Logo
শিরোনাম

জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সনদ গৃহীত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের তৃতীয় কমিটিতে 'মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানবাধিকার পরিস্থিতি' শীর্ষক রেজুলেশন বা সনদটি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন এসব তথ্য জানিয়েছে। এবারের সনদটি উত্থাপন করে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন-ওআইসি ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন-ইইউ। সনদে রোহিঙ্গা ও অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এতে বাংলাদেশের প্রতি সংহতি ও মানবিক প্রচেষ্টার স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। এছাড়া রোহিঙ্গাদের ওপর মানবাধিকার লঙ্ঘনের ন্যায়বিচার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে আইসিসি, আইআইএমএম ও অন্যান্য সংস্থাকে বাংলাদেশের সহযোগিতার প্রশংসা করা হয়েছে। ১০৯টি দেশ এতে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে। 


আরও খবর



গাজায় নিহতের সংখ্যা ছাড়াল ১৫ হাজার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি দখলদারদের অভিযানে নিহতের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়িয়েছে। এ ছাড়া এখনও নিখোঁজ রয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। গাজার সরকারি মিডিয়া অফিস এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর আনাদোলু এজেন্সির।

মিডিয়া অফিস জানিয়েছে, ১৫ হাজার নিহত ছাড়াও গাজায় এখনও নিখোঁজ রয়েছে কয়েক হাজার মানুষ। নিহতদের মধ্যে ৬ হাজার ১৫০ শিশু এবং ৪ হাজার নারী রয়েছেন। এ ছাড়াও এখনও অগণিত মরদেহ গাজার রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে।

বিবৃতিতে জানানো হয়, গাজায় এখনও অন্তত ৭ হাজার মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা ৪ হাজার ৭শ জনের বেশি। এ ছাড়াও আহত হয়েছেন ৩৬ হাজারেরও বেশি মানুষ, যার মধ্যে ৭৫ শতাংশই নারী ও শিশু।

মিডিয়া অফিস আরও জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ২০৭ চিকিৎসাকর্মী, ৭০ সাংবাদিক ও ২৬ বেসামরিক প্রতিরক্ষা উদ্ধারকারী দলের সদস্য রয়েছেন।

এ ছাড়াও এখন পর্যন্ত ৫০ হাজারেরও বেশি বাড়িঘর পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে। আর নষ্ট হয়ে গেছে ২ লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি অবকাঠামো। আর এ পর্যন্ত ৮৮টি মসজিদ পুরাপুরি ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে, আর আংশিক ধ্বংস হয়েছে ১৭৪টি মসজিদ। অন্যদিকে তিনটি গির্জায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি সেনারা।

এদিকে গত ৭ অক্টোবর হামাসের হামলায় ইসরাইলে ১২শ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকারি কর্মকর্তারা।

ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী সংগঠন হামাস ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের নজিরবিহীন হামলা চালায়। জবাবে ওই দিনই গাজায় পাল্টা হামলা শুরু করে ইসরায়েল। এর মধ্যে জেরুজালেমসহ ফিলিস্তিনের কয়েকটি জায়গায় আশ্রয়শিবিরে অভিযান চালিয়েছে ইসরায়েলি সেনারা।

কাতার ও মিশরের মধ্যস্থতায় হামাস-ইসরায়েল সংঘাত শুরুর ৪৮ দিন পর গত শুক্রবার থেকে যুদ্ধবিরতি শুরু হয়। চুক্তি অনুযায়ী, যুদ্ধবিরতির এ চারদিনে হামাস ৫০ জন ইসরাইলি জিম্মিকে মুক্তি দেবে; বিনিময়ে ইসরায়েল তাদের কারাগারে বন্দি ১৫০ ফিলিস্তিনিকে ছেড়ে দেবে এবং গাজায় ত্রাণবাহী ২শ ট্রাকের পাশাপাশি ১ লাখ ৪০ হাজার লিটার জ্বালানি ও গ্যাসভর্তি অন্তত চারটি লরি প্রবেশের অনুমোদন দেবে।

সোমবার ছিল চার দিনের এ যুদ্ধবিরতির শেষ দিন। এদিন হামাস ও ইসরায়েল সরকারের সম্মতিতে যুদ্ধবিরতির মেয়াদ আরও দুদিন বাড়ানো হয়েছে।

