Logo
শিরোনাম

মোরেলগঞ্জে বিএনপির ৪৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির ৪৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।  দিবসটি উপলক্ষে বুধবার বেলা সাড়ে ৭টার দিকে বিএনপি নেতা কাজী খায়রুজ্জামান শিপন এর বাসভবনে কেক কাটা, মিষ্টি বিতরণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতাকর্মীরা। উপজেলা বিএনপির সভাপতি শহিদুল হক বাবুল এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। 

বিএনপি নেতা গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শিকদার ফরিদুল ইসলাম, মহিদলা দলের সভানেত্রী হ্যাপি আক্তার, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা খানমসহ শ্রমিকদল, যুবদল, ছাত্রদল, কৃষকদলের নেতাকর্মীরা এ অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন করেন। ##


আরও খবর



কুমিল্লা সদর আওয়ামী লীগের সম্মেলন

বাসার‌কে সভাপ‌তি জু‌য়েল‌কে সাধারণ সম্পাদক ক‌রে কমিটি ঘোষণা 

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

‌কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

 আওয়ামীলী‌গের বিজ্ঞান ও প্রযু‌ক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জি‌নিয়ার মোঃ আবদুস সবুর ব‌লে‌ছেন, খু‌নের রাজনী‌তি জিয়া রহমান শুরু ক‌রে‌ছে ।তা‌দের কা‌ছে বাংলা‌দেশ নিরাপদ নয়।খা‌লেদা‌জিয়ারা বাংলা‌দেশ‌কে পা‌কিস্তান বানা‌তে চায়। বঙ্গবন্ধুর আদ‌র্শের নেতাকর্মীরা বে‌চে থাক‌তে তা হ‌বে না

রোববার কু‌মিল্লা আদর্শ সদর উপ‌জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। কু‌মিল্লা নগ‌রের টাউনহল  মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

 ইঞ্জি‌নিয়ার মোঃ আবদুস সবুর  বলেন, ‌বিএন‌পি ২১হাজার নেতাকর্মী‌দের হত‌্যা ক‌রে‌ছে। বার বার দূর্নী‌তি‌তে চ‌্যা‌ম্পিয়ান হ‌য়ে‌ছে। ও‌দের কা‌ছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার মানায় না। বাংলা‌দে‌শে আর তত্ত্বাবধ‌ায়ক সরকার আর আস‌বে না।

এর আগে সকালে কু‌মিল্লা আদর্শ সদর উপ‌জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আবুল বাসার এর সভাপতিত্বে  কু‌মিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ,ক,ম বাহা উ‌দ্দিন বাহার সন্মেলন উদ্ধোধন করেন।    আদর্শ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বিএনপির উদ্দেশ্যে এমপি বাহার বলেন, শান্তির কুমিল্লায় কাউকে মাস্তানি করতে দেয়া হবেনা, আন্দোলন করেন গণতান্ত্রিক উপায়ে কেউ আপনাদের কিছু বলবেনা, রাতের আধারে আওয়ামী-নামধারী মুনাফেকদের নিয়ে যান সমস্যা নেই, কিন্ত কুমিল্লার একটি মানুষের উপর যদি আঘাত আসে তাহলে আপনাদের অস্তিত্ব বিলীন করে দেয়া হবে।   স‌ম্মেল‌নে বি‌শেষ অ‌তি‌থির বক্তব‌্য রা‌খেন কু‌মিল্লা সি‌টিক‌র্পো‌রেশ‌নের মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলী‌গের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত,‌জেলা আওয়ামীলী‌গের সহ-সভাপ‌তি ও জেলা প‌রিষ‌দের চেয়ারম‌্যান ম‌ফিজুল ইসলাম বাবলূ , বীরমু‌ক্তি‌যোদ্ধা নাজমুল হাসান পাখী,মহানগর আওয়ামীলী‌গের সহ-সভাপ‌তি জ‌হিরুল ইসলাম সে‌লিম,সদর উপ‌জেলা চেয়ারম‌্যান এড আ‌মিনুল ইসলাম টুটুল, সাধারণ সম্পাদক তা‌রিকুর ইসলাম জু‌য়েল,যুগ্ন সম্পাদক আহ‌মেদ নিয়াজ পা‌ভেল,সা‌বেক চেয়ারম‌্যান বাহালুলসহ আওয়ামীলী‌গের নেতৃবৃন্দরা।

এদিকে সম্মেলনে ৬‌টি ইউ‌নিয়‌ন আওয়ামীলী‌গের নেতাকর্মীরা ঢল নামে নগ‌রের টাউনহল  অংশ নেন। টাউনহল মাঠের। প‌্যা‌ন্ডে‌লে দলের কর্মীরা ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টারসহ মিছিল নিয়ে, উৎসব উ‌দ্দিপনায় ঢাকঢোল বাজিয়ে সম্মেলনস্থলে আসেন।

