Logo
শিরোনাম

মোরেলগঞ্জে নিশানবাড়িয়ায় যুবলীগের প্রস্তুতি মূলক সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

বাগেরহাট প্রতিনিধি :

বাগেরহাট জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে সফল করার লক্ষ্যে মোরেলগঞ্জ বিভিন্ন ইউনিয়নে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৪টায় উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে দলীয় কার্যালয়ে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তাব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম।

প্রধান বক্তা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাডভোকেট তাজিনুর রহমান পলাশ, বিশেষ অতিথি ছিলেন নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম, পৌর যুবলীগের আহবায়ক আসাদুজ্জামান বিপু, যুগ্ম আহবায়ক আরিফুল ইসলাম আরিফ।  

প্রস্তুতি মূলক সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক শামীম আহসান তালুকদার। বক্তাব্য রাখেন ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আনিছুর রহমান কাইয়ুম, যুগ্ম আহবায়ক ফেরদৌস হোসেন পিয়াস, সাব্বির আহমেদ সুমানসহ ইউপি সদস্যবৃন্দ ও আওয়ামী যুবলীগের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু। এর পূর্বে পঞ্চকরন ইউনিয়নে যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তাব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম। বিশেষ অতিথির বক্তাব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক মজুমদার, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাডভোকেট তাজিনুর রহমান পলাশ, ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক বদিউজ্জামান মজুমদার, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুর রাজ্জাক খলিফা, শাহিন হাওলাদার, বিলাস মোল্লা প্রমুখ। 


আরও খবর



নিলীমা দাসের শুভ জন্মদিন

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image
এড. মৃণাল কান্তি দাসের সহধর্মিণী নিলীমা দাসের জন্মদিন



আরও খবর



ধামরাইয়ের বিখ্যাত মিষ্টি ক্ষীরমোহন

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন (স্টাফ রিপোর্টার):


ঢাকার ধামরাইয়ের কাওয়ালীপাড়া বাজারের ইসমাইল সুইটস এর ক্ষীরমোহন অনন্য এক মিষ্টান্নের নাম। অনেকেই ভীষণ ভোজনপ্রিয় মানুষ। খাবারের নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে। আর যদি সেটা হয় মন জুড়ানো মিষ্টি গন্ধ, তাহলে তো কথাই নেই। এই সুস্বাদু মুখরোচক খাবারটি হচ্ছে কাওয়ালীপাড়ার ‘ক্ষীরমোহন’। দুধ, চিনি, ঘি, দুধের ছানা, ময়দা, তেজপাতা, ছোট এলাচ ইত্যাদি দিয়ে তৈরি ঘন রসযুক্ত মিষ্টান্ন।

ধামরাই উপজেলার গ্রামাঞ্চলে প্রাকৃতিক উপায়ে বেড়ে ওঠা সবুজ ঘাস, লতা-পাতাসহ নানা গো-খাদ্য বাড়িতে পালা গাভিকে খেতে দেয়া হয়। তাই এই এলাকার গরুর দুধ খাঁটি দুধের গুনাগুণ সমৃদ্ধ। সেই দুধ থেকে তৈরি হয় এই ক্ষীরমোহন।

প্রসঙ্গত,ক্ষীর ও মোহনের সংমিশ্রণে তৈরি হয় ক্ষীরমোহন। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভেতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় অমৃত স্বাদের ক্ষীরমোহন।

ইসমাইল সুইটস এর কর্মচারী মোঃ বাদশা মিয়া বলেন, খাঁটি ছানা থেকে তৈরি মিষ্টি প্রথমে গরম চিনির রসে জ্বাল দেয়া হয়। মিষ্টি হয়ে এলে তা থেকে রস ঝরিয়ে নিয়ে দুধে জ্বাল দেয়া হয়। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভিতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় লোভনীয় ‘ক্ষীরমোহন’। সাধারণত ১ মণ দুধ জ্বাল দিয়ে ১৭ থেকে ১৮ কেজি ক্ষীর তৈরি করা হয়। এতে যুক্ত হয় ২৫০ গ্রাম ঘী। এর সাথে ৮ কেজির মত মিষ্টি ক্ষীরে জ্বাল দিয়ে ২৪/ ২৫ কেজি ক্ষীরমোহন বানানো হয়। এর স্বাদ নিতে আসেন ছোট-বড় সকলেই। প্রতিটি ক্ষীরমোহন ৫০ টাকা এবং ৩৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয় ।

ক্ষীরমোহন খেতে আসা ভোজনপ্রিয় মানুষ মোঃ বাবুল হোসেন বলেন, ক্ষীরমোহনের স্বাদ ও গন্ধ থেকেই জিভে পানি আনার মতো। এই খাবার খেতে খুবই সুস্বাদু আত্মীয় স্বজনদের বাড়ি নিয়ে গেলেও এই রসমালাইকে গুরুত্ব দেয়।


আরও খবর



নওগাঁয় বাঁশের তৈরী পণ্য বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন দম্পতি

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁর মহাদেবপুরে বাঁশদিয়ে আসবাব পত্র তৈরী ও বিক্রি করে সংসারে সফলতা এনেছেন উজ্জ্বল ও পুষ্প তরনী দম্পতি।

কুটির শিল্পের কারিগর এই দম্পতি বাড়িতে বাঁশের তৈরী বিভিন্ন রকম ডালা, চালুন, কুলা, ডালি, হাতপাখা, ঝাড়ুসহ নানা রকম সাংসারিক সামগ্রী তৈরী করে এসব হাটেবিক্রি করে সংসারে খরচ করেন। সংসারে স্বামীকে সহযোগিতা করার পাশাপাশি স্ত্রী নিজেই এখন বড় ব্যবসায়ী। তার দোকানে সাজানো আছে বাঁশ দিয়ে হাতের তৈরি বিভিন্ন রংয়ের কুলা, চালন, ডালি, হাতপাখা, ঝাড়ু সহ অনেক বাঁশের তৈরী আরো অনেক আসবাব পত্র। মহাদেবপুর উপজেলা সদরের সারপট্রি এলাকায় বসে এই শিল্পের ব্যবসায়ীরা বাঁশের তৈরী এসব আসবাব পত্র বিক্রিও করে থাকেন।

সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় উজ্জ্বল তরনী দম্পতির সঙ্গে। তারা বলেন, আমরা থাকি উপজেলা সদরের কালিতলা মন্দিরের কাছে সুলতানপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার ঘরে। তিনি আরো বলেন, আমরা স্বামী স্ত্রী দুজনেই বাঁশদিয়ে নিজেরাই এসব আসবাব পত্র তৈরী করি, এছাড়াও কিছু জিনিস আমরা কিনে নিয়ে আসি। 

এসময় দেখা যায়, রঙিন গোমাই। সেগুলো বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা করে। হাঁস মুরগী ঢাকা টোপা বিক্রি হয় ২০০ থেকে ৩০০ টাকা করে। এছাড়া বিভিন্ন দামের বিভিন্ন শিল্প আছে এদম্পতির দোকানে।

পুষ্প তরনী বলেন, ডালি, হাতপাখা, চালন, কুলা সহ অনেক কিছু আমরা নিজেই তৈরি করি। দিনে মাঝারি ডালি ৬-৭টা, কুলা ২০টি তৈরি করা যায়। কুলার দাম ৫০-৭০ টাকা। এগুলো হাতের তৈরি আদীয় শিল্প। সারা বছর এই ব্যবসা চলে। সপ্তাহে শনি ও বুধবার হাট হলেও আমরা প্রতিদিন এখানে নিয়ে এসে বিক্রি করি। এছাড়া বাড়ি থেকেও অনেকে কিনে নিয়ে যায়। প্রকারভেদে এবং মানঅনুযায়ী ৫০ থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত ঝাড়ু বিক্রি হয়।

পাশাপাশি পাইকারি নিয়ে এসে বিক্রি করছে অনেক কিছু। এদম্পতি টিকিয়ে রেখেছে বাঁশের তৈরি আদীয় শিল্পকে। তারা দু'জনেই বলেন, ৪ মেয়েকে নিয়ে ভালোই আছি। এক মেয়ের বিয়ে হয়েছে। আরেক মেয়ের বিয়ের কথা চলছে। অন্য মেয়েরা পড়াশোনা করছে।

এব্যাপারে মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু হাসান মুঠোফোনে গনমাধ্যমকে বলেন, স্বামী-স্ত্রী দম্পতি হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যকে ধরে রেখেছে এটা অবশ্যই সবার জন্য একটা অনুপ্রেরণা মূলক কাজ। 

এটা আগে ছিল নিত্য প্রয়োজনীয়। তবে এখন এই শিল্পগুলো অনেক জায়গায় সৌখিন হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে। তিনি বলেন, তারা যদি কোন সহযোগিতার জন্য আসে আমি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক চেষ্টা করবো।


আরও খবর



রাজশাহীতে নৌকা মার্কায় ভোট চাইলেন --প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Sunday ২৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

রাজশাহীতে ২৬টি প্রকল্প উদ্বোধণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

উন্নয়নের জয়যাত্রা অব্যাহত রেখে ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার ২৯ জানুয়ারী বিকেলে রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় জনসভায় উপস্থিত লাখো জনতাকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপি আরো বলেন, নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের জয়যাত্রা, ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা যেন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে পারি এজন্য আপনারা নৌকায় ভোট দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত নির্বাচনে আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছেন এজন্য আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আবারও আপনাদের আহ্বান জানাচ্ছি, আগামী নির্বাচনেও ''চলতি বছর এর শেষে অথবা আগামী বছরের শুরুতে'' আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন কিনা ওয়াদা চাই। প্রধানমন্ত্রীর কথাশুনে মাঠে থাকা লাখো নেতা-কর্মীরা স্লোগান দিয়ে ভোট দেওয়ার অঙ্গীকার করেন এসময়।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, রাজশাহী সব সময় অবহেলিত ছিলো। বিগত মেয়র নির্বাচনে আপনারা আমাদের ভোট দিয়েছেন। আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে নৌকাকে জয়যুক্ত করেছেন। আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

আওয়ামীলীগ সরকার রাজশাহীতে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, ২০০৯ সাল থেকে গত ১৪ বছরে শুধুমাত্র রাজশাহী জেলা ও মহানগরে ১০ হাজার ৬শ' ৬০ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে দিয়েছি।

এসময় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা জনসভার পূর্বে ৩২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের কথা উল্লেখ করে আরো বলেন, আজকেই কিছুক্ষণ আগে ১ হাজার ৩শ' ৩৩ কোটি টাকার ২৬টি প্রকল্প উদ্বোধন করলাম এবং ৩শ' ৭৫ কোটি টাকার ৬ টি প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলাম। 

এ প্রকল্পগুলো আমি আপনাদের উপহার হিসেবে দিয়ে গেলাম বক্তব্যে জনতার জনতার উদ্দ্যশ্যে বলেন প্রধানমন্ত্রী।


আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয় মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আওয়ামীলীগ সংগঠন হলো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর হাতে গড়া সংগঠন। এজন্যই আওয়ামীলীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে, হয়েছে উন্নয়ন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ। যেখানে ৪০ ভাগ দারিদ্র সীমা ছিলো, আমরা ২০ ভাগে নামিয়ে এনেছি। বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতাসহ অনান্য ভাতা আমরা দিয়ে যাচ্ছি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর দেশে কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না। কোনো মানুষ না খেয়ে কষ্ট পাবে না। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী, রাজশাহীতে একটি আন্তর্জাতিক মানের হোটেল করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তাহলে আমরা এখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজন করতে পারবো।

মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত জনসভায় সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ আলী কামাল। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সহ দলের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, তথ্য মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল, ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন সহ অন্যান্য নেতা-কর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

রবিবার সকাল থেকেই মাদ্রাসা মাঠ জনসভাস্থলে জড়ো হোন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এক পর্যায়ে রাজশাহী মাদ্রাসা মাঠের বাইরেও আশ-পাশের এলাকায় হাজারো নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ইউক্রেনে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, উপমন্ত্রীসহ ১৮ জনের মৃত্যুর জন্য দুর্ঘটনা নয়, বরং যুদ্ধকে দায়ী করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

সরাসরি রাশিয়ার নাম না নিলেও তিনি বলেছেন, যুদ্ধের সময় কোনো দুর্ঘটনা ঘটে না। দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে রাখা বক্তব্যে জেলেনস্কি বলেছেন, এই বিয়োগাত্মক ঘটনাটি যুদ্ধের পরিণতি। এদিন রুশ আক্রমণ ঠেকাতে দ্রুত আরও অস্ত্র পাঠাতে মিত্রদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। কারণ, মুক্ত বিশ্ব যে সময়টা চিন্তা করতে ব্যয় করে, সন্ত্রাসী রাষ্ট্র সেই সময়টা হত্যা করতে ব্যয় করে। তাই, চলমান সংকট নিরসনে ইউক্রেনকে আরও বেশি সহায়তার বিকল্প নেই বলে মনে করেন ভলোদিমির জেলেনিস্কি। 


আরও খবর