Logo
শিরোনাম

জটিল রোগের চিকিৎসা দেশেই সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | ১০৬জন দেখেছেন

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকারের নানামুখী চেষ্টায় প্রান্তিক মানুষের দোর গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে গেছে। হৃদরোগ ও জটিল নানা রোগের চিকিৎসা ও পরীক্ষা নিরীক্ষা এখন দেশেই সম্ভব উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য মানুষের বিদেশ মুখী হবার প্রয়োজনীয়তা কমে এসেছে। রাজধানীতে কার্ডিওভাসকুলার আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেয়া ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয় হৃদরোগজনিত কারণে। বাংলাদেশে মোট মৃত্যর প্রায় ৭৩ শতাংশই অসংক্রামক রোগে। যার ৩০ শতাংশের কারন হৃদরোগ।

হৃদরোগের ভয়াবহতা ও চিকিৎসার খুঁটিনাটিঁ নিয়ে সোনারগাঁ হোটেলে আয়োজিত; আন্তর্জাতিক কার্ডিওভাসকুলার সায়েন্টিফিক সম্মেলন ভিডিও বার্তার মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বলেন, হৃদরোগের চিকিৎসায় দেশ এখন স্বয়ংসম্পূর্ণ। সরকারি সব হাসপাতালে এ রোগের উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে। বিশেষায়িত হাসপাতালও নির্মাণ করা হয়েছে।

দেশেই এখন জটিল রোগের চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্ভব উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের নানামুখী পদক্ষেপে স্বাস্থসেবা এখন প্রান্তিক মানুষের কাছে পৌছে গেছে।

সম্মেলনে অংশ নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বললেন, শারীরিক পরিশ্রম না করা ও খাদ্যভাসসহ নানা কারণে এখন সববয়সী মানুষেরই হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ছে।

সম্মেলনে দেশ বিদেশের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকরা অংশ নেন।


আরও খবর



বিএনপি ইসি'র সঙ্গে সংলাপে যাবে না

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপিকে সংলাপের আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন

বর্তমান নির্বাচন কমিশন (ইসি) দায়িত্ব নেওয়ার পর কোনো সংলাপেই যায়নি বিএনপি ও তাদের সমমনা দলগুলো। তবে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে দলটির সঙ্গে আলোচনায় বসতে হাল ছাড়ছেন না প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

বৃহস্পতিবার  দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আলোচনায় বসার আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন তিনি। তবে বিকেলে পাঠানো চিঠি হাতে পেলেও ইসির আমন্ত্রণে সাড়া না দেওয়ার বিষয়ে অনড় বিএনপি।

চিঠি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর রাতে বলেছেন, এ বিষয়ে আমাদের অবস্থান খুবই পরিষ্কার। আমরা নির্বাচন কমিশনে কোনো আলোচনায় যাব না। নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করা অনর্থক।

এর আগে সন্ধ্যার দিকে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান (অব.)। তিনি বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে তাদের দলের অন্যান্য নেতাসহ প্রয়োজনে সমমনা দলগুলোকে ইসির পক্ষ থেকে সিইসি ডিও পত্রের মাধ্যমে আলোচনা ও মতবিনিময়ের জন্য সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

এদিকে সিইসির পাঠানো চিঠিতে আলোচনার জন্য কোনো দিনক্ষণ উল্লেখ করা হয়নি।

ইসি সূত্র জানায়, বিএনপি আলোচনায় আসতে রাজি হলে তাদের সঙ্গে কথা বলে আলোচনার দিনক্ষণ চূড়ান্ত করা হবে। যদিও অনানুষ্ঠানিকভাবে দলটির নেতারা জানিয়ে দিলেন, তারা সংলাপে সাড়া দিচ্ছেন না।

 


আরও খবর



চতুর্থ ধাপে ৪০ হাজার গৃহহীন পাচ্ছেন ঘর

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | ৭৮জন দেখেছেন

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বিভিন্ন উপজেলায় চতুর্থ ধাপে ৩৯ হাজার ৩৬৫টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের কাছে ঘর হস্তান্তর করবেন। এর মধ্য দিয়ে দরিদ্রদের কাছে সরকারের হস্তান্তর করা ঘরের সংখ্যা দাঁড়াবে দুই লাখ ১৫ হাজার ৮২৭। এর আগে প্রথম ধাপে ৬৩ হাজার ৯৯৯, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৩৩০ এবং তৃতীয় ধাপে ৫৯ হাজার ১৩৩টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে সব উপজেলায় একযোগে ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষের কাছে এসব ঘর হস্তান্তর করবেন। এরমধ্যে তিনি সরাসরি তিনটি উপজেলায় উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। উপজেলা তিনটি হলো গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্প, সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নন্দিরগাঁও ইউনিয়নের নওয়াগাঁও আশ্রয়ণ প্রকল্প এবং বরিশালের বানারীপাড়া পৌরসভার উত্তরপাড় আশ্রয়ণ প্রকল্প।

এদিন প্রধানমন্ত্রী দেশের সাতটি জেলা ও ১৫৯টি উপজেলাকে ভূমিহীন-গৃহহীনমুক্ত হিসেবে ঘোষণা করবেন। এর আগে তিনি পঞ্চগড় ও মাগুরা জেলাকে ভূমিহীন-গৃহহীন হিসেবে ঘোষণা করেছেন। গৃহ হস্তান্তরের পর দেশে ভূমিহীন-গৃহহীনমুক্ত জেলার সংখ্যা দাঁড়াবে ৯ এবং উপজেলার সংখ্যা হবে ২১১। এসব জেলা ও উপজেলায় নদীভাঙন, প্রাকৃতিক বিপর্যয় বা অন্য কোনো কারণে কেউ ভূমিহীন-গৃহহীন হয়ে পড়লে তাদের চিহ্নিত করে জমির মালিকানাসহ ঘর দেওয়ার ব্যবস্থা করবে সরকার।


আরও খবর

বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ মডেল

শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩




বিশ্বের অন্যান্য গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের মতো নির্বাচন হবে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩১ মার্চ ২০২৩ | ৯০জন দেখেছেন

Image

জহিরুল কবির আমজাদ: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পৃথিবীর কোনো সভ্য গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে তত্ত্বাবধায়ক বা অনির্বাচিত ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর সরকার ব্যবস্থা নেই। যারা সংবিধানকে নির্বাসনে দিয়ে নির্বাচনকে প্রতিহত করার পাঁয়তারায় লিপ্ত, তারা মূলত জনগণকে আড়ালে রেখে চিহ্নিত গোষ্ঠীর স্বার্থ সংরক্ষণে ব্যস্ত। দেশের গণতান্ত্রিক চেতনার কোনো মানুষ তাদের এই অপরাজনীতির বাস্তবায়ন হতে দেবে না।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, বিশ্বের অন্যান্য গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে যেভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, বাংলাদেশেও সেভাবেই সংবিধানের বিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপি নেতাদের ‘চিরাচরিত মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তিকর’ বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপি অতীতের মতো আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে একইভাবে সন্ত্রাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের পথ বেছে নিয়েছে, যা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশের প্রধান প্রতিবন্ধক।

সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ, স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ পরিবেশে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে এবং জনগণের মতামতের ভিত্তিতেই রাষ্ট্রক্ষমতা পরিবর্তন হবে। সেজন্য সব রাজনৈতিক দলেরই দায়িত্বশীল ও সহযোগিতাপূর্ণ আচরণ নিশ্চিত করা আবশ্যক। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়, অতীতে নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি অগ্নিসন্ত্রাসের মতো গণহত্যার পথ বেছে নিয়েছিল। বর্তমানেও তারা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে একইভাবে সন্ত্রাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের পথ বেছে নিয়েছে, যা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশের প্রধান প্রতিবন্ধক।

পঞ্চগড়ে আহমদিয়া সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলার প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতাদের বক্তৃতা ও বিবৃতিতে প্রমাণিত হয় সম্প্রতি পঞ্চগড়ে সংঘটিত আহমদিয়া সম্প্রদায়ের ওপর হামলায় তারা জড়িত। এ ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাদের দায়িত্বশীল নেতারা উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন। বিশেষত, তাদের বিভিন্ন ফেসবুক পেজ ও আইডি থেকে গুজব ছড়িয়ে ঘটনাকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে সিরিজ জয় বাংলাদেশের

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | ১০৬জন দেখেছেন

Image

ইয়াশফি রহমান :টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ১৫৬ রান করেছে ইংল্যান্ড। জবাবে চার উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান করে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টিতে ইংলিশদের হারাল টাইগাররা। বিশ্বকাপের পর দুদলের প্রথম ম্যাচ।

এই জয়ের রূপকার নাজমুল হোসেন শান্ত। বিপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন। তার দুর্দান্ত ফিফটিতে ১৫৭ রানের লক্ষ্য অনায়াসেই পাড়ি দেয় বাংলাদেশ। সেটাও দুই ওভার হাতে রেখেই। ৩০ বলে ৮ চারে ৫১ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলেন শান্ত। উদ্বোধনীতে ঝড় তুলতে পারেননি লিটন দাস ও রনি তালুকদার। তবে পথটা দেখিয়ে গেছেন তারা। সেখানে হাল ধরেন শান্তই। মিডল অর্ডারে  তৌহিদ হৃদয়ের ব্যাট থেকে আসে ২৪ রান। মঈন আলীর বলে আউট হন তিনি। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান অপরাজিত ২৪ রানে। আফিফ হোসেন অপরাজিত ১৫ রানে। 

ইংল্যান্ডের হয়ে একটি করে উইকেট তুলে নেন জোফরা আর্চার মার্ক উড, আদিল রশিদ ও মঈন আলী।

আগে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ফিল সল্ট ও জস বাটলার ভালো শুরু এনে দেন। ফিল সল্টকে ফিরিয়ে ৮০ রানের এ জুটি ভাঙেন নাসুম আহমেদ। এরপর সাকিব আল হাসান ফেরান ডেভিড মালানকে (৪)।

বেন ডাকেট ও জস বাটলার দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। দলীয় ১৩৫ রানে এই জুটি ভাঙেন মোস্তাফিজুর রহমান। তিন চারে ২০ রান করা ডাকেট বোল্ড হন ফিজের বলে।

পরের ওভার বিদায় নেন ফিফটি করা ইংলিশ অধিনায়ক। হাসান মাহমুদের বলে শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন  ৬৭ রানে ফিরেন বাটলার। টিকতে পারেননি স্যাম কুরান। মাত্র ৬ রান করে হাসানের বলে শান্তর হাতে ক্যাচ দেন তিনি।

শেষ ওভারের প্রথম বলে ক্রিস ওকসকে (১) বোল্ড করেন তাসকিন আহমেদ। মঈন ৮ ও জর্ডান ৫ রানে থাকেন অপরাজিত।

বাংলাদেশের হয়ে দুইটি উইকেট নেন হাসান। একটি করে উইকেট নেন নাসুম, তাসকিন, মোস্তাফিজ, ও সাকিব।

এ ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে অভিষেক হয়েছে তৌহিদ হৃদয়ের। এ ছাড়া একাদশে ফিরেছেন আট বছর পর জাতীয় দলে ডাক পাওয়া রনি তালুকদার। এ ছাড়া ফিরেছেন শামীম হোসেনও। 

 


আরও খবর



নওগাঁ পৌরসভা আধুনিক বিনির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | ৯০জন দেখেছেন

Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

নওগাঁ পৌরসভা আধুনিক বিনির্মানের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে নওগাঁ শহরের মুক্তির মোড়ে ‘সচেতন পৌরবাসী’ ব্যানারে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। যেখানে স্লোগান দেয়া হয়েছে ‘হয় শহর বদলাও, না হয় মেয়র বদলাও’।

মানববন্ধনে পৌর নাগরিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, রামিম দেওয়ান, ফিলিপ হোসেন, সুলতান মাহমুদ সহ স্থানীয় অনেকেই। 

এসময় বক্তারা বলেন, ১৯৬৩ সালে নওগাঁ পৌরসভা গঠিত হয়। যা প্রথম শ্রেনীর মর্যাদা পায় ১৯৮৯ সালে। অথচ আড়াই লাখ নাগরিক বসবাসের এ শহরের সড়ক, ড্রেন, বৈর্জ ব্যস্থাপনা সব কিছুই বেহাল অবস্থা। অলি-গলির সড়কগুলো খানা-খন্দে ভরা। রাতে সড়কে ঠিকঠাক জ্বলেনা বাতি। এ যেন কেবলই ভোগান্তির শহরে পরিনত হয়েছে নওগাঁ শহর।

বক্তারা আরো বলেন, এতো সমস্যার ভিড়ে প্রধান সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে অটোরিক্সা-সিএনজি। নিয়ম-নিতির কোন তোয়াক্কা না করে হাজার হাজার অটোরিক্সা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে শহরের মধ্যে। এতে সকাল থেকে রাত অবধি যানজটের সৃষ্টি হয়। সাধারণ মানুষের পা ফেলার যায়গা পর্যন্ত থাকে না। শহরে নেই কোন সৌচাগারের ব্যবস্থা। তাই প্রতিদিনই শহরে আসা হাজারও নারী-পুরুষকে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়। 

বর্তমান মেয়র নজমুল হক সনি টানা তৃতীয় বারের মত দীর্ঘ ১৩ বছর ক্ষমতায়। কিন্তু শহরবাসীর ভোগান্তি লাঘবে দৃশ্যমান তেমন কিছুই করতে পারেননি তিনি উল্লেখ করে মানববন্ধন থেকে মেয়রের পদত্যাগ দাবী করেন আন্দোলনকারীরা।

ঘণ্টাব্যাপী চলা এই মানববন্ধনে পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডের সাধারণ নাগরিক উপস্থিত ছিলেন। 

এসব অভিযোগ পুরোপুরি সত্য নয় দাবী করে নওগাঁ পৌরসভার মেয়র নজমুল হক সনি বলেন, ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে প্রথম বারের মত নওগাঁ পৌরসভার দায়িত্ব গ্রহণ করি। এরপর থেকে রাস্তা-ঘাট, ড্রেন তথা শহরের উন্নয়নে কোটি কোটি টাকার কাজ করেছি। এমনকি ইউজিপি-৩ এর মত বড় প্রকল্পও বাস্তবায়ন করা হয়েছে তার সময়কালে। আমার সাধ্যমত পৌরবাসীর উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি বলে জানান মেয়র।


আরও খবর