী রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। মোসাদ এজেন্ট মেন্দি এন সাফাদির সাথে নুরুল হক নূরের ছবি ও তার স্বীকারোক্তিমূলক কথোপকথন ইতোমধ্যেই ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিকমাধ্যমে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু। 

অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, পবিত্র কাবাঘর তাওয়াফের নাম করে বিদেশে গিয়ে ইয়াহুদি চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে নুরুল হক নূর প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশের রাষ্ট্র, সরকার ও পবিত্র ধর্ম ইসলামের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির হীন চক্রান্তে লিপ্ত। ইসলামের খোলসে মাথা ন্যাড়া করে টুপি পরে জুয়িশ-জায়নবাদী প্রজেক্ট বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশের শান্তিপ্রিয় মুসলমানদের মধ্রে বিভেদ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে এবং সরকারের পদস্থ বিভিন্ন ব্যক্তিকে ফেসবুক লাইভে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে।  

একই দিন সন্ধ্যার দিকে এই বিষয়ে জানতে চাইলে সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম অভিযোগ দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



চাকু ও খেলনা পিস্তল সহ কিশোর গ্যাংকের ৩ সদস্য আটক

প্রকাশিত:Saturday ২৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

ধারালো টিপ চাকু, প্লাস্টিকের খেলনা পিস্তল ও গাঁজার পুরিয়া উদ্ধার, কিশোর গ্যাংকের লিডার সহ ৩ জন সদস্য কে আটক করেছে র‌্যাব।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদক কে জানানো হয়,

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকশ অপারেশনাল দল কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা এর নের্তৃত্বে শুক্রবার দিনগত রাত পনে ৯ টারদিকে জয়পুরহাট জেলার সদর থানাধীন পৃথিবী কমপ্লেক্স এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কিশোর গ্যাংয়ের লিডার বগুড়া জেলা সদরের নিশিনদারা মধ্যপাড়া-এপি সং-প্রফেসরপাড়া, থানা ও জেলা-জয়পুরহাট এর জৈনক

 নওশাদ আলীর ছেলে মোঃ সাঈদ নাঈম (২৪) সহ তার দু' সহযোগী জয়পুরহাট জেলা সদর উপজেলার গুলশানমোড় এলাকার কোরবান আলীর ছেলে মোঃ কারিমুল ইসলাম (২৩) ও শান্তিনগর এলাকার মৃত আব্দুল ওয়াহেদ সরদারের ছেলে মোঃ নাহিদ হাসান (২৩) কে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। 

র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেফতারকৃত ৩ জন জয়পুরহাট সদর থানা এলাকার উদীয়মান কিশোর সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত। এরা ৫/৭ জনের একটি দল গ্রুপ লিডার সাঈদের নেতৃত্বে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটিয়ে থাকে। তারই ধারাবাহীকতায় ঘটনার সময় তারা প্রায় ৫/৬ জন জয়পুরহাট সদর থানার সামনে পৃথিবী সিনেমা কমপ্লেক্সের ৩য়' তলায় একত্রিত হয়ে ছিনতাইয়ের প্রস্তুুতি নিচ্ছিল। এ সময় জয়পুরহাট র‍্যাব ক্যাম্পের আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে কিশোর সাঈদ গ্যাংয়ের মূলহোতা সাঈদ সহ ৩ জন সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয় র‌্যাব। এসময় র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আরো ২/৩ জন পালিয়ে যায়। তল্লাশীতে তাদের কাছ থেকে একটি প্লাস্টিকের পিস্তল, ধারালো টিপ চাকু, গাঁজার পুরিয়া সহ মাদক সেবন করার অন্যান্য সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব।


আরও খবর