Logo
শিরোনাম

নওগাঁয় ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষক আটক

প্রকাশিত:Sunday ২৭ November ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 


নওগাঁয় ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগে হাফিজুর রহমান নামের এক শিক্ষককে শিক্ষার্থী ও অভিভাবক কর্তৃক অবরুদ্ধ অবস্থায় আটক করেছে থানা পুলিশ। সংবাদ সংগ্রহকালে এঘটনায় থানায় কোন মামলা হয়নি। তবে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন অভিভাবকরা। আটককৃত শিক্ষক হলেন, নওগাঁর রানীনগর উপজেলার মেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও ঐ গ্রামের আশেক উদ্দিন দেওয়ান এর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নওগাঁর রানীনগর উপজেলার মিরাট ইউনিয়নের মেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাফিজুর এর বিরুদ্ধে ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে। তার বিচারের দাবিতে রবিবার ২৭ নভেম্বর সকাল ১০টা থেকে বিকাল পৌনে ৩টা পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও গ্রামবাসিরা এক যোগে স্কুল ঘেরাও করে ঐ শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রাখেন। খবর পেয়ে রানীনগর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) হাফিজুর রহমান ও রানীনগর থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা প্রয়োজনীয় পুলিশ  ফোর্সসহ বেলা ১১টায় ঘটনাস্থল ঐ স্কুলে যান এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে ভূক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছ থেকে ঘটনার বিবরণ শুনে অভিযুক্ত শিক্ষক হাফিজুরকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয় পুলিশ। 

এঘটনায় ঐ স্কুলে পড়ুয়া ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী খুশি বানু (১২), ফাতেমা বানু (১৩), সুখী (১২), হালিমা (১৩) ও রিয়ামুনি (১০) জানায়, হাফিজুর মাষ্টার আমাদেরকে গায়ে হাত দিয়ে জামাকাপড় ধরে টানা হিঁচড়াসহ বিভিন্নভাবে বিরক্ত করতো। এ কথা গুলো আমরা বাবা-মাকে বলেছি এবং তার বিচারের দাবিতে স্কুল ঘেরাও করেছি।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী খুশির চাচা আজিজুল ইসলাম বলেন, গত বৃহস্পতিবার আমার ভাতিজিকে হাফিজুর মাষ্টার শ্লীলতাহানি করেছে। এর বিচারের দাবিতে আমরা গ্রামবাসী স্কুল ঘেরাও করেছি।

অপরদিকে শিক্ষক হাফিজুর রহমান সংবাদকর্মীদের বলেন, শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়ার ব্যাপারে আমি মেরেছি কিন্তু শ্লীলতাহানির মতো কোনো ঘঠনা আমি ঘটায় নি। এসব অভিযোগ মিথ্যা এবং বানোয়াট।

রানীনগর থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা বলেন, মেড়িয়া স্কুলের শিক্ষক হাফিজুর রহমানকে স্কুলে ঘেরাও করে রেখেছে এমন সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে ঐ শিক্ষককে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। 

রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবক সহ স্থানীয়রা অবরুদ্ধ শিক্ষককে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত "সংবাদ সংগ্রহকালে" এঘটনায় কেউ মামলা করেননি। 


আরও খবর



ঊনসত্তরের শহিদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

অধ্যাপক আ ব ম ফারুক :

আজ ছিল শহিদ আসাদ দিবস। ১৯৬৯ সালের এই দিনে অর্থাৎ ২০শে জানুয়ারি পাকিস্তানের কুখ্যাত স্বৈরাচার আইয়ুব খানের কুশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত ছাত্র-গণমিছিলে পুলিশের গুলিবর্ষণে আসাদ (পুরো নাম আমানউল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান) শহিদ হন। তিনি ছিলেন ঊনসত্তরের তীব্র গণ-আন্দোলনে পথিকৃত শহিদ। এই আন্দোলনে অগণিত শহিদদের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত অন্য দুজন হলেন শহিদ রুস্তম ও শহিদ মতিউর। 

