Logo
শিরোনাম

মোরেলগঞ্জে মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়নে সভা

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়নে করনীয় বিষয় মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বেলা ১০টায় উপজেলা চত্বরে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন। সভাপতিত্ব করেন বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মো. আজিজুর রহমান

এ ছাড়াও সরকরি এসএম কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নীতিশ বিশ্বাস, উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. শাহ্-ই-আলম বাচ্চু,  পৌরসভা মেয়র এসএম মনিরুল হক তালুকদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল মামুন উপজেলা স্কাউটস কমিশনার হোসনেয়ারা হাসিসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও এসএমসি সভাপতিগণ উপস্থিত ছিলেন। 

অন্যান্যের মধ্যে আলোচনা করেন অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আল আজাদ, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান, প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান, দুর্গা ঘরাই, স্কাউটার সারমিন আক্তার ও সাংবাদিক মশিউর রহমান মাসুম। 


আরও খবর



নওগাঁয় বিজিবি'র উপর হামলা, মূলহোতা বাবা ও ছেলেকে আটক

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ


নওগাঁর সীমান্ত এলাকায় মাদক চোরাকারবারি কর্তৃক বিজিবি'র টহল দলের উপর হামলার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত বাবা ও ছেলেকে আটক করেছে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, কাম্পের চৌকস অভিযানিক দল। আটককৃতরা নওগাঁর পার্শ্ববর্তী জয়পুরহাট জেলার সীমান্ত দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশে পালানোর সময় র‌্যাব তাদের আটক করেন।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদককে জানানো হয়, র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের বিশেষ অভিযানে বিজিবি সদস্যদেরকে কুপিয়ে গুরুতর জখমকারী দু' জন প্রধান আসামি বাবা ও ছেলেকে গ্রেফতার পূর্বক থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। র‌্যাব আরো জানায়,


গত শুক্রবার ৪ নভেম্বর বিজিবি জেসিও নায়েব সুবেদার মোঃ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৩ জন অন্যান্য পদবীর সদস্য সহ ১৪ বিজিবি (পত্নীতলা) ব্যাটালিয়ন এর অন্তর্গত নওগাঁ জেলার ধামইরহাট উপজেলার সীমান্তবর্তী বস্তাবর সীমান্ত এলাকায় টহলে বের হয়। এবং রাত আনুমানিক সারে ৩ টারদিকে বস্তাবর সীমান্ত এলাকায় ৮/১০ জন অবৈধ মাদক ব্যবসায়ী মাদকদ্রব্য বহন করে নিয়ে আসতেছিল। এই দৃশ্য টহল টিমের নজরে আসলে দায়িত্বরত টহল টিম তাদেরকে আটক ও অবৈধ মাদক দ্রব্য উদ্ধারের চেষ্টা করলে এসময় আসামীগণ চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল, হাসুয়াসহ বিভিন্ন ধরণের ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে বিজিবি'র টহল কমান্ডার সহ ৩ জন বিজিবি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করের। এর মধ্যে টহল কমান্ডার জেসিও নায়েব সুবেদার মোঃ মুজিবুর রহমানের অবস্থা আশংকাজনক। তার মাথা ও পিঠের গভীরে হাসুয়া ঢুকে যায়। অন্যান্য সদস্যদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আঘাত করে মাদক ব্যবসায়ীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আক্রমনকারী মাদক চোরাকারবারীদের সনাক্ত করে নওগাঁ জেলার ধামইরহাট থানায় ১৪ বিজিবি (পত্নীতলা) ব্যাটালিয়ন ৭ জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত ৮/১০ জন চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর র‌্যাব এজাহারপ্রাপ্ত হয়ে র‌্যাব এর গোয়েন্দা শাখার সহায়তায় ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রাখে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার ৭ নভেম্বর পূর্বরাতে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মোঃ মোস্তফা জামান, আর্টিলারি এর নেতৃত্বে একটি চৌকস আভিযানিক দল জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানাধীন ধুরইল সীমান্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় বিজিবি সদস্যদের উপর আক্রমনকারী ও ১নং এজাহার নামীয় প্রধান আসামি মোঃ রেজাউল করিম ওরফে গুপ্তা (৫৫), পিতা- মৃত তসির উদ্দিন এবং ২নং এজাহার নামীয় আসামী মোঃ মেহেদী হাসান ওরফে রাজু (২৫), পিতা- মোঃ রেজাউল করিম ওরফে গুপ্তা উভয় সাং- রসুলবিল (ধন্দুপাড়া), থানা-ধামুইরহাট, জেলা-নওগাঁদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় এবং গ্রেফতারকৃতদের দেয়া তথ্য ও দেখানো মতে একটি হাসুয়া উদ্ধার করেন র‌্যাব।

পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত আসামী বাবা ও ছেলেকে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নওগাঁ জেলার ধামুইরহাট থানায় জিডি মূলে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে র‌্যাব।


আরও খবর



নওগাঁ থেকে নিখোঁজ যুবতীর মৃতদেহ বগুড়া কলা বাগান থেকে উদ্ধার

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


নওগাঁর মহাদেবপুর থেকে মানসিক প্রতিবন্দী মিনা পারভিন (২৭) নামে এক যুবতী নিখোঁজ হোন। মিনা পারভিন নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে তাকে ফিরে পেতে তার বিধবা মা ও ভাই প্রতি নিয়তই খুজছিলেন একের পর এক বিভিন্ন এলাকায়। এক পর্যায়ে মিনা পারভিন এর ভাই আব্দুস সালাম  বোন নিখোঁজ এর ঘটনায় গত ৩১ জুলাই মহাদেবপুর থানায় একটি নিখোঁজ জিডি করেন। জিডি নং-১৪৩৫। থানায় জিডি করার পর নিখোঁজ মেয়েকে ফিরে পেতে তার বিধবা মা প্রতিদিন কোন না কোন স্থানে খুজে বেঁড়াচ্ছিলেন মেয়েকে। মিনা পারভিন নিখোঁজ এর ঘটনাটি নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়াতে ছবি সহ সংবাদ প্রকাশ করেন নওগাঁর সাংবাদিকরা। এরি মাঝে গত সোমবার ২১ নভেম্বর বগুড়ার মহাস্থান এর স্থানিয় সাংবাদিক এস আই সুমন তার ব্যাক্তিগত "ফেসবুক" আইডিতে "কলা-বাগান থেকে অজ্ঞাত নারী (২৫) এর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ" মর্মে ছবি সহ পোস্ট দিলে ঐ রাতে পোস্টটি দেখে নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সদস্য বিডি টুডেস এর স্টাফ রিপোর্টার শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন প্রথমে বগুড়া'র শিবগঞ্জ থানার ওসি ও মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ পূর্বক "নিখোঁজ মিনা পারভিন এর ছবি সহ বিডি টুডেস এ প্রকাশিত সংবাদের লিঙ্ক ও জিডি কপি পাঠালে" থানা কর্তৃপক্ষ জানান, আপনার পাঠানো ছবির সাথে উদ্ধারকৃত মৃতদেহ (নারীর) মিল রয়েছে, আপনি নারীটির পরিবারকে জানান এবং থানায় যোগাযোগ করতে বলেন। এরপর রাতেই

নিখোঁজ মিনা পারভিনের ভাই আব্দুস সালামকে ঘটনাটি জানানো হলে তিনি সহ স্বজনরা মঙ্গলবার ২২ নভেম্বর বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা ও মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে গিয়ে জানতে পারেন, সম্ভাব্য সময়ে নিহতের নাম-পরিচয় না মেলায় ময়না তদন্ত শেষে সোমবার সন্ধায় বগুড়া নামাজগড় আঞ্জুমান কবরস্থানে দাফন সম্পূর্ণ করা হয়। এসময় মিনা পারভিন এর ভাই ও বোন সেখানে মৃতদেহর ছবি সহ বিভিন্ন বর্ণনায় মৃতদেহটি তাদের নিখোঁজ বোন মিনা পারভিন এর বলে প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করেন এবং ভাই-বোন সহ স্বজনরা বগুড়াতে বোনের কবর দেখে তারা নওগাঁতে ফিরেন।

উল্লেখ-গত রবিবার সকালে বগুড়ার শিবগঞ্জ থানাধীন মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র এলাকার ছাওয়ালদহ গ্রামের একটি কলা-বাগান এর ভেতর  অজ্ঞাত যুবতীর মৃতদেহ পরে থাকতে দেখে স্থানিয়রা থানা পুলিশ কে জানান।

খবর পেয়ে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস আই মনোয়ারুল ইসলাম সবুজ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পৌছে প্রাথমিক সুরতহাল রির্পোট অন্তে অজ্ঞাতনামা যুবতীর মৃতদেহ উদ্ধার পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেন। রবিবার ও সোমবার দু'দিনেও উদ্ধারকৃত মৃতদেহর নাম-পরিচয় সনাক্ত না হওয়ায় ময়না তদন্ত শেষে সোমবার সন্ধায় অজ্ঞাত নামা হিসেবে মৃতদেহটি বগুড়া আঞ্জুমান কবর স্থানে দাফন সম্পূর্ণ করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন পুলিশ।



আরও খবর



ডিসেম্বরে চালু হবে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে চালু হবে মেট্রোরেল। ২৩ নভেম্বর রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়েছেন ডিএমটিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন ছিদ্দিক।

অনুষ্ঠানে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রোরেল 'এমআরটি লাইন-ওয়ানে' পিতলগঞ্জ ডিপো এলাকার ভূমি উন্নয়নে ঠিকাদার নিয়োগে চুক্তি সই করে ডিএমটিসিএল।

তিনি আরো বলেন, প্রাথমিকভাবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট খুলে দেওয়া হবে। এ পথ পাড়ি দিতে পড়বে ৯টি স্টেশন। উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের নির্মাণসামগ্রী সরানো হয়েছে। বিশেষ করে কংক্রিট ও স্টিলের রোড ট্রাফিক বেরিয়ার। এ ট্রাফিক বেরিয়ার এক সময় ভুগিয়েছে পথচারীদের। মূলত মেট্রোরেলের পিলার নির্মাণ করার সময় নিরাপত্তার জন্য এগুলো ব্যবহার করা হয়।

ডিএমটিসিএল জানায়, সময়াবদ্ধ কর্মপরিকল্পনা ২০৩০ অনুসরণে ২১ দশমিক ২৬ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রায় ৩৩ হাজার ৪৭২ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে উত্তরা উত্তর থেকে কমলাপুর পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে। চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সার্বিক গড় অগ্রগতি ৮৩ দশমিক ১৩ শতাংশ। প্রথম পর্যায়ে নির্মাণের জন্য নির্ধারিত উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে আগারগাঁও অংশের পূর্ত কাজের অগ্রগতি ৯৪ দশমিক ২২ শতাংশ। দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্মাণের জন্য নির্ধারিত আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের পূর্ত কাজের অগ্রগতি ৮৪ দশমিক ৩৪ শতাংশ। ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল সিস্টেম এবং রোলিং স্টক (রেলকোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ কাজের সমন্বিত অগ্রগতি ৮৩ দশমিক ৮১ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুসরণে মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বর্ধিত করার জন্য নকশা পর্যন্ত যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। ভূমি অধিগ্রহণের কার্যক্রম চূড়ান্ত পর্যায়ে। এ অংশের পরিষেবা যাচাই এর কাজ শুরু করা হয়েছে।


আরও খবর

কর্মবিরতিতে নৌযান শ্রমিকরা

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




বিজিবি সদস্যর গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


বিজিবি'র এক সদস্যর গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার।

জয়পুরহাটে এক বিজিবি সদস্যের ‘গুলিবিদ্ধ’ হয়ে মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বিজিবি’র পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।  

নিহত বিজিবি সদস্য নেপাল দাস (৩৫), জয়পুরহাট ২০ বিজিবির সিপাহী। সে ফরিদপুর জেলার মধুখালি মেঘচামী এলাকার নারায়ণ দাসের ছেলে।

জেলার গোয়েন্দা বিভাগ সূত্র জানায়, হত বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর রাতে বিজিবি জয়পুরহাট ব্যাটালিয়নের অধিনস্থ পাঁচবিবি বিশেষ ক্যাম্পে দায়িত্বরত সদস্য নেপাল দাস গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন বিজিবি’র অন্যান্য সদস্যরা। পরে তাকে জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক সিপাহী নেপালকে মৃত ঘোষণা করেন। 

শুক্রবার ১৮ নভেম্বর সকালে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ সরদার রাশেদ মোবারক সাংবাদিকদের জানান, নেপাল দাসের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। মৃতদেহের ডান পিঠ ও হাতে গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। 

এবিষয়ে জয়পুরহাট ২০ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোঃ রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জয়পুরহাট থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, ময়না তদন্ত শেষে বিজিবি’র পাহাড়ায় নেপালের মৃতদেহ রাতেই ফরিদপুরে তার গ্রামের বাড়িতে নেওয়া হয়। 

এর বেশী কোন তথ্যই দিতে নারাজ বিজিবি বা পুলিশ প্রশাসন। তার শরীরে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে সদর থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু (ইউডি) মামলা করা হয়েছে বলেও পুলিশ সুত্র জানায়।


আরও খবর



কথাসাহিত্যিক ইজাজ আহমেদ মিলনের লেখা

ভাওয়াল বীরের জন্মদিনে ‘জীবনালেখ্য’

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শ্রমিক নেতা ও গাজীপুর-টঙ্গী-২ আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ৭২তম জন্মদিনে তার যাপিত জীবন নিয়ে কথা সাহিত্যিক ইজাজ আহাম্মদ মিলনের লেখা ‘জীবনলেখ্য’ বইটি প্রকাশ হয়েছে।

আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে বইটির মোরক উন্মোচন করেন।

৯ নভেম্বর ১৯৫০ সালে জন্ম নেওয়া আহসান উল্লাহ মাস্টার ২০০৪ সালের ৭ মে মাত্র ৫৪ বছর বয়সে ঘাতকের বুলেটে নিভে যায় তার জীবন প্রদ্বীপ। 

শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ‘ভাওয়াল বীর’ খ্যাত আহসান উল্লাহ মাস্টার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান থেকে মানুষের ভালোবাসাকে পুঁজি করে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের নির্বাচনে দুবার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সংসদ সদস্য থাকাকালেই ঘাতকরা তাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করে।

জাতির পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে ’৬৬-এর ৬ দফা, ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০-এর নির্বাচনে ভূমিকা রাখা, ’৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণসহ বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি আন্দোলনেই সরাসরি অংশ নিয়েছেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর আশীর্বাদ পাওয়া আহসান উল্লাহ মাস্টার শ্রমিকদের অধিকার রক্ষায় আজীবন আন্দোলন করেছেন। তাদের পক্ষে কথা বলেছেন। মাদকের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেছিলেন ’৯০-এর দশকের গোড়ার দিকেই। তুমুল জনপ্রিয় এক নেতৃত্বে পরিণত হন তিনি।

রাজনীতির মাঠে আহসান উল্লাহ মাস্টারের আলোয় আলোকিত হয়েছিল গাজীপুর। কিন্তু কেমন ছিল আপদমস্তক এ রাজনীতিকের জীবন? গ্রাম থেকে উঠে এসে কীভাবে জাতীয় রাজনীতিতে জায়গা করে নিয়েছিলেন? তার জন্ম, শৈশব, কৈশোর, যুদ্ধের ময়দানে মৃত্যুর খুব কাছ থেকে ফিরে আসা- এমন নানা অজানা অধ্যায় নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক ইজাজ আহমেদ মিলন লিখেছেন ‘আহসান উল্লাহ মাস্টার : জীবনালেখ্য’। এই বইটি তরুণ প্রজন্মের কাছে আহসান উল্লাহ মাস্টারের আদর্শকে তুলে ধরতে সহায়ক হবে মনে করেন লেখক ও সংশ্লিষ্টরা।


আরও খবর