সম্মেলন স্থল নেতাকর্মী শ্লোগা‌নে মুখ‌রিত হ‌য়ে  উৎসবের আমেজ বিরাজ ক‌রে।


আরও খবর



বেইন ঘর ও সুতা কাটার মধ্যদিয়ে

রাজবন বিহারে ২দিনব্যাপী ৪৯তম কঠিন চীবর দানোৎসব শুরু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

উচিংছা রাখাইন কায়েস রঙ্গামাটি প্রতিনিধি

দেশের বৌদ্ধ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সর্বোচ্চ ধর্মীয় তীর্থস্থান রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে বেইন ঘর ও সুতা কাটার মধ্যদিয়ে মহামতি বিশাখা প্রবর্তিত নিয়মে শুরু হয়েছে দু’দিনব্যাপী ৪৯তম কঠিন চীবর দানোৎসব। 

আজ বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) ৩টায় বৌদ্ধ ভিক্ষুদের কাছ থেকে পঞ্চশীল গ্রহণ ও সংঘদান করেন মহাপরিনির্বাণপ্রাপ্ত মহাসাধক শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের শিষ্যমন্ডলী শ্রীমৎ প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির। ভিক্ষু সংঘদয় ধমীয় দেশনা প্রদান করেন। এসময় শত শত বৌদ্ধ নর নারী সাধু সাধু ধনীতে মুখরিত করে তোলে বিহার প্রাঙ্গন। 

পরে বেইন ঘর উদ্বোধন করেন চাকমা সার্কেল ব্যারিষ্টার রাজা দেবাশিষ রায়। চড়কায় তুলা থেকে সুতা কেটে বেইন বুনন কাজের উদ্বোধন করেন রাণী যেন যেন। 

এ সময় রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রæ চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানের সহধর্মিনী সহ রাজবন বিহার পরিচালনা কমিটির সিনিয়র সহ সভাপতি নিরূপা দেওয়ান, এ্যাডভোকেট সুষ্মিতা চাকমাসহ উপাসক-উপাসিকা পরিষদের সদস্যরা।


বেইন ঘর পরির্দশন শেষে সূত্রপাঠ করে করেন, মহাপরিনির্বাণপ্রাপ্ত মহাসাধক শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের শিষ্যমন্ডলী।

এর পর শুরু হয় ২৪ ঘন্টার মধ্যে চীবর প্রস্তুতের আনুষ্ঠানিকতা। এবার প্রায় দুইশত বেইন, ও দেড় শতাধিক চরকার  সহায়তায় ৬ শতাধিক দায়ক-দায়িকা অংশ নেয় কঠিন চীবর প্রস্তুতের কাজে অংশ নেন। সুতা সিদ্ধ ও রং করা, সুতা টিয়ানো, সুতা শুকানো, সুতা তুম ও নলীতে ভরা, বেইন টানা বেং বেইন বুননের মধ্যদিয়ে আজ বৃহস্পতিবার সারা রাত অতিক্রম করবেন দায়ক-দায়িকারা।

শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে ১১টা পর্যন্ত চলে চীবর প্রস্তুত। আর এভাবেই ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রস্তুত করা হয় এই পূর্ণময় চীবর রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের আবাসিক প্রধান প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবিরের হাতে কঠিন চীবরটি উৎসর্গের মধ্যদিয়ে শেষ হবে পার্বত্য চট্টগ্রামের বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় তীর্থস্থান রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে কঠিন চিবর দানোৎসব।

এদিকে, দেশের বৌদ্ধ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সর্বোচ্চ ধর্মীয় তীর্থস্থান রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে কঠিন চীবর দানোৎসবে তিন পার্বত্য জেলাসহ চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং দেশের বিভিন্ন স্থান সহ বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার পুর্ণার্থী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। দানোৎসবে কানায় কানায় ভরে গেছে রাঙ্গামাটি রাজবন বিহার এলাকা। চার দিক পাহাড়ি-বাঙালীর মিলিন মেলায় পরিণত হয়েছে।

অন্যদিকে, রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে কঠিন চীবর দানোৎসব উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বাহিরীর পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা জোড়দার করা হয়েছে। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মানুষরা যাতে সুষ্ট সুন্দর পরিবেশে উৎসব পালন করতে পারে সে বিষয়ে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। 


আরও খবর



প্রতিবছর ৩ লাখের বেশি মানুষ যক্ষ্মায় আক্রান্ত হচ্ছে

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল ঃ

যক্ষা রোগীর চিকিৎসা ও শনাক্তের পরিধি বাড়াতে প্রান্তিক পর্যায়ে পরীক্ষাগার তৈরীর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। 

যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, দেশের ভালো মানের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। টিবিতে (যক্ষ্মা) আমাদের যে বাজেট বরাদ্দ রয়েছে, প্রয়োজনে তা বাড়ানো হবে।

রোববার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির ৯ম যৌথ মনিটরিং কর্মশালায় অংশ নিয়ে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতিবছর ৩ লাখের বেশি মানুষ যক্ষ্মায় নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে। তবে মারা যাওয়ার হার কমেছে। আগে যেখানে ৭০ হাজার ছিল, বর্তমানে সেটি ৪০ হাজারে নেমে এসেছে। আমাদের মৃত্যু বেশি, কারণ আমাদের জনসংখ্যাও বেশি। 

জাহিদ মালেক বলেন, যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণে অগ্রগতি হয়েছে, শনাক্তকরণ (স্ক্রিনিং) কার্যক্রম বেড়েছে। আমাদের সকল হাসপাতালে পরীক্ষার যন্ত্রপাতি রয়েছে। যক্ষ্মা নিয়ে মানুষের মাঝে এখনো ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে, তবে পরিবর্তন আসছে, মানুষ চিকিৎসা কেন্দ্রে যাচ্ছে। বর্তমানে আক্রান্তদের ৮৫ থেকে ৯০ ভাগই চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হচ্ছে। আমরা চাই মানুষ চিকিৎসা নিতে আসুক। এজন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো এগিয়ে আসায় তাদের ধন্যবাদ। 

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে আমাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যহত হয়েছে। এ সময় আমাদের স্বাস্থ্যখাত চাপে পড়েছিল। হাসপাতালের বেশিরভাগ শয্যা করোনা রোগীদের জন্য দিয়ে দিতে হয়েছিল। নতুন নতুন হাসপাতাল করতে হয়েছে, শয্যা ও সুযোগ সুবিধা যুক্ত করতে হয়েছে। এ সময় টিবিসহ অন্যান্য সেবা কার্যক্রম ব্যহত হয়েছে। তবে করোনা নিয়ন্ত্রণ করে খুব দ্রুতই আমরা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছি। বাংলাদেশে ৯০ ভাগ মানুষকে ভ্যাকসিন দিয়েছে। অথচ সারাবিশ্বে ৭০ ভাগ মানুষ টিকার আওতায় এসেছে।


আরও খবর

জন্মনিয়ন্ত্রণে আগ্রহ কমছে

শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২




সাভারে জোড়া কন্যা শিশুকে নিয়ে দ্বাড়ে দ্বাড়ে ঘুরছে দম্পতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

সাভার প্রতিনিধি ঃ

ঢাকার সাভারে জন্ম নেওয়া দুই জোড়া শিশুকে কুলে নিয়ে দ্বাড়ে দ্বাড়ে ঘুরছেন সেলিম-সাথী দম্পতি। শিশু দুটিকে পৃথক জীবনে ফেরানোর জন্য অপারেশন ও চিকিৎসার জন্য অর্থ যোগাতে এ কাজ করছেন তারা।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে সাভার উপজেলা চত্বরের পাশে শিশু দুটিকে নিয়ে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায় সেলিম দম্পতি কে। 

শিশু দুটির পরিবার ঢাকা জেলার  আশুলিয়ার পলাশবাড়ী এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। তাদের গ্রামের বাড়ি দোহার থানার ওরঙ্গবাজ গ্রামে। সেলিম দোকানে গ্রিলের কাজ করেন। 

এসময় তার সাথে কথা হলে মোঃ সেলিম জানান, গত বছর ১৯ অক্টোবর সাভারের সুপার ক্লিনিকে জন্ম গ্রহণ করে খাদিজা ও সুমাইয়া। নিম্ন আয়ের সেলিম এক বছর ১০ দিন বয়সী দুই শিশু কে জন্মের পর থেকেই পৃথক করার জন্য দ্বাড়ে দ্বাড়ে অর্থের জন্য যাচ্ছেন। দুই জোড়া মেয়েকে নিয়ে পৃথক করতে যে অর্থের প্রয়োজন তার পক্ষে সেটা বহন করা সম্ভব না। ইতোমধ্যে শিশু দুটিকে সুস্থ রাখতে রাজধানীর শিশু হাসপাতালে বিভিন্ন সময়ে চিকিৎসা দিয়েছেন। 

তিনি বলেন, 'আমার বাচ্চা দুটি ঢাকা মেডিকেল শিশু ওয়ার্ডের ৫ নম্বর বেডে ভর্তি আছেন। মুটামুটি আমার মেয়ে দুটি শরীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন দুইটা পরীক্ষা বাকী আছে। এই দুই পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর তারপর অপারেশনের জন্য প্রস্তুতি নিবে ডাক্তার। এই সার্জারি অপারেশন সম্পুর্ন করতে আমাদের অনেক টাকার প্রয়োজন। কারণ এক বছরে হাসপাতালে থাকতে থাকে জমানো সব টাকা শেষ হয়েও ঋণ করেছি। বর্তমানে টাকা না থাকায় আমরা এখন সাহায্যের জন্য মানুষের দ্বাড়ে দ্বাড়ে যাচ্ছি। দেশের সকল মানুষের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করছেন যেন শিশু দুইটি কে অপরেশন করে সুস্থ করে তুলতে পারেন।


আরও খবর

জন্মনিয়ন্ত্রণে আগ্রহ কমছে

শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২




বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই বিএনপির সঙ্গে জাতীয় পার্টির জোট গঠনের বিষয়ে রাজনৈতিক গুঞ্জন চলছে। তবে বিষয়টিকে সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তিনি বলেছেন, জনগণ উন্নতি ও শান্তির জন্য পরিবর্তন চায়। জাতীয় পার্টিই দিতে পারে সেই শান্তি। অবশ্যই তা বিএনপি নয়। বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না।

পাঁচ মাস চিকিৎসার পর (২৭ নভেম্বর) দুপুরে থাইল্যান্ড থেকে দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

রওশন এরশাদ বলেন, বিএনপির সময়ে জাতীয় পার্টি খুবই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমাদের নেতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবং আমি ও আমার সন্তানসহ দলের হাজার হাজার নেতাকর্মী জেল খেটেছেন। তখন আমাদের জনসভাও করতে দেওয়া হয়নি। ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে অনেক জনসভায় হামলা চালানো হয়। সেই দিনগুলো আমরা ভুলবো কী করে? তাছাড়া আমরা তাদের শাসনামলে হাওয়া ভবনের দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা ও অপতৎপরতা দেখেছি।

পার্টির ঐক্যের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করে জাপার প্রধান পৃষ্ঠপোষক বলেন, আমি আবারও বলছি, পার্টিকে বিভক্ত করার প্রশ্নই ওঠে না। বরং আমি জাতীয় পার্টির সব সদস্যকে খোলা মনে আহ্বান জানিয়েছি- যারা আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, নাজিউর রহমান, কাজী জাফর আহমদের সঙ্গে চলে গেছেন এবং নিষ্ক্রিয় হয়ে গেছেন, তাদের ফিরে আসার জন্য। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত জাতীয় পার্টির কঠিন ও প্রতিকূল সময়ে যারা আমাদের সঙ্গে ছিলেন, তাদেরকে আমাদের অবশ্যই যথাযথ স্বীকৃতি দিতে হবে।

তিনি বলেন, আগেও বলেছি, আজও বলছি- আমি সব সময়ই জাতীয় পার্টির ঐক্য চাই। আপনারা সবাই জানেন আমার স্বামী প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, আমি এবং আমার পরিবারের সদস্যদের কত কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে। আমি দেখেছি গত ৩২ বছরে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা কতটা কঠোর পরিশ্রম করেছেন।

তিনি বলেন, এসব ভুল বোঝাবুঝির জন্য এবং পার্টিকে দুর্বল করতে কিছু ষড়যন্ত্র হতে পারে। যেমনটি আমরা ১৯৯৬, ২০০১ এবং ২০১৪ সালে দেখেছি। ইনশাআল্লাহ, আমরা সেসব ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করবো এবং ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী জাতীয় পার্টি গড়ে তুলবো।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে রওশন বলেন, মনে রাখবেন রংপুর জাতীয় পার্টি প্রাণ। এটা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বাড়ি। তাই আসনটি যেকোনো মূল্যে ধরে রাখতে হবে। জাতীয় পার্টির প্রতীক ‘লাঙল’ নিয়ে নির্বাচনে জয়ী হবে এমন যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেবো, ইনশাআল্লাহ। এজন্য সব নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে সরকারের প্রতি আস্থা জানিয়ে বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের শান্তি, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়ন বজায় রাখতে সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছেন। দুর্নীতি, অর্থনীতিতে অব্যবস্থাপনা এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির মতো কিছু ক্রটি রয়েছে। আমি নিশ্চিত যে, প্রধানমন্ত্রী এসব বিষয়ে অবগত আছেন। আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করবো এই বিষয়গুলোকে আরও ভালোভাবে সমাধান করতে এবং মন্ত্রিপরিষদের সদস্যদের আরও বেশি আন্তরিক ও সক্রিয় হতে হবে।

তিনি বলেন, বর্তমান ভূ-রাজনীতি বিশেষ করে ইউক্রেনের যুদ্ধ গুরুতর অর্থনৈতিক সমস্যার সৃষ্টি করেছে। এর প্রভাব পড়েছে আমাদের দেশেও। তাই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমাদের সবাইকে আরও সতর্ক হওয়া উচিত এবং সরকারকে সহযোগিতা করা উচিত।


আরও খবর