Logo
শিরোনাম

ফরিদপুরে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ

প্রকাশিত:Saturday ১২ November ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

বিএনপির লাগাতার কর্মসূচির অংশ হিসাবে, আজ ফরিদপুরের আব্দুল আজিজ ইনস্টিটিউশন মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিভাগীয় গণসমাবেশ।

এরই মধ্যে গণসমাবেশের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে বিএনপি। এ সমাবেশে যোগ দিতে এর মধ্যেই দলের কেন্দ্রীয় নেতারা ফরিদপুরে এসেছেন। সব বাধা উপেক্ষা করে সমাবেশে যোগ দিতে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসছেন নেতা-কর্মীরা। তবে জেলায় পরিবহন ধর্মঘট চলায়, নেতা-কর্মীদের ফরিদপুর আসতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। সমাবেশকে বানচাল করতেই এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে বলে দাবি করেন তারা। তবে সব বাধা উপেক্ষা করে একটি বড় জনসমাগম ঘটবে বলেই আশা করছেন তারা। 


আরও খবর



নওগাঁয় ৪০ গ্রামের হাজারো মানুষের ভরসা খেয়াঘাটের নৌকা

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :

নওগাঁর রাণীনগর ও বগুড়ার আদমদীঘি এ দুই উপজেলার সীমানায় অবস্থিত শত বছরের ঐতিহাসিক রক্তদহ বিল। এ বিলের আশেপাশে ৪০টি গ্রামে মানুষের বসবাস। এ ৪০ টি গ্রামের মানুষদের চলাচলের একমাত্র ভরসা মেঠোপথের শেষে খেয়াঘাট এর নৌকা। বিলে পানি যতদিন থাকে ততদিন নৌকায় পারাপার আর যখন পানি থাকে না তখন প্রয়োজনীয় কর্ম সমাধান করতে ৪০/ ৫০কিমি রাস্তা ঘুরে নওগাঁ, বগুড়া, রাণীনগর, আদমদীঘিতে যেতে হয়। এতে করে বছরের পর বছর চরম দুর্ভোগের শিকারের মধ্যদিয়ে জীবন-যাপন করে আসছে ঐ এলাকার লক্ষাধিক মানুষ। কৃষকরা নায্যমূল্য পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে যুগের পর যুগ। খেয়াঘাটে একটি ব্রিজ জোটেনি যার ফলে আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থার সুফল থেকেও বঞ্চিত এই কৃষি প্রধান অঞ্চলটি।

এলাকার বোদলা গ্রামের বাসিন্দা সাইদুর রহমান মুহরী জানান, কথিত আছে ব্রিটিশ বাহিনীর সঙ্গে এই অঞ্চলে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ হয় ফকির মজনু শাহর বাহিনীর সঙ্গে। এই বিলের মধ্যদিয়ে যুদ্ধে নিহত উভয় বাহিনীর সৈন্যের রক্ত একদিয়ে আরেক দিকদিয়ে পানি বয়ে যায় তখন থেকে এই বিলটি রক্তদহ বিল হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠে মানুষের কাছে। মাধ্যমিক পর্যায়ের একাধিক পাঠ্যবইয়েও এই বিলের ইতিহাস লিপিবদ্ধ আছে। কয়েক হাজার বিঘা জমি নিয়ে এই বিল অবস্থিত। বিলের পূর্বপাশে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কৃষি প্রধান অঞ্চল বোদলা, পালশা, কৃষ্ণপুর, তেবাড়িয়াসহ ৪০টি গ্রাম অবস্থিত। এই মানুষদের সহজেই নওগাঁ, বগুড়া, রাণীনগর, আদমদীঘি, সান্তাহারে চলাচলের সহজ পথ হচ্ছে বিলের মধ্যদিয়ে রাস্তা। বিলের মধ্য একটি ব্রিজ না হওয়ার কারণে মেঠোপথ দিয়েই খেয়াঘাটে পারাপার হতে হয় এলাকার মানুষদের। পারাপারের জন্য খেয়াঘাটে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয় নৌকার জন্য।

এই অঞ্চলের মানুষ কোথাও যেতে চাইলে বাড়ি বা বাসা থেকে নির্ধারিত সময়ের থেকে দুই থেকে তিন ঘন্টা সময় হাতে বেশি নিয়ে বের হতে হয়। একটি ব্রিজের অভাবে এখনোও এই অঞ্চলের মানুষদের প্রাচীন যুগে বসবাস করতে হচ্ছে। দিনের বেলায় ঘাটে এসে নৌকা পাওয়া গেলেও রাতের বেলায় ৪০/ ৫০কিমি রাস্তা ঘুরে এই অঞ্চলের মানুষদের নিজের বাড়িতে ফিরতে হয়। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাতে হয় শিক্ষার্থী ও জরুরী রোগীদের। অনেক প্রসুতিদের হাসপাতালে নেয়ার পথে এই খেয়াঘাটে এসেই প্রসব হয়ে যায়। অনেক জটিলতা শেষে ২০১৯ ইং সালে এই ঘাটে একটি ব্রিজ নির্মাণের প্রস্তাব একনেকে অনুমোদন পেলেও পরবর্তিতে সেই কার্যক্রম রহস্যজনক কারণে আর আলোর মুখ দেখেনি। সহজেই নিজেদের উৎপাদিত ফসল বাজারজাত করতে না পারার কারণে নায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে এই অঞ্চলের হাজারো কৃষক। দ্রুত এই ঘাটে একটি ব্রিজ নির্মাণ বর্তমানে সময়ের দাবী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

নওগাঁ এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ বলেন, আমার জানা মতে ব্রিজ নির্মাণের সকল প্রক্রিয়া প্রায় শেষের দিকে। সকল বিভাগীয় প্রক্রিয়া শেষে অর্থ বরাদ্দ পেলেই ব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে। আমি আশাবাদি অতিদ্রুতই এই অঞ্চলের মানুষদের শত বছরের স্বপ্নের ব্রিজ নির্মাণের সুখবর দ্রুতই পাওয়া যাবে।

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, চীনের হুয়াংহু নদীর মতো এই রক্তদহ বিলও এই অঞ্চলের মানুষের জন্য একটি দুঃখ। এই ঘাটে একটি ব্রিজ এই অঞ্চলটিকে আমুল বদলে দিতে পারে। আমিও সংশ্লিষ্ট বিভাগকে একাধিকবার ব্রিজ নির্মাণের জন্য যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য তাগাদা দিয়েছি। আমি আশাবাদি জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ছোঁয়া হিসেবে এই ঘাটে দ্রুত একটি আধুনিকমানের ব্রিজ নির্মাণের সুখবর পাওয়া যাবে।


আরও খবর



ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় নিহত শতাধিক

প্রকাশিত:Monday ০৬ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

তুরস্ক এবং সিরিয়ায় সাত দশমিক আট মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে ১১৮ জন নিহত হয়েছে। তুর্কি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা জানায়, দেশটিতে নিহত হয়েছে ৭৬ জন। আহত ৪৪০ জন।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানায়, দেশটিতে নিহত হয়েছে ৪২ জন। আহত হয়েছে দুই শতাধিক। ধসে গেছে বহু আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবন। আটকে পড়েছে অনেকে। একই ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে লেবানন এবং সাইপ্রাসে। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, ভোর চারটায় তুরস্কের কাহরামানমারাস প্রদেশের পাজারসিক জেলায় ভুমিকম্প আঘাত হানে। ভুকম্পনের উৎপত্তি ১৭ দশমিক নয় কিলোমিটার গভীরে। ৪৫ সেকেন্ডের মতো ভূকম্পন স্থায়ী হয় বলে জানায় বিবিসি। ১৫ মিনিট পর তুরস্কের গাজিয়ানটেপে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার দ্বিতীয় ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। ১৯৯৯ সালে দেশটির উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে শক্তিশালী ভূমিকম্পে ১৭ হাজার মানুষ নিহত হয়। 


আরও খবর



২০ বছর পর খুলনা যুবলীগের সম্মেলন

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

বিশ বছর পর ২৪ শে জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হচ্ছে খুলনা জেলা ও মহানগর যুবলীগের সম্মেলন। এর আগে ২০০৩ সালে জেলা ও মহানগর যুবলীগের সম্মেলন হয়েছিল।

মঙ্গলবার শিববাড়ী মোড়ে অনুষ্ঠিত হবে জেলা ও মহানগর যুবলীগের সম্মেলন। সম্মেলন ঘিরে সংগঠনের স্থানীয় নেতারা প্রস্তুতি শেষ করেছে। পোস্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে খুলনা শহর। এই কাউন্সিলের পর মহানগর ও জেলায় নতুন নেতৃত্ব আসবে। ২০০৩ সাল থেকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রয়েছেন কামরুজ্জামান জামাল এবং সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান বাবু। মহানগরীর দায়িত্বে আছেন আনিসুর রহমান ও আলী আকবর টিপু। পরে ২০১৯ সালে মহানগর যুবলীগের কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন আহবায়ক কমিটি করা হয়।


আরও খবর



মৃত্যুর পরও অমর সারাহ ইসলাম

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Sunday ০৫ February ২০২৩ |
Image
রোকসানা মনোয়ার :সারাহ ইসলাম, বয়স মাত্র ২০। দশ মাস বয়সে তার ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। মেয়েকে সুস্থ করে তুলতে দীর্ঘ ১৯ বছর সংগ্রাম করেছেন তার বাবা মা। দেশে বিদেশে নানা রকম চিকিৎসাতেও কোন কাজ হয়নি। ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন; সদ্য জীবন শুরু করা ফুটফুটে এই মেয়েটি। বাবা মাকে সারাহ অনুরোধ করেছিলেন; মৃত্যুর পর তার দেহটি যাতে মানুষের কল্যানে দান করা হয়।
বুধবার রাত ১০টায় সারাহ মারা যান। তার দুটি কিডনী ও চোখের দুটি কর্নিয়া সরিয়ে নিয়ে প্রায় সাথে সাথেই চারজন মানুষের দেহে প্রতিস্থাপন করেন ডাক্তাররা। রাত ১০টা থেকে টানা ভোর পর্যন্ত চলেছে এই অস্ত্রপচার। চারজন রোগীই সুস্থ আছেন। এটি হয়তো দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার এগিয়ে যাওয়ার চিত্র। কিন্তু আমি বিস্মিত অন্য কারনে।
মৃত্যুর মতো একটি কঠিন সত্যকে মেনে নিয়ে; এমন আত্মত্যাগের জীবন গড়তে কে তোমাকে শেখালো মা ? এই সার্থপর সমাজ, চারপাশে লোভের-লাভের এতো এতো প্রতিযোগিতা; এই নষ্ট সময়ে তুমি এক তরতাজা ফুল।
স্যালুট তোমাকে মা। স্যালুট তোমার মতো বীরকন্যার জন্মদাত্রী মাকেও। যে কিনা এমন একটা পবিত্র সৌরভের জন্ম দিয়েছে।

মৃত্যুতেও অমর একজন সারাহ ইসলাম । দূরারোগ্য রোগের সাথে লড়াই করে নিজে হার মানলেও, কিডনি ও কর্নিয়া দান করে নতুন জীবন দিয়েছেন চারজনকে। সারাহর অঙ্গ নেয়া চার রোগীই এখন সুস্থ আছেন। সাহসিকা সারাহর গল্প জানালেন তার মা ।

পাঁচ বছর যাবত বোনের চিকিৎসা খরচ জোগাতে গিয়ে যখন প্রায় নি:স্ব শাহাজাদা আহমেদের পরিবার তখন সারাহ ইসলাম এসেছেন জীবনের বাক বদলকারী হিসেবে। শাহাজাদা ফিরে পেয়েছেন তার বোনকে আর দশ বছরের ছোট্ট সন্তানের কাছে তার মাকে ফিরিয়ে দিয়েছে সারাহর দান করা কিডনী।

বলছি সেই ২০ বছরের সারাহর কথা। মাত্র দশ মাস বয়স থেকেই লড়েছেন টিউবেরাস স্কেলোসিসের মত দুরারোগ্য ব্যাধির সাথে।এবার ব্রেনে বাঁধা বেসেছিলো টিউমার। হয়তো বুঝতে পরেছিলেন লড়াইয়ে এবার ফিরে নাও আসতে পারেন। মৃত্যুর পরও নিজেকে বিলিয়ে বাঁচতে চেয়েছেন সারাহ। মস্তিস্ক যখন আর সারা দিচ্ছিলো না তখন সারাহর দুই কিডনী আর চোখের কর্ণিয়া নতুন করে বাঁচার আশা যুগিয়েছে চার চারটা মানুষকে।

বড় আঁকিয়ে হবেন একদিন, এমন স্বপ্ন ছিলো সারাহর চোখে। জীবন তাকে সেই সময়টুকু না দিলেও মৃত্যুতেও থমকে যাননি সারাহ! এমন সাহসী আর মানবিক মেয়েই তো চেয়েছিলেন মা শবনম।

বিখ্যাত কেউ নন কিন্তু তারপরও এমন সিলিউট থেকে সারাহ ইসলামকে চিনে নিতে আর কষ্ট হয় না। তার এই দেখিয়ে যাওয়া পথে যেদিন এমন আরও অনেক মৃত্যুঞ্জয়ের কাহিনীযুক্ত হবে সেই দিনের অপেক্ষায় সারাহর পরিবার।




আরও খবর



ত্বক উজ্জ্বল করার ঘরোয়া উপায়

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

উজ্জ্বল ও নরম ত্বকের জন্য ঘরে তৈরি ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন নিয়মিত। প্রাকৃতিক উপাদানের তৈরি প্যাক ব্যবহারের নেই কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। এছাড়া নির্দিষ্ট কিছু যত্ন সম্পর্কেও থাকতে হবে সচেতন। জেনে নিন উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কোন কোন প্যাক ব্যবহার করবেন।

১। টমেটো থেঁতো করে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মেশান। ১ চা চামচ টক দই মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে ত্বকে লাগান। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

২। সমপরিমাণ বেসন ও হলুদের গুঁড়ার সঙ্গে প্রয়োজন মতো টক দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট ত্বকে লাগিয়ে রাখুন না শুকানো পর্যন্ত।

৩। আধা কাপ পাকা পেঁপে চটকে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

৪। ১ টেবিল চামচ বেসনের সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া ও পরিমাণ মতো দুধ মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন। প্যাকটি ত্বকে ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৫। ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল, আধা চা চামচ লেবুর রস ও ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৬। মুলতানি মাটির সঙ্গে পরিমাণ মতো টমেটোর রস মিশিয়ে বানিয়ে ফেলুন প্যাক। এটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন না শুকানো পর্যন্ত।

ঘরোয়া যত্নে যেভাবে পাবেন উজ্জ্বল ত্বক

ত্বক পরিষ্কার করুন মাইল্ড ক্লিনজার দিয়ে।

ম্যাসাজ ক্রিমের সাহায্যে ত্বক ম্যাসাজ করুন নিয়মিত।

ত্বক ধোয়ার পর মুছে ভেজা ভাব থাকতে থাকতেই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

ত্বক ভালো রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করবেন ও সবুজ শাকসবজি রাখবেন খাদ্য তালিকায়।


আরও খবর