Logo
শিরোনাম

ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠান বর্জণ সাংবাদিকদের

প্রকাশিত:Sunday ০৪ December ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাসুদ উল হাসান,জামালপুর ঃ

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠান বর্জণ করেছেন বকশীগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্টনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা। ৪ ডিসেম্বর রোববার কামালপুর মুক্ত দিবসে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের আমন্ত্রন না করায় অনুষ্ঠান বর্জণ করেছেন তারা। কামালপুর মুক্তমঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি। বিশেষ অতিথি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি ও সাবেক মন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ এমপি। জামালপুর জেলা ও বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। 

জানা যায়, জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার ১১নং সেক্টর ধানুয়া কামালপুর হানাদার মুক্ত হয় ১৯৭১ সালের ৪ ডিসেম্বর। প্রতি বছর অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবস পালিত হয়। জামালপুর জেলার মুক্ত দিবসের সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান হয়ে থাকে বকশীগঞ্জের ধানুয়া কামলপুরে। অনুষ্ঠানে সরকারের একাধিক মন্ত্রী,আমলা ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত থাকেন। এ বারের মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি। বিশেষ অতিথি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি ও সাবেক মন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ এমপি।

ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যাক্তিকে দাওয়াত করলেও বকশীগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের দাওয়াত দেননি বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। দাওয়াত না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বকশীগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা। ফলে বকশীগঞ্জের সাংবাদিকরা ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠান বর্জণ করেন। 

বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম শাহীন আল আমীন বলেন,ধানুয়া কামালপুর মুক্ত দিবস জাতীয় অনুষ্ঠান। এ অনুষ্ঠানে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের আমন্ত্রন জানানো হয়নি। তাই বকশীগঞ্জে কর্মরত সাংবাদিকরা অনুষ্ঠান বর্জণ করেছেন। 

বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজা বলেন, অফিসের একজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল দাওয়াতের জন্য। তিনি সময়মত দাওয়াত পৌছাঁননি। পরে অবশ্য আমি সাংবাদিকদের ফোন করে অনুষ্ঠানে থাকার জন্য আমন্ত্রন জানিয়েছি।


আরও খবর



রেস্তোরাঁ ব্যবসায় ফিরছে সুদিন

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

রোকসানা মনোয়ার :বড় পরিবর্তন এসেছে দেশের রেস্তোরাঁ শিল্পে। মানুষের খাদ্যাভ্যাস ও রুচির পরিবর্তন হয়েছে। সারা দেশের ছোট-বড় শহরে গড়ে উঠেছে উন্নতমানের রেস্তোরাঁ। জিডিপির পাশাপাশি প্রতি বছর বাড়ছে কর্মসংস্থান। পৃথিবীজুড়ে এখন এ শিল্প সম্ভাবনাময়। বাংলাদেশেও সেটা হবে। আগামীতে পাশ্চাত্যের দেশগুলোর মতো মানুষ রেস্তোরাঁনির্ভর জীবনযাপন করবে। সেভাবে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা ও অভ্যাস গড়ে উঠছে। এদিকে, সম্প্রতি সরকারিভাবে রেস্তোরাঁকে শিল্পের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে। এ ঘোষণায় উচ্ছ্বসিত ব্যবসায়ীরা। উন্নত বিশ্বের মতো দেশের রেস্তোরাঁ ব্যবসাকেও মানসম্পন্ন জায়গায় নিতে স্বপ্ন বুনছেন তারা।

শিল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রেস্তোরাঁর প্রসারে এ শিল্পে এখন পর্যন্ত বিপুল কর্মসংস্থানও হয়েছে। দেশের প্রায় দুই কোটি মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত। পাশাপাশি এ শিল্প কৃষি, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও পর্যটনসহ অন্যান্য অর্থনীতিতেও বড় ভূমিকা রাখছে। সরকার শিল্প ঘোষণা করায় আগামী এক দশকে এ শিল্প আরো তিন গুণ প্রসার হবে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হোটেল ও রেস্টুরেন্ট সার্ভে-২০২১ এর তথ্য বলছে, গত ১১ বছরে দেশে হোটেল ও রেস্তোরাঁর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ১ লাখ ৬১ হাজার। ২০০৯-১০ সালে যেখানে দেশে রেস্তোরাঁর সংখ্যা ছিল ২ লাখ ৭৫ হাজার, তা গত বছর বেড়ে ৪ লাখ ৩৬ হাজার হয়েছে। এ সময়ে কর্মরত মানুষের সংখ্যাও হয়েছে দ্বিগুণ। ২০০৯-১০ অর্থবছরে হোটেল ও রেস্তোরাঁয় কর্মরত ছিলেন ৯ লাখ ৪ হাজার মানুষ, যা গত বছর বেড়ে ২০ লাখ ৭২ হাজার হয়েছে। ফলে এক দশকে মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে মূল্য সংযোজন বেড়েছে আট গুণ। এক দশক আগে ২০০৯-১০ অর্থবছরে হোটেল-রেস্তোরাঁ থেকে মূল্য সংযোজন হয়েছিল মাত্র ১১ হাজার ৯৮৬ কোটি টাকা। আর সবশেষ ২০১৯-২০ অর্থবছরে হয়েছে ৮৭ হাজার ৯২৬ কোটি টাকা।

আগামী ১০ বছরে এ শিল্প আরো তিন গুণ এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করে বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির মহাসচিব ইমরান হাসান বলেন, সরকারের উদ্যোগে রেস্তোরাঁকে শিল্প ঘোষণা করা হয়েছে। এতে আমাদের খাতের বিদ্যমান অনেক সমস্যা সমাধান হবে। বর্তমানে এ শিল্প যে অবস্থায় রয়েছে, আগামী ১০ বছরে তা আরো তিন গুণ বাড়বে।

ইমরান হাসান আরো বলেন,  আগামীতে এ শিল্প থেকে প্রচুর প্রশিক্ষিত কর্মী রপ্তানি সম্ভব হবে। সেটি অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখবে। আবার বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরত প্রবাসীরাও এ খাতে জড়িয়ে পড়ছে ব্যাক টু ব্যাক শিল্পের মতো। সরকারের সদিচ্ছা থাকলে বিশ্বব্যাপী হসপিটালিটি খাতে দুই কোটি কর্মী রপ্তানি সম্ভব।

এসব বিষয়ে কথা হয় আল-কাদেরিয়া লি: এর চেয়ারম্যান, রেস্তোরাঁ মালিক ফিরোজ আলম সুমনের সাথে । তিনি জানান, অপেক্ষাকৃত কম পুঁজিতে বাংলাদেশে হোটেল-রেস্তোরাঁ ব্যবসা লাভজনক। এছাড়া মানুষের খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন ও ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি এ শিল্প জনপ্রিয় হওয়ার মূল কারণ। সে কারণেই ঢাকা নয়, জেলা ও উপজেলায়ও প্রতিনিয়ত নতুন নতুন হোটেল-রেস্তোরাঁ গড়ে উঠছে। আবার প্রতিনিয়ত নতুন নতুন খাদ্যের প্রসার এ শিল্পকে সমৃদ্ধ করছে। যে কারণে দেশের অর্থনীতিতে অবদান বাড়ছে এ শিল্পের।

সুমন আরো বলেন, এতদিন রেস্তোরাঁ ব্যবসা শিল্পের মর্যাদা না পাওয়ার কারণে বেশ সমস্যা হয়েছে। বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের সরকারি সেবা নেওয়ার ক্ষেত্রে চড়া মূল্য দিতে হতো। ফলে প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়েছে অনেকে। তা ছাড়া ব্যাংকঋণের উচ্চ সুদহারের কারণে যেসব প্রতিষ্ঠান ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে তাদের ব্যবসার প্রসার করেছেন, তারা প্রতিনিয়ত চড়া সুদ গুনেছে।

ঋণ পরিশোধ সব সময়ই আর্থিক চাপ, এমনকি অনেক প্রতিষ্ঠান টিকতে পারেনি। শিল্প না হওয়ার কারণে এতদিন রেস্তোরাঁ ব্যবসা দেশের পুঁজিবাজার, বিশেষ করে সম্ভাবনাময় বন্ড মার্কেট গড়ে ওঠার ক্ষেত্রেও কোনো ভূমিকা নেয়নি।

আল-কাদেরিয়া রেস্টুরেন্টের কর্ণধার ফিরোজ আলম সুমন আরো বলেন, রেস্তোরাঁ ব্যবসা নির্ঞ্ঝাট নয়। বড় বড় রেস্তোরাঁয় এখন বিনিয়োগও প্রচুর। তারপরও এ ব্যবসার কোনো স্বীকৃতি ছিল না। কোনো মন্ত্রণালয়ের অধীনে সহায়তা মেলেনি। সেজন্য এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত উদ্যোক্তাদের প্রায়ই নানা ধরনের সংকটের মুখোমুখি হতে হয়েছে। টিকতে না পেরে মুখ থুবড়ে পড়েছে অনেক তরুণের উদ্যোগ। এ খাত শিল্প হওয়ায় এখন অনেক সমস্যা কেটে যাবে। বড় বিনিয়োগ আসবে। কয়েক বছরের মধ্যে এ খাত পাল্টে যাবে। যেসব তরুণ উদ্যোক্তা রেস্তোরাঁগুলোতে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগিয়ে যাচ্ছেন তারা আরো উদ্যমী হবেন। ব্যাংকগুলো সব ব্যবসায় ঋণ দিলেও রেস্তোরাঁ ব্যবসায় ঋণ দিতে চাইতো না। সহজ শর্তে ঋণ পেলে তরুণরা আরো ভালো করবেন।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শেখ ফয়েজুল আমীন বলেন, মোটাদাগে এখন অন্য শিল্পের মতো সব সুবিধাপ্রাপ্ত হবে রেস্তোরাঁগুলো। তাতে এ ব্যবসায় সরকারের সহায়তা বাড়বে। বড় বড় বিনিয়োগ আসবে। ব্যাংকগুলোও বিনিয়োগকারীদের সহায়তা দেবে। এমনকি এ খাতে বিদেশি বিনিয়োগও বাড়বে।


আরও খবর

কমছে আয়, বাড়ছে ব্যয়

Saturday ০৪ February ২০২৩




প্রতিবেশীদের নিয়ে ধামরাইয়ে শুরু ‘প্রতিবেশী উৎসব’

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন (স্টাফ রিপোর্টার)

ঢাকার ধামরাইয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল আইএফআইসি BANK এর ‘প্রতিবেশী উৎসব'

উক্ত অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন ধামরাই পৌরসভার সুযোগ্য মেয়র আলহাজ্ব গোলাম কবির মোল্লা।অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন শাখা ব্যাবস্হাপক এ.বি.এম. মাসুম। 

আইএফআইসি যখন প্রতিবেশী ব্যাংকিং করি যত খুশি !আইএফআইসি ব্যাংক উপশাখা আরো কাছে সবার মাঝে পাড়ায় পাড়ায় আমার ব্যাংক। •এজেন্ট বা কারো মাধ্যমে নয় সরাসরি ব্যাংকের কাছ থেকে ব্যাংকিং সেবা  • ব্যাংকের নিজস্ব কর্মী দ্বারা পরিচালিত • ঋণসহ সব ব্যাংকিং সেবা • শাখার মতোই রিয়েল টাইম ব্যাংকিং অভিজ্ঞতা • এর মধ্যেই গ্রাম- শহর সারাদেশে ছড়িয়ে গেছে আইএফআইসি ব্যাংক উপশাখা।

শহুরে জীবন মানুষকে এক ধরনের বিচ্ছিন্নতাবােধের দিকে ঠেলে দিয়েছে।যেখানে প্রতিবেশীদের নিজেদের মধ্যে কোনাে যােগাযােগ নেই, যেখানে একই এলাকার ভেতরে এক প্রতিবেশীর কাছে অপর প্রতি বেশীকে আগন্তুক বলে মনে হয়, যা সামাজিকভাবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ‘প্রতিবেশী কমিউনিটি’কে দুর্বল করে ফেলছে।প্রতিবেশীদের মধ্যে এ সংযােগকে পুনরুজ্জীবিত করে তুলতেই ঢাকার ধামরাইয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘প্রতিবেশী উৎসব’।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত:Wednesday ১১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :


নওগাঁয় বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অ্যাডভোকেট আব্দুল বাকীর সভাপতিত্বে মঙ্গলবার বিকেল ৩ টা থেকে ৪টা পর্যন্ত জেলা অ্যাডভোকেট বার এসোসিয়েশনে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মত বিনিময় সভায় আগামী ৩১ জানুয়ারী ২০২৩ নওগাঁ জেলা অ্যাডভোকেট বার এসোসিয়েশনের কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে প্রার্থী মনোনীত বিষয়ে আলোচনা হয়। উক্ত আলোচনায় বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সমর্থিত প্যানেলে অ্যাডভোকেট খোদাদাদ খান পিটু'কে সভাপতি পদে, অ্যাডভোকেট মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ফিরোজ, সাধারণ সম্পাদক পদে ও সহ-সাধারণ সম্পাদক (প্রশাসন) পদে ১ জন, সহঃ সাধারণ সম্পাদক (লাইব্রেরী) পদে ১ জন, সহ-সম্পাদক (আপ্যায়ন) পদে ১ জন এবং সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থীদের মনোনীত করেন।

উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা অ্যাডভোকেট বার অ্যাসোসিয়েশনের বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট খোদাদাদ খান পিটু, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ফিরোজ, অ্যাডভোকেট মোঃ মোফাজ্জল হোসেন, অ্যাডভোকেট মোঃ ময়েন উদ্দিন, অ্যাডভোকেট কাজী হাসানুজ্জামান হাসান প্রমূখ। 


আরও খবর



দুই দিনের সফরে টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Friday ০৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

আওয়ামী লীগের সভানেত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমবারের মতো দুই দিনের ব্যক্তিগত সফরে আজ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সফরে তিনি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোসহ নানা কর্মসূচিতে অংশ নেবেন।তার সাথে আছেন ছোট বোন শেখ রেহানা ও পারিবারের সদস্যরাও।

এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নবনির্বাচিত জাতীয় পরিষদ, কার্যনির্বাহী সংসদ ও উপদেষ্টা পরিষদের যৌথ সভায় অংশ নেবেন তিনি। সভাটি আগামীকাল শনিবার দুপুরে টুঙ্গিপাড়ায় অনুষ্ঠিত হবে। আজ শুক্রবার সকাল ৮টায় ঢাকা থেকে সড়কপথে প্রধানমন্ত্রী গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে রওনা হন। টুঙ্গিপাড়া পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন। এরপর তিনি খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার নগরঘাট এলাকায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে কেনা দুটি পাটের গুদাম দেখতে সড়কপথে খুলনায় যাবেন। রাতে গোপালগঞ্জে থাকবেন। সেখান থেকে পরদিন দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত করে ঢাকায় ফিরবেন।  


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




ইউরোপে পরমাণু সংঘাত চায় ওয়াশিংটন !

প্রকাশিত:Saturday ০৪ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

ইউক্রেনকে পর্যন্ত ৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার যুদ্ধ সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র কিয়েভকে অত্যাধুনিক অস্ত্র দেয়ার মাধ্যমে রাশিয়াকে বাধ্য করছে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারে যার শিকার হতে পারে ওয়াশিংটনের বন্ধুরাষ্ট্র ইউরোপের নিরাপরাধ জনগণই এমন মন্তব্য ভারতের ফ্লাইট অফিসার গ্রুপ ক্যাপ্টেন অজয় শ্রীবাস্তবের

রাশিয়ার বিরুদ্ধে গণবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার হলে বা প্রচলিত অস্ত্রে মস্কোর অস্তিত্বকে হুমকি দিলে সম্ভাব্য সবধরনের অস্ত্রের ব্যবহার করা হবে পুতিন সতর্ক কোরেছেন, এটি কোনো ধাপ্পাবাজি নয়

ভারতের ফ্লাইট অফিসার গ্রুপ ক্যাপ্টেন অজয় প্রকাশ শ্রীবাস্তব জানান, যুক্তরাষ্ট্র-জার্মানি ইউক্রেনকে অত্যাধুনিক ট্যাংক দেয়ার সিদ্ধান্তের মাধ্যমে হয়তো রাশিয়ার ঠিক কোরে দেয়া চূড়ান্ত সীমা অতিক্রম করতে চলেছে

রাশিয়া কি প্রতিশোধ হিসাবে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার করবে? অজয় জানান, হিমারস রকেট সিস্টেম থেকে ট্যাংক, অত্যাধুনিক সব অস্ত্র ইউক্রেনকে দেয়ার মাধ্যমে রাশিয়াকে প্রায় কোণঠাসা কোরে ফেলছে পশ্চিমারা প্রতিশোধ নেয়া ছাড়া মস্কোর জন্য কোনো সুযোগই বাকি রাখছে না তারা

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইউক্রেনকে প্রায় ৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের সহযোগিতা দিয়েছে বিশ্বের স্বঘোষিত শান্তিরক্ষী যুক্তরাষ্ট্র যার মধ্যে অস্ত্র, সরঞ্জাম নিরাপত্তা সহায়তা ২৩ বিলিয়ন সরাসরি আর্থিক মানবিক সহায়তা ২৫ বিলিয়ন যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্তত ৪০টি রাষ্ট্র ইউক্রেনকে সরাসরি সামরিক সহায়তা দিচ্ছে

যুক্তরাষ্ট্র হালকা অস্ত্র থেকে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, আকাশ থেকে ভূমিতে নিক্ষেপযোগ্য মিসাইল, বিস্ফোরণ, নজরদারীর ড্রোন, মনুষ্যবিহীন বিমান, কামান, ট্যাংক, সাঁজোয়ানযান, সামরিক ট্রাক, স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন টার্মিনাল, বিভিন্ন ধরনের রাডার, যোগাযোগের অন্যান্য সরঞ্জাম যন্ত্রপাতি দিয়েছে ইউক্রেনকে

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, গণতন্ত্র রক্ষা, গণতন্ত্রের বিস্তার, মানবাধিকার সমুন্নত রাখার পক্ষে কাজ করছে তারা বিশ্বের একমাত্র পারমাণবিক অপরাধী যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করার জন্য রাশিয়াকে বাধ্য করছে

বৃহস্পতিবার পুতিন জানান, আট দশক পর আবারও জার্মান ট্যাংকের হুমকিতে রাশিয়া পুতিনের মুখপাত্র অজয় জানান, পশ্চিমের নতুন নতুন অস্ত্রের জবাবে মস্কো নিজেদের শক্তিশালী অস্ত্রের সর্বোচ্চ ব্যবহার করবে

অজয় বলেন, বিশ্বকূটনীতর নজিরবিহীন উদাহরণ যে, স্বঘোষিত পারমাণবিক অপরাধী যুক্তরাষ্ট্র চক্রান্ত কোরে তার হাজার হাজার মাইল দূরের বন্ধুদেশের নিরাপরাধ মানুষকে হিরোশিমা নাগাসাকির মতো নির্মম ভাগ্য বরণে রাশিয়াকে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারে বাধ্য করছে


আরও খবর