Logo
শিরোনাম

'নারীদের নিজেদের চেয়ে ১০ বছরের বড় পুরুষের সঙ্গে ডেট করা উচিৎ'

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

নারীদের তাদের চেয়ে অনেক বেশি বয়স্ক পুরুষদের সঙ্গে ডেটিং করা উচিৎ। অস্ট্রেলিয়ায় নিজেকে 'টাফ লাভ ডেটিং কোচ' ঘোষণা করা জেক ম্যাডক এই দাবি করেছেন। খবর ডেইলি মেইলের। 

জেক ম্যাডকের মতে, বছরের পর বছর সংগ্রাম করার পরে তিনি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে সঠিক সম্পর্ক সন্ধান ও নির্মাণ করতে হয়।   

জেক ম্যাডক একজন বিবাহিত পুরুষ। তার হাজার হাজার মানুষকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার অভিজ্ঞতা আছে। তিনি বলেছেন, একজন নারী যখন একজন কম বয়সী পুরুষকে ডেট করেন, এটি খুব কমই কাজ করে।

তিনি আরও উল্লেখ করেছেন, নারীদের বয়স্ক পুরুষদের সঙ্গে ডেট করার অনেক জৈবিক কারণ রয়েছে। আর না, ২০ বছরের ব্যবধান থাকতে হবে না। পাঁচ থেকে দশ বছর একটি আদর্শ উদাহরণ।

পুরুষ ও নারী ভিন্ন সময়ে মানসিকভাবে পরিপক্ব হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, একজন নারীর তুলনায় পুরুষদের মানসিকভাবে পরিণত হতে প্রায় দশ বছর বেশি সময় লাগে।

একজন বয়স্ক মানুষ বেশি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে পারে ও সে সম্পর্কটি কোথায় নিয়ে যেতে চায় সে সম্পর্কে আরও সিদ্ধান্তমূলক হয়। সম্পর্কের সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রেও তার আরও পরিপক্ব দৃষ্টিভঙ্গি থাকে।

তিনি আরও বলেন, বয়স্ক পুরুষ তার ভুলগুলো বুঝবে ও ভবিষ্যতে যাতে এমন আর না হয় তার চেষ্টা করবে। সে আবেগ নিয়ে খেলবে না। সে নারীকে ভালো কারণে বেছে নিবে ও প্রশংসা করবে। ডেটিং গুরুর মতে হলিউডে এর বেশিরভাগ প্রমাণ রয়েছে। 


সুত্র: ইত্তেফাক



আরও খবর



ইরানে আরও ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:Tuesday ১০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

ইরানে পুলিশের হেফাজতে মাশা আমিনি নামে এক তরুণীর মৃত্যুর পর দেশটিতে হিজাববিরোধী বিক্ষোভের কারণে আরও তিনজনের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে। বিক্ষোভের সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে । সোমবার ইরানের বিচার বিভাগ এই তথ্য জানায়।

খবর এনডিটিভির।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তীব্র সমালোচনা উপেক্ষা করে ইরানের বিচার বিভাগ ‘আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার’ অভিযোগে ওই তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দিলো।

এর আগে গত শনিবার ইরান মোহাম্মদ মাহদি কারামি এবং সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেইনি নামের দুই বিক্ষোভকারীকে ফাঁসি দেয়।

বিক্ষোভের সময় ইরানের আধাসামরিক বাহিনীর এক সদস্যকে হত্যার অভিযোগে তাদেরকে দোষী সাব্যস্ত ক‍রা হয়েছিল। এবার মৃত্যুদণ্ড পাওয়া তিনজন হলেন সালেহ মিরহাশেমি, মাজিদ কাজেমি এবং সাইদ ইয়াগৌবি।

ইসফাহান নগরীতে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে স্বেচ্ছাসেবী বাসিজ মিলিশিয়ার সদস্যদেরকে হত্যার অভিযোগে ওই তিনজনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে এই মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন।

ইরানের অভিজাত রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনী সংশ্লিষ্ট বাসিজ মিলিশিয়া দেশে বিক্ষোভ দমনের অগ্রভাগে রয়েছে। বিক্ষোভকারীদেরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে বিক্ষোভ দমনের জন্য সোমবার পোপ ফ্রান্সিস ইরানের নিন্দা করেছেন।

গত মাসে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে, ইরানি কর্তৃপক্ষ কমপক্ষে ২৬ বিক্ষোভকারীর মৃত্যুদণ্ডের সাজা চাইছে। দেশ কাঁপানো গণঅভ্যুত্থানে অংশ নেয়া প্রতিবাদকারীদের ভয় দেখানোর জন্য প্রহসনমূলক বিচারের নীলনকশা করা হয়েছে বলে নিন্দা জানিয়েছে লন্ডনভিত্তিক এই মানবাধিকার সংস্থা।


