Logo
শিরোনাম

কিশোরগঞ্জ হাওরের অলওয়েদার সড়কে বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মোঃ মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জ ঃ

কিশোরগঞ্জের হাওরের ব্যক্তিগত সফরে আসেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি ইটনা-অষ্টগ্রাম- মিঠামইনের অলওয়েদার সড়কসহ হাওরের সৌন্দর্য ঘুরে দেখেন। মন্ত্রীর সফর সঙ্গী ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির স্ত্রী ও ব্যক্তিগত কর্মকর্তা বৃন্দ। 

১২ আগস্ট রোজ শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে করিমগঞ্জের বালিখলা ঘাট থেকে স্পীড বোটে মিঠামইন আসেন। পরে মিঠামইন থেকে গাড়ি যোগে অল ওয়েদার সড়ক পরিদর্শন করে অষ্টগ্রাম জিরো পয়েন্ট যান, তারপর আবার সেখান থেকে গাড়ি যোগে ইটনা জিরো পয়েন্টে নেমে কিছুক্ষণ হাওরের সৌন্দর্য উপভোগ করেন।

ইটনা জিরো পয়েন্টে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন- ইটনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী কামরুল হাসান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাফিসা আক্তার, ইটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম মোল্লা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নজরুল ইসলাম ঠাকুর, আওয়ামীলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক তাপস রায়, আওয়ামীলীগ নেতা জিল্লুর রহমান সহ বিভিন্ন নেতাকর্মীবৃন। 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ইটনা জেলা পরিষদ ডাক বাংলোতে বিশ্রাম এবং উপজেলার নেতাকর্মীদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে মিঠামইন ডাক বাংলোতে যান। মিঠামইনে দুপুরের খাবার খেয়ে বিশ্রাম শেষে বিকেল সারে চারটার দিকে আবার স্পীড বোটে হাওর এলাকা ত্যাগ করেন। 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি আজ কিশোরগঞ্জ সার্কিট হাউজে রাত্রিযাপন শেষে আগামীকাল শনিবার সকাল ৯ টার ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে দুপুর ১২ টায় ঢাকার উত্তরা বাসায় পৌঁছার কথা রয়েছে।


আরও খবর

বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনে ছুটছেন দর্শনার্থীরা

বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২




মোরেলগঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নারী নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে মিনারা বেগম(৫২) নামে এক নারী সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। মিনারা বেগম খাউলিয়া ইউনিয়নের বড়পরী গ্রামের মৃত আকরাম খলিফার স্ত্রী। তার তিন সন্তান রয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১০ টার দিকে সাইনবোর্ড-বগী আঞ্চলিক মহাসড়কের পল্লীমঙ্গল এলাকায় একটি মোটরসাইকেলের সাথে ধাক্কা লাগলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মিনারা বেগম দীর্ঘদিন ধরে ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবীকা নির্বাহ করতেন। এক সময় তার মানসিক বিকৃতি দেখা দেয় বলে তার ছেলে ফিরোজ খলিফ জানিয়েছেন।

ঘটনার সময় স্থানীয়রা মোটর সাইকেলটি আটক করলেও এর চালক পালিয়ে যায়। তার নাম ও পরিচয় এখন পর্যন্ত জানা যায়নি।

এ বিষয়ে থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারী নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচন

শ্রীনগর থেকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় সদস্য হচ্ছেন মাহাবুব উল্লাহ কিসমত

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

 শ্রীনগর সংবাদদাতাঃ

মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে শ্রীনগর থেকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়  সদস্য হচ্ছেন এম মাহাবুব উল্লাহ কিসমত। রবিবার জেলা পরিষদের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে তার প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  ২ প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় তিনি বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়  একক প্রার্থীতা লাভ করেন। 

কোলাপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য এম মাহবুব উল্লাহ কিসমতের প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী ছিলেন জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ও বাড়ৈখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল হোসেন মাস্টার, ষোলঘর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট কামরুল হাসান। 

শ্রীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ তোফাজ্জল হোসেন জানান, শ্রীনগর উপজেলা থেকে ১টি পদের বিপরীতে যে ৩জন প্রার্থী হয়েছিলেন তারা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেন। দলীয় শৃংখলা বজায় রাখার জন্য আলোচনার ভিত্তিতে ২জন তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করলে এম মাহবুব উল্লাহ কিসমত একক ভাবে প্রার্থী হন। তার কোন প্রতিদ্বন্দ্বী  প্রার্থী না থাকায় এম মাহবুব উল্লাহ কিসমত আগামী জেলা পরিষদ নির্বাচনে শ্রীনগর থেকে সদস্য নির্বাচিত হবেন। 

এম মাহবুব উল্লাহ কিসমত মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানিয়ে বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তে শ্রীনগর উপজেলার সদস্য পদে একক প্রার্থী হতে পেরেছি। এজন্য আমি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কাছে কৃতজ্ঞ  

এই বিষয়ে বক্তব্য নেওয়ার জন্য ইকবাল হোসেন মাস্টারকে ফোন দিলে তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়। অপরদিকে এডভোকেট কামরুল হাসানের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।


আরও খবর

আওয়ামী লীগ অবৈধ সরকার.....রিজভী

শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২




যানজটের কারণে এই শহর ছেড়ে চলে যেতে ইচ্ছে করে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মাজহারুল ইসলাম মাসুম, সিনিয়র সাংবাদিক লেখক ও গবেষক ঃ

মাঝে মধ্যে কোনভাবেই আর ধৈর্য্য রাখতে পারি না। আর কতো সহ্য করা যায়? প্রায় দুই ঘন্টা বাড্ডা লিংক রোড মোড়ে স্থবির হয়ে আটকে ছিলাম । সহ্য করতে না পেরে বৃষ্টি কাঁদায় হেঁটে অফিসে ফিরেছি।  শুধুমাত্র যানজটের কারণে এই শহর ছেড়ে চলে যেতে ইচ্ছে করে। এভাবে আর কতো? 

আচ্ছা আজ যে মানুষটার হাসপাতালে যাওয়ার কথা, হালকা স্ট্রোক করে অ্যাম্বুলেন্সে যিনি ঘন্টার পর ঘন্টা বসেছিলেন, যে শিশুটির স্কুলে যাওয়ার কথা পরীক্ষা দিতে, ফ্লাইট ধরার কথা যাদের, অফিসে যাওয়ার কথা যার, কী অবস্থা তাদের সবার? আফসোস একটা শহরকে আমরা মৃত বানিয়ে ফেলেছি তারপরও উন্নয়নের গল্প শেষ হয় না।

ভাবুন তো কী এক অদ্ভুত শহর! আপনি বরিশাল কিংবা খুলনা গোপালগঞ্জ থেকে শত শত কিলোমিটার পথ পদ্মা সেতু পেরিয়ে চলে আসবেন দুই ঘন্টায় কিন্তু গুলিস্তান থেকে মিরপুর বা মিরপুর কতো ঘন্টায় যাবেন সেটা বলার শক্তি নেই কারো। কারণ এই শহরে গাড়ির গতি এখানে ঘণ্টায় ৫ কিলোমিটার। অথচ ১২ বছর আগেও এই গতি ছিল ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার৷ এক যুগের ব্যবধানে সেটি পাঁচে নেমে এসেছে। 

মনে রাখবেন, আপনার যতো দামী গাড়িই হোক, বাসে বা উবারে যেভাবেই যান, ঘন্টায় আপনি পাঁচ কিলোমিটারের বেশি যেতে পারবেন না। অথচ পায়ে হেঁটেও একই গতিতে চলা যায়। কিন্তু হাঁটার পরিবেশও কী আছে? হাঁটতে গেলে দেখবেন, ফুটপাতগুলো তো প্রায় সব বেদখলে। মাঝে মধ্যে মনে হয়, আমাদের নীতি নির্ধারকদের বলি, একটু পাবলিক বাসে বা সিএনজিতে চড়েন। এই শহরের পাবলিকের কষ্টটা বোঝেন। 

এই যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থেকে আমরা শেষ হয়ে যাচ্ছি, এই নগরবাসীর শারীরিক মানসিক নানা সংকট তৈরি হচ্ছে এর দায় কার? আমি তো বলবো, এই শহরের মানুষের পারিবারিক বা সামাজিক বহু অশান্তির কারণ এই যানজট। এই শহরের বহু মানুষ সকালে বের হয় আর রাতে বাসায় ফেরে। পথে যানজটে যায় ৬-৭ ঘন্টা। এটা কী কোন নাগরিক জীবন?    

বুয়েটের এক গবেষণায় বলছে, ঢাকায় যানজটের কারণে প্রতিদিন ৫০ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হয়৷ আর এই যানজটে বছরে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৩৭ হাজার কোটি টাকা, যা জাতীয় বাজেটের ১১ ভাগের এক ভাগ৷ ২০১৮ সালের প্রতিবেদনে বিশ্বব্যাংক বলেছে, ১৯৮০ সালে গাড়ির গড় গতি ছিল ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার এবং এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ঘণ্টায় ৭ কিলোমিটারেরও কম। এতে যানজটের কারণে প্রতিদিন ৩ দশমিক ২ মিলিয়ন কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে। ২০৩৫ সালে ঢাকায় জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ২৫ মিলিয়নে। 

সড়ক ও জনপথ বিভাগের ২০১৩ সালে তার এক গবেষণায় দেখানো হয়, শুধু যানজটে কর্মঘণ্টা নষ্টের জন্য বছরে ক্ষতি হয় ১২ হাজার কোটি টাকা৷ শুধুমাত্র গণপরিবহণ ব্যবস্থা ভালো নয় বলেই এই শহরে অনেকে ধার করে বা ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে একটি গাড়ি কেনে। কিন্তু তাতে লাভটা কী হয়? যতো দামী গাড়ি হোক বাসের বদলে নিজের গাড়িতে যানজটে বসে থাকতে হয় এই যা! 

সবচেয়ে বিস্ময়কর ব্যাপার হলো এই শহরে ট্রাফিক সিগন্যাল বলে কিছু নেই। অথচ ছোটবেলায় আমি দেখেছি এই শহরে ট্রাফিক সিগন্যাল ছিল। লাল-সবুজ বাতি কাজ করতো। এখন সব বৃথা। আর বৃষ্টি হলে তো কথাই নেই। আচ্ছা প্রযুক্তির এই যুগে যেখানে প্রতিটা রাস্তার প্রতিক্ষনের অবস্থা দেখা যায় সেখানে কী যানজটের সমাধানে প্রযুক্তির ব্যবস্থা নেয়া যায় না? 

আমাদের নীতি নির্ধারকদের বলবো, একটু ভাবুন। যানজট সমস্যা দূর করা খুব কঠিন কাজ বলে মনে করি না। কিন্তু আমরা যদি মনে করি সমাধান নেই আর এটাই মেনে নিতে হবে তাহলে তো আমরা শেষ! 

আপনারা যারা সরকারের নীতিনির্ধারক, আপনাদের দোহাই লাগে আপনাদের কাছে অন্ন বস্ত্র বাসস্থান কিছু চাই না। শুধু যানজট থেকে মুক্তি দিন। দেখেন দয়া করে কোটি কোটি টাকার যত্রতত্র পরিকল্পনা নেবেন না। এইসব বিআরটি এইসব ফ্লাইওভার অর্থহীন। দয়া করে গণপরিবহনে নজর দিন। 

আচ্ছা আপনারা যারা নীতি নির্ধারক তারা কি ঢাকার পাবলিক বাসগুলোর চেহারা দেখেছেন? চড়েছেন? সস্তা জনপ্রিয় বুলি না আওড়ে প্লিজ সমাধান খুঁজুন।‌

আমি এখনো মনে করি ঢাকার বিভিন্ন রূটে কয়েকশ করে নতুন পাবলিক বাস নামলে, পাঁচ মিনিট পরপর এসি বাস ছাড়লে লোকে অন্তত সেই বাসে চড়বে। নীতি নির্ধারকেরাও এসব বাসে চলুন। কয়েকদিন ব্যক্তিগত গাড়ি সব বন্ধ করে দেখেন। ফুটপাতগুলো দখলমুক্ত করে দেন। আর সিগন্যালিং সিস্টেমটা ঠিক করুন। 

সত্যি বলছি ভীষণ যন্ত্রনা লাগে! নীতি নির্ধারকদের কাছে তাই হাতজোড় করে অনুরোধ যানজটের রোজকার এই যন্ত্রণা থেকে আমাদের নগরবাসীকে মুক্তি দিন! গণপরিবহন ব্যবস্থা ঠিক করুন নয়তো রাজধানী সরিয়ে নিন। বিকেন্দ্রীকরণ করুন বা অন্য যে কোন কিছু। দয়া করে এই নগরবাসীকে তিলে তিলে শেষ করে দেবেন না! আপনাদের দোহাই লাগে!


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




পাকিস্তানে বন্যায় আরো ২৬ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

পাকিস্তানে বন্যায় ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মারা গেছে এক হাজার ২৯০ জন। আহত হয়েছে ১২ হাজার ৫৮৮ জন। রোবার দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ এ তথ্য জানিয়েছে।

সিন্ধুতে ৪৯২, খাইবার পাখতুনখাওয়ায় ২৫৯, বেলুচিস্তানে ১৯৯, পাঞ্জাবে ৪২, কাশ্মীরে ২২ জন ছাড়াও গিলগিট বালচিস্তান এবং ইসলামাবাদে একজন করে বন্যায় মারা গেছে। ধ্বংস হয়ে গেছে ৫ হাজার ৫৬৩ কিলোমিটার সড়ক, ২৪৩টি সেতু এবং ১৪ লাখ ৬৮ হাজার ঘরবাড়ি। বাস্তুচ্যুত হয়েছে তিন কোটি ৩০ লাখ বাসিন্দা। আশ্রয় কেন্দ্রে আছে ৬লাখ ৭২ হাজার। আর্থিক ক্ষতি সাড়ে ১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। সিন্ধুর স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, তার রাজ্যের আশ্রয় শিবিরে ৪৭ হাজার গর্ভবতী নারী রয়েছেন। নতুন করে আবারো ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে সতর্ক করেছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ।


আরও খবর

জাতিসংঘে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

জাতিসংঘের ভূমিকায় হতাশ মালয়েশিয়া

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




মোরেলগঞ্জের পঞ্চকরনে জেলা পরিষদের সদস্য প্রার্থীর মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট  :

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে আসন্ন ১৭ অক্টোবর বাগেরহাট জেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম হয়ে উঠেছে মাঠ। প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। বুধবার বিকেলে উপজেলার পঞ্চকরণ ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে নির্বাচনী এক মতবিনিময় সভা করেছেন জেলা পরিষদের সদস্য পদপ্রার্থী মোরেলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এমদাদুল হক।  

পঞ্চকরণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক মজুমদারের সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভায় বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ইখতিয়ার হোসেন দিলাল, আবজাল হোসেন মাসুম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মো. ইলিয়াস হোসেন দুলাল, শ্রমীক লীগ নেতা আলমঙ্গীর হোসেন বাদশা, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. মহিদুজ্জামান মহিদ।


অন্যান্যের মধ্যে ইউপি সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান, ইউপি সদস্য ডা. সোবাহান মিয়া, রোজিনা খানম, মো. শাহিন হাওলাদার, শামীমুল ইসলামসহ স্থানীয় বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। এ সময় জেলা পরিষদের সদস্য প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এমদাদুল হক বলেন, দীর্ঘদিনের দলের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে ভোটারদের কাছে ১৭ অক্টোবর নির্বাচনে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে তাকে বিজয় করার আহবান জানান একই সাথে সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন। 


আরও খবর