Logo
শিরোনাম

ঢাকায় ‘স্মার্ট পার্কিং’ চালু হচ্ছে

প্রকাশিত:Saturday ১২ November ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকার সড়কে ইচ্ছামতো ব্যক্তিগত গাড়ি রাখা নিয়ন্ত্রণে পার্কিং সমস্যা সমাধানে অ্যাপভিত্তিক পার্কিং সেবা দিতে ‘স্মার্ট পার্কিং’-এর উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। প্রাথমিকভাবে গুলশানের ৯টি রাস্তার নির্দিষ্ট স্থানে ২০২টি ব্যক্তিগত গাড়ি রাখার সুবিধা দেওয়া হবে ‘স্মার্ট পার্কিং’-এর মাধ্যমে।

তিন মাসের পাইলট প্রকল্পের আওতায় এ মাসের শেষ থেকে অ্যাপভিত্তিক পার্কিংয়ের এ সেবা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। যেখানে সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত থাকবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ ও আইনশৃঙ্খলা সমন্বয় কমিটি (এলওসিসি)। ঢাকা উত্তর সিটি জানিয়েছে, স্মার্ট পার্কিংয়ের জন্য ব্যবহৃত ‘ডিএনসিসি স্মার্ট পার্কিং’ অ্যাপে রেজিস্ট্রেশন করলেই অ্যাপের মাধ্যমে দেখতে পাবেন গুলশান এলাকায় কোথায় পার্কিং খালি আছে। পার্কিং খালি থাকা অবস্থায় আগে থেকেই প্রি-বুকিং দিয়ে রাখতে পারবেন অ্যাপ ব্যবহারকারীরা। এতে প্রথম দুই ঘণ্টার জন্য পে (পরিশোধ) করতে হবে ৫০ টাকা, পরবর্তী ঘণ্টার জন্য লাগবে ৫০ টাকা এবং চতুর্থ ঘণ্টা থেকে প্রতি ঘণ্টায় ১০০ টাকা করে পে করতে হবে।

পার্কিংয়ের ক্ষেত্রে যাতে বেশি সংখ্যক মানুষ সুবিধা পায় তাই প্রথম দুই ঘণ্টার পরে টাকার পরিমাণ বেশি থাকবে বলে জানিয়েছে উত্তর সিটি করপোরেশন। এ ব্যবস্থাপনায় প্রাথমিক অবস্থায় কোনো ক্যাশ পেমেন্ট না নিয়ে অনলাইন মোবাইল ব্যাংকিং ও ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ফি পে করতে পারবেন। নির্ধারিত সড়কের পার্কিং এলাকার বাইরে অন্য কোথাও গাড়ি পার্ক করা হলে দিতে হবে মোটা অঙ্কের জরিমানা। এতে কেবল পার্কিংয়ে নয়, নগরে পরিবহন ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা ফিরবে বলে মনে করছেন ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ও বিশেষজ্ঞরা।

ঢাকা শহরে অধিকাংশ বহুতল ভবনে গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নেই। অনেক ভবনে পার্কিংয়ের জায়গাও দোকান বা অফিসের জন্য ভাড়া দেওয়া হয়। এ কারণে এসব ভবনের সামনে গাড়ি পার্ক করেন চালক বা মালিকরা। এতে সড়কের জায়গা কমে যায়, যান চলাচলে সমস্যা হয়, যানজট হয়। উত্তর সিটি বলছে, রাস্তায় অবৈধভাবে রাখা গাড়ির বিরুদ্ধে ট্রাফিক পুলিশ মামলা করে রাজস্ব আয় করলেও ওই রাজস্বের কোনো ভাগ পায় না উত্তর সিটি। গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা চালু হলে তা থেকে যে ফি আদায় হবে, তা সিটি করপোরেশনের তহবিলে জমা হবে।

উত্তর সিটির ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিং সার্কেলের দেওয়া তথ্য মতে, গুলশানের ৬২, ৬৩, ৬৪, ৫৮ ও ১০৩ নম্বর রাস্তার পাশে প্যারালাল পার্কিং, গুলশান-২ এর আউটার সার্কুলার রোডে ৬০ ডিগ্রি পার্কিং, কাঁচাবাজার এলাকায় প্যারালাল পার্কিং এবং গুলশান-২-এর ৪ নম্বর রোডে ইনার সার্কুলার রোডে স্মার্ট পার্কিং ব্যবস্থা চালু হবে। এরই মধ্যে এসব এলাকার সড়কে প্রতিটি গাড়ির জন্য হলুদ রং দিয়ে মার্কিং ও গাড়ি পার্কিংয়ের সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে।



