Logo
শিরোনাম

দেশের সকল জেলা হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস চালু করা হবে

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, "দেশের সরকারি হাসপাতালের সেবার মান আরো বৃদ্ধি করতে ঢাকাসহ সকল জেলা সদর হাস্পাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস চালু করার উদ্যোগ হাতে নেয়া হয়েছে। এর আগে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রথম ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সেবা চালু করা হয়েছে। আজ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও এই ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সেবা ব্যাবস্থা উদবোধন করা হলো। এর ফলে এখন থেকে এই জায়গাতেই একজন রোগী সব রকম সেবা ঝামেলামুক্ত থেকেই পেয়ে যাবেন। এর পাশাপাশি, এখানে ৫০০ বেড থেকে নতুন করে উর্দ্ধমূখী সম্প্রসারণ করে এই হাসপাতালে আজ থেকে প্রায় ১৩৫০ বেডের সেবা কার্যক্রম শুরু করা হলো। এখানে নানারকম টেস্ট সুবিধা, আইসিইউ, এসডিইউ সুবিধা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর ফলে ঢাকার প্রাণকেন্দ্র এই সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে এখন থেকে আর কোন রোগীকে ফ্লোরে শুয়ে চিকিৎসা নিতে হবে না। রোগীরা এই হাসপাতালে এখন থেকে উন্নত বেডে চিকিৎসা নিতে পারবে।"

আজ বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি এন্ড ক্যাজুয়াল্টি (ওএসইসি) সার্ভিস এর উদবোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। 

সরকারি স্বাস্থ্যসেবার মান বৃদ্ধি প্রসঙ্গে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে কর্মরত স্বাস্থ্যখাতের কর্মকর্তা, চিকিৎসক, নার্সদের উদ্দেশ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসময় বলেন, এই সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের শুধু উর্দ্ধমূখী সম্প্রসারণ করার কাজেই সরকারের ৯২ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। ৭৫ হাজার স্কয়ার ফিটের চিকিৎসা ব্যবস্থা করা হয়েছে। ১২ টি নতুন অপারেশন থিয়েটার সহ শতশত বেড বৃদ্ধি করা হলো। কিন্তু এগুলোতে যদি সেবা দিতে কাজ করাই না হয়, মানুষকে সেবা দিতে নৈতিকতা কাজ না করে তাহলে সরকারের সব প্রচেষ্টা নষ্ট হবে। কোন যন্ত্র নষ্ট হলে তা যদি ঠিক না করে ফেলে রেখে রোগীদের বাইরে চিকিৎসা নিতে পাঠানো হয় সেটা নৈতিক অপরাধ হবে। এজন্য যন্ত্র নষ্ট হলে তা মেরামত করতে হবে, মেরামত না হলে নতুন করে কিনতে হবে, কিন্তু সরকারি সেবা নিতে আসা অসহায় রোগীদের নিজেদের সরকারি হাসপাতালে সেবা না দিয়ে বেসরকারি কোন হাসপাতাল বা ক্লিনিকে পাঠানো যাবে না।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড মুহ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে বলেন, চিকিৎসা সেবা দিয়ে আপনারা সরাসরি মানুষের দোয়া পান, মানুষের ভালোবাসা লাভ করতে পারেন যা অন্য কোন পেশায় চাকরি করে পাওয়া অসম্ভব। কাজেই এই দোয়ার কাজটি আরো দায়িত্ব নিয়ে করতে হবে। কোন অসহায় মানুষ যেনো সরকারি হাসপাতালে এসে সেবা না পেয়ে মনে কষ্ট নিয়ে ফিরে চলে না যান সেটি আপনাদেরকেই নিশ্চিত করতে হবে। আর ভালো কাজ করলে আপনাদের জন্য সরকার সব সুযোগ সুবিধা আরো বৃদ্ধি করবে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মুহ. আনোয়ার হোসেন হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) সাইদুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (হাসপাতাল) নাজমুল হক, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক টিটু মিয়া, স্বাচিপ এর সভাপতি অধ্যাপক জামাল উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান মিলন,  স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) প্রফেসর আহমেদুল কবীর, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব কাজী সফিকুল আজম, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ এবিএম মাসুদুল আলম, পরিচালক খলিলুর রহমান সহ অন্যান্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তা বৃন্দ।


আরও খবর



শচিন ছাড়িয়ে উচ্চতায় কোহলি

প্রকাশিত:Wednesday ১১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

ইয়াশফি রহমান :শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গোহাটিতে প্রথম একদিনের ম্যাচে খেলতে নামার আগে বিরাট কোহলির সামনে সুযোগ ছিল তিনটি নজির গড়ার। তার মধ্যে দু’টি নজির গড়লেন তিনি। একটি ক্ষেত্রে শচিন টেন্ডুলকারকে ছাপিয়ে গেলেন, অপর এক ক্ষেত্রে ধরে ফেললেন ব্যাটিং মাস্টারকে।

ঘরের মাঠে ১৬৪টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে শচিনের শতকের সংখ্যা ২০টি। তার এই বিশ্বরেকর্ড থেকে মাত্র একটি শতক দূরে ছিলেন কোহলি। আজ গোহাটিতে শচিনের সেই নজির স্পর্শ করলেন এই তারকা। দেশের মাটিতে ২০টি শতরান হলো প্রাক্তন অধিনায়কের। তার জন্য শচিনের থেকে ৬২টি ম্যাচ কম, ১০২ ম্যাচ সময় নিয়েছেন তিনি।

গোহাটিতে এদিন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নিজের নবম শতরান তুলে নিলেন কোহলি। আর এ জন্য তিনি সময় নিয়েছেন মাত্র ৪৮টি ম্যাচ। যেখানে শচিনকে খেলতে হয় ৮৪টি ম্যাচ।

আরও একটি নজিরের কাছাকাছি রয়েছেন বিরাট কোহলি। একদিনের ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় প্রথম পাঁচে আসতে গেলে কোহলির দরকার ছিল ১৮০ রান। তার মধ্যে গোহাটিতে এদিন ১১৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

অর্থাৎ আর মাত্র ৬৭ রান করলেই লঙ্কান গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনেকে টপকে তালিকায় পাঁচ নম্বরে চলে আসবেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। এই তালিকার শীর্ষে যথারীতি শচিনই। তিনি ৪৬৩টি ম্যাচ খেলে করেন ১৮,৪২৬ রান। কোহলির রান এখন ১২,৫৮৪।

চট্টগ্রামের পর গোহাটি, পর পর দুটি এক দিনের ম্যাচে শতরান করলেন বিরাট কোহলি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৭৩তম শতরান করে ফেললেন তিনি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এদিন ৮০ বলে শতরান করলেন বিরাট।

যদিও এই ইনিংসে দুবার তার সহজ ক্যাচ ফেলে দেয় শ্রীলঙ্কা। বিরাটের ক্যাচ ফেলা যে কত ভয়ঙ্কর হতে পারে, তা দেখলেন দাসুন শনাকারা। বিরাটের ইনিংস শেষ হয় ৮৭ বলে ১১৩ রান করে। যাতে ভর করে এদিন ৭ উইকেটে ৩৭৩ রানের স্কোর গড়ে ভারত।

দলের পক্ষে এদিন কোহলি ছাড়া অন্যদের মধ্যে রোহিত ৮৩, শুভমন গিল ৭০ ও লোকেশ রাহুল ৩৯ রান করেন।


আরও খবর



র‌্যাবের অভিযান-ফেন্সিডিল সহ এক যুবক আটক

প্রকাশিত:Wednesday ০১ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্পের মাদক বিরোধী অভিযানে ৩০২ বোতল ফেন্সিডিল সহ মাদক কারবারি এক যুবক হাতেনাতে আটক।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব কাম্প থেকে প্রতিবেদক কে জানানো হয়, র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকশ অপারেশনাল দল কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এর নেতৃত্বে মঙ্গলবার রাত পনে ৩ টারদিকে দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর থানাধীন রিকাবি চকচকা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৩০২ বোতল ফেন্সিডিল সহ মাহফুজার রহমান ওরফে সাবু (৩৭) নামের এক মাদক কারবারী যুবককে হাতেনাতে আটক করা হয়।

আটককৃত মাদক কারবারী যুবক হলেন, দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার রিকাবি চকচকা গ্রামের মোঃ মতিয়ার রহমানের ছেলে মাহফুজার রহমান ওরফে সাবু।

র‌্যাব আরো জানায়, আটককৃত মাদক কারবারী জলেন (রিকাবী চকচোকা) এলাকার একজন বড় মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনার সময় সে পার্বতীপুর সীমান্ত এলাকা থেকে ফেন্সিডিলের বড় চালান আনছে এবং ভোরে সেই মাদক ফেন্সিডিল খুচড়া পাটিদের মাঝে বিক্রি করা হবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩ (জয়পুরহাট) এর একটি চৌকশ অপারেশন দল ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার করেন।

এব্যাপারে নিকটস্থ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুসারে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে র‌্যাব।


আরও খবর



সোনারগাঁওয়ে ৫১ তম জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা খেলাধুলার পুরস্কার বিতরন

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শাহাদাৎ হোসেন সায়মন (সোনারগাঁও প্রতিনিধি) :

সোনারগাঁও উপজেলার মেঘনা শিল্প নগরী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে বাংলাদেশের ৫১ তম জাতীয় স্কুল মাদ্রাসা খেলাধুলার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্টানে এডঃ সামসুল ইসলাম ভূইয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয়  সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রেজাওয়ান উল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাসুম, জেলা পরিষদ সদস্য আবু নাইম ইকবাল, নোওয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম সামসু। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তাগন বিভিন্ন স্কুল মাদ্রাসার শিক্ষকগণ এবং ছাত্রছাত্রীবৃন্দসহ প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন। এসময় খেলাধুলায় বিজয়ীদের হাতে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ পুরষ্কার তুলে দেন।

সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, মাদক সন্ত্রাস ইভটিজিং জঙ্গিবাদ থেকে নিজেদের সন্তান এবং নিজেদেরকে বাঁচিয়ে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সুস্থ দেহের জীবন-যাপন করা প্রতিটি শিক্ষার্থীর উচিত লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া সংস্কৃতিতে মনযোগী হওয়া।  নিজের প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে নিজেকে পৃথিবীতে শ্রেষ্ঠ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

চেয়াম্যান মাসুদুর রহমান মাসুম বলেন, তোমারা ফেইজবুক কম ব্যবহার করবে তাহলে তোমার লেখাপড়া এগিয়ে নিয়ে যেতে পাড়বে।তোমাদের তোমার মা বাবার আশা তোমরা সুশিক্ষিত হও। তোমাদের খেলাধুলার জন্য যা কিছু দরকার আমি যতদিন আছি তোমাদের পাশে থাকবো।


আরও খবর



র‍্যাবের অভিযানে কষ্টি পাথরের মূর্তি উদ্ধারসহ ৩ জন আটক

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

র‍্যাবের অভিযানে ১টি কষ্টি পাথরের বিষ্ণু মূর্তি উদ্ধার সহ জড়ীত ৩ জন প্রতারক কে গ্রেফতার।

জয়পুরহাট জেলা সদর উপজেলার বানিয়াপাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৪০ কেজি ওজনের একটি বিষ্ণু মূর্তি উদ্ধার সহ আব্দুল আলীম (৩২), জহুরুল ইসলাম (৪৪) ও মেহেদী হাসান (৩২) নামের সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের ৩ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে জানানো হয়, র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর মোঃ মোস্তফা জামানের নেতৃত্বে রবিবার বেলা পৌনে ৩ টার দিকে জেলার কালাই থানার আকন্দপাড়া গ্রামের মফিজুল প্রামাণিকের ছেলে ও প্রতারক চক্রের মূলহোতা মোঃ আব্দুল আলীম, একই থানার কালাই পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত আলতাব মোল্লার ছেলে মোঃ জহুরুল ইসলাম ও ক্ষেতলাল থানার ভাসিলা থানার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে মোঃ মেহেদী হাসানকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

র‍্যাব আরো জানায় যে, গ্রেফতারকৃত মোঃ আব্দুল আলিম সংঘবদ্ধ একটি প্রতারক চক্রের মূলহোতা এবং অন্য দু' জন সেই চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা পরস্পর যোগসাজশে দেশের বিভিন্ন এলাকার লোকজনকে কষ্টিপাথরের বিষ্ণু মূর্তির মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে তাদের নিকট হইতে প্রতারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিত। 

পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইন-১৯৭৪ অনুসারে মামলা দায়ের পূর্বক সোমবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর



২৮৬ শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিয়েছে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌরসভা

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

চাঁদপুর প্রতিনিধি :

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌরসভার আয়োজনে ২০২২ইং সনের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ (এ প্লাস) প্রাপ্ত ২৮৬ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। সোমবার দুপুরে পৌরসভার মাঠে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সাবর্বিক তত্বাবধান করেন পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন। এতে পৌর এলাকার শিক্ষার্থীদেরকে এ সংর্ধনায় ক্রেষ্ট ও  সনদ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান, মালেক গাজী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা মো. বাবর গাজী।

শিক্ষক জাহিদ হাসানের সঞ্চালনে এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, হাজীগঞ্জ সরকারি মডেল পাইলট হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবু ছাইদ, বলাখাল জেএন উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ খোদেজা বেগম, হাজীগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. দেলোয়ার হোসেন, পৌরসভার শহর সমন্বয় কমিটির সদস্য ডাঃ পেয়ারা বিল্লাল প্রমুখ।

 বক্তব্য শেষে প্রধান অতিথির পক্ষে কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে সংবর্ধনা ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। 

এসময় পৌর প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম আযহার আলম বেপারীসহ পৌরসভার সকল কাউন্সিলর, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সহকারী শিক্ষক, আগত অতিথিবৃন্দ, সাংবাদিক, কৃতি শিক্ষার্থী, অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ২০১৯ সাল থেকে হাজীগঞ্জ পৌরসভার আয়োজনে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হচ্ছে । 


আরও খবর