Logo
শিরোনাম

নওগাঁয় ফসলি জমিতে পুকুর খনন, রক্ষা পাচ্ছেনা পরিবেশ রক্ষাকারী বাগান

প্রকাশিত:Tuesday ০৮ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


উত্তরাঞ্চলের অন্যতম বৃহৎ খাদ্য ভান্ডার খ্যাত নওগাঁর মহাদেবপুরে ধানী, ভিটা ও বাগানের জমিতে পুকুর খনন অব্যাহত থাকলেও রহস্যজনক কারনে প্রশাসন রয়েছে নিরব। উপজেলায় গত দু'দশকে পুকুর খননে ফসলি জমি কমছে প্রায় দের হাজার হেক্টর। এক শ্রেণীর পরিবেশ বিবর্জিত ও সমাজ বিরোধী মাটি ব্যাবসায়ী এলাকার সহজ সরল মানুষকে নানা প্রলোভনে পুকুর খননে উৎসাহিত করছে। অভিযোগ রয়েছে, গত ২৮ অক্টোবর সকালে মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের দঃ লক্ষীপুর গ্রামের অতুল কবিরাজ ও প্রতুল কবিরাজ সহ তাদের ভাইদের পূর্বের একটি পুকুর এর পার্শ্বে ভিটা-মাটিতে থাকা বিশাল একটি আম বাগান কাটার পাশাপাশি ভিকু মেশিনের মাধ্যমে পুকুর খনন শুরু করেন। ঘটনাটি স্থানিয়রা সংবাদকর্মীদের জানালে সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আম বাগান কেটে পুকুর খননের দৃশ্য দেখতে পেয়ে মুঠোফোনে ঘটনাটি উপজেলা প্রশাসন ও স্থানিয় ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে জানান।  

সুত্র জানায়, নওগাঁ সদর উপজেলার বলিহার এলাকার জৈনক শাহিন আলম ও তার কিছু সহযোগী সহ মহাদেবপুর উপজেলার আরো উপজেলার ১৪/১৫ জন ব্যক্তি পুকুর খনন ও মাটি ক্রয়-বিক্রয় ব্যবসায় জড়িত রয়েছে। এসব মাটি ব্যবসায়ীরা আমন মৌসুমে কৃষকের ধান ঘরে তোলার আগেই মহাদেবপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে ঘুরে সহজ সরল মানুষদের নানা ভাবে উৎসাহিত করছে যে, তাদের জমিতে ধান চাষ না করে পুকুর খনন করলে "ধান চাষের চেয়ে" বেশি লাভবান হওয়া যাবে। এমন নানা প্রলোভনে পড়ে গ্রামের সাধারন মানুষ বা কৃষকরা তাদের প্রলোভনে পড়ে তিন ফসলি জমি সহ এমনকি ভিটামাটি বা বাগানেও পুকুর খননে উৎসাহীত হচ্ছে। আর মাটি ব্যবসায়ীদের ভিকু মেশিন দিয়ে মাটি কেটে সেই মাটি ইট ভাটা সহ বিভিন্ন স্থানে চড়ামূল্যে বিক্রি করছেন। যার ফলে এ উপজেলায় কমে যাচ্ছে দিন দিন ফসলি মাটি, বাড়ছে পুকুর।বিগত কয়েক বছর ধরে আবাদী বা ভিটা মাটি সহ বাগান থেকে পুকুর খনন অব্যহত থাকলেও অজ্ঞাত কারণে সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী কর্তা ব্যাক্তিগন নিরব দর্শকের ভুমিকা থাকছে।

সুত্র মতে, উপজেলার ১০ ইউনিয়নে আমন ধান কেটে নেয়ার পরে ফাঁকা জমিতে শুরু হয় পুকুর খননের মহা-উৎসব। এবারও উপজেলার বিভিন্ন ফসলের মাঠে পুকুর খননে বিগত বছর গুলোর ধারা বাহিকতা অব্যাহত রেখেছে মাটি ব্যবসায়ীরা। মাটি ব্যবসায়ীদের খপ্পরে পড়ে একদিকে তিন ফসলের জমি কমছে। অপর দিকে বৃক্ষ নিধনের মাধ্যমে পরিবেশ ধংশের পাশাপাশি মাটি পরিবহনে ব্যবহৃত ট্রাক্টর (কাঁকড়া) এবং ১০ চাকার ডাম্পার ট্রাক অবৈধ ভাবে জেলার আঞ্চলিক মহা সড়ক সহ গ্রামীন সড়কগুলো ব্যাবহার করায় একটিকে হচ্ছে সড়ক নষ্ট অপরদিকে বাড়ছে দূর্ঘটনা, সাধারন মানুষেরও বাড়ছে দূর্ভোগ। ট্রাক্টর বা ড্রাম ট্রাক যোগে "মাটি না ঢেকে" বহনