Logo
শিরোনাম

আটা এবং ময়দা বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামে

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

বাজার ভোগাচ্ছে আটা ও ময়দা। এই পণ্য দুটির দাম আন্তর্জাতিক বাজারে কমেছে। কিন্তু কমছে না দেশের খুচরা বাজারে। প্রতি কেজি আটা এবং ময়দা বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামেই। কবে নাগাদ দেশের খুচরা বাজারে আটা-ময়দার দাম কমবে তা জানেন না কেউই। ব্যবসায়ীদের অভিমত, আন্তর্জাতিক বাজারের এই সুফল পেতে আরও কিছু সময় প্রয়োজন। কারণ আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমা গম এখনও দেশে এসে পৌঁছায়নি।

এদিকে আন্তর্জাতিক বাজারের হালনাগাদ তথ্যে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক বাজারে গমের দাম কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। দেশের পাইকারি বাজারেও আটার দাম কমেছে প্রায় ২০ শতাংশ। বিশ্ববাজারে শুক্রবার (২৯ জুলাই) প্রতি টন গম বিক্রি হয়েছে ৩৪২ ডলারে। যা গত মে মাসে বেড়ে উঠেছিল ৪৩৮ ডলারে। ইতোমধ্যে বিশ্ববাজারে গমের দাম কমেছে ৩ থেকে ৪ শতাংশ। দেশের পাইকারি পর্যায়ে কমেছে আটা-ময়দার দামও। বাজারে ৫০ কেজির প্রতি বস্তা আটার দাম ২ হাজার ১ শ টাকা থেকে কমে হয়েছে ১ হাজার ৭ শ টাকা। বস্তাপ্রতি ময়দার দামও কমেছে প্রায় ২০০ টাকা। এর কোনও প্রভাব নেই দেশের খুচরা বাজারে।

অপরদিকে যুদ্ধচলাকালীন খাদ্যশস্য রফতানির জন্য কৃষ্ণ সাগরের বন্দরগুলো খুলে দিতে জাতিসংঘ-সমর্থিত একটি চুক্তি সই করেছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। এই যুদ্ধের প্রভাবে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা ও দুর্ভিক্ষের পদধ্বনির মধ্যেই খাদ্যশস্য রফতানির জন্য কৃষ্ণসাগরের বন্দরগুলো খুলে দিতে সম্মত হয়েছে দুই দেশ। গত ২২ জুলাই চুক্তিটি সই করেছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে। এর ফলে খাদ্যশস্য নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা কেটে যাচ্ছে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, খাদ্যশস্য রফতানিতে রাশিয়া ও ইউক্রেন চুক্তি সইয়ের পর দেশের বাজারেও গম ও আটা-ময়দার দাম আর বাড়েনি। বিক্রেতারা বলছেন, খুচরা পর্যায়েও দ্রুত দাম কমতে শুরু করবে। এদিকে টিসিবি’র হিসাব বলছে, এক বছরে আটা-ময়দার দাম বেড়েছে ৫০ থেকে ৫৬ ভাগ।

জানা গেছে, এই মুহূর্তে ইউক্রেনে দুই কোটি টন গম জমা আছে। রাশিয়ায় আরও বেশি পরিমাণ গম জমা আছে। যুদ্ধের কারণে এখন রাশিয়া ও ইউক্রেন কেউই তা রফতানি করতে পারছে না।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এখনও খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৪৬ টাকায় এবং খোলা ময়দা বিক্রি হচ্ছে ৫৪ থেকে ৫৬ টাকায়। যদিও বাজারভেদে দাম কমছে খুব সামান্যই। তবে এ সময়েই আন্তর্জাতিক বাজারে গমের দাম কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। দেশের পাইকারি বাজারেও আটার দাম কমেছে প্রায় ২০ শতাংশ।

ব্যবসায়ীদের দাবি, বিশ্ববাজারের কম দামের গম এখনও বাজারে আসেনি। বর্তমানে যে গম দিয়ে এখন আটা-ময়দা করা হচ্ছে সেগুলো আগের কেনা। পাশাপাশি ডলারের দাম বাড়ার কারণে বিপদে আছেন ব্যবসায়ীরা। এর উপর পরিবহন খরচও কমেনি। যা একটি বড় কারণ বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। ভারত থেকে গম আসছে না। গম আনতে হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা থেকে। এ দুটি দেশ থেকে গম আসতে বেশ সময়ের প্রয়োজন। এছাড়া কৃষ্ণ সাগরের গমের কোনও শিপমেন্ট এখনও এসে পৌঁছায়নি।

জানা গেছে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে গমের আমদানি কমেছে অনেক। ২০২১-২২ অর্থবছরে আমদানি হয়েছে মাত্র ৪০ লাখ টন গম। যদিও ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে গম আমদানির পরিমাণ ছিল ৫৪ লাখ ৪৩ হাজার টন। ২০১৯-২০ অর্থবছর গম আমদানি হয়েছিল ৬৪ লাখ ৩৪ হাজার টন। খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, গত ২০ জুলাই পর্যন্ত সরকারের গুদামে গম মজুতের পরিমাণ এক লাখ ৬৪ হাজার মেট্রিক টন। বিশ্বে গম আমদানিকারক দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম।

এ প্রসঙ্গে সিটি গ্রুপের পরিচালক জানিয়েছেন, রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ শুরুর ফলে আমরা গম আমদানির জন্য বিকল্প দেশের সন্ধান করি, এবং বেশি জাহাজভাড়া পরিশোধের মধ্য দিয়ে ভিন্ন দেশ থেকে গমও ভুট্টা আমদানি করে বাজারে আটা ময়দার সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছি। এখন রাশিয়া-ইউক্রেন থেকে গম আমদানি করার সুযোগ ফিরে আসার ফলে আমাদের মধ্যেও অনেকটা স্বস্তি কাজ করছে। আশা করছি, আমদানি শুরু হলেই দেশের বাজারেও দাম কমবে।



আরও খবর

স্বর্ণের দাম কমেছে

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




পলাতক আসামি কিভাবে বিএনপির নেতা হয়?

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

রোকসানা মনোয়ার ঃ

বেগম খালেদা জিয়া এবং তার অবর্তমানে তারেক রহমান নাকি তাদের নেতা, বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন আইনের দৃষ্টিতে তারা দুজনেই নির্বাচনের অযোগ্য।

তিনি আজ তাঁর বাসভবনে ব্রিফিংকালে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের জবাবে একথা বলেন। 

ওবায়দুল কাদের বলেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত, আর যার নেতৃত্বে বিএনপি সুসংগঠিত বলে মির্জা ফখরুল দাবি করেন, সেই তারেক রহমান তো দুর্নীতির বরপুত্র, দন্ডিত পলাতক আসামি।

তিনি প্রশ্ন রেখে আরও বলেন রাজনীতি না করার শর্তে যিনি মুচলেকা দিয়ে দেশ থেকে পালিয়েছেন, বিপদ দেখে এমন পলায়ন প্রিয়  আর পলাতক আসামি কিভাবে  বিএনপির নেতা হয়?

আওয়ামী লীগ নাকি সন্ত্রাসী দল, বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন আওয়ামী লীগ নয়, প্রকৃতপক্ষে বিএনপি'ই দেশ-বিদেশে স্বীকৃত সন্ত্রাসী দল। কানাডার আদালতেও বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। 

আওয়ামী লীগ মাটি ও মানুষের সংগঠন এবং জনগণের আস্থার ঠিকানা এমন দাবি করে ওবায়দুল কাদের ব্রিফিং এ আরও বলেন সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা সরকার এবং আওয়ামী লীগের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর।

সন্ত্রাস তারাই করে, যারা জনবিচ্ছিন্ন এবং আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থ এমন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন জনকল্যাণে যাদের কোনো ইতিবাচক কর্মসূচি থাকেনা, তারাই সন্ত্রাস,ষড়যন্ত্রকে ক্ষমতায় যাওয়ার হাতিয়ার হিসেবে বেছে নেয়- বিএনপিও তাই করছে।

সরকার নাকি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী চায় না, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন প্রকৃতপক্ষে বিএনপিই নির্বাচনকে ভয় পায়। শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা নিয়ে তাদের যত ভয়।

বিএনপি হেরে যাওয়ার ভয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দ্বিধাগ্রস্ত  বলেও মনে করেন ওবায়দুল কাদের। 

