Logo
শিরোনাম

আজ কলেরার দ্বিতীয় ডোজের টিকা

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

রাজধানীতে দ্বিতীয় ডোজ কলেরার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। পাঁচটি এলাকায় আজ থেকে ১০ আগস্ট পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক ও লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

এ আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর’বি) জানায়, ২৬ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত রাজধানীর মিরপুর, মোহাম্মদপুর, যাত্রাবাড়ী, সবুজবাগ ও দক্ষিণখান এলাকায় কলেরার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিল ২৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫৮৫ জন। তাদের এই দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে। প্রথম ডোজ গ্রহীতারা নিজ নিজ টিকাকেন্দ্রে টিকাকার্ড দেখিয়ে দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন। ৯ আগস্ট (আশুরা) ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলবে।

নাজমুল ইসলাম বলেন, ঢাকার পাঁচটি এলাকার বাসিন্দাদের থেকে কলেরা টিকাদান কার্যক্রমে অভূতপূর্ব সাড়া পেয়েছি। খুব অল্প সময়ে রেকর্ডসংখ্যক মানুষকে টিকা দিতে পেরেছি। আশা করি, প্রথম ডোজ গ্রহীতারা অবশ্যই দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে নিজেদের এ রোগ থেকে সুরক্ষা করবেন।

আইসিডিডিআর’বির সিনিয়র সায়েন্টিস্ট ও ইনফেকশাস ডিজিজেস ডিভিশনের ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র ডিরেক্টর ড. ফেরদৌসী কাদরী বলেন, সবার প্রতি অনুরোধ কলেরা টিকা গ্রহণ করার পাশাপাশি নিজেকে ও প্রিয়জনদের অন্যান্য রোগ প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম, যেমন নিরাপদ পানির ব্যবহার, নিরাপদ পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা এবং ব্যক্তিগত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে উৎসাহিত করবেন এবং ডায়রিয়াসহ অন্যান্য সংক্রমক রোগ থেকে সুরক্ষিত থাকবেন।

গর্ভবতী নারী এবং গত ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নিয়েছেন- এমন ব্যক্তি ছাড়া সবাই কলেরার টিকা নিতে পারবেন। এ টিকা নেওয়ার পরবর্তী ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নেওয়া যাবে না।


আরও খবর

অক্টোবরের ৪ থেকে টিকার প্রথম ডোজ বন্ধ

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

করোনায় এক দিনে ৫ জনের মৃত্যু

বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২




ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট গোটাবায়াকে গ্রেপ্তারের দাবি

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

শ্রীলঙ্কার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে দেশটির বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। গণআন্দোলনের মুখে পালিয়ে গিয়ে শুক্রবার রাতে দেশে ফেরেন তিনি।

দেশের ফেরার পর তাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় গ্রহণ করে বর্তমান সরকার। বিশেষ নিরাপত্তার পাশাপাশি তাকে ফিরিয়ে দেয়া বাংলোসহ অন্যান্য সুবিধা। তারপর থেকেই তাকে গ্রেপ্তার দাবিতে সোচ্ছার হয়েছে বেশ কয়েকটি সংগঠন। তাদের দাবি, দুই কোটি ২০ লাখ লঙ্কানকে সীমাহীন দুর্ভোগে ফেলার জন্য গোটাবায়ার বিচার হওয়া উচিৎ। পালিয়ে বিদেশ গিয়ে কেউ তাকে রাখেনি বলে দেশে ফিরেছেন বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা। সাবেক সামরিক কর্মকাতা গোটাবায়া শ্রীলঙ্কার প্রভাবশালী গোটাবায়া পরিবারের সদস্য। 


