Logo
শিরোনাম

আড়াইহাজারে লেগুনা কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে ১ জন নিহত

প্রকাশিত:Wednesday ০৯ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

নারায়ণগঞ্জের  আড়াইহাজারে লেগুনা কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে লেগুনা চালক রতন মিয়া ও যাত্রী দিন ইসলাম নিহত

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে লেগুনা ও কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত আরও দুইজন। উপজেলার মদনপুর গাজীপুর সড়কের শাখায় নরসিংদী - মদনগঞ্জ অংশের লঙ্গুরদী এলাকায় বুধবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন লেগুনার চালক রতন মিয়া । তিনি উপজেলা কৃষ্ণপুরা এলাকার গিয়াসউদ্দিনের ছেলে। অপরজন লেগুনা যাত্রী  ইজিবাইকের চালক উপজেলার লসকুরদী গ্রামের বিল্লাল মিয়ার ছেলে দিন ইসলাম ।  

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,  লঙ্গুরদী এলাকায় বিকেল ৪ টার দিকে দ্রুতগামী একটি কাভার্ড ভ্যানের সাথে বিপরীত দিক থেকে আসা লেগুনার সঙ্গে মুখো মুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই লেগুনা চালক রতন মিয়া নিহত হন। এসময় স্থানীয়রা লেগুনার যাত্রীসহ তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে মারা যান দিনইসলাম।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম জানান, নিহতের মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে। ঘটনার পরপরই কাভার্ড ভ্যানটি ফেলে রেখে পালিয়েছে চালক। তাকে আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ লেগুনাটি জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর



রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে কোকোর মৃত্যু

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

বিএনপি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির চলমান আন্দোলন সফল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আন্দোলনের মাধ্যমেই সরকারের পতন ঘটানো হবে।

খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুবার্ষিকীতে, বনানীতে তার কবরে শ্রদ্ধা জানিয়ে এসব কথা বলেন ফখরুল। এ সময় বিশেষ দোয়ায় অংশ নেন দলের নেতারা। ফখরুল বলেন, কোকো কোন রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন না, তারপরও প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। দেশের মানুষ গণতন্ত্র উদ্ধারে আন্দোলন করে যাচ্ছে। আন্দোলনের মাধ্যমেই সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা হবে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।  


আরও খবর



জামালপুরের বকশীগঞ্জে শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

জামালপুর প্রতিনিধি :

জামালপুরের বকশীগঞ্জে নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার (পিরামিড বিএসসি) অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন-বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থী অভিভাবকরা। মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয় মাঠে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন তারা। মানববন্ধনে সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়াকে চরিত্রহীন, দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে তার শাস্তি ও অপসারনের দাবি জানানো হয়। শিক্ষার্থী অভিভাবকদের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অভিভাবক সালেহ আহম্মেদ ময়না,কালু মিয়া,খাদর আলী,হাবিবুর রহমান ও ইউসুফ আলী সরকার প্রমূখ। 

মানববন্ধনে বক্তব্য কালে শিক্ষার্থী অভিভাবক হাবিবুর রহমান বলেন,নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার বিরুদ্ধে সীমাহীন অভিযোগ রয়েছে। স্ত্রী সন্তান থাকার পরেও সনাতন ধর্মাবলম্বী এক ছাত্রীকে বাগিয়ে বিয়ে করেছিলেন তিনি। নারী নির্যাতন মামলায় দুইবার জেলও খেটেছেন। শিক্ষার্থী অভিভাবকদের সাথে সব সময় অশালীন আচরন করেন এই শিক্ষক। তার কাছে প্রাইভেট না পড়লে পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে। আমরা এই দুর্নীতিবাজ শিক্ষকের অপসারণ চাই। 

অভিভাবক খাদর আলী বলেন, বিদ্যালয়ের সামনেই পিরামিড মিয়ার বাড়ি। যে কারনে সে সব সময় প্রভাব খাটিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে অসদাচরণ করেন। বিদ্যালয়ের পাশেই তার নিজের একটি লাইব্রেরী রয়েছে। তার লাইব্রেরী থেকে শিক্ষার্থীরা যদি খাতা কলম না কিনে তাহলে ক্লাসে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে অসাদাচরন করেন তিনি। এর আগেও একাধিকবার তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। এছাড়া তার অপসারণের জন্য বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক কর্মচারী সভাপতি বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলেও জানান তিনি। 

স্থানীয় বাসিন্দা ইউসুফ আলী সরকার বলেন, পিরামিড বিএসসির কাছে প্রাইভেট না পড়লে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার খাতায় নম্বর কম দেওয়া এমনকি ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। তার দোকান থেকে বেশি দামে শিক্ষার্থীদের খাতা কলম কিনতে বাধ্য করা হয়। এছাড়া এই শিক্ষক সকলের সাথে খারাপ আচরণ করেন। তাই এলাকাবাসীর দাবি এই দুর্নীতিবাজ শিক্ষকের অপসারণ। 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়া বলেন,আমার একটি দোকান রয়েছে সেটিতে আমি অবসর সময়ে বসি। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয়। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। 

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ সুজা উদ্দিন বলেন, সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার বিরুদ্ধে মানবন্ধনের বিষয়টি বিদ্যালয়ের সভাপতির মাধ্যমে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তার বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। দ্রুত সময়ের মধ্যে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভা আহবান করা হবে। সভায় সকলের সিদ্ধান্তমতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



একাত্তর টেলিভিশনের প্রতিনিধি কে অপহরণের চেষ্টা

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

একাত্তর টেলিভিশনের সাভার প্রতিনিধি আশরাফ সিজেলকে অপহরণ চেষ্টার ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। সকালে আশরাফ সিজেল বাদি হয়ে সাভার থানায় মামলা দায়ের করেন ।

এর আগে সাভারের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ইউনিয়ন পরিষদের অফিস ও খাস জমি দখল করে দোকানপাট নির্মাণের সংবাদ প্রচার করায় রবিবার বিকালে সিজেলকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়। সিজেল জানান, কয়েকদিন আগে তিনি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে আমিনবাজার ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক কাজ করার খবর সংগ্রহ করেন। কিন্তু খবরটি প্রচার না করার জন্য সিজেলকে নির্দেশ দেন ইউপি চেয়ারম্যান। পরে রবিবার বিকালে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারী মোহসীন বাবুর নেতৃত্বে ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী দল সাভারে সিজেলের রেডিও কলোনির বাসায় হামলা চালিয়ে তাকে অপহরণের চেষ্টা চালায়। এসময় ট্রিপল নাইনে ফোন পেয়ে সিজেলকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় সিজেলকে আট ঘন্টার মধ্যে সাভার ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে যান। এ ব্যাপারে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজিবের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।এদিকে মধ্যরাতে সন্ত্রাসীরা আবারও দুটি গাড়ি নিয়ে আশরাফ সিজেলের বাসার নিচে টহল দেয়। পাশাপাশি হুমকি দিয়ে পাশের বাসা থেকে সিসিটিভির ফুটেজ নিয়ে যায় ।  


আরও খবর



বিদ্যুতের দাম ১৫% বাড়ানোর সুপারিশ

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

জহীরুল কবির আমজাদ : গ্রাহকপর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৫ দশমিক ৪৩ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। রবিবার (৮ জানুয়ারি) বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির গণশুনানিতে এ সুপারিশ করে বিইআরসির কারিগরি কমিটি। 

পল্লীবিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) জানিয়েছে, গ্রাহকপর্যায়ে বিদ্যুতের দাম না বাড়লে তাদের ১ হাজার ১২৭ কোটি টাকা ক্ষতি হবে। একইভাবে পিডিবি ২৩৪ কোটি, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) ১ হাজার ৫৫১ কোটি, ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) ১ হাজার ৪০২ কোটি টাকা, নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (নেসকো) বলছে, তাদের ৫৩৫ কোটি টাকা লোকসান হবে। ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিও (ওজোপাডিকো) তাদের ক্ষতির কথা জানিয়েছে।