তিনি বলেন আওয়ামী লীগ কখনো খালি মাঠে গোল দিতে চায় না, আওয়ামী লীগ চায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন। 

সরকার সকল দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে বিশ্বাসী,নির্বাচনে অংশগ্রহণ সকল দলের রাজনৈতিক অধিকার উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন এটি কোন সুযোগ নয়, এটি একটি অধিকার,  - কিন্তু বিএনপি পরাজয়ের ভীতিতে আক্রান্ত তাই তারা নির্বাচনে আসে না।

নির্বাচন কমিশন নিয়ে বিএনপির নেতাদের বিভিন্ন কথা বলা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন কমিশনকে তারা বিতর্কিত করতে চায় এবং নির্বাচন ব্যবস্থাকেও প্রশ্নবিদ্ধ করার উদ্দেশ্যমূলক অপতৎপরতা চালায়।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের মনে করে দিয়ে বলেন তাদের সময় কমিশন গঠনে তারা কি কারো মতামত নিয়েছিল? কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করেছিল?

তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই সাদেক আলী ও আজিজ মার্কা অজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়েছিল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের  আরও বলেন সোয়া এক কোটি ভূঁয়া ভোটার তালিকাবদ্ধ করে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার অপচেষ্টা করেছিল কারা? দলীয় ক্যাডারদের নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ দিয়েছিল কারা?  বিএনপি কি এসব ভুলে গেছে? 

তিনি বলেন বিএনপির সময়ে নির্বাচন কমিশন গঠনে কোন মতামত নেয়া হয়নি, কোন প্রকার সংলাপ করা হয়নি।অজ্ঞাবহ কমিশন গঠনে এককভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিএনপি।


আরও খবর



গজারিয়ায় ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় নানা-মামাকে রক্তাক্ত জখম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

গজারিয়া প্রতিনিধিঃ 

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার গুয়াগাছিয়ায় ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থীকে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করার সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছে ঐ শিক্ষার্থীর নানা ও মামা।

জানা যায়,উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নের চর চৌদ্দ কাউনিয়া(কালাইবেপারীর চর)গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার মেয়ে  চর চৌদ্দ কাউনিয়া(কালাইবেপারীর চর)গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার মেয়ে পোড়াচক বাউশিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী তিশাকে আজ আনুঃমানিক ১:৩০ঘটিকায় স্কুল থেকে ফেরার পথে গুয়াগাছিয়ার তিন রাস্তার মোড়ে অভিযুক্ত ১. সায়েম(২১)পিতা মিজান,২.সজিব(২২)পিতা- মনির,৩.সায়মনপিতা-সামছু গুলদারসহ পথরোধ করে ও গলায় ছুড়ি ধরে।খবর পেয়ে নানা আলী আহম্মেদ সরকার(৬৫)ও মামা জাহিদ আলম(৩৫)এগিয়ে আসলে ইভটিজিং কারী'রা তাদের ছুড়ি মেরে রক্তাক্ত জখম ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।স্থানীয়'রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ বিষয়ে গজারিয়া থানার উপ পরিদর্শক মোঃহযরত আলী জানান,অভিযোগ পেয়েছি, আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



নির্মাতা ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিন আজ

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের ৫৯তম জন্মদিন আজ। ১৯৬৩ সালের ৩১ আগস্ট তিনি কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পরিচালনায় প্রথম সিনেমা ‘হিরের আংটি’ ১৯৯২ সালে মুক্তি পায়।

১৯৯৪ সালে তার দ্বিতীয় সিনেমা 'উনিশে এপ্রিল' মুক্তি পায়। ১৯৯৫ সালে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পায় 'উনিশে এপ্রিল'। চলচ্চিত্রের ব্যবসার দিক আর সাহিত্যের মেলবন্ধন ঘটিয়ে তিনি তৈরি করেছিলেন নিজের ঘরানা। ঋতুপর্ণের শেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘চিত্রাঙ্গদা’। দুই দশকের কর্মজীবনে তিনি বারোটি জাতীয় পুরস্কারের পাশাপাশি কয়েকটি আন্তর্জাতিক পুরস্কারও পেয়েছিলেন। ২০১৩ সালের ৩০মে কলকাতায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়। 


আরও খবর

যৌনপল্লীতে নায়িকা নিপুণ আক্তার !

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




বৃহস্পতিবার থেকে মিলবে ৩০ টাকা কেজি চাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :  সারাদেশে ওএমএস কার্যক্রম আরও সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। ডিলারের মাধ্যমে মোট ২ হাজার ৩৬৩টি কেন্দ্রে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হবে। 

ভোজ্যতেল, ডাল, চিনি ও পেঁয়াজের সঙ্গে সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ফ্যামিলি কার্ডে মিলবে ১০ কেজি চাল। ওএমএস ডিলারদের মাধ্যমে মাসে একবার এই চাল নেওয়া যাবে।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছেন, টিসিবি কার্ডধারীরা ওএমএস এর মতো ন্যায্যমূল্যে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল পাবেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে ওএমএস কার্যক্রমে টিসিবি কার্ডধারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চাল দেওয়া হবে। এছাড়াও খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় সারাদেশে ইউনিয়ন পর্যায়ের ৫০ লাখ ১০ হাজার ৫০৯টি প্রান্তিক পরিবারকে প্রতিকেজি ১৫ টাকা দরে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হবে।

টিসিবি সূত্র জানায়, দেশব্যাপী কার্ডধারী এক কোটি পরিবারের কাছে টিসিবির পণ্যসামগ্রী ভর্তুকি মূল্যে বিক্রয় কার্যক্রম চলছে। স্থানীয় ডিলারের কাছ থেকে একজন ক্রেতা প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১১০ টাকা দরে দুই লিটার কিনতে পারছে। পাশাপাশি প্রতি কেজি মসুর ডাল ৬৫ টাকা দরে দুই কেজি, চিনি ৫৫ টাকা দরে দুই কেজি ও প্রতিকেজি পেঁয়াজ ২০ টাকা দরে পাঁচ কেজি কিনতে পারছেন। চাল বিক্রি শুরু হলে ১০ কেজি চাল কিনতে পারবেন।

এই চাল টিসিবির ডিলারদের মাধ্যমে বিক্রি হবে না। কারণ, চাল খাদ্য অধিদপ্তরের ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় বিক্রি হয়। তাই টিসিবির কার্ডধারীকে চাল কিনতে ওএমএস ডিলারদের কাছে যেতে হবে। ওএমএস ডিলাররাই চাল বিক্রি করবে।

টিসিবির দৈনিক বাজার পণ্য মূল্য তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, মাসের ব্যবধানে প্রতি কেজি চাল সর্বোচ্চ ১৫.৩১ শতাংশ বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতি লিটার তেল ১৪ শতাংশ, মসুর ডাল ২.৩৮ শতাংশ, পেঁয়াজ ১৩.৩৩ শতাংশ ও প্রতি কেজি চিনি ৯.৮৮ শতাংশ বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে।


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




ফুলবাড়িতে,জন্মপ্রতিবন্ধী মানিক মিয়া পা দিয়ে দিচ্ছেন এসএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

উত্তম কুমার মোহন্ত ফুলবাড়ী,কুড়িগ্রামঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা গ্রামের মোঃ মিজানুর রহমান এর ছেলে মানিক মিয়া( ৫)দুইহাত বিহীন জন্ম প্রতিবন্ধী। সে পা দিয়ে পিএসসি, জেএসসি পরীক্ষায় মেধা তালিকায  উত্তীর্ণের পর আজ ১৫(সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার বরাবরের মতো পা দিয়ে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। পা দিয়ে লিখলেও অন্যান্য শিক্ষার্থীর তুলনায় তার লেখার প্রশংসা না করলে নয়।

মানিকের বাবা মোঃ মিজানুর রহমান পেশায় একজন ঔষধ ব্যবসায়ী,মা মোছাঃ মরিয়ম বেগম একটি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যাপিকা এই দুই দম্পতির বড়ছেলে মানিক মিয়া দুইহাত বিহীন জন্ম প্রতিবন্ধী।দুটি হাত নাকলেও পড়াশোনায় পিছিয়ে নেই সে। মহান সৃষ্টিকর্তা দুহাত বিহীন তাকে এমন মেধাবী করে তৈরি করেছে যে পরীক্ষার হলে অন্যান্য শিক্ষার্থীর চেয়ে পা দিয়ে দ্রুত লিখে সুন্দর ভাবে সকল প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে মানিক।আরো একটি অবাক বিষয় পা দিয়ে মোবাইল ফোন ব্যবহার করে বন্ধু বান্ধব,আত্নীয় স্বজনের সাথে দিব্বি কথা বলতে পারে।

অবাক বিষয় মানিক মিয়া পা দিয়ে কম্পিউটার টাইপ, ইন্টারনেট ব্রাউজার সহ-বিভিন্ন বিষয়ে  পারদর্শী। সে ২০১৬সালে ফুলবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিএসসিতে গোল্ডেন এ+প্লাস ২০২০সালে ফুলবাড়ী জছিমিয়া মল্ডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি জিপিএ ৫ পেয়ে মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ হয়েছেন।এজন্য মানিকের মা মরিয়ম বেগমের অবদান অনেক বেশি।কারণ একজন শিক্ষিত মা দিতে পারে একটি ভবিষৎত শিক্ষিত জাতি।

বৃহস্পতিবার ১৫(সেপ্টেম্বর)ফুলবাড়ী বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে বাংলা পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের সময় মানিকের সাথে কথা বলে জানা যায় ,আমার দুটি হাত না থাকলেও আল্লাহ রহমতে আমি পিএসসিতে গোল্ডেন এ+প্লাসপাই জেএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছি আপনারা সবাই দোয়া করবেন এসএসসিতেও গোল্ডেন এ+ প্লাস পেয়ে কৃতকার্য হতে পারি।আমার ইচ্ছা ভালো রেজাল্ট করে প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করার।কারণ আমি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হয়ে বাবা মায়ের মুখ উজ্জ্বল করতে চাই।

মানিকের বাবা মিজানুর রহমান মা মরিয়ম বেগম বলেন,আমাদের দুই ছেলে মানিক বড় ছোট ফাহীম ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পরে। মানিকের জন্মথেকে দুটি হাত নেই কিন্তূ আমাদের তা মনে হয় না ছোট থেকেই তাকে আমরা পাদিয়ে লেখার অভ্যাস করিয়েছি। সমাজে অনেক সুস্থ ও স্বাভাবিক ছেলে মেয়েদের পড়াশুনার চেয়ে আমাদের মানিকের মেধা অনেক ভালো। আল্লাহর রহমতে পিএসসি,জেএসসিতে অনেক ভালো রেজাল্ট করেছে এটা আমাদের গর্ব। আপনারা সবাই দোয়া করবেন আমার ছেলেটা যেন সুস্থ সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকে এবং পূর্বের ন্যায় এসে এসপি ভালো রেজাল্ট করতে পেরে তার মনের স্বপ্ন গুলো পূরণ করতে পারে।

ফুলবাড়ী জসিমিয়া মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবেদ আলী খন্দকার জানান, শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকলেও মানিক অসাধারণ ছাত্র।সে আমাদের

সম্পদ সে ডান পায়ের বুড়ো আঙ্গুল দিয়ে কলম ধরে লিখে আর বা পায়ের আঙ্গুল দিয়ে প্রশ্ন ও খাতার পাতা উল্টায় এইভাবে লেখে সে বিগত পরীক্ষাগুলোতে ভালো রেজাল্ট করেছে। আমি দোয়া করি এসএসসি তে যেন ভালো রেজাল্ট করতে পারে এজন্য প্রান খুলে দোয়া করি।

ফুলবাড়ী বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে সচিব, মশিউর রহমান বলেন, মানিক প্রতিবন্ধী হলেও অন্যান্য শিক্ষার্থীর তুলনায় তার মেধা অনেক ভালো।তার বিগত পরীক্ষার রেজাল্ট অনেক ভালো,সে ব্রেঞ্চে বসে লিখতে পারেনা সেই জন্য তাকে চৌকিতে বসে পরীক্ষার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে নিয়ম অনুযায়ী তাকে বিশ মিনিট বাড়তি সময় দেওয়া সহ সকল সুবিধা দেওয়া হয়েছে। একটি অবাক বিষয় পা দিয়ে এত সুন্দর লেখা এটা আমার কাছে অদ্ভুত বিষয়। আমি দোয়া করি মানিক যেন পূর্বের ন্যায় ভালো রেজাল্ট করতে পারে বাবা মায়ের মুখ উজ্জ্বল করতে পারে। 


আরও খবর