আরও খবর

জাতিসংঘে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

জাতিসংঘের ভূমিকায় হতাশ মালয়েশিয়া

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




সমাজ ও রাষ্ট্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ইসলামের বিকল্প নেই -পীর সাহেব চরমোনাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, মুসলিম উম্মাহ এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। বিরানব্বই ভাগ মুসলমানের দেশে ঢাবিতে ছাত্র-ছাত্রীদের নামাজের জায়গা ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। ইসলামী শিক্ষাকে ঐচ্ছিক করে দিয়ে ইসলামী শিক্ষা ধ্বংসের পাঁয়তারা চলছে। অপরদিকে ডারউইনের মতবাদ শিক্ষা সূচিতে পাঠ্য হিসেবে অর্ন্তভূক্ত করে জাতিকে নাস্তিক বানানোর চক্রান্ত চলছে। 

পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, ওলামায়ে কেরাম জাতির শ্রেষ্ঠ ও জাগ্রত বিবেক, নায়েবে নবী। সমাজ ও রাষ্ট্রে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ আদর্শ দীনে হক তথা কুরআন সুন্নাহর আইন প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে আলেমদেরকেই নেতৃত্ব দিতে হবে। তিনি বলেন, রাষ্ট্র্রের অবস্থা অত্যন্ত করুন। সুশাসনের অভাবে মানুষ অসহায় জীবন যাপন করে। অধিকার বঞ্চিত মানুষ অধিকার ফিরে পেতে আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ করছে। অত্যাচারিত অসহায় ও মজলুম মানুষের আহাজারিতে আকাশ বাতাম প্রকম্পিত হচ্ছে। এ প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থার পরিবর্তন করে একটি ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ওলামায়ে কেরামগণকেই নেতৃত্ব দিতে হবে। সমাজের নেতৃত্ব দেয়ার দায়িত্ব আলেমদের। আজ যেখানে আলেম সমাজ তথা আল্লাহভীরু জনপ্রতিনিধি নেতৃত্ব দিচ্ছেন সেখানকার মানুষ অনেক ভাল আছেন। আজ যদি রাষ্ট্রের প্রতিটি সেক্টরে আলেম সমাজের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা হয়, তখন সব শ্রেণি ও পেশার মানুষ সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারবে। ওলামায়ে কেরামগণ পিছিয়ে থাকায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন দুর্নীতিবাজ নেতানেত্রীগণ। ফলে যা হবার তাই হচ্ছে। এ উপলব্ধি যত তাড়াতাড়ি আলেমগণ করতে পারবেন, ততই সমাজ, রাষ্ট্র ও জনগণের কল্যাণ হবে। জনগণের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি আলেম সমাজের অবদান রাখতে হবে। 

আজ মঙ্গলবার বিকেলে খাগড়াছড়ি জেলা অফিসার্স ক্লাব মিলনায়তনে জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখা আয়োজিত ওলামা ও সুধী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের  কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) মুফতী শাহজাহান আল হাবিবী। বক্তব্য রাখেন বাবুনগর মাদরাসার মুহাদ্দিস আল্লামা মীর হুসাইন, খাগড়াছড়ি জেলা কওমী ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা ক্বারী ওসমান গণী, মাওলানা হাবিবুল্লাহ জাহাঙ্গীর, মাওলানা সানাউল্লাহ নূরী মাহমুদী, খাগড়াছড়ি বায়তুশ শরফ আলিম মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবু ওসমান, খাগড়াছড়ি সিনিয়র মাদারাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মহিউদ্দিন, মাওলানা ফজলুল হক, মাওলানা শেখ বাহার উল্লাহ, মুফতী মাকসুদুল হক, মাওলানা আনোয়ার হোসেন মিয়াজী, মাওলানা আখতারুজ্জামান ফারুকী, মুফতী মহিউদ্দিনসহ জেলার অন্যান্য ওলামায়ে কেরাম, মসজিদের ইমাম ও ইসলামী আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর



টুইন টাওয়ারে হামলার বর্ষপূর্তি

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে সন্ত্রাসী হামলার ২১তম বার্ষিকী পূর্ণ হচ্ছে আজ। ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টম্বেরের ওই হামলায় দুই হাজার ৯৮৩ জন নিহত হয়। ওই হামলার বার্ষিকীতে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনে ভাষণ দেবেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