আরও খবর



রবীন্দ্রনাথের গল্প ও সুর মানুষকে পথ দেখিয়েছে-- খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:Monday ৩০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, বাঙালির আত্মপরিচয় জাগিয়ে তুলেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। বাঙালি যতবার সভ্যতার সংকটে পড়েছে ততবার কবিগুরুর কবিতা,গল্প ও সুর মানুষকে সঠিক পথ দেখিয়েছে।সোমবার বেলা সারে ১১ টায় নওগাঁ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ৪১তম জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী আরো বলেন, কথা, কবিতা ও গানে বিশ্বকবি সামগ্রিকভাবে বাঙালি নন্দনতত্ত¡কে তুলে ধরেছেন বিশ্ব দরবারে। নতুন প্রজন্মের কাছে রবীন্দ্রনাথের কৃতিত্বকে পরিচিত করতে প্রতিটি জেলায় রবীন্দ্র সম্মেলন আয়োজন করা দরকার।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার আরো বলেন, একাত্তরের কোটি মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানের যে অনুভব তা আমরা লক্ষ করেছি। তিনি যে মুক্তির ডাক দিয়েছেন, তার রচিত স্বদেশের গানে তা অনুরণিত হতে দেখেছি একাত্তরে।

নওগাঁ জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান পিএএ' এর সভাপতিত্বে নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মিল্টন চন্দ্র রায়, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম শাহনেওয়াজ,  এফবিসিসিআই পরিচালক ও নওগাঁ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ইকবাল শাহরিয়ার রাসেল, জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ নওগাঁ’র সাধারন সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন সহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

সভায় জানানো হয়, আগামী ৩-৫ মার্চ নওগাঁ জেলায় ৪১ তম রবীন্দ্র সম্মিলণ অনুষ্ঠিত হবে। ৩ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার মধ্য থাকবে সহস্রকন্ঠে রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশন, পতিসরে রবীন্দ্র প্রীতি সম্মেলন ও স্মৃতিচারণ, রবীন্দ্র নাথের চিত্রকর্ম প্রদর্শন এবং কবিগুরুর জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা। এতে অংশ গ্রহন করবেন, আসাদুজ্জমান নূর, রামেন্দু মজুমদার, রেজোয়ানা চৌধুরী বন্যা সহ দেশ বরেণ্য শিল্পীরা।


আরও খবর



তথ্য পরিবর্তন করে ২২ বছর

কারারক্ষীর চাকুরী করা প্রতারক তাজুল‌কে গ্রেপ্তার করলো র‌্যাব

প্রকাশিত:Saturday ১৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

নিজস্ব প্রতি‌বেদক ,কু‌মিল্লা :         

প্রতারণার খবর পাওয়া যায় যা সিনেমার গল্পকেও হার মানায়। এমনি এক ধূর্ত প্রতারক তাজুলকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। তথ‌্য গোপন ক‌রে ২২বছর কারারক্ষীর চাকুরী করা প্রতারক তাজুল ইসলাম‌কে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া বাজার  থে‌কে গ্রেপ্তার ক‌রেছে র‌্যাব। ওই এলাকার বা‌ড়ি থে‌কে ৩ সেট কারারক্ষী ইউনিফর্ম, ১ টি কারারক্ষী জ্যাকেট,১ সেট কারারক্ষী রেইনকোট, ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ নথি-পত্রাদি উদ্ধার ক‌রে‌ছে র‌্যাব।

শুক্রবার সকা‌লে কু‌মিল্লার শাকতলা  র‌্যাব কার্য‌্যাল‌য়ে এক সংবাদ স‌ম্মেল‌নে র‌্যাব -১১উপ-পরিচালক,