 


আরও খবর



CMOS(সিমোস) কি?এবং এর কাজের বর্ননা

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

আমরা সাধারনত ল্যাপটপ, কম্পিউটার খোললে মাদারবোর্ডের সাথে একটি ছোট ব্যাটারি দেখতে পাই ,এই ব্যাটারি কে সিমোস  ব্যাটারি বলা হয়। CMOS (Complementary Metal Oxide Semiconductor). এই ব্যাটারি ভুমিকা অপরসীম ।ল্যাপটপ /কম্পিউটার এর বায়োস  ডাটা  সংরক্ষিত এবং সচল রাখতে সাহায্য করে। অনেক সময় আমাদের কম্পিউটার উইন্ডোজ এ বায়োস সমস্যা হলে ,এই ব্যাটারিকে সর্ট করে বায়োস কে সচল করা হয়।এই ব্যাটারি নষ্ট হলে আমাদের কম্পিউটার এ যে সমস্যা গুলা হয় তারমধ্যে অন্যতম হচ্ছে কম্পিউটার এর সময় /ঘড়ি সচল থাকেনা এবং স্থিতি রেম এর ডাটা সংরক্ষন করতে পারেনা ।

 কাউসার আহমেদ মাসুম 

বি এস সি (কম্পিউটার বিজ্ঞান এবং প্রকৌশলী),এম ,এস,সি ,পি ,এম ,আই,টি(জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়)

সহকারি আইটি সাপোর্ট,নন্দন পার্ক লিমিটেড


আরও খবর

বিল বাকি থাকায় ইন্টারনেটের গতি ধীর

শুক্রবার ২৪ নভেম্বর ২০২৩




বায়ুদূষণ মারাত্মক রূপ নিচ্ছে ঢাকায়

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় ২৫ নভেম্বর সকালে ঢাকার অবস্থান দ্বিতীয়। সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর ২৫১ নিয়ে রাজধানীর বাতাসের মান খুব অস্বাস্থ্যকর।

১০১ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে থাকা একিউআই স্কোরকে খুব অস্বাস্থ্যকর বলা হয়। আর ৩০১ থেকে ৪০০ এর এর মধ্যে থাকা একিউআইকে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

ভারতের দিল্লি ও কলকাতা যথাক্রমে ৩০৩ ও ২৩৮ একিউআই স্কোর নিয়ে প্রথম ও তৃতীয় স্থানে আছে।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের ৫টি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে, সেগুলো হলো বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ এবং ওজোন (ও৩)।

দীর্ঘদিন ধরে বায়ুদূষণে ভুগছে ঢাকা। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

একই সময়ে সবচেয়ে নির্মল বায়ুর শহরের তালিকায় শীর্ষ তিনে রয়েছে ইতালির মিলানো, জাপানের নাগোয়া ও অস্ট্রেলিয়ার সিডনি। এর মধ্যে সকালে মিলানো ও নাগোয়ার স্কোর ছিল ৪। আর সিডনির স্কোর ছিল ১০।


আরও খবর

অবরোধেও রাজধানীতে গাড়ির চাপ

বুধবার ২৯ নভেম্বর ২০২৩




খুলনা-৪ আসনে আলোচনার শীর্ষে প্রকৌশলী মুনির আহমেদ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর 20২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে নতুন মুখ হয়েও আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান প্রকৌশলী শেখ মুনির আহমেদ।

 এলাকাবাসী জানায়, প্রচারবিমুখ এই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নীরবে সমাজসেবা করে যাচ্ছেন দীর্ঘ দিন ধরে। প্রকৌশলী  শেখ মুনির আহমেদ খুলনা প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় থেকে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং (যান্ত্রিক ) এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। দিঘলিয়া উপজেলার  সেনহাটীর  একটি ঐতিহ্যবাহী বনেদী পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে শেখ মুনির আহমেদের পরিবারের রয়েছে ব্যাপক ভূমিকা। তাঁর পিতা মরহুম শেখ নজির আহমেদ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তিনি সক্রিয়ভাবে মুক্তিযুদ্ধে শুধু অংশগ্রহণই করেননি,  একজন সংগঠকও ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে ইন্ডিয়ান সৈন্যদের একটি ঘাঁটি ছিলো তাঁদের বাড়িতে। তৎকালীন দৌলতপুর থানার দেবনগর ক্যাম্পটি বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শেখ নজির আহমেদের বাড়িতে ছিলো। তিনি ১৬ ডিসেম্বর মিত্রশক্তির মেজর সিধুর আহ্বান বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। প্রকৌশলী শেখ মুনির আহমেদের পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নজির আহমেদ আমৃত্যু সক্রিয়ভাবে আওয়ামী লীগের  সাথে জড়িত ছিলেন । তিনি  খুলান জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক শ্রম সম্পাদক, দৌলতপুর থানার সাধারণ সম্পাদক ও দিঘলিয়া থানা আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সাবেক সভাপতি ছিলেন। রাজনীতি করতে যেয়ে তিনি ১৯৭৬- ১৯৮০ সাল পর্যন্ত কারা ভোগ করেন। শেখ মুনির আহমেদ জন্মগতভাবে বাংলদেশ আওয়ামী লীগের সাথে জড়িত। তিনি খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট, ড. এম এ রশীদ হল শাখা, কুয়েট এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কুয়েট শাখার সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট, কুয়েট এ্যলাইমনাই এ্যসোসিয়েশন এর মেম্বার  ট্রাষ্টিবোর্ড, আইইবি ঢাকা সেন্টারের কাউন্সিল মেম্বার, আইইবিএর ওয়েলফেয়ার কমিটির মেম্বার  সার্ভিস (২০২০-২২ ও ২০২৩-২৫), বীর মুক্তিযোদ্ধ শেখ নজির আহমেদ ওয়েলফেয়ার ফাউÐেশনের সভাপতি ও ঐতিহ্যবাহী আলহাজ¦ সারোয়ার খান কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি। এছাড়াও তিনি বহু সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত। তিনি ২০০২ সালের পর এলজিইডি থেকে চাকুরীচ্যুৎ হন। এসময় তিনি আওয়ামীলীগ সভানেত্রী  ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মুক্তকরার আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। একজন মার্জিত, উচ্চশিক্ষত, নিরহংকারী, মানবিক,  তরুণ ব্যক্তিত্ব, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এবং মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হওয়ায় বর্তমানে তিনি আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন। খুলনা-৪ আসনে সুষম ও টেকসই  উন্নয়ন, সরকারি অর্থের যথযথ ব্যবহার নিশ্চত করণসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নতদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে, স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সংসদ সদস্য হিসেবে  প্রকৌশলী শেখ মুনির আহমেদের বিকল্প নেই বলে এলাকাবাসী মন্তব্য করেছেন।


আরও খবর

১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করবে না আওয়ামী লীগ

মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩




বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন করতে চাই

প্রকাশিত:রবিবার ১২ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ |

Image

আওয়ামী লীগ বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন করতে চায় জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের শিডিউলের মধ্যে তারা এলে তাদের নিয়েই নির্বাচন হবে।

১২ নভেম্বর সচিবালয়ে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

দেশ কি বিএনপিকে ছাড়া নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে, নাকি আপনারা শেষ পর্যন্ত বিএনপির অংশগ্রহণের জন্য অপেক্ষা করবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা চাই বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। তাদের এত জনপ্রিয়তা তারা বলেন, সেটি যাচাই করুক। তাদের এত উদ্যোগী কর্মী যারা ২০ মিনিটে ময়দান ছেড়ে চলে গেছেন, তারা কতটুকু নামে আমরা একটু দেখি। তাদের এত জাদরেল নেতা, পুলিশের আওয়াজে- কোনো গুলি হয়নি, কোনো টিয়ারগ্যাসও (নিক্ষেপ) হয়নি, ছোটবেলায় যে বড় বাজি ফোটাতাম সেই বাজির আওয়াজ হয়েছে, সেই আওয়াজে মঞ্চ ছেড়ে চলে গেলেন। তারা নির্বাচনে আসুক, এসে দেখুক তাদের কতটুকু জনপ্রিয়তা। কর্মীরা কতটুকু নামে, এই নেতাদের ওপর কতটুকু আস্থা রাখে। আমরা চাই তাদের সঙ্গে নির্বাচন করতে। নির্বাচনের শিডিউলের মধ্যে তারা এলে তাদের নিয়েই নির্বাচন হবে।

যদি তারা না আসে? এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী বলেন, আমি মনে করি দেশে গণতন্ত্রের অভিযাত্রা অব্যাহত রাখার জন্য নির্বাচন হতে হবে। কোনো একটি দল না এলেও আরও অনেক দল তো অংশগ্রহণ করবে। জনগণের ব্যাপক অংশগ্রহণ থাকবে। একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, যেখানে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের প্রতিটি শহর প্রতিটি গ্রাম বদলে যাচ্ছে, অন্যদিকে দেশ ধ্বংসের জন্য পেট্রোলবোমা নিক্ষেপ করা হচ্ছে জনগণের ওপর, জনগণের গাড়ি-ঘোড়ার ওপর এবং তারা কোনো উন্নয়ন দেখতে পায় না।

সবাই মিলে সোচ্চার হয়ে এগুলো বন্ধ করতে হবে বলে মনে করেন মন্ত্রী।

অবরোধ ডেকে আগের দিনই বিএনপি হামলা চালাচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এটি কি কোনো রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি হতে পারে? এগুলোকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বললেও কম বলা হয়।

তারা রাস্তায় নেমে এসে ব্যারিকেড দিক। আমরা অবরোধ দেখেছি, আপনারা পালন করুন। সেটি তো তারা করে না, চোরাগোপ্তা হামলা চালায়। এটি কোনো রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি হতে পারে না। বলেন হাছান মাহমুদ।

বিএনপির আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে জাতিসংঘের বিবৃতির বিষয় দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, হ্যাঁ, তাদের (বিএনপি) আন্দোলন করার অধিকার আছে। সরকারের পদত্যাগ চাওয়ার অধিকার আছে, আমার পদত্যাগ চাওয়ার অধিকার আছে। সেই অধিকার মানে তো গাড়ি-ঘোড়া পোড়ানো নয়। এটিকে কেউ সমর্থন করেনি, করে না। ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের অনেকে তাদের এ কর্মকাণ্ডকে কনডেম করেছে। তারা অনেককে নানাভাবে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছে। তাদের এই কর্মকাণ্ডকে কেউ সমর্থন করে না করতে পারে না।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের বৈঠকের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে হাছান মাহমুদ বলেন, ভারতে যে বৈঠকটি হয়েছে সেটি ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে। সেই বৈঠকের বিষয় একান্তই তাদের। সেখানে কী আলোচনা হয়েছে সেটি পত্রপত্রিকায় এসেছে। ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের নির্বাচন, উন্নয়ন- এটি বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। অবশ্যই ভারত যেটি বলেছে, যথার্থ বলেছে। বাংলাদেশের জনগণের ঠিক করবে নির্বাচনের মাধ্যমে কারা ক্ষমতায় আসবে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়েছে- এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি সরকারের হাতে নেই। খালেদা জিয়ার মুক্তি আইনের হাতে, আদালতের হাতে। সরকার চাইলেই তো মুক্তি দিতে পারবে না। সরকারের কাছে যেটুকু ক্ষমতা ছিল সেটা দিয়ে তার সাজা স্থগিত রেখে তাকে ঘরে থাকার ব্যবস্থা সরকার করে দিয়েছে, বাকিটা আদালতের বিষয়।

বিএনপি নির্বাচন করতে দেবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে- এ বিষয় দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে যাওয়া না যাওয়া সেটি যেকোনো রাজনৈতিক দলের অধিকার আছে। কিন্তু নির্বাচন প্রতিহত করার এখতিয়ার কারো নেই। নির্বাচন প্রতিহতের কথা বলা মানেই দেশবিরোধী ও গণতন্ত্রবিরোধী কথাবার্তা। সুতরাং দেশবিরোধী, গণতন্ত্রবিরোধী বক্তব্য যারা রাখবে কিংবা অপচেষ্টা চালাবে, তাদের বিরুদ্ধে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমরা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলবো। সরকার, জনগণ, রাষ্ট্রের দায়িত্ব হচ্ছে গণতন্ত্রের অভিযাত্রাকে অব্যাহত রাখা। সেজন্য যা কিছু করা প্রয়োজন, সেগুলো করা হবে।

 


আরও খবর

১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করবে না আওয়ামী লীগ

মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