Logo
শিরোনাম

মোড়েলগঞ্জে স্কাউটস্’র ‘করোনাযোদ্ধা সনদ’ নিয়ে বির্তকের ঝড়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদক বাগেরহাট :

বাংলাদেশ স্কাউটস্ বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে ‘করোনাযোদ্ধা সনদ’ বিতরণ নিয়ে ফেজবুকে নিন্দার ঝড় বইছে। স্কাউটস্ এর ব্যানারে সনদ বিতরণ করা হলেও ওই সনদে স্কাউটস্ এর কোন কর্মকর্তার স্বাক্ষর নেই। নেই স্কাউট লোগোও। স্কাউটিংয়ের সাথে কোনদিন যার সম্পর্ক ছিলোনা, নেই কোন অরিন্টেশন, বেসিককোর্স সনদ, দিক্ষা গ্রহন এমন ব্যাক্তিকেও সনদ দেওয়া হয়েছে ফটোসেশন করে।

ফলে, বিতর্কের মধ্যে পড়েছেন উপজেলা স্কাউটস্ সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম। প্রশ্নের মুখে পড়েছেন উপজেলা স্কাউটস্ কমিশনার মো. আবু সালেহ ও সাধারণ সম্পাদক প্রভাত কুমার মিস্ত্রীও। কাউকে খুশি করতে গোপন যোগাযোগের মাধ্যমে সনদ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। করোণাযোদ্ধা সনদ থেকে বাদ পড়েছেন চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, সাংবাদিক, এনজিও, জনপ্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, সামাজিক সংগঠন, সাংস্কৃতিককর্মী ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে ৮ আগষ্ট ৬০ জন স্কাউট লিডারের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত করোনযোদ্ধা সনদ বিতরণ করা হয়। বলা হয়েছে এটি বাংলাদেশ স্কাউটস্ এর সনদ। অথচ সনদে স্কাউট কর্মকর্তা হিসেবে কারো স্বাক্ষর নেই। নেই স্কাউট মনোগ্রামও।

এ ধরণের সদন বিতরণের পর পরই নানা প্রশ্ন তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেজবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন করোনাকালিন দু:সময়ে সম্মুখ সারিতে থাকা করোণাযোদ্ধারা। এ ঘটনায় প্রশ্নবিদ্ব হয়ে পড়েছেন সনদ বিতরণী কার্যক্রমের আয়োজক ও নিতি নির্ধারকরা। বির্তকিত এ সনদ বাতিলেরও দাবি জানিয়েছেন সুশিল সমাজ ও স্থানীয়রা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম এ বিষয়ে বলেন, স্কাউটস্’র আয়োজনে শুধুমাত্র স্কাউটিংয়ের সাথে জড়িত যারা তাদের মধ্যে থেকে বাছাই করে ৬০ জনকে এ সনদ দেওয়া হয়েছে। যেহেতু বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক উঠেছে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও এ কর্মকর্তা জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা স্কাউটস্ কমিশনার মো. আবু সালেহ বলেন, উপজেলা স্কাউটসের উদ্যোগে করোনাযোদ্ধা সনদ বিতরণে তালিকা নির্ধারনের ক্ষেত্রে কিছুটা  ত্রুটি হয়েছে। যাদেরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিলো তারা সঠিক দায়িত্ব পালন করেননি।

উপজেলা স্কাউটস্ কমিশনার ও সাধারণ সম্পাদক বিতরণকৃত ওই সনদে স্কাউটস্’র মনোগ্রাম আছে বলে দাবি করলেও তা তারা প্রমান করতে পারেননি। সম্পাদক প্রভাত কুমার মিস্ত্রী এক পর্যায়ে এ ঘটনার জন্য দু:খ প্রকাশ করেন। 


আরও খবর

ফকিরহাটের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




কু‌মিল্লা জেলা প‌রিষদ নির্বাচ‌নে

আওয়ামীলী‌গের ম‌নোনয়ন পে‌লেন ম‌ফিজুর রহমান বাবলূ

প্রকাশিত:শনিবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

কু‌মিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লা জেলা পরিষদ নির্বাচনে বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুর রহমান বাবলু আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা পেয়েছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুর রহমান বাবলু যিনি একজন বর্ষীয়ান রাজনীতিক, প্রখ্যাত আইনজীবী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। 

১৯৪৬ সালের ১০ আগস্ট জন্ম নেওয়া বাবলু তার মামা আওয়ামী লীগ সহ -সভাপতি কাজী জহিরুল কাইয়ুমের হাত ধরে ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে রাজনীতির পথে পা বাড়ান। তারপর ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলনে অংশ নেন। ১৯৬৪ থেকে ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত ছিলেন অবিভক্ত কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

সে সময় জাতির পিতা ঘোষিত বাঙালির মুক্তির সনদ ছয়দফা আন্দোলনে অংশ নেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ঊনসত্তরের গণআন্দোলনে অংশ নেন ডাকসুর সদস্য হিসেবে। সত্তরের নির্বাচনে দলের হয়ে কাজ করেন। অংশ নেন একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সমাজকল্যাণ সম্পাদকের।

পরে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সিনিয়র সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। ১৯৮৬ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত ছিলেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। ১৯৮২ ও ১৯৮৮ সালে দলীয় কর্মসূচি পালনকালে বিএনপি ও ফ্রিডম পার্টির নির্যাতনের শিকারও হয়েছেন রণাঙ্গনের এই বীর মুক্তিযোদ্ধা।

মফিজুর রহমান বাবলু ছিলেন ২ নাম্বার সেক্টরের বীর মুক্তিযোদ্ধা। আগরতলার রাধানগরে যুব মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে তিনি সমন্বয়কের ভূমিকা পালন করেন। পুরো মুক্তিযুদ্ধের সময় চৌদ্দগ্রামে তার নিজের বাড়িটি ছিল মুক্তিবাহিনীর অস্থায়ী ক্যাম্প। আওয়ামী লীগের নেতারাও বিভিন্ন সময়ে সেখানে বৈঠকে মিলিত হতেন। তার আরেকটি পৈতৃক বাড়িসহ এ দুটি বাড়িতে প্রায়ই পাকিস্তানি বাহিনী হানা দিত। একপর্যায়ে পাকিস্তানিরা একটি বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়। মুক্তিযোদ্ধা বাবলুর চার চাচা সেই আগুনে শহীদ হন।

দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের পাশাপাশি মফিজুর রহমান বাবলু নিজেকে জড়িয়েছেন বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সিনেট সদস্য কুমিল্লা ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশন ও কুমিল্লা ক্লাবের সদস্য। তিনি বাংলাদেশ ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য। লায়ন্স ইন্টারন্যাশনাল, কুমিল্লা লায়ন্স ক্লাব, কুমিল্লা কালচারাল কমপ্লেক্সের সঙ্গে জড়িত বাবলু কুমিল্লা শহর ও চৌদ্দগ্রামে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানও গড়ে তুলেছেন। বৈশিক মহামারি করোনায়  ক্ষতিগ্রস্ত আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে এসেছিলেন রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুর রহমান বাবলু। 

বঙ্গবন্ধু অন্তঃপ্রাণ পঁচাত্তর বছর বয়সি এ মুক্তিযোদ্ধার চাওয়া বঙ্গবন্ধুকন্যার হাতে পূর্ণতা পাক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা। প্রধানমন্ত্রীর সহযোদ্ধা হয়ে নিজেকে সেই কর্মকাণ্ডে আরও সম্পৃক্ত করতে জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলাম।

 শ‌নিবার বিকেল ৪ টায় গণভবনে আওয়ামীলীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় সিদ্ধা‌ন্তে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলাম। ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 আগামী ১৭অক্টোবর কুমিল্লা জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে কুমিল্লা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে ইতোমধ্যে ১৫ জন ব্যক্তি দলীয় মনোনয়নের আবেদন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছি‌লেন।


আরও খবর



ইউক্রেনকে আরও সামরিক সহায়তা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

 রাশিয়ার আগ্রাসন মোকাবেলায় ইউক্রেনের জন্য নতুন করে প্রায় ২৭০ কোটি ডলারের সাহায্য অনুমোদন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার একথা জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিনকেন।

ভবিষ্যত রুশ আগ্রাসনের ঝুঁকিতে থাকা ইউরোপের কয়েকটি দেশও পাবে এই সহায়তা। এদিন পেন্টাগন প্রধান লয়েড অস্টিন জানিয়েছেন, ইউক্রেনের জন্য ভারী অস্ত্র, গোলাবারুদ এবং সাঁজোয়া যানের জন্য ৬৭ কোটি ডলারের প্যাকেজ বরাদ্দ দেয়া হবে। তিনি আরও বলেন, মিত্র দেশগুলোকে ইউক্রেনকে আরও সহায়তা দেয়ার জন্য এগিয়ে আসা উচিত। এদিকে পোল্যান্ড এবং ইউক্রেন সীমান্তের কাছে অবস্থিত ব্রিস্ট শহরে সামরিক মহড়া শুরু করেছে রাশিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র বেলারুশ। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই মহড়া চলবে। 


আরও খবর

তেলের দাম কমে ৯ মাসে সর্বনিম্ন

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

মিয়ানমারে জান্তার গোলায় নিহত ২ শিশু

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২




বিশ্বম্ভরপুরে ডিজিটাল নুরানী মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের মাঝে পবিত্র কুরআন বিতরণ

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

স্টাফ রিপোর্টার  :

সুনামগঞ্জের  বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের ডিজিটাল নূরানী মাদ্রাসা অনন্তপুরে মক্তব ও মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে পবিত্র কুরআন বিতরণ করা হয়েছে।শিক্ষক আলী এরশাদ বাবলু'র পরিবার ও স্বজনদের  পক্ষ থেকে সাতগাঁও এলাকার  বিভিন্ন মাদ্রাসা ও মক্তবের শিক্ষার্থীদের মাঝে পবিত্র কুরআন বিতরণ করা হয়। ডিজিটাল নূরানী মাদ্রাসায়  ১০ সেপ্টেম্বর 

শনিবার সকালে দু-ধাপে পবিত্র কুরআন বিতরণ করা হয়েছে। প্রথম ধাপে ওয়ার্ড সদস্য মোঃ জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে ও হাফিজ রেজওয়ানুল করিম জোসেফ এর সঞ্চালনায় 

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, মাদ্রাসার মুহতামিম সাংবাদিক, মাওলানা শফিউল আলম,

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, মাওলানা মাইনুদ্দিন। দ্বিতীয় ধাপে  মাওলানা শায়খ বদরুদ্দীন'র সভাপতিত্বে  ও নূর হোসাইন লালনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, আলী এরশাদ বাবলু,বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষক শেখ দিলওয়ার হোসেন,খিরধরপুর জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা ইয়াহিয়া,উপস্থিত ছিলেন ডিজিটাল নুরানী মাদ্রাসা অনন্তপুরের সভাপতি মোঃবাবুল মিয়া ,নুরুজ্জামান শাহ, আমিরুজ্জামান শাহ, জাতীয় পার্টি নেতা মোহাম্মদ নুর আলম, মোঃ মিজানুর রহমান, শেখ মোফাজ্জল ও ত্বোয়াহা প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন 

মহাগ্রন্থ  আল-কুরআনের সঠিক শিক্ষা গ্রহণ, অনুশীলন ও তা হৃদয়াঙ্গম করে এর পবিত্র শিক্ষামালার যথাযথ সঠিক বাস্তবায়ন করা।কেননা এ কুরআনের শিক্ষার মাঝেই মানব জীবনের সব স্বার্থ ও যাবতীয় কর্মকাণ্ড  এবং দুনিয়া ও পরকালের ছোট থেকে বড় সব সমস্যার সমাধান বিদ্যমান। তাইতো পবিত্র কোরআনকে বলা হয় মানুষের পরিপূর্ণ জীবন বিধান। শেষে সবাইকে কুরআনের আলোয় আলোকিত হয়ে কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানান তারা।


আরও খবর

বিশ্বজয় করে দেশে ফিরল ক্ষুদে হাফেজ

শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




আকবর আলি খান আর নেই

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

দেশের প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আকবর আলি খান আর নেই ।

বৃহস্পতিবার রাতে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

আকবর আলী খান ১৯৪৪ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে জন্মগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তিনি হবিগঞ্জের মহুকুমা প্রশাসক বা এসডিও ছিলেন। যুদ্ধকালে সক্রিয়ভাবে মুজিবনগর সরকারের সঙ্গে কাজ করেন।

২০০৬ সালে রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদের নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের একজন উপদেষ্টা ছিলেন। পরবর্তীকালে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন না হওয়ার আশঙ্কায় তিনি তিনজন উপদেষ্টার সঙ্গে পদত্যাগ করেন।

আকবর আলী খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগে অধ্যয়ন করেন। স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর দুটিতেই প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হন। ১৯৬৭-৬৮ মৌসুমে তিনি লাহোরের সিভিল সার্ভিস একাডেমিতে যোগ দেন। প্রশিক্ষণ শেষে ১৯৭০ সালে হবিগঞ্জ মহুকুমার এসডিও হিসেবে পদস্থ হন।


আরও খবর

এক এনআইডিতে ১৫টির বেশি সিম নয়

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




মিথ্যা মামলা থেকে পরিত্রাণ পেতে দরিদ্র গৃহিণীর সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লার লালমাইয়ে মিথ্যা মামলার হয়রানি থেকে পরিত্রাণ পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সিরাজের নেছা নামের এক দরিদ্র গৃহিণী। তিনি লালমাই উপজেলার গজারিয়া গ্রামের আব্দুল মতিনের স্ত্রী। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে তিনি এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী সিরাজের নেছা জানান, একই গ্রামের গোলাম মোস্তফার স্ত্রী রাহেলা বেগমের সাথে তাদের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে তাদেরকে পরাস্থ করতে সম্প্রতি প্রতিপক্ষ রাহেলা বেগম বাদি হয়ে তার কন্যাকে ভিকটিম সাজিয়ে সিরাজের নেছার স্বামী আবদুল মতিনের বিরুদ্ধে লালমাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় আব্দুল মতিন কারাবাসে থাকাকালীন পুনরায় রাহেলা বেগম তার ননশের ছেলে রুবেলকে দিয়ে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে তদন্তাধীন রয়েছে।

সিরাজের নেছা বলেন, ‘সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে তারা মিথ্যা মামলা দিয়ে আমার স্বামীকে কারাগারে পাঠিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। আবারো আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। এর আগেও তারা আমার বাড়ি ঘরে হামলা, ভাঙচুর ও আমার কন্যা সহ আমাদেরকে মারধর করেছে। যা এলাকাবাসী অবগত আছেন। বর্তমানেও আমাদেরকে বিভিন্ন ধরণের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। আমরা দরিদ্র মানুষ। আমার এক ছেলে রিকশাচালক, দুই ছেলে নির্মাণ শ্রমিক। স্বামীর অবর্তমানে সন্তান-সন্তুতি নিয়ে আমি খুবই কষ্টে দিনাতিপাত করতেছি। প্রতিপক্ষের হামলা-মামলা ও হুমকি-ধমকিতে আমি সপরিবারে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতেছি।’

সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সত্য উদ্ঘাটন ও মিথ্যা মামলা থেকে পরিত্রাণ পেতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন ভুক্তভোগী সিরাজের নেছা। এসময় তার বোন নিলুফা বেগম, ছেলে কবির হোসেন ও নাসির উদ্দিন সহ পরিবারের অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

ফকিরহাটের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২