Logo
শিরোনাম

দামী গাড়ীতে করে মাদক পাচার, ৩০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

দামী গাড়ীতে করে মাদক পাচারের সময় কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার কাপ্তান বাজারের চাঁনপুর ব্রীজ সড়ক এলাকা থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এসময় ৩০ কেজি গাঁজাসহ টয়োটা ব্রান্ডের এলিয়ন প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়। 

পুলিশ জানায়, শুক্রবার সকালে সদর উপজেলার কাপ্তান বাজার থেকে চাঁনপুর ব্রীজ সড়কে চলাচলকারী যানবাহনে তল্লাসী পরিচালনা করেন। এসময় কাপ্তান বাজার থেকে চাঁনপুর ব্রীজ সড়কের পাকা রাস্তার উপর কাবাছির বন্ধ দোকানের সামনে একটি কালো রংয়ের টয়োটা ব্রান্ডের এলিয়ন প্রাইভেটকার রেজি নং-ঢাকা মেট্রো গ-২২-৭৯৮১ দাড়ানো অবস্থায় ছিলো।


পরে গাড়ীটি তল্লাসী করে ৩০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয় এবং গাড়ীর চালকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন,  গাড়ীর চালক নারায়গঞ্জ সদর উপজেলার সিমরাইল সানারপাড় এলাকার বাসিন্দা মোঃ নূর নবী (২৭) ও গাড়ীর যাত্রী কুমিল্লার ব্রাক্ষ্মনপাড়া উপজেলার দক্ষিন তেতাভূঁমি এলাকার বাসিন্দা সাদ্দাম হোসেন (৩৫)। 

গ্রেপ্তারকৃতদের বরাত দিয়ে ডিবি পুলিশ জানায়, তারা কুমিল্লার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রির উদ্দেশ্যে সরবরাহ করে থাকে। উদ্ধারকৃত গাঁজা সরবরাহের জন্য তারা ঢাকার উদ্দেশ্যে এ যাচ্ছিল বলে জানা যায়। 

এ ব্যাপরে জেলা গোয়েন্দা পৃলিশের উপ-পরিদর্শক (এস আই) তুষ্ট লাল বিশ্বাস বাদী হয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ছবি- ডিবি পুলিশের জব্দকৃত ৩০ কেজি গাঁজাসহ টয়োটা ব্রান্ডের এলিয়ন প্রাইভেটকার।


আরও খবর



মহাদেবপুরে আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


নওগাঁ, মহাদেবপুর ও বদলগাছী আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর ককটেল নিক্ষেপের প্রতিবাদে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর বিকালে মহাদেবপুর উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড মাছের মোড় বটতলায় আয়োজিত সমাবেশে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান আহসান হাবীব ভোদন প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।

সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য গোলাম নুরানী আলাল এতে সভাপতিত্ব করেন। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রাজু আহমেদের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ মজিবর রহমান ও আলফা আনোয়ার হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক কুদরত ই খুদা সোহাগ, উপ-প্রচার সম্পাদক মাস্টার ফণি ভূষণ মহন্ত, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মহাদেবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাঈদ হাসান তরফদার শাকিল, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক গোলাম রেজাউন্নবী আনসারী বাবু, যুগ্ম আহ্বায়ক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রী অনুকূল চন্দ্র সাহা বুদু, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি শ্রী অমিৎ কুমার ব্যানার্জী বাপ্পী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কাওসার আলী, সহ-সভাপতি তাপস সরদার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তনু কুমার দেব প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বিএনপি জামাত দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরী করার জন্য এবং মহাদেবপুরে এমপির ছেলে সাকলাইন মাহমুদ রকি ও ভাগ্নে সাঈদ হাসান তরফদার শাকিলকে হত্যার উদ্দেশ্যে ককটেল হামলা চালায়। তারা এর তীব্র নিন্দা জানান ও জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবী জানান।

সন্ধ্যায় একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা এতে অংশ নেন।


আরও খবর



ব্যাংকে টাকা নেই বলে গুজব ছড়াচ্ছে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

তফসিলি ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে আমানতের বিপরীতে গ্রাহকরা লাখ টাকা পাবে এই খবর গুজব বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ দ্বারা জনগণকে বিভ্রান্ত বা আতংঙ্কিত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে টাকা রেখে সেই প্রতিষ্ঠান অবসায়ন হয়ে গেলে সকল আমানতকারী মাত্র এক লাখ টাকা পাবে এমন খবর গুজব। কোনো ব্যাংক যদি বন্ধ হয়ে যায় সেক্ষেত্রে মোট ১৮০ দিনের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক আমানতকারীকে এক লাখ টাকা দিয়ে দিবে। প্রথম ৯০ দিনের মধ্যে আমানতকারীরা আবেদন করবেন। পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে টাকা বুঝিয়ে দেয়া হবে। পরবর্তীতে পুরো টাকা আইন অনুযায়ী ফেরত দেওয়া হবে। বিষয়ে শঙ্কিত হবার কোনো কারণ নেই।

সিরাজুল ইসলাম জানান, ২০১৯ সালের ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত আমানত বিমা ট্রাস্ট তহবিলে হাজার ৭৪৭ কোটি ৫৭ লাখ টাকা জমা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এর আগে শুধুমাত্র ব্যাংকের আমানতকারীরা বিমা সুবিধা পেতেন। কিন্তু নতুন করে আর্থিক প্রতিষ্ঠান আমানতকারীদের এখানে যুক্ত করা হয়েছে। এখন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সকল আমানতকারীরা এই সুবিধা পাবেন। প্রথমে ব্যক্তি গ্রাহকের টাকা এবং পর্যায়ক্রমে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের টাকা ফেরত দেওয়া হবে। সবশেষে টাকা পাবেন প্রতিষ্ঠানের মালিক পক্ষ। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে আর কোনো ব্যাংক বন্ধ হবে না বলেও আশ্বাস দিয়েছেন মুখপাত্র।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, মাত্র শতাংশ আমানতকারী হিসাব বিমাকৃত নয়, অর্থাৎ শতাংশ আমানতকারী ঝুঁকিতে আছে। এছাড়া বাকি ৯২ শতাংশ আমানতকারীর হিসাব সম্পূর্ণ বিমাকৃত।

তিনি বলেন, ১৯৮৪ সালে আমানতকারীদের স্বার্থ সুরক্ষায় যে আইন করা হয় সেখানে আমানতের অর্থ ফেরত দেওয়ার পরিমাণ ছিল ৬০ হাজার টাকা। পরবর্তীতে ২০০০ সালে আমানত বিমা আইন প্রবর্তন করে এক লাখ টাকা করা হয়। বর্তমানে এই আইনে আমানতকারীরা এক লাখ টাকা পর্যন্ত পাওয়ার নিশ্চয়তা আছে। তবে সংশোধিত আইনে এটি বাড়িয়ে লাখ টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।


আরও খবর

কর্মবিরতিতে নৌযান শ্রমিকরা

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




নওগাঁর সাপাহারে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 


"উদ্ভাবনী জয়োল্লাসে স্মার্ট বাংলাদেশ" প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে নওগাঁর সাপাহারে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার ১৪ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯ টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা এবং উদ্ভাবনী অলিম্পিয়াড উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ চত্তর হতে একটি র‍্যালি বের হয়ে উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‍্যালি শেষে ফিতা কেটে মেলার উদ্বোধন ঘোষনা করা হয়। মেলা উদ্বোধনের পর মেলার মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্যাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উক্ত মেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সরকারি দপ্তরের ২০ টি স্টল তাদের ডিজিটাল উদ্ভাবনী বিষয়গুলো প্রদর্শন করেন। পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিন ব্যাপী মেলার 

সমাপ্তি করা হয়। এসময়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান হোসেন মন্ডল, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ রুহুল আমিন,মৎস্য কর্মকর্তা রোজিনা পারভীন,কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মুনিরুজ্জামান টকি, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ান কবীর, এলজিইডি প্রকৌশলী তাহাজ্জদ হোসেন, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা কামরুজ্জামান, প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম রাব্বানী,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী মোল্লা সহ সরকারি দপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কিশোরদের হাতে লেগুনার স্টিয়ারিং

প্রকাশিত:শনিবার ১২ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

মো. রাসেল হোসাইন : রাজধানীতে বেপরোয়া একটি পরিবহনের নাম ‘লেগুনা’ যা সরকারি খাতায় ‘হিউম্যান হলার’ নামে পরিচিত। রাজধানীতে গণপরিবহনের ২৫১টি রুটের ১৫৯টিতেই লেগুনা চলছে। এসব লেগুনা ‘যেমন খুশি তেমন’ চলছে। ভাড়া থেকে শুরু করে স্ট্যান্ড নির্ধারণ সবকিছুই লেগুনা মালিকরা নিজেদের ইচ্ছামতো করেন। রাজধানীতে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই লেগুনা চালাচ্ছে অপ্রাপ্তবয়স্ক ১০-১৫ বছরের কিশোররা। যাদের এখন স্কুলে যাওয়ার কথা অথচ তাদের দিয়ে কিছু অসাধু লেগুনা ব্যবসায়ী লেগুনার স্টিয়ারিং হাতে তুলে দিচ্ছেন।

লেগুনা মালিকদের মতে তারা এই ছোট শিশুদের দিয়ে কম টাকা লেগুনা পরিবহনটি চালিয়ে নিতে পারছেন। ফলে তাদের ব্যবসা ভালোই হচ্ছে। লেগুনা চালিয়ে উপার্জনের টাকা দিয়ে অধিকাংশ কিশোররা মাদক ও নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। এদের মধ্যে শিক্ষার ছোঁয়া না থাকায় এদের দ্বারা রাস্তাঘাটে স্কুল-কলেজপড়ুয়া ছাত্রীরা ইভটিজিংয়ের শিকার হয়। এসব কিশোর ওস্তাদের কাছ থেকে শিখে কোনো প্রকার লাইন্সেস ছাড়াই তারা বসছে চালকের আসনে। অদক্ষ হাতে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছেন অসংখ্য যাত্রী। তারা এতটাই বেপরোয়াভাবে লেগুনা চালায় একজন অসুস্থ ব্যক্তি বা স্কুল শিশুদের যাতায়াত সুবিধা না থাকায় রাখে না বাধ্য হয়ে এই লেগুনাতে চলাচল করতে হয়।

ওরা লেগুনা স্টিয়ারিং চালু করার পর আকাশে উড়ছে নাকি রাজধানীরে হাজারো মানুষের চলাচল করা ব্যস্ত রাস্তায় আছে তা যেন ওরা ভুলেই যায়। ছোট ছোট শিশু চালকদের কাছে রাজধানীর ব্যস্ত রোডগুলো প্রতিযোগিতার মাঠের মতো। পেছন থেকে একটা লেগুনা আসা দেখা মাত্রই ওরা অস্থির হেয়ে যায়, কোনোভাবেই তাকে সামনে আসতে দেওয়া যাবে না। একইভাবে পেছনে থাকা লেগুনা মরিয়া ওঠে যেকোনো মূল্যেই হোক সামনেরটাকে ওভারটেক করতেই হবে। এতে যাত্রী অথবা পথচারীদের দিকে তাকানোর কেনো কোনো তোয়াক্কা না করেই তাদের এগিয়ে যাওয়া।

অপ্রাপ্তবয়স্ক, অদক্ষ, অবৈধ চালক দিয়ে যখন গণপরিবহন চালানো হয় তখন স্বাভাবিকভাবেই এরা যানজটের দিকে লক্ষ্য করে না, নিরাপত্তার ইস্যুটাও তাদের চিন্তায় থাকে না। তাদের চোখ কিন্তু রাস্তার দিকে থাকে না, চোখ থাকে যাত্রীর দিকে কখন মাঝ রাস্তায় কে ওঠার জন্য হাত জাগায়। এদের না আছে লাইসেন্স, না আছে কোনো সংকেত সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা। সীমাবদ্ধ হাতের স্টিয়ারিং আর পায়ের ব্রেকে উড়ছে। অপ্রাপ্ত বয়স্ক ও লাইসেন্সবিহীন এ চালকরা রাজাধানীর হাইওয়ে রোডগুলোতে যাত্রী পরিবহন করে চলছে প্রসাশনের নাকের ডগায়। প্রশাসন যেন ওদের চোখেই দেখছে না। তথ্য মতে, প্রশাসনকে সাপ্তাহিক ও মাসিক কিস্তি দিয়ে প্রতিটি লেগুনা প্রভাবশালী ও ক্ষমতাশীন ব্যক্তি লাইসেন্স ও ফিটনেসবিহীন লেগুনা বিভিন্ন রোডে দীর্ঘদিন ধরে চালিয়ে আসছে।

হাইওয়ে ছাড়া রাজধানীর জিগাতলা-ফার্মগেট রুটে প্রায় সব লেগুনাই চলে। এ রুট ছাড়াও ফার্মগেট থেকে ৬০ ফিট, আজিমপুর ট্যানারি মোড় থেকে নিউমার্কেট, নিউমার্কেট থেকে ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমা হল, মোহাম্মদপুর থেকে শ্যামলী, গুলিস্তান থেকে আজিমপুর ঠ্যানারি মোড়, মিরপুর এক নাম্বার থেকে মিরপুর ১২ নাম্বার ঢাকার ভেতরে এমন অনেক রুটেই লেগুনা চলে। এসব লেগুনার অল্প কিছু ডিজেলচালিত। বাকি সব চলে সিএনজিতে। বিএআরটি থেকে এদের নির্দিষ্ট কোনো ভাড়া ঠিক করা না থাকায় যাত্রীদের কাছ থেকে ইচ্ছামতো ভাড়া আদায় করে। লেগুনা গাড়ির স্টিয়ারিংয়ের হাল ধরার প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে নেই শিশু হেল্পাররাও। সব জেনেও বাধ্য হয়েই লেগুনায় উঠছেন সাধারণ যাত্রীরা। লেগুনার লাইসেন্স ও ফিটনেস ঠিক রেখে এবং প্রাপ্তবয়স্ক দক্ষ চালক দিয়ে চালানোর অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) ও সরকারের নিকট বিনীত আবেদন, লেগুনা পরিবহনের শৃঙ্খলা ফেরাতে ইতিবাচক উদ্যোগ এবং বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণে দৃষ্টি দিন।

লেখক : শিক্ষার্থী, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

hossainmdrasel559@gmail


আরও খবর

ই-টিকেটিংয়ে বন্ধ অতিরিক্ত ভাড়া

শুক্রবার ২৫ নভেম্বর ২০২২




দুরন্ত বিপ্লবের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image
বুড়িগঙ্গা থেকে আওয়ামী লীগ নেতা

বুলবুল আহমেদ সোহেলঃ

বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকা থেকে শনিবার বিকেলে উদ্ধার হওয়া লাশটি আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ–কমিটির সদস্য দুরন্ত বিপ্লবের (৫১)। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইলাশপুর গ্রামে। তিনি কেরানীগঞ্জে ভাড়া থাকতেন।

এ বিষয়ে পাগলা নৌ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী বলেন, গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে নদীর তীরে লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। ধারণা করা হচ্ছিল, লাশটি তিন থেকে চার দিন আগের। লাশটি নদীর তীরে আটকে ছিল। লাশ পচে ফুলে গেছে। 

আজ দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসক মফিজুল উদ্দিন প্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা দুরন্ত বিপ্লবকে মাথায় ও বুকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। করে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে বলা যায় আঘাত জনিত কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ময়নাতদন্তের সময় মর্গের বাইরে ছিলেন নিহত দুরন্ত বিপ্লবের ছোট ভাই দুর্জয় বিপ্লব ও তাঁর স্ত্রী নাহিদা ইসলাম। তারা জানান, ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় কেরানীগঞ্জের ভাড়া বাসা থেকে মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটির বাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন দুরন্ত বিপ্লব। তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ৯ নভেম্বর তাঁরা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

দুর্জয় বিপ্লব বলেন, চার বছর আগে তাঁর ভাই চার বন্ধুর সঙ্গে মিলে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে একটি কৃষি খামার করেছিলেন। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইলাশপুর গ্রামে। তিনি কেরানীগঞ্জে ভাড়া থাকতেন।

নৌ পুলিশের এসপি রীনা মাহামুদ জানান, শনিবার রাত ১২টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় লাশের ছবি দেখে সেটি নিখোঁজ দুরন্ত বিপ্লবের বলে শনাক্ত করেন তাঁর ছোট বোন শাশ্বতী বিপ্লব। দুরন্ত বিপ্লব ৭ নভেম্বর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। এই ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় তাঁর পরিবার একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিল। প্রাথমিক একটি তথ্য জানা গেছে খেয়া পারা পারের নৌকায় দেখেছিল মানুষ। দুটি নৌকার সংঘর্ষে একটি নৌকা থেকে ৫ জন পড়ে গিয়েছিল সেখানে একজন নিখোঁজ ছিল। এই ঘটনারও শিকার হতে পারেন। আবার ময়না তদন্তের পর নিহতের মাথায় ও বুকে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত স্বাপেক্ষে আসল রহস্য উদঘাটন করতে পারবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন। 


আরও খবর

কর্মবিরতিতে নৌযান শ্রমিকরা

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২