Logo
শিরোনাম
আমিরাতে আরবান রীডার্স ও বায়ান্ন টিভি আয়োজিত

কনসাল জেনারেলের বইয়ের প্রকাশনা

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

মো নূরুল্লাহ  খান, আরব আমিরাত থেকে 

বাংলাসাহিত্য ধন্য হয়েছে অনেক কবির প্রবাস জীবনে রচিত কবিতা নিয়ে। মাইকেল মধূসূদন বাংলায় অমৃত স্বাদ গ্রহণে প্রবাসে বসে  যেসব রচনা করেছেন তা সাহিত্যের অনন্য সম্পদ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন। আমিরাতের শারজাহে আরবান রীডার্স ও বায়ান্ন টিভি আয়োজিত কনসাল জেনারেল জামাল হোসেনের আঁকা ও কলকাতার কবি তানিয়া চক্রবর্তীর লেখা কাব্যগ্রন্থ 'বৃত্ত' এর প্রকাশনা অনুষ্ঠানে এসব বলেন তিনি।

শনিবার বাংলাদেশ সমিতি শারজাহের বঙ্গবন্ধু হলে এর মোড়ক উন্মোচন করেন আমিরাতের রাজসভার কবি সুলতান আল কেতবী। বায়ান্ন টিভির বার্তা সম্পাদক তিশা সেনের পরিচালনায় বইয়ের উপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বায়ান্ন টিভির সম্পাদক ছড়াকার লুৎফুর রহমান। অনুষ্ঠানের আয়োজকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন আরবান রীডার্স এর অন্যতম সংগঠক নওশের আলী। অনুষ্ঠানের শুরুতে সদ্যপ্রয়াত আমিরাতের রাষ্ট্রপতি শেখ খলিফা ও বরেণ্য সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী স্মরণে নীরবতা পালন করা হয়।

বাংলা ভাষা ছাড়াও আরবী, ইংরেজি, হিন্দী ও উর্দু এ ৪ ভাষায় অনুবাদ কবিতাসহ বইটি প্রকাশিত হয়েছে। এ সময় বইয়ের উপর পাঠক মন্তব্য করেন আল হারামাইন গ্রুপ ও বায়ান্ন টিভির চেয়ারম্যান সিআইপি মাহতাবুর রহমান নাসির, বাংলাদেশ সমিতি আবুধাবীর সভাপতি প্রকৌশলী মোয়াজ্জেম হোসেন, বাংলাদেশ সমিতি শারজাহের সভাপতি আলহাজ এম এ বাশার, সম্মিলিত সাহিত্য সাংস্কৃতিক পরিষদ লন্ডনের কোষাধ্যক্ষ সাংবাদিক আনোয়ার শাহজাহান ও ড্যানিয়ুব প্রপার্টিজের কর্মকর্তা আরিফ ভালদার।

এ সময় ছবির কবিতা ও কবিতার ছবি নিয়ে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করেন কলকাতার কবি তানিয়া চক্রবর্তী। বাংলাভাষার পাশাপাশি কবিতার বিশ্বায়নে তিনি বইটিতে অন্য ৪টি ভাষায় অনুবাদের নেপথ্য কথা তুলে ধরেন। 

পরে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের কবি ফাহাদুর রহমান, সৈয়দ আলী হামিদ জাইদি ও সৈয়দ আমান হায়দার জাইদি।

অনুষ্ঠানে জ্ঞাননির্ভর কমিউনিটি গড়ার মানসে কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন যে সৃজনশীল উদ্যোগ গ্রহণ করছেন তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সমিতি শারজাহে একটি লাইব্রেরী স্থাপনের ঘোষণা দেন সমিতির সভাপতি আলহাজ এম এ বাশার। ব্যতিক্রমী আর পিনপতন নীরবতার এ অনুষ্ঠানের সহায়তা বাংলাদেশ সমিতি শারজাহ।

অনুষ্ঠানটি সাংবাদিক, কমিউনিটির বোদ্ধামহল এবং বহুজাতিক সাংস্কৃতিককর্মীদের মেলবন্ধনে মুখরিত হয়ে ওঠে। এমন উদ্যোগ অব্যাহত থাকার অনুরোধ করেছেন প্রবাসিরা।


আরও খবর



ধামরাইয়ের কাকরান দাখিল মাদরাসার শুভ উদ্বোধন

প্রকাশিত:Wednesday ১১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন :


ঢাকার ধামরাই উপজেলা ভাড়ারিয়া ইউনিয়ন এর কাকরানে দাখিল মাদরাসার চতুর্থ তলা ভীত বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে বুধবার সকাল ১১ টায়। 

এসময় অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী।

প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন মাননীয় সংসদ সদস্য ঢাকা ২০ ও সভাপতি ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বেনজির আহমদ। 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান ধামরাই উপজেলা পরিষদ মোহাদ্দেস হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ বীরমুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক আইয়ুব, ভাইস চেয়ারম্যান ধামরাই উপজেলা পরিষদ সিরাজ উদ্দিন সিরাজ, চেয়ারম্যান ভাড়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ মোসলেম উদ্দিন মাসুম,যুবলীগ নেতা জাহিদ হোসেন সহ উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতা কর্মীরা। উক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন কাকরান দাখিল মাদরাসা কর্তৃপক্ষ ও কাকরান এলাকা বাসী।


আরও খবর



মানবতার আরেক নাম, ডা. ফেরদৌস খন্দকার

প্রকাশিত:Monday ৩০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

রোকসানা মনোয়ার :নিউইয়র্কের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. ফেরদৌস খন্দকার।নিউ ইয়র্কে করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করলে অনেক চিকিৎসক চেম্বার বন্ধ রাখেন। কিন্তু সেখানে ব্যতিক্রম ছিলেন ডা. ফেরদৌস। দুঃসময়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন ডা. ফেরদৌস। চেম্বার খোলা রেখে করোনা আক্রান্ত মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে গেছেন। মনস্থির করলেন নিজের মাতৃভূমিতে এসে নিজেকে বিলিয়ে দিবেন দেশের মানুষের স্বার্থে।

শেখ রাসেল ফাউন্ডেশন (ইউএসএ) ইনক'র সভাপতি মানবিক মানুষ ডা. ফেরদৌস খন্দকার , তার মুল লক্ষ্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেলকে বিশ্ব বাসির কাছে পরিচিত করে দেওয়া এবং স্কুল কলেজ এর ছাত্র, ছাত্রীদের মাঝে তার মূল্যায়ন গড়ে তোলা তিনি বলেন দেশ আজ দুই ভাগে বিভক্ত- একটি পক্ষ স্বাধীনতার পক্ষে আর একটি স্বাধীনতা বিরোধী, তাই এখনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে দেশ, জন্মভূমি এবং স্বাধীনতার পক্ষে থাকবে নাকি ভুল সিদ্ধান্ত নিবে। 

শেখ রাসেল ফাউন্ডেশন ইউএসএ শাখার নামে তিনি দেশে বিদেশে নানা রকম মানব কল্যাণ মূলক কাজ করে থাকেন ডাঃ ফেরদৌস খন্দকার ।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশিদের মধ্যে একজন সফল চিকিৎসক হিসেবে পরিচিত ডা. ফেরদৌস খন্দকার। জন্মগ্রহণ করেছেন কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বারে। বাবা ফয়েজ আহমেদ খন্দকার বিমান বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা। মা আনোয়ারা বেগম খন্দকার গৃহিনী। তিন ভাইবোনের মধ্যে ডা. ফেরদৌস বড়।
ডাক্তার ফেরদৌসের মায়ের পরিবার দেবিদ্বারের পাশের মুরাদনগরের কেষ্টপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার নানা সামরিক বাহিনীতে অ্যাকাউন্টস ডিপার্টমেন্টে কাজ করতেন। সহজ-সরল মানুষ। উনার ছয় ছেলে, এক মেয়ে। তার প্রথম ছেলে খুরশিদ আনোয়ার সাহেব, উনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। ওই সময় সেই এলাকার মুক্তিযোদ্ধার কমান্ডার ছিলেন তিনি। পরে ফার্মাসিস্ট হয়ে বিদেশে চলে গিয়েছেন। দ্বিতীয় জনও মুক্তিযোদ্ধা, অ্যাকাউন্টেন্ট।
ছোটবেলা থেকেই স্বেচ্ছাসেবী কাজ করতে পছন্দ করতেন ডাক্তার ফেরদৌস। গ্রামে এবং নিজের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নানা স্বেচ্ছাসেবী কাজের সাথে জড়িত ছিলেন এই মেডিসিন বিশেষজ্ঞ।  তিনি ১৯৯৮ সালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে ইন্টার্নিশিপসহ মেডিসিনে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তারপর পরিবার সহ পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানকার নিউইয়র্ক মেডিকেল কলেজ থেকে প্রশিক্ষণসহ চিকিৎসাশাস্ত্রে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন। ধীরে ধীরে বাংলাদেশিদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন ডাক্তার ফেরদৌস। পাশাপাশি জীবন সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েন এই মেডিসিন বিশেষজ্ঞ। 

 ডাক্তার ফেরদৌস কোন কাজকেই ছোট মনে করেননি। একসময় আমেরিকায় ট্যাক্সি ক্যাব চালিয়েছেন।   এমনও অনেক দিন গেছে টানা ১৯ ঘন্টা তিনি ট্যাক্সি চালিয়েছেন।  দশজন সাধারণ অভিবাসীর মতই তিনি ঘুরেছিলেন এই শহরে ভাগ্যের অন্বষনে। যুক্তরাষ্ট্রে ডাক্তারী পেশার জন্য প্রাকটিস সনদ পরিক্ষার খরচ যুগিয়েছিলেন এবং শেষ দিকে এসে যখন এই ডাক্তারী অফিসটি ভাড়া নিয়েছিলেন, সেটার ভাড়া আর কর্মচারীদের বেতন তুলে চলতেন।


লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য নিজের পরিশ্রম আর অধ্যবসায়কে বেছে নিয়েছেন ডাক্তার ফেরদৌস। নিজের পরিশ্রম আর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে ডাক্তার ফেরদৌস হয়ে উঠলেন সফলদের একজন। 
তিনি জ্যাকসন হাইটসের ব্যস্ততম ৩৭ স্ট্রিটে ওয়েস্টার্ন কেয়ার মেডিকেল কেয়ার পিসি নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন সমমনাদের নিয়ে। সেখানে দেশি বিদেশি ৭ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার বসেন। নিউইয়র্কে বাংলাদেশিদের মূর্তমান বিশ্বস্ততার প্রতিক হয়ে উঠলেন ডাক্তার ফেরদৌস।

 

একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হিসেবে বাংলাদেশী, ভারতীয় এবং পাকিস্থানী নাগরিকদের মধ্যে যথেষ্ট খ্যাতি কুড়িয়েছেন । নিউইয়র্কের অলাভজনক সংস্থা দি অপটিমিস্টের ভাইস চেয়ারম্যান তিনি। রোগিদের আস্থা আর তাদের প্রতি সেবাকে আরো বিস্তৃত করতে নতুন একটি মেডিকেল সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেছেন ফেরদৌস খন্দকার। জ্যাকসান হাইটস এর ৭০-৩৮ ব্রডওয়েতে এই চিকিৎসা কেন্দ্রটি অবস্থিত। মানুষজন বিক্ষিপ্তভাবে এদিক সেদিক না গিয়ে যাতে এক ছাদের নিছে সেবা পায় সেজন্যই তার এই প্রচেষ্টা। 

 

ডাক্তার ফেরদৌস খন্দকার চেম্বারে নিয়মিত রোগী দেখার পাশাপাশি, ফেসবুক এবং ইউটিউবে নিয়মিত স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নানা পরামর্শ দিয়ে থাকেন। স্যোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে মানুষকে রোগ প্রতিরোধ সম্পর্কে সচেতন করাই তার প্রধান লক্ষ্য। তিনি চান মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্য বিষয়ক জ্ঞানের পরিধি বিস্তার হোক।
বিদেশে থাকলেও স্বদেশের প্রতি তাঁর দায়বদ্ধতার কথা অকপটে স্বীকার করলেন। মেডিকেলের শিক্ষার্থী হিসেবে সেনাবাহিনীর বৃত্তি পেয়েছিলেন। অর্থ-বিত্তে সাফল্যে পৌঁছার শুরুতেই তিনি সেই বৃত্তি ফেরত দিয়েছেন। নানাভাবে তাঁর দায় পরিশোধের উদ্যোগের কথা জানালেন। নিজের অর্থ ব্যয়ে গ্রামে হাসপাতাল ও বৃদ্ধাশ্রম করছেন। এসব কাজ করতে গিয়ে নানা বাধাবিপত্তির মোকাবিলা করেছেন।

বছরে অন্তত চারবার দেশে আসেন ডা. ফেরদৌস খন্দকার। নিজের এলাকার জন্য, দেশের মানুষের জন্য কিছু করার তাড়না থেকেই আসেন তিনি। অর্থনৈতিকভাবে বেশ সফল হলেও ভ্রমণের সময় বাড়তি ব্যয় করেন না। বেঁচে যাওয়া সেই অর্থ বরং মানুষের কল্যাণে ব্যয় করেন। 


আরও খবর



রহস্যময় বেলুন কানাডায়ও

প্রকাশিত:Saturday ০৪ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

যুক্তরাষ্ট্রের পর কানাডার আকাশেও একটি রহস্যময় বেলুন দেখা গেছে শুক্রবার দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাতে রয়টার্স তথ্য জানিয়েছে

বলা হয়, মার্কিন কর্মকর্তারা মোন্টানার আকাশে নজরদারি বেলুন দেখতে পাওয়ার পর তারাও একইরকম একটি নজরদারি বেলুনের সন্ধান পেয়েছেন অতি-উচ্চতার থাকা বেলুনটি শনাক্তের পর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছে নর্থ আমেরিকান অ্যারোস্পেস ডিফেন্স কমান্ড আকাশ নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এর আগে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, তারা নিশ্চিত, গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোতে গোয়েন্দা নজরদারি করতে চীন বেলুন পাঠিয়েছে যদিও বেলুনের জন্য সরাসরি চীনকে দোষারোপ করেনি কানাডা


আরও খবর



মিস ইউনিভার্স হলেন যুক্তরাষ্ট্রের আর’বনি

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Monday ০৬ February ২০২৩ |
Image

এ বছর সুন্দরী প্রতিযোগিতা মিস ইউনিভার্সের সেরার মুকুট মাথায় পরেছেন যুক্তরাষ্ট্রের আর’বনি গ্যাব্রিয়েল। তাকে মুকুট পরিয়ে দিয়েছেন গতবারের মিস ইউনিভার্স হারনাজ সান্ধু।

এ বছর মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে সেরা তিনে জায়গা করে নিয়েছেন ভেনেজুয়েলা ও দ্য ডমিনিকান রিপাবলিকের প্রতিযোগী। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ অরলিন্সের আরনেস্ট এন. মোরিয়াল কনভেনশন সেন্টারে প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করা হয়।

এ বছর মিস ইউনিভার্সের শীর্ষ তিন প্রতিযোগী। দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন দ্য ডমিনিকান রিপাবলিকের প্রতিযোগী।

ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখেছেন মিস ইউনিভার্স হওয়ার। গত বছর সেই স্বপ্ন সত্যি হয়েছিল। এ বছর আরও একবার মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে হেঁটেছেন ভারতের মডেল ও অভিনেত্রী হারনাজ সান্ধু। এসময় তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।


আরও খবর



শীতের দাপট থাকবে কয়েকদিন

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :মৌলভীবাজারে মাঘের প্রথম সপ্তাহে আবারো জেঁকে বসেছে শীত। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কম তাপমাত্রা। উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহের পর এবার শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। হিমেল বাতাস আর ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত জনজীবন। তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। বেড়েছে ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রকোপ। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে শিশু ও বয়স্করা।

মাঝারি ও মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বইছে ২৭ জেলায়। শীতের সঙ্গে ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত জনজীবন। কষ্টের জীবন কাটছে ছিন্নমূল মানুষের। আরো কিছু দিন শীতের দাপট চলবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

বিভিন্ন স্থানে কুয়াশায় ঢেকে থাকে প্রকৃতি। শীত আর কুয়াশার কারণে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না কেউ। তারপরও জীবিকার তাগিদে ঘরে বসে থাকলে চলে না অনেকের। মাঘের শীত যতই কাঁপন ধরাক হাড়ে, কাজে বের হওয়ায় নিস্তার নেই।

ঘন কুয়াশা আর সূর্য কিরণের অভাবে দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য কমেছে। চলতি মাসে দেশের কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রির উপরে ছিল না। আর ঢাকায় এ মাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১ দশমিক ৭ ডিগ্রি।

এদিকে আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস বলছে, শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরো কিছু দিন। বাড়বে বিস্তৃতি। নতুন করে আরো কিছু জেলায় ওপর দিয়ে বইতে পারে শৈত্যপ্রবাহ।


আরও খবর