রোববার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার, পেন্টাগন, ফ্লাইট নাইনটি থ্রি এবং ২৬শে ফেব্রুয়ারি ১৯৯৩ সালে ওয়ার্ল্ড ট্রেন সেন্টারে হামলায় নিহতদের স্মরণ করা হচ্ছে। নিহতদের সম্মানে 'ন্যাশনাল সেপ্টেম্বর ইলেভেন মেমোরিয়াল অ্যান্ড মিউজিয়াম' কর্তৃপক্ষ স্মরণ সভার আয়োজন করেছে। নিহতদের পরিবারকে তাদের স্বজনদের নাম পড়ে শোনানোর জন্য এ বছরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। হামলার ক্ষণ হিসাব কোরে ছয়দফা নীরবতা পালন করা হবে। রাতে লোয়ার ম্যানহাটনে আলো জ্বালিয়ে হতাহতদের সম্মান জানানো হবে। স্থানীয় সময় রোববার সকাল সাড়ে আটটায় শুরু হবে আনুষ্ঠানিকতা। 


আরও খবর



পাকিস্তানে বন্যায় নিহত সংখ্যা বেড়ে প্রায় ১৫০০

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

পাকিস্তানের নজিরবিহীন বন্যায় এখন পর্যন্ত ১৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ এ তথ্য জানিয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিভিন্ন স্থানে বন্যার পানি কমতে শুরু করলেও এখনও হাজার হাজার মানুষ খোলা আকাশের নিচে রাত্রিযাপন করছে। দেশটির জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দেশজুড়ে বন্যায় ৫৩০ শিশুসহ মৃতের সংখ্যা ১৪৮৬ জনে দাঁড়িয়েছে। বন্যার তাণ্ডবে সিন্ধু প্রদেশে প্রায় লাখো মানুষ ঘরবাড়ি হারিয়েছে। ঘরহারা এসব মানুষের জন্য তাঁবু কেনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন, সিন্ধুর মুখ্যমন্ত্রী সৈয়দ মুরাদ আলী শাহ। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে ত্রাণবাহী বিমান এসেছে।  


আরও খবর

জাতিসংঘে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

জাতিসংঘের ভূমিকায় হতাশ মালয়েশিয়া

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




রাঙ্গামাটির বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন পার্বত্য মন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি ঃ

পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং)  আজ শুক্রবার রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার রাইখালীতে ১ কোটি ৭৭লক্ষ টাকার মসজিদ, মন্দির ও বিহার সহ বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনায়, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করে। 

এসময় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল আলম চৌধুরী (অতিরিক্ত সচিব), পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য প্রশাসন ড.ইফতেকার আহমেদ (যুগ্ন সচিব), রাঙামাটি জেলা পরিষদ সদস্য অংসুই ছাইন চৌধুরী, দীপ্তিময় তালুকদার, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মফিজুল হক, কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনতাসির জাহান, কাপ্তাই সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওশন আরা রব, চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী, সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য থোয়াইচিং মং মারমা, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, ১নং চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন মিলন,  ২নং রাইখালী ইউপি চেয়ারম্যান মংক্য মারমা, ৩নং চিৎমরম ইউপি চেয়ারম্যান ওয়েশ্লি মং চৌধুরী, ৫নং ওয়াগ্গা ইউপি চেয়ারম্যান চিরঞ্জিৎ তনচংগা সহ গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


উদ্বোধনকৃত প্রকল্পগুলো হচ্ছে ৯০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কাপ্তাই উপজেলাধীন রায় সাহেবের বৌদ্ধ বিহার নির্মাণ, ৩৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে শ্রীশ্রী ত্রিপুরা সুন্দরী কালী বাড়ির গীতা শিক্ষা ভবন নির্মাণ, ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নারানগিরিমুখ মসজিদুল আকসা ভবন নির্মাণ ও ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ড্রাগন স্পোটিং ক্লাব নির্মাণ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। 

এসময় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক। তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধান ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি গোষ্টীর উন্নয়নে কাজ করে গেছেন বলেই আজ জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী বিশ্ব সেরা ২য় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত হয়েছেন। এটা আমাদের জন্য বড় প্রাপ্তি। 


আরও খবর