Logo
শিরোনাম
রুশ সেনাদের হাতে বন্দি

ইউক্রেনীয় নারীদের আনেকেই অন্তঃসত্ত্বা

প্রকাশিত:Friday ০২ December 2০২2 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

এবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে ইউক্রেন। রুশ সেনার হাতে বন্দি বহু ইউক্রেনীয় নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন।এ পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের ‘ফার্স্টলেডি’ ওলেনা জেলেনস্কা দাবি করেছেন, ইউক্রেনীয় নারীদের ধর্ষণ করতে রুশ সেনাদের স্ত্রীরাই উৎসাহিত করছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম স্কাই নিউজের খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি লন্ডনে একটি আন্তর্জাতিক সেমিনারে বক্তব্য রাখেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির স্ত্রী ওলেনা জেলেনস্কা। ওই সেমিনারে আলোচ্য বিষয় ছিল ‘যুদ্ধের হাতিয়ার ধর্ষণ’।

আলোচনায় ইউক্রেনে রুশ হামলার প্রসঙ্গ টেনে ৪৪ বছরের ওলেনা বলেন, কারও ওপর ক্ষমতা প্রদর্শনের সবচেয়ে বর্বর ও খারাপ পন্থা হচ্ছে ধর্ষণ। যুদ্ধের সময় যারা এ ধরনের হামলার শিকার হন, তারা নিরাপত্তার খাতিরেই মুখ খোলেন না।

রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ এনে তিনি আরও বলেন, রুশ বাহিনী ইউক্রেনীয় মেয়েদের ধর্ষণ করতে বলছেন তাদের স্ত্রীরাই। যুদ্ধের হাতিয়ার হিসেবে ধর্ষণকে ব্যবহার করছে তারা। আর এ নিয়ে কোনো রাখঢাকও করছেন না রাশিয়ার সেনারা।


আরও খবর



মুন্সীগঞ্জে শ্রীনগরে ঐতিহ্যবাহী পুকুর রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শ্রীনগর সংবাদদাতা :

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের ভাগ্যকুল ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের পূর্ব কামারগাও বাবুর বাড়ীর পুকুরটি  ভূমি দস্যুরা ভরাট করার চেষ্টা করছে।আর এ পুকুরটি রক্ষার দাবীতে শনিবার সকাল ১১ টায় মানববন্ধন করে এলাকাবাসী। এতে এলাকার শতাদিক নারী পুরুষ অংশ গ্রহন করে। এ সময়ে বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য পারভেজ কবির ,ইউনিয়নটির সাবেক চেয়ারম্যান একুল খান,ইউনিয়ন আ"লীগের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন মিটুলসহ আরো অনেকেই। বক্তারা পুকুরটি রক্ষার জন্য স্থানীয় প্রশাষনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।


আরও খবর



চাকু ও খেলনা পিস্তল সহ কিশোর গ্যাংকের ৩ সদস্য আটক

প্রকাশিত:Saturday ২৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

ধারালো টিপ চাকু, প্লাস্টিকের খেলনা পিস্তল ও গাঁজার পুরিয়া উদ্ধার, কিশোর গ্যাংকের লিডার সহ ৩ জন সদস্য কে আটক করেছে র‌্যাব।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদক কে জানানো হয়,

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকশ অপারেশনাল দল কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা এর নের্তৃত্বে শুক্রবার দিনগত রাত পনে ৯ টারদিকে জয়পুরহাট জেলার সদর থানাধীন পৃথিবী কমপ্লেক্স এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কিশোর গ্যাংয়ের লিডার বগুড়া জেলা সদরের নিশিনদারা মধ্যপাড়া-এপি সং-প্রফেসরপাড়া, থানা ও জেলা-জয়পুরহাট এর জৈনক

 নওশাদ আলীর ছেলে মোঃ সাঈদ নাঈম (২৪) সহ তার দু' সহযোগী জয়পুরহাট জেলা সদর উপজেলার গুলশানমোড় এলাকার কোরবান আলীর ছেলে মোঃ কারিমুল ইসলাম (২৩) ও শান্তিনগর এলাকার মৃত আব্দুল ওয়াহেদ সরদারের ছেলে মোঃ নাহিদ হাসান (২৩) কে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। 

র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেফতারকৃত ৩ জন জয়পুরহাট সদর থানা এলাকার উদীয়মান কিশোর সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত। এরা ৫/৭ জনের একটি দল গ্রুপ লিডার সাঈদের নেতৃত্বে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটিয়ে থাকে। তারই ধারাবাহীকতায় ঘটনার সময় তারা প্রায় ৫/৬ জন জয়পুরহাট সদর থানার সামনে পৃথিবী সিনেমা কমপ্লেক্সের ৩য়' তলায় একত্রিত হয়ে ছিনতাইয়ের প্রস্তুুতি নিচ্ছিল। এ সময় জয়পুরহাট র‍্যাব ক্যাম্পের আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে কিশোর সাঈদ গ্যাংয়ের মূলহোতা সাঈদ সহ ৩ জন সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয় র‌্যাব। এসময় র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আরো ২/৩ জন পালিয়ে যায়। তল্লাশীতে তাদের কাছ থেকে একটি প্লাস্টিকের পিস্তল, ধারালো টিপ চাকু, গাঁজার পুরিয়া সহ মাদক সেবন করার অন্যান্য সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব।


আরও খবর



ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধ ইটভাটা ধবংস,২০ লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন(স্টাফ রিপোর্টার) :

আজ ধামরাই উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নের মধুডাঙ্গা এলাকায় মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষে উপজেলা প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে অবৈধ ইট ভাটা বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় সানোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খালেদ মাসুদ খান লাল্টুর মালিকানাধীন মেসার্স খান ব্রিক্স নামক একটি অবৈধ  ইট ভাটা চিমনিসহ গুড়িয়ে দেয়া হয় এবং লাইসেন্স বিহীন ভাটা পরিচালনা করায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে  ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন আইন, ২০১৩ অনুযায়ী ২০ লক্ষ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অভিযানের সহযোগিতায় ছিল ধামরাই থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, পল্লী বিদ্যুৎ এবং বন বিভাগ।  অবৈধ ইট ভাটার বিরুদ্ধে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ধামরাই এর নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়।


আরও খবর



দিনে কমতে পারে শীত, বাড়তে পারে রাতে

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

রোকসানা মনোয়ার :দেশের আকাশ থেকে কুয়াশার চাদর সরে যাচ্ছে। আকাশে সূর্যের দেখা মিলেছে, রোদ উঠতে শুরু করেছে। ফলে ছয় দিন ধরে চলা শীতের কষ্ট কেটে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। 

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, এরই মধ্যে রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত টানা রোদের দেখা পাওয়া গেছে। এতে দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য বেড়ে যেতে পারে। আজ রোদ আরো সকাল সকাল উঠে বেশি সময় স্থায়ী হতে পারে। এতে দিনের বেলা শীতের অনুভূতি কমে আসতে পারে। তবে সন্ধ্যার পর থেকে আবারও শীত বাড়তে পারে। এমনকি দেশের কোথাও কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা আরো কমতে পারে। শৈত্যপ্রবাহের এলাকাও বাড়তে পারে।

এ ব্যাপারে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ বলেন, দেশে সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পার্থক্য কমে আসায় শীতের অনুভূতি বেশি ছিল। রবিবার থেকে রোদ ওঠায় এবং তা বেশি সময় স্থায়ী হওয়ায় দিনের তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে। আগামী দুই থেকে তিন দিন দেশের উত্তরাঞ্চল ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহ থাকবে। তবে দিনের তাপ বাড়বে।

রবিবার টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, সাতক্ষীরা ও কুষ্টিয়া জেলা এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আজও এ অবস্থা অব্যাহত থাকতে পারে। এসব এলাকাসহ সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। তবে রাত থেকে ভোর পর্যন্ত তাপমাত্রা আগের মতোই কম থাকতে পারে। এদিন দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে সাত দশমিক আট ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২ দশমিক তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে, ঘনকুয়াশার কারণে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌরুটে ১০ ঘণ্টা পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




এককভাবে নির্বাচন করতে চায় জাতীয় পার্টি

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে এককভাবে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় পার্টি। এজন্য ঐক্যবদ্ধভাবে দলের নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নেওয়ার নিদের্শ দিয়েছেন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। 

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে চলছিল জাপার সংসদীয় দলের বৈঠক। রওশনের সভাপতিত্বে বৈঠকে বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদেরসহ দলটির ১৮ জন সংসদ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে দলের অভ্যন্তরে গত সাড়ে তিন মাস ধরে চলা বিবাদ ইস্যুতে খোলামেলা আলোচনা করেছেন সবাই। আলোচনা শেষে ‘অনৈক্য, ভুল বোঝাবুঝি ও মান-অভিমান’ ভুলে দলে ঐক্য ধরে রেখে এককভাবে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে প্রস্তুতি গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়েছে। দলে কয়েক দফা বিবাদের পর গতকালই প্রথমবারের মতো রওশনের ডাকে সাড়া দিয়ে সংসদীয় দলের বৈঠকে যান জিএম কাদেরসহ দলটির এমপিরা। রওশন নিজের স্বাক্ষরে চিঠি দিয়ে সবাইকে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বলে জানান জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।

সংসদীয় দলের বৈঠক শেষে রওশন এরশাদ বলেন, ‘সবাইকে এক থাকতে বলেছি। ঐক্যবদ্ধ থেকে সবাইকে কাজ করতে বলেছি। আগামী নির্বাচনে আমরা এককভাবেই অংশ নিব, সেভাবে সবাইকে এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে বলেছি। সংসদেও সবাই যেন উপস্থিত থেকে গঠনমূলক আলোচনা করেন, রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আলোচনায় গঠনমূলক কথা বলেন- সেই নির্দেশনা দিয়েছি।

বৈঠক শেষে জিএম কাদের বলেন, যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়েছিল সেটি কেটে গেছে। আজকের বৈঠকেও কয়েক দফায় কথা বলার আগে কী বলবেন, সেবিষয়ে কানে-কানে উনি আমার মতামত জানতে চেয়েছেন। এর আগে ব্যক্তিগতভাবেও উনি আমাকে বলেছিলেন- তুমি দল চালাও, আমার দিক থেকে কোনো সমস্যা নেই। আসলে যে ঘটনাগুলো ঘটেছে সেগুলো উনি যে নিজ বিবেচনায় করেছেন সেটি আমার মনে হয়নি। যাক, বৈঠকে সবাই দলের ঐক্যের উপরই জোর দিয়েছেন।

তবে এই বৈঠকে রওশনপুত্র সাদ এরশাদ এমপি উপস্থিত ছিলেন না। দলের দুই কো-চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ ও সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা জানান, বৈঠকে তারা সবাই একদম খোলামেলা কথা বলেছেন। কার কী ভুল ছিল, কেন দলে বিবাদ- এনিয়ে তারাও সরাসরি কথা বলেছেন, দেশের চলমান রাজনৈতিক বাস্তবতার নিরিখে জাপার পথচলার ওপর তারা গুরুত্ব দিয়েছেন। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম এমপি বলেন, ‘বৈঠকের মূল সিদ্ধান্ত হল- সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকবো।

জিএম কাদেরের কাছে ক্ষমা চাইলেন রাঙ্গা : বৈঠক শেষে সবাই অধিবেশনে যোগ দেওয়ার কিছুক্ষণ পর জিএম কাদের, ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলাসহ দলের কয়েকজন এমপি বেরিয়ে আসেন। এসময় তাদের সঙ্গে বেরিয়ে আসেন দল থেকে বহিষ্কৃত ও সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গাও। পরে তারা সবাই বিরোধীদলীয় উপনেতার (জিএম কাদের) কার্যালয়ে যান। কয়েক মিনিট পর জিএম কাদেরের কক্ষ থেকে বেরিয়ে জাপার এমপি অধ্যাপিকা রওশন আরা মান্নান জানান, ভেতরে জিএম কাদেরের কাছে রাঙ্গা ক্ষমা চেয়েছেন। 

এ দিকে চেয়ারম্যান হিসেবে দল পরিচালনা এবং দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণে জিএম কাদেরের ওপর আদালতের ‘অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা’ বহালই থাকলো। ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ মাসুদুল হক নিষেধাজ্ঞা খারিজের আবেদন নাকচ করেছিলেন আগেই। সেই আবেদন খারিজের বিরুদ্ধে জেলা জজ আদালতে জিএম কাদের যেই মিস আপিল করেছিলেন, সেটিও বৃহস্পতিবার খারিজ হয়ে গেছে। ফলে, জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা বহাল থেকে গেল।


আরও খবর