১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর ঐতিহাসিক ৬-দফা দাবিনামা পেশের পর থেকে বাঙালি এর স্বপক্ষে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলে। এই আন্দোলনে ৬-দফাকে সমর্থন করে তার সাথে গণমুখী শিক্ষার দাবি একত্রিত করে দেওয়া ছাত্রদের ১১-দফা দাবি পেশ এই আন্দোলনকে সুতীব্র করে। এই আন্দোলন-হরতালের সাথে আইয়ুব খানের ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা’ দায়ের ও কথিত এই মামলায় ‘প্রধান আসামী’ শেখ মুজিবসহ (তিনি তখনও ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি লাভ করেননি) মোট ৩৫ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ৬-দফা ও ১১-দফার সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে ১৯৬৯ সালের ৪ঠা জানুয়ারি। দেশের সর্বত্র এই প্রতিবাদ-আন্দোলন আরো বেগবান হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভা থেকে ছাত্র-নেতৃবৃন্দ কর্তৃক ১৭ই জানুয়ারি দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ডাকে । এর বিরুদ্ধে তখনকার পূর্ব পাকিস্তানের কুখ্যাত গভর্নর মোনায়েম খান দেশব্যাপী ১৪৪ ধারা জারি করে। কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ২০শে জানুয়ারি দুপুরে এক ছাত্র-গণমিছিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের পাশে চাঁন খাঁর পুলে সমবেত হলে পুলিশের গুলিতে আসাদ শহীদ হন। এর প্রতিবাদে লাখো ছাত্র-জনতা কান্না ও ক্ষোভে  পুনরায় আসাদের রক্তমাখা শার্ট পতাকার মতো নিয়ে সমবেত হয়ে মিছিল নিয়ে শহিদ মিনারে আসে। সেখানে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ২২, ২৩ ও ২৪শে জানুয়ারি শহিদ আসাদের স্মরণে সারা দেশে ধর্মঘট ও গণ-বিক্ষোভের ডাক দেয় এবং দেশবাসী তা শ্রদ্ধার সাথে পালন করে। এর শেষ দিনে অর্থাৎ ২৪শে জানুয়ারি পুলিশ আবার ক্ষোভে উত্তাল ছাত্র-জনতার উপর গুলিবর্ষণ করে এবং ঢাকার মালিবাগ মোড়ে মতিউর রহমান শহিদ হন। 

ঊনসত্তরে সারা দেশব্যাপী এই গণ-আন্দোলনের ফলস্বরূপ বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন আরো বেগবান হয়, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা তুলে নিতে সরকার বাধ্য হয়, বাংলার অবিসংবাদিত জননেতা শেখ মুজিব ষড়যন্ত্রমূলক মৃত্যুর হাত থেকে ফিরে আসেন এবং স্বৈরাচারী আইয়ুব সরকারের পতন হয়।

শহিদ আসাদ, শহিদ মতিউর ও ঊনসত্তরের আরো অগণিত নাম না জানা শহিদদের আত্মদান দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের জন্য প্রবল শোক ও সেই সাথে প্রবল অনুপ্রেরণার উৎস। এই ঐতিহাসিক গণ-আন্দোলন পাকিস্তানের অমানবিক শোষণের প্রতি বাঙালির তীব্র ঘৃণা ও প্রতিবাদের প্রতীক এবং অধিকার আদায়ের আন্দোলনের প্রেরণা হয়ে বেঁচে থাকবে।

আসাদের আত্মদানের খবরে সমগ্র দেশ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিক্ষুব্ধ জনতা সর্বত্র আইয়ুবের ছবি অপসারণ করে, ঢাকার আইয়ুব গেটের নামফলক ভেঙ্গে নতুন নামকরণ করে ‘আসাদ গেট’, আইয়ুব রোডের নাম রাখে ‘আসাদ রোড’ এবং আইয়ুব পার্কের নাম রাখে ‘আসাদ পার্ক’।

এই গণ-আন্দোলন ও আত্মত্যাগের স্মরণে আমাদের কবি-সাহিত্যিকরাও অনেক প্রবন্ধ-কবিতা-গল্প লিখেছেন। কয়েকটি বিখ্যাত কবিতা হলো কবি শামসুর রাহমানের ‘আসাদের শার্ট’, কবি হেলাল হাফিজের ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয়’ এবং তখনকার পাকিস্তানি সৈন্য আর পুলিশ বোঝাই  অসংখ্য ট্রাক নিয়ে কবি আল মাহমুদের নিম্নরূপ কবিতাটি -

‘ট্রাক ট্রাক ট্রাক

শুয়োরমুখো ট্রাক আসছে 

দুয়োর বেঁধে রাখ।

বাঁধবো কেন দুয়ার ওগো

তুলবো কেন খিল।

আসাদ গেছে মিছিল নিয়ে

আসবে সে মিছিল।

ট্রাক ট্রাক ট্রাক 

ট্রাকের বুকে আগুন দিতে

মতিউরকে ডাক।

কোথায় পাবো মতিউরকে

ঘুমিয়ে আছে সে।

তোরাই তবে সোনা মাণিক

আগুন জ্বেলে দে।’

বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে শহিদ আসাদ ও শহিদ মতিউরসহ ঊনসত্তরের সব বীর শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।

জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

লেখক ঃ

সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু পরিষদ


আরও খবর



৬২ বছর পর ব্রাইটনের কাছে বিধ্বস্ত লিভারপুল

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

প্রিমিয়ার লিগে পরপর দুই ম্যাচে তিনটি করে গোল খেয়ে পরাজয়ের বৃত্তে লিভারপুল। লিগে আগের ম্যাচেই ব্রেন্টফোর্ডের কাছে ৩-১ গোলে হেরেছিল লিভারপুল। এবার একই লজ্জায় অলরেডদের ডুবালো ব্রাইটন। ১৯৬১ সালের পর প্রথমবারের মতো লিগে ব্রাইটনের কাছে হারতে হল লিভারপুলকে। শনিবার (১৪ জানুয়ারি) নিজেদের মাঠে লিভারপুলকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাইটন। ম্যাচের সব কয়টি গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে।

বল দখল, আক্রমণ, গোলে ও লক্ষ্যে শট- প্রতিটি ক্ষেত্রেই লিভারপুলকে টেক্কা দিয়েছে ব্রাইটন। অবশ্য শুধু টেক্কা দেয়নি, বেশ বড় ব্যবধানেই এগিয়ে ছিল ব্রাইটন। ম্যাচের অষ্টম মিনিটে ব্রাইটন এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল ব্রাইটন।

ম্যাক অ্যালিস্টারের পাসে ডান দিক থেকে নিচু শট নিয়েছিলেন ব্রাইটন ফুটবলার মার্স। তবে তাতে লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার পরাস্ত হলেও গোললাইন থেকে ক্লিয়ার করে লিভারপুলের দুর্গ অক্ষত রাখেন ট্রেন্ট অ্যালেকজান্ডার-আর্নল্ড। এরপর বিরতির আগে আরও দুইটি সুযোগ হাতছাড়া করে ব্রাইটন। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগ মুহূর্তে পেনাল্টি পেয়েছিল ব্রাইটন। তবে ভিএআরে দেখে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন রেফারি। তবে প্রথমার্ধে গোল না পেলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর আট মিনিটের মধ্যে জোড়া গোল করে লিভারপুলকে ব্যাকফুটে ফেলে দেয় ব্রাইটন।

বিরতি থেকে ফেরার পর ম্যাচের ৪৬তম মিনিটে কাছের পোস্ট থেকে দুর্দান্ত শটে ব্রাইটনকে প্রথম লিড এনে দেন মার্চ। সাত মিনিটের ব্যবধানে আবারও গোলদাতা সেই মার্চ। ফার্গুসনের পাস নিয়ে বক্সে ঢুকে বাঁ পায়ের শটে বল দূরের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি। ম্যাচের ৮১তম মিনিটে লিভারপুলের কফিনে শেষ পেরেক মারেন ওয়েলবেক।

থ্রো থেকে মার্চের বাড়ানো পাসে দারুণভাবে ফ্লিক করে গোল করেন তিনি। ম্যাচের বাকি সময়ে লিভারপুল একাধিক চেষ্টা করেও গোল ব্যবধান কমাতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত অলরেডদের বিপক্ষে ৩-০ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাইটন। এর আগের লেগেও লিভারপুলের বিপক্ষে ৩-১ গোলের ব্যবধানে জিতেছিল তারা।

এখন পর্যন্ত ১৮ ম্যাচে ৯ জয় ও ৩ ড্রয়ে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে এখন সাত নম্বরে রয়েছে ব্রাইটন। সমান ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে আটে আছে লিভারপুল। ১৭ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে আর্সেনাল।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে ৩ কোটি ২০ লাখ টাকার হেরোইন উদ্ধার করেছে ডিবি

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল  :

আজ দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল জানান, ১৫ জানুয়ারি দিবাগত রাত ২ টা ১০ মিনিটে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাং রোড এলাকার বন্ধু পরিবহনের বাস কাউন্টারের সামনে পাকা রাস্তার উপর থেকে ১ কেজি ৬’শ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত আসামীর নাম মো. মাসুম সরকার। সে কুমিল্লার হোমনা ভবানীপুরের হাসান আলী সরকারের ছেলে। বর্তমানে ঢাকার রামপুরার হাজিপাড়ায় থাকতেন।উদ্ধারকৃত মাদকের পরিমান ১ কেজি ৬’শ গ্রাম। পুলিশ এ ঘটনায় আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ আসামির বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার জানান, এ ঘটনায় আরও কে কে জড়িত, কোথায় যাচ্ছিল বিষয় গুলো নিয়ে অনুসন্ধান চলছে।আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।


আরও খবর



সড়ক দুর্ঘটনায় অ্যাম্বুলেন্সের ছয়জন নিহত

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শরীয়তপুরের জাজিরা এলাকায় ট্রাকের সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সের সংঘর্ষে ছয়জন নিহত হয়েছেন। শরীয়তপুরের পদ্মাসেতুর দক্ষিণ থানা এলাকায় টোলপ্লাজার কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

শরীয়তপুর ফায়ার সার্ভিস-এর সহকারী উপ-পরিচালক সেলিম মিয়া জানান, মঙ্গলবার ভোরে বরিশাল থেকে অসুস্থ্ মা জাহানারা বেগমকে নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিলেন তার মেয়ে লুৎফুন নাহার লিমা, স্বাস্থ্যকর্মী ফজলে রাব্বি, সাংবাদিক মাসুদ রানা, গাড়ি চালক জিলানি ও গাড়ির সহকারি রবিউল ইসলাম। এসময় জাজিরায় পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার কাছে গতিরোধক পার হবার সময়, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা গ্যাস সিলিন্ডার ভর্তি একটি ট্রাকে ধাক্কা দেয়। এতে অ্যাম্বুলেন্সটি দুমড়ে মুচড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন অ্যাম্বুলেন্সের ছয় যাত্রী।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




দশমিনায় শেখ কামাল আন্তঃস্কুল অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মোঃ নাঈম হোসাইন, দশমিনা,পটুয়াখালী :


পটুয়াখালীর দশমিনায় শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা-অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দশমিনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়  মাঠে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা-অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডঃ ইকবাল মাহমুদ লিটন, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো.মিজান সিকদার সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষিকা প্রদানগন উপস্থিত ছিলেন  প্রমুখ।  প্রতিযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে ১৫টি স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।


আরও খবর