গত ২১ নভেম্বর বিদ্যুতের পাইকারি দাম ১৯ দশমিক ৯২ শতাংশ বৃদ্ধি করে বিইআরসি। এরপর বিদ্যুতের খুচরা মূল্যবৃদ্ধির আবেদন করে পাঁচটি প্রতিষ্ঠান। সবগুলো প্রতিষ্ঠান বলছে পাইকারি দাম বৃদ্ধির পর খুচরা দাম না বাড়ালে তারা আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বে। সেসব আবেদন কারিগরি কমিটিতে মূল্যায়ন শেষে তা গণশুনানিতে আসে।

সবশেষ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সব পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়। সে সময় পাইকারিতে দাম ৮ দশমিক ৪ শতাংশ বাড়ানোর পাশাপাশি সাধারণ গ্রাহক বা খুচরাপর্যায়ে ৫ দশমিক ৩ শতাংশ বাড়ানো হয়।


আরও খবর



ধামরাইয়ের বিখ্যাত মিষ্টি ক্ষীরমোহন

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন (স্টাফ রিপোর্টার):


ঢাকার ধামরাইয়ের কাওয়ালীপাড়া বাজারের ইসমাইল সুইটস এর ক্ষীরমোহন অনন্য এক মিষ্টান্নের নাম। অনেকেই ভীষণ ভোজনপ্রিয় মানুষ। খাবারের নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে। আর যদি সেটা হয় মন জুড়ানো মিষ্টি গন্ধ, তাহলে তো কথাই নেই। এই সুস্বাদু মুখরোচক খাবারটি হচ্ছে কাওয়ালীপাড়ার ‘ক্ষীরমোহন’। দুধ, চিনি, ঘি, দুধের ছানা, ময়দা, তেজপাতা, ছোট এলাচ ইত্যাদি দিয়ে তৈরি ঘন রসযুক্ত মিষ্টান্ন।

ধামরাই উপজেলার গ্রামাঞ্চলে প্রাকৃতিক উপায়ে বেড়ে ওঠা সবুজ ঘাস, লতা-পাতাসহ নানা গো-খাদ্য বাড়িতে পালা গাভিকে খেতে দেয়া হয়। তাই এই এলাকার গরুর দুধ খাঁটি দুধের গুনাগুণ সমৃদ্ধ। সেই দুধ থেকে তৈরি হয় এই ক্ষীরমোহন।

প্রসঙ্গত,ক্ষীর ও মোহনের সংমিশ্রণে তৈরি হয় ক্ষীরমোহন। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভেতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় অমৃত স্বাদের ক্ষীরমোহন।

ইসমাইল সুইটস এর কর্মচারী মোঃ বাদশা মিয়া বলেন, খাঁটি ছানা থেকে তৈরি মিষ্টি প্রথমে গরম চিনির রসে জ্বাল দেয়া হয়। মিষ্টি হয়ে এলে তা থেকে রস ঝরিয়ে নিয়ে দুধে জ্বাল দেয়া হয়। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভিতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় লোভনীয় ‘ক্ষীরমোহন’। সাধারণত ১ মণ দুধ জ্বাল দিয়ে ১৭ থেকে ১৮ কেজি ক্ষীর তৈরি করা হয়। এতে যুক্ত হয় ২৫০ গ্রাম ঘী। এর সাথে ৮ কেজির মত মিষ্টি ক্ষীরে জ্বাল দিয়ে ২৪/ ২৫ কেজি ক্ষীরমোহন বানানো হয়। এর স্বাদ নিতে আসেন ছোট-বড় সকলেই। প্রতিটি ক্ষীরমোহন ৫০ টাকা এবং ৩৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয় ।

ক্ষীরমোহন খেতে আসা ভোজনপ্রিয় মানুষ মোঃ বাবুল হোসেন বলেন, ক্ষীরমোহনের স্বাদ ও গন্ধ থেকেই জিভে পানি আনার মতো। এই খাবার খেতে খুবই সুস্বাদু আত্মীয় স্বজনদের বাড়ি নিয়ে গেলেও এই রসমালাইকে গুরুত্ব দেয়।


আরও খবর