কোম্পানী অধিনায়ক‌ মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন

জানান-  ভুয়া পরিচয় দিয়ে দীর্ঘ ২২ বছর ধরে চাকুরী করে গেছে কারারক্ষীর মত স্পর্শকাতর জায়গায়।  গত ২০০১ সালে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানার শাহজাহানপুর গ্রামের মোঃ নুর উদ্দিন খান এর ছেলে মোঃ মঈন উদ্দিন খান কারারক্ষী পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে হাজির হয়ে শারীরিক ফিটনেস, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা দি‌য়ে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রত্যেকের স্থায়ী ঠিকানায় নিয়োগপত্র পরবর্তীতে ডাকযোগে প্রেরণ করা হবে। একই নিয়োগ দেখে উক্ত প্রতারকও পরীক্ষা দেয় এবং অকৃতকার্য হয়। এরই মধ্যে প্রতারকসহ আরো দুইজন সুযোগের সদ্ব্যবহার করে মঈন উদ্দিন খানের বাড়িতে যান ও নিজেদের কারাকর্তৃপক্ষের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দেয় এবং মঈন উদ্দিন খানকে বলে সে যদি কিছু টাকা দেয় তবে তাকে নিয়োগপত্র প্রদান করা হবে অন্যথায় তার নিয়োগ বাতিল করা হবে। কিন্তু মঈন উদ্দিন খান ঘুষ দিয়ে চাকুরী করবে না বলে টাকা প্রদানে অস্বীকৃতি জানায়। পরবর্তীতে মঈন উদ্দিন খান নিয়োগপত্র না পাওয়ায় আশাহত হয়ে বেসরকারী চাকুরী শুরু করেন। এরই মধ্যে প্রকৃত মঈন উদ্দিন খান এর ঠিকানা ব্যবহার করে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তার স্থলে কারারক্ষী হিসেবে চাকুরী শুরু করেন এবং বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কারাগারে চাকুরী সম্পন্নও করেন ও সর্বশেষ ঐ প্রতারক সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে কর্মরত ছিলেন। এরই মধ্যে জাতীয় বেতনস্কেল ২০১৫ অনুযায়ী সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন প্রাপ্তির জন্য জাতীয় পরিচয় পত্রের প্রয়োজন হলে প্রতারক প্রকৃত মঈন উদ্দিন খান এর নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে একটি জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরী করে ফেলে। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার ২০২০ সালের শেষ দিকে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক প্রিন্ট সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদে প্রকাশিত হয় যে, সিলেট বিভাগে প্রায় ২০০ জন কারারক্ষী সিলেটের স্থায়ী বাসিন্দা না হয়েও প্রায় ২০/২২ বছর যাবত চাকুরী করে আসছে। উক্ত সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর সিলেট বিভাগে কর্মরত প্রত্যেক কারারক্ষীর ঠিকানা যাচায়েরই জন্য তথ্য সংগ্রহ শুরু করে। তেমনিভাবে প্রকৃত মঈন উদ্দিন খান এর ঠিকানা যাচাইয়ের লক্ষ্যে কারা উপ-মহাপরিদর্শক, সিলেট কার্যালয়ে হতে শাহাজাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর একটি পত্র পাঠানো হয় এবং মঈন উদ্দিন খান সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দা কি না এ ব্যাপারে একটি প্রত্যয়ন পত্র প্রেরণের জন্য বলা হয়। পত্র প্রাপ্তির পর শাহাজাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান একটি প্রত্যয়নপত্রে উল্লেখ করেন যে, মঈন উদ্দিন খান, পিতা-মোঃ নুর উদ্দিন, গ্রাম-শাহজাহানপুর, ডাকঘর-তেলিয়াপাড়া, থানা-মাধবপুর, জেলা-হবিগঞ্জ-কে তিনি চিনেন এবং মঈন উদ্দিন খান কারারক্ষী হিসেবে চাকুরী নয় বরং স্থানীয় একটি ফার্মেসীতে ঔষুধের ব্যবসা করেন। চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত সার্টিফিকেট এর বিষয়ে জানার পর প্রতারক গত ২০২১সা‌লের ১৫ সেপ্টেম্বর  হতে ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ পর্যন্ত ৫ দিনের নৈমিত্তিক ছুটিতে গমন করেন ও ২০ সেপ্টেম্বরে যোগদান করার কথা থাকলেও সে ইতিমধ্যে তার কিছু নিকট সহকর্মীদের মাধ্যমে জানতে পারে কারা কর্তৃপক্ষ তার ভুয়া ঠিকানার ব্যাপারে জানতে পারে। তার সে যোগদান থেকে বিরত থাকে। এপ্রেক্ষিতে কারা কর্তৃপক্ষ গত ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে তাকে ছুটি হতে যোগদান না করলে চাকুরিচ্যুত করার বিষয়টি অবগত করলে সে যোগদান না করে অতিবাস করতে থাকে।

 পরবর্তীতে ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ মঈন উদ্দিন খান বিভাগীয় দপ্তরে চাকুরীতে যোগদানের জন্য একটি আবেদনপত্র প্রেরণ করেন যেখানে উল্লেখ করেন তিনি কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে কারারক্ষী হিসেবে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হন এবং তার ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হলেও কোন যোগদানপত্র পান নাই। বিষয়টি প্রতারক জানতে পারে ও সে শাহাজাহানপুরে মঈন উদ্দিন খান এর দোকানে গিয়ে তাকে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দেয় এবং সত্য ঘটনা প্রকাশ না করার জন্য বলে। কিন্তু মঈন উদ্দিন খান হুমকির কোন তোয়াক্কা না করে বিষয়টি উন্মোচন করে দিবে বলে জানালে প্রতারক ব্যক্তি মঈন উদ্দিন খানকে ১০ লক্ষ টাকা প্রদানের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু প্রকৃত মঈন উদ্দিন খান তার এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। পরবর্তীতে মঈন উদ্দিন খান চাকুরী পেতে উচ্চ আদালতের দারস্থ হন। এরই মধ্যে কারা কর্তৃপক্ষের পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করে।

কারা কর্তৃপক্ষের তদন্ত কার্যক্রমে সংগৃহীত কাগজপত্রাদি পর্যালোচনা, সাক্ষীগণের সাক্ষী, জাল শিক্ষা সনদ ব্যবহার করে চাকুরীতে বহাল থাকা ও স্থানীয় বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের সাথে সাক্ষাতে প্রাপ্ত তথ্য, ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করা, প্রকৃত মঈন খান কে হুমকি ধামকি দিয়ে সত্যতা ধামাচাপা দেয়াসহ বিভিন্ন লোমহর্ষক তথ্য প্রমাণিত হয়। আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চাকুরীরত প্রতারক কারারক্ষীকে গত ২০২১সা‌লের ২০ নভেম্বর তদন্ত কমিটির নিকট উপস্থিত হওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলে সে কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করে আত্নগোপনে চলে যায়। পরবর্তীতে গত বছ‌রের ৪ আগষ্ট  তারিখে অন্যের ঠিকানা-পরিচয় ব্যবহার করে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে চাকুরীরত থাকায় তার বিরুদ্ধে এস.এম.পি এর জালালাবাদ থানায় মামলা করা হয়।     

যেহেতু কারা কর্তৃপক্ষের নিকট এই প্রতারকের প্রকৃত ঠিকানা ছিল না তাই তারা মামলায় আসামীর নাম মোঃ মঈন খান এবং অন্যান্য তথ্যাদি অজ্ঞাত দিয়ে একটি মামলা রুজু করে। মামলা দায়েরের পর  প্রতারক পুরোপুরিভাবে আত্নগোপনে চলে যায়। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে জানতে পারেন তৎকালীন সময়ে কুমিল্লা জেলা হতে অনেক লোক কারারক্ষী পদে পরীক্ষা দিয়ে চাকুরীরত রয়েছে। পরবর্তীতে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতারককে গ্রেপ্তা‌রের জন‌্য র‌্যাব-১১কুমিল্লা এর সহায়তা কামনা করে।

এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব ১১,  গোয়েন্দা সূত্র ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত ১২ জানুয়া‌রি বিকালে কুমিল্লা ব্রাহ্মণপাড়া বাজার এলাকা থে‌কে প্রতারক তাজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার ক‌রে র‌্যাব। তারঁ বা‌ড়ি থে‌কে ৩ সেট কারারক্ষী ইউনিফর্ম, ১ টি কারারক্ষী জ্যাকেট, ১ সেট কারারক্ষী রেইনকোট, ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ নথি-পত্রাদি উদ্ধার করে র‌্যাব।

গ্রেপ্তারকৃত,মোঃ তাজুল ইসলাম (৪২) জানায়,ব্রাহ্মণপাড়া উপ‌জেলার ৬নং দ‌ক্ষিণ শশীদল গ্রামের মৃত মোঃ কালা মিয়ার ছে‌লে। নাম-ঠিকানা গোপন করে প্রকৃত মঈন উদ্দিন খান এর নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে চাকুরী করা সহ সরকারী সুযোগসুবিধা ভোগ করে আসছিল। 

এ বিষয়ে গ্রেপ্তারকৃত আসামীকে সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্ত পরিচালনাকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর প্রক্রিয়াধীন র‌য়ে‌ছে।

        


আরও খবর



মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের মৃত্যুবার্ষিকী

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

সুচিত্রা সেন। বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে এক কিংবদন্তি নায়িকার নাম। এই মহানায়িকার ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৪ সালের ১৭ জানুয়ারি কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান তিনি।

১৯৫২ সালে চলচ্চিত্রে প্রথম পা রাখেন তিনি। মহানায়ক উত্তম কুমারের সাথে ১৯৫৩ সালে "সাড়ে চুয়াত্তর" ছবি করে সাড়া ফেলে দেন চলচ্চিত্র অঙ্গনে।আজও স্মরণীয় হয়ে আছে উত্তম-সুচিত্রা জুটি।
২৬ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি অগ্নিপরীক্ষা, সাগরিকা, দেবদাস, হারানো সুর, ইন্দ্রানী, সপ্তপদীর মতো সুপারহিট সব চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। ১৯৭৮ সালে 'প্রণয় পাশা' ছবি করার পর লোকচক্ষুর অন্তরালে চলে যান এই মহানায়িকা। এরপর আর কোনোদিন জনসমক্ষে আসেননি। তবু তার আকাশ ছোঁয়া জনপ্রিয়তায় বিন্দুমাত্র ভাঁটা পড়েনি।


আরও খবর



গজারিয়ায় বাউশিয়া ইউনিয়নে শীর্তাতদের মাঝে কম্বল বিতরন

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

মুন্সিগন্জ প্রতিনিধি: মুন্সিগঞ্জর গজারিয়া উপজেলা কনকনে ঠান্ডায় গরম কাপড়ের অভাবে শীত নিবারন করতে পারছে না ছিন্নমূল, গরীব, অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষরা। ঠিক সেই সময়ে গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ব্যক্তি উদ্যোগে শীতবস্ত্র (কম্বল) বিতরনের উদ্যোগ নেয়। 

প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও সরকারি শীতবস্ত্র বিতরণ পাশাপাশি নিজ অর্থায়নে ব্যক্তি উদ্যোগে চরবাউশিয়া বড়কান্দি গ্রামে অসহায় ছিন্নমূল মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন তিনি। 

রোববার ঘন কুয়াশার মধ্যে বাউশিয়া ইউনিয়নে চরবাউশিয়া বড়কান্দি গ্রামে বিভিন্ন বাড়িতে ঘুরে ঘুরে প্রায় দুই শতাধিক মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন করা হয়।

শীতবস্ত্র বিতরণ কালে বাউশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান প্রধান বলেন, সারা দেশের মতো গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নে তীব্র শীতে অসহায় অনেক মানুষ কষ্ট করছে। শীতার্তদের শীতের হাত থেকে রক্ষা করতে আজ দুই শতাধিক মানুষের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ করেছি। জাতির পিতার সোনার বাংলা ও জননেত্রী শেখ হাসিনার দারিদ্র ও ক্ষুদামুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হলে জন প্রতিনিধিদের যার যার অবস্থান থেকে অসহায়দের পাশে দাড়াতে হবে। তাই সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনকল্যাণমূলক কাজের অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নিতে স্থানীয় সরকারের অধীনস্থ বাউশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ  জনগণের পাশে রয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, শীতার্তদের শীত বস্ত্র বিতরণ অব্যাহত থাকবে। বাউশিয়া বিভিন্ন স্থানে পর্যায়ক্রমে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হবে। এসময় বাউশিয়া ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য গন উপস্থিত ছিলেন।

শীত বস্ত্র গ্রহণকারীদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব নারী আনোয়ার বেগম বলেন, গত কয়েকদিনের তীব্র শীতে রাতে ঘুমাতে খুব কষ্ট হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দেয়া কম্বল পেয়ে সেই কষ্ট লাঘব হবে।



আরও খবর



ধামরাইয়ে ভুট্টাক্ষেত থেকে গলায় ওড়না পেচানো যুবতীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

 মাহবুবুল আলম রিপন স্টাফ রিপোর্টার :


ঢাকার ধামরাইয়ে ভুট্টাক্ষেত থেকে গলায় ওড়না পেচানো অজ্ঞাত এক যুবতী মহিলার(২৮) লাশ উদ্ধার করেছে ধামরাই থানা পুলিশ। 

সোমবার (৯ জানুয়ারি) বিকাল ৩টার দিকে ধামরাই উপ জেলার কুল্লা ইউনিয়নের কেলিয়া এলাকা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উত্তর পাশে একটি ভুট্টাক্ষেত থেকে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কেলিয়া এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উত্তর পাশে একটি ভুট্টাক্ষেতে অজ্ঞাত যুবতী মহিলার লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী। পরে তারা ধামরাই থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে লাশের কোন নাম পরিচয় জানা যাযনি। লাশের গলায় ওড়না পেছানো এবং হাতে ও জামার মধ্যে রক্ত লেগে আছে। 

এবিষয়ে ধামরাই থানার (ওসি তদন্ত) মোহাম্মদ ওয়াহিদ পারভেজ সাংবাদিক দের  বলেন, কেলিয়া এলাকায় ভুট্টাক্ষেতে একটি অজ্ঞাত যুবতী মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়।  লাশের পড়নে একটি সেলোয়ার ক্যামিজ ও গলায় একটি ওড়না পেছানো ছিল। তবে ধারনা করা হচ্ছে যুবতী মহিলাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে, এই ব্যাপারে থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর