Logo
শিরোনাম

দুরন্ত বিপ্লবের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Sunday ১৩ November ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image
বুড়িগঙ্গা থেকে আওয়ামী লীগ নেতা

বুলবুল আহমেদ সোহেলঃ

বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকা থেকে শনিবার বিকেলে উদ্ধার হওয়া লাশটি আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ–কমিটির সদস্য দুরন্ত বিপ্লবের (৫১)। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইলাশপুর গ্রামে। তিনি কেরানীগঞ্জে ভাড়া থাকতেন।

এ বিষয়ে পাগলা নৌ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী বলেন, গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে নদীর তীরে লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। ধারণা করা হচ্ছিল, লাশটি তিন থেকে চার দিন আগের। লাশটি নদীর তীরে আটকে ছিল। লাশ পচে ফুলে গেছে। 

আজ দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসক মফিজুল উদ্দিন প্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা দুরন্ত বিপ্লবকে মাথায় ও বুকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। করে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে বলা যায় আঘাত জনিত কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ময়নাতদন্তের সময় মর্গের বাইরে ছিলেন নিহত দুরন্ত বিপ্লবের ছোট ভাই দুর্জয় বিপ্লব ও তাঁর স্ত্রী নাহিদা ইসলাম। তারা জানান, ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় কেরানীগঞ্জের ভাড়া বাসা থেকে মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটির বাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন দুরন্ত বিপ্লব। তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ৯ নভেম্বর তাঁরা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

দুর্জয় বিপ্লব বলেন, চার বছর আগে তাঁর ভাই চার বন্ধুর সঙ্গে মিলে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে একটি কৃষি খামার করেছিলেন। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইলাশপুর গ্রামে। তিনি কেরানীগঞ্জে ভাড়া থাকতেন।

নৌ পুলিশের এসপি রীনা মাহামুদ জানান, শনিবার রাত ১২টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় লাশের ছবি দেখে সেটি নিখোঁজ দুরন্ত বিপ্লবের বলে শনাক্ত করেন তাঁর ছোট বোন শাশ্বতী বিপ্লব। দুরন্ত বিপ্লব ৭ নভেম্বর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। এই ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় তাঁর পরিবার একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিল। প্রাথমিক একটি তথ্য জানা গেছে খেয়া পারা পারের নৌকায় দেখেছিল মানুষ। দুটি নৌকার সংঘর্ষে একটি নৌকা থেকে ৫ জন পড়ে গিয়েছিল সেখানে একজন নিখোঁজ ছিল। এই ঘটনারও শিকার হতে পারেন। আবার ময়না তদন্তের পর নিহতের মাথায় ও বুকে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত স্বাপেক্ষে আসল রহস্য উদঘাটন করতে পারবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন। 


আরও খবর



আইজিপি ব্যাজ’ পেলেন ধামরাইয়ের কৃতী সন্তান এডিঃ এসপি শহিদুল ইসলাম

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপনঃ


 প্রশংসনীয় ও ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘আইজিপিস এক্সেমপ্ল্যারি গুড সার্ভিসেস ব্যাজ’ পেয়েছেন ঢাকার ধামরাইয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা আওলাদ হোসেনের ছেলে বর্তমান ঢাকা জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল ব্রাঞ্চের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম।

বুধবার (৪ জানুয়ারি) রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের প্যারেড গ্র্যাউন্ডে পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার এই ব্যাজ পরিয়ে দেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। এ সময় তিনি ব্যাজপ্রাপ্তদের হাতে সনদও তুলে দেন।

পুলিশ সদর দপ্তরের এক কর্মকর্তা জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, জনসেবামূলক কর্মকাণ্ড, মামলার রহস্য উদঘাটন, ভালো পুলিশিং, সরকারি ও ব্যক্তিগত কাজের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি বাড়ানোসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে অবদানের ভিত্তিতে পদকের জন্য যোগ্য কর্মকর্তা ও সদস্যদের নির্বাচিত করা হয়। এই পুরস্কার তাদের জনসেবার কাজে আরও উৎসাহিত করবে।

শহিদুল ইসলাম ৩০তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০১২ সালে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। বর্তমানে তিনি কৃতিত্বের সাথে ঢাকা জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল ব্রাঞ্চে কর্মরত রয়েছেন।

তিনি যাদবপুর বিএম হাই স্কুল এন্ড কলেজে পড়াশুনা করেছেন, পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে বিবিএ ও এমবিএ সম্পূর্ণ করেন। এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স অফ পুলিশ সাইন্স (এমপিএস) ডিগ্রি অর্জন করেন।

তিনি সবসময় অবহেলিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন।এই শীতেও তিনি নিজ উদ্যোগে তিনশত অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন। তিনি সামাজিক কাজে অংশগ্রহণ করেন।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম সময় নিউজকে জানান, কর্মক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তার এ প্রাপ্তিতে পেশাদারিত্ব ও কর্ম উদ্দীপনা আরো বাড়িয়ে দিবে।


আরও খবর



বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সী (বীর প্রতীক) আর নেই

প্রকাশিত:Monday ০৬ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

জামালপুর প্রতিনিধি :

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার বাট্টাজোড় ইউনিয়নের চন্দ্রাবাজ এলাকার বাসিন্দা খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সী বীর প্রতীক (৮০) ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রোববার রাতে গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। 

জানা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সী বীর প্রতীক বকশীগঞ্জের চন্দ্রাবাজ এলাকায় জন্ম গ্রহন করেন। যুদ্ধ পরবর্তীকালে তিনি পাশ্ববর্তী শেরপুর জেলার শ্রীবরদী পৌর শহরে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ন সাহসী ভূমিকা রাখায় তাকে বীর প্রতীক উপাধি দেয়া হয়। তিনি দুইবার বীর প্রতীক উপাধি লাভ করেছেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সী দীর্ঘদিন যাবত ডায়াবেটিস ও কিডনি সমস্যাসহ নানা রোগে ভোগছিলেন। রোববার রাতে গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে ও ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ সোমবার সকাল ১১ টায় চন্দ্রবাজ রশিদা বেগম স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে ও দুপুর আড়াইটায় শ্রীবরদী সরকারি কলেজ মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে। 

তার মৃত্যুতে সাবেক মন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ এমপি,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুর রউফ তালুকদার,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজা,পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর, জেলা পরিষদ সদস্য জয়নাল আবেদীন, বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহীনা বেগম,সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাবুল তালুকদার,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব মফিজ উদ্দিন,চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম ও বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম শাহীন আল আমীনসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেধনা জানিয়েছেন।


আরও খবর



নেত্রকোনায় সড়ক দুর্ঘটনায় যুবক নিহত

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

নেত্রকোনা প্রতিনিধি :

সোমবার সকালে জেলা সদরে তেরী এলাকায় বাসকে সাইড দিতে গিয়ে মোটরসাইকেল আরোহী শাকিল আহমেদ নামের এক যুবক নিহত হন। 

বড় ভাইকে বাসে তুলে দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ছোট বাজার এলাকায় বাসকে সাইড দিতে গিয়ে বিদ্যুতের পিলারের সাথে ধাক্কা লেগে ঘটনাটি ঘটেছে।

দুপুরে খবর পেয়ে নেত্রকোনা মডেল থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকালে নেত্রকোনা পৌর শহরের আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালে মোটরসাইকেল যোগে বাংলা এলাকা থেকে বড় ভাইকে নিয়ে আসেন শাকিল। 

ভাইকে বিদায় দিয়ে নিজের মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। 

এসময় ঢাকাগামী বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাসকে সাইড দিতে গিয়ে সড়কের পাশে থাকা বিদ্যুৎ এর খুঁটিতে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যান শাকিল। 

স্থানীয়রা দ্রুত এসে উদ্ধার করে নেত্রকোনা জেলা সদর হাসপাতাল নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।  

নেত্রকোনা মডেল থানার পুলিশ খবর পেয়ে আইনগত প্রক্রিয়া শেষে লাশ স্বজনদের কাছে দিয়ে দেয়। 

মামলার তদন্ত অফিসার এস আই মো. আশরাফুজ্জামান সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহত শাকিল আহমেদ সদর উপজেলার বাংলা গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে।


আরও খবর



নওগাঁয় স্কুলে যাওয়ার একমাত্র পথ ভেঙ্গে পুকুর-গর্ভে

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার একটি প্রত্যন্ত অঞ্চল হচ্ছে মিরাট গ্রাম। মিরাট গ্রামে ১৮৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত মিরাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আর এক পাশে ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত মিরাট উচ্চ বিদ্যালয়। এই দুই বিদ্যালয়ের যাতায়াতের জন্য মাঝে রয়েছে একটি রাস্তা। যে রাস্তাদিয়ে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী সহ গ্রামবাসীরা প্রতিনিয়তই চলাচল করেন। কিন্তু দীঘদিন যাবত ঢালাই করা রাস্তাটি ভেঙ্গে পুকুর-গর্ভে বিলীন হলেও তা মেরামত করার প্রতি দৃষ্টি নেই কর্তৃপক্ষের।

স্থানীয় বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম বলেন, রাস্তাটি নির্মাণ করার ৪ মাস পর যদি ভেঙ্গে যায় তাহলে কি পরিমাণ নিম্ম মানের কাজ করা হয়েছিলো তা বোঝা যায়। প্রতিদিনই শিক্ষার্থীসহ শত শত গ্রামের বাসিন্দাদের চরম ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে পায়ে হেটে যাওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। এতে করে প্রতিনিয়তই চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

মিরাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমতাজ উদ্দিন বলেন, আনুমানিক দেড়বছর আগে এই রাস্তাটি তৈরি করে উপজেলা এলজিইডি বিভাগ। পুকুরপাড়ে পালাসাইড না দিয়ে শুধুমাত্র কয়েকটি পিলারের সঙ্গে ইটের গাঁথুনির উপর ঢালাই দিয়ে নির্মাণ করা হয় জনগুরুত্বপূর্ন এই রাস্তাটি। নির্মাণের প্রায় ৪মাস পরই ইটের গাঁথুনি আর পিলার পুকুরগর্ভে ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে রাস্তাটির ৪ ভাগের ৩ ভাগই ভেঙ্গে পুকুরগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। সামান্য একটু অংশের উপর দিয়ে প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। শুষ্ক মৌসুমে কোনমতে চলাচল করা গেলেও বর্ষা মৌসুমে চলাচল করতে গেলেই পা পিছলে পুকুরের মধ্যে পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। ইতিমধ্যেই স্কুলে চলাচল করার সময় শিশুসহ অনেক শিক্ষার্থী মনের অজান্তে পুকুরে পড়ে ঘটেছে দুর্ঘটনা। তাই অতিদ্রুত দীর্ঘস্থায়ীভাবে এই রাস্তাটি মেরামত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। 

উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ ইসমাইল হোসেন বলেন, আমি এই উপজেলাতে নতুন। সরেজমিনে পরিদর্শন করে দ্রুত এই রাস্তাটিকে মেরামত কিংবা সংস্কার করার পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।


আরও খবর



মেট্রোরেল ব্যবহারে যত্নবান হওয়ার আহবান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

মেট্রোরেল ব্যবহারে আরও যত্নবান হওয়ার আহবান জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেই মেট্রোরেল নির্মাণ করা হয়েছে। তাই এর প্রতি সবাইকে যত্নশীল হতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে, মন্ত্রিসভা বৈঠকে এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা। সভার শুরুতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নানাভাবে বাধা দেয়া হয়েছে, ষড়যন্ত্র হয়েছে। মেট্রোরেলের ক্ষেত্রেও নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত কোন বাধাই টিকতে পারেনি। প্রধানমন্ত্রী জানান, তার পরিকল্পনাতেই মেট্রোরেলের লাইন মতিঝিলের পরিবর্তে কমলাপুর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।


আরও খবর