আরও খবর



পঞ্চগড়ে তাপমাত্রা নামলো ৬ ডিগ্রিতে

প্রকাশিত:Saturday ১৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে পঞ্চগড়ে। তাপমাত্রা নেমে এসেছে ৬ ডিগ্রিতে। বইছে কনকনে শীত। এর আগে গত ১০ জানুয়ারি রেকর্ড করা হয়েছিল ৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। টানা এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে বয়ে যাওয়া শৈত্যপ্রবাহের শীতের দাপটে নাজেহাল হয়ে পড়েছে উত্তরের এ জেলা।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, গত তিনদিন তাপমাত্রা বাড়লেও আজ নেমে এসেছে ৬ দশমিক ১ ডিগ্রিতে। গতকাল শুক্রবার রেকর্ড করা হয়েছিল ৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে এ জেলায় স্মরণকালে এ জেলায় ২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল। সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন জেলার প্রথম শ্রেণির আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাসেল শাহ।

সকাল থেকেই দেখা মিলেছে সূর্যের মুখ। তবে অনুভূত হচ্ছে প্রচন্ড শীত। সুর্যের মুখ দেখা গেলেও মিলছে না রোদের উষ্ণতা। শীত দুর্ভোগে পড়েছে নানান শ্রমজীবী-কর্মজীবী গরীব অসহায় মানুষ। পাথর শ্রমিক, চা শ্রমিক, দিনমজুর থেকে শুরু করে ছোটখাটো যানবাহন ভ্যান চালক মানুষগুলো পড়েছেন বিপাকে। তীব্র শীতের কারণে কাজে যেতে পারছেন না অনেকে। তবে জীবিকার তাগিদে কাউকে নদীতে পাথর তুলতে, কাউকে চা-বাগানে আবার কাউকে দিনমজুরের কাজ করতে যেতে দেখা গেছে। শীতের দুর্ভোগ বেড়েছে শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে। এসব মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য সরকার যে ত্রাণ দিয়েছে তা একেবারেই অপ্রতুল বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।


আরও খবর



৮ বিভাগে আ.লীগ নেতাদের দায়িত্ব বণ্টন

প্রকাশিত:Tuesday ১০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

জহিরুল কবির আমজাদ :সাংগঠনিক কাজ দেখার জন্য দেশের আট বিভাগে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে দায়িত্ব বণ্টন করা হয়েছে। রবিবার  দলটির দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চারজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের দায়িত্ব পেয়েছেন ড. হাছান মাহমুদ। মাহবুব-উল-আলম হানিফ পেয়েছেন সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্ব। আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম পালন করবেন খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দায়িত্ব। ডা. দীপু মনি পেয়েছেন ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ।

দলটির আট সাংগঠনিক সম্পাদকের মধ্যে আহমদ হোসেন সিলেট বিভাগ, বি এম মোজাম্মেল হক খুলনা, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন চট্টগ্রাম, এস এম কামাল হোসেন রাজশাহী, মির্জা আজম ঢাকা, অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন বরিশাল, শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল ময়মনসিংহ ও সুজিত রায় নন্দী রংপুরের দায়িত্ব পেয়েছেন। রংপুরে এর আগে সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন শফিক দায়িত্বে ছিলেন। তবে ২২তম সম্মেলনে তিনি সাংগঠনিক পদ থেকে বাদ পড়েন। তার স্থানে সুজিত রায় নন্দী সাংগঠনিক দায়িত্ব পান।


আরও খবর



স্বপ্নের মেট্রোরেলের লোগো বানিয়েছেন নওগাঁর নিশান

প্রকাশিত:Friday ৩০ December ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


স্বপ্নের মেট্রোরেলের লোগো বানিয়েছেন নওগাঁর নিশান।

গত বুধবার চালু হয়েছে স্বপ্নের মেট্রোরেল। 

আর স্বপ্নের মেট্রোরেলের লোগো বানিয়েছেন নওগাঁর কৃতি সন্তান আলী আহসান নিশান। নিশান নওগাঁ জেলা সদর পৌরসভার ধামকুড়ি এলাকার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত আব্দুল কুদ্দুস এর ছেলে। মূল লোগো ছাড়াও মেট্রোরেল এর স্টেশনে যে সাইনগুলো রয়েছে সেগুলোও তার করা। মেট্রোরেলের লোগো বানিয়ে ইতিহাসের অংশ হওয়া নিশানকে নিয়ে নওগাঁর মানুষ গর্বিত। নিশান এখন নওগাঁর ট্যক অব দ্য টাউন।

সৈয়দপুরে রেলের লোকোমোটিভ ওয়ার্কসপের ইঞ্জিন হল্ড কারখানার তত্ত্বাবধায়ক হিসাবে কাজ করতেন নিশানের বাবা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদের গ্রাফিকস ডিজাইন বিভাগ থেকে সদ্য পাস করা নিশান জানান, লোগোর মধ্যে তুলে ধরা হয়েছে বাংলাদেশকে। একটা লাল সূর্য উঠছে। নিচে বাংলার চিরচেনা সবুজের মাখামাখি। দু-ইয়ে মিলে বাংলাদেশ। মেট্রোর ''এম'' অক্ষরটাও এমনভাবে বসানো, মনে হবে যেন প্লাটফর্ম। রেলটির দিকে কিছুক্ষণ তাকালেই মনে হবে ওটা স্থীর নয়, ছুটে চলেছে। উন্নয়ন-অগ্রগতিতে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়াকে ইঙ্গিত করছে ছুটে চলা রেল। বাংলাদেশের যে উন্নয়নের গতি, সেটা লোগোর দিকে তাকালে লক্ষ্য করা যাবে। সাধারণত লোগো স্থির প্রকৃতির হয়। এর রঙের ব্যবহারেও এক ধরনের ভারসাম্য থাকে। যেন চোখটা আটকে থাকে। এতে এক ধরনের গতি আছে।

নিশান তার লোগো তৈরির গল্প বলেন এভাবে, ''সদ্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে বেরিয়েছি। কোনো কাজ নেই। চলতি বছরের শুরুর দিকে একদিন বিভাগের এক শিক্ষকের কাছে যাই। তিনি আমাকে বললেন মেট্রোরেলের লোগো নির্বাচনের জন্য প্রযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারীদের প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। তুমি প্রতিযোগিতায় অংশ নাও। স্যারের আহ্বানে আমি ৩টি লোগো বানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে জমা দেই। অনেকেই লোগো বানিয়ে জমা দেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাঠানো ৩টি লোগোর মধ্যে আমার দুটো ও অন্যজনের একটি পাঠানো হয়। এরপর জাতীয়ভাবে জমা হওয়া লোগোগুলোর মধ্যে থেকেও শর্টলিস্ট হয়। সেখান থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার লোগোটি চুড়ান্ত করেন।

প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত হবার পরও সেই লোগো নিয়ে কয়েক বার কাজ করতে হয়েছে জানিয়ে নিশান বলেন, এখন লোগোতে থাকা ''এম'' অক্ষরটি লিখে যে প্লাটফর্ম বোঝানো হয়েছে, প্রথমে তা ছিল না। বিশ্বের ৩৫টি দেশে মেট্রোরেলের লোগোতে ''এম'' রয়েছে। ওটাকে যুক্ত করার সময় একটু নতুনত্ব আনা হয়েছে। এছাড়া লোগো যখন বানানো শুরু করি তখন মেট্রোরেল দেখতে কেমন সেটাও জানা ছিল না। তাই প্রথম যে রেলটা ব্যবহার করেছিলাম সেটি দেখতে বুলেট ট্রেনের মতো ছিল। পরে যখন মেট্রোরেলের ইঞ্জিন দেখলাম তখন কিছুটা পরিবর্তন করে দেওয়া হলো।

আরো বলেন, পুরো কাজ শেষ করতে ৬ মাসের মতো সময় লেগেছে। চলতি বছরের মে মাসে যখন কাজ'টি হলো আমি ভীষণ উত্তেজিত ছিলাম। অনেক প্রতিষ্ঠানে লোগো করেছি কিন্তু এতটা ভালো লাগা কাজ করেনি। বাংলাদেশের ইতিহাসের অংশ হওয়ার আনন্দ অবশ্যই অন্যরকম।

মেট্রোরেরেলের সাইনের কাজ করতে গিয়ে দেশের সব স্তরের মানুষ যেন চিহ্ন গুলো দেখে বুঝতে পারেন কোন দিকে যেতে হবে, টয়লেট কোন দিকে, টিকিট কোথায় পাবেন-এসব ভাবতে হয়েছে।

নিশান এর গ্রামের বাসিন্দা বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নওগাঁ জেলা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম বলেন, স্বপ্নের মেট্রোরেলের লোগো বানিয়েছে আমাদের গ্রামের সন্তান নিশান। দোয়া করি, ইতিহাসের অংশ হওয়ার মতো নিশান যেন আগামীতে আরো ভালো, ভালো কাজ করতে পারে। 

নওগাঁর সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন একুশে পরিষদ নওগাঁর সভাপতি ডিএম আব্দুল বারী বলেন, নিশানের মধ্যে যে শিল্পী সত্ত্বা আছে, আশা করি ভবিষ্যতে তার আরও অনেক ভালো কাজ দেখতে পারব। তার দ্বারা দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।


আরও খবর



বকশীগঞ্জে রহিমা সালাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের উদ্বোধন

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

জামালপুর প্রতিনিধি :

জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌর শহরের চরকাউরিয়া সীমারপাড় এলাকায় প্রতিষ্ঠিত রহিমা সালাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রতিষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করেন সাবেক তথ্যমন্ত্রী আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ এমপি। উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হলো। মানসম্মত শিক্ষাদানের প্রতিশ্রুতি নিয়ে সূর্যনগর গ্রামের বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেছেন। 

উদ্বোধন কালে অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজা,পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর,অধ্যক্ষ হাসান বিন রফিক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন তালুকদার বাবুল,সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মফিজ উদ্দিন,সাখাওয়াত হোসেন সাকা,কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার রবিউল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমিন ফুরকান,ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু,প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাহীন আল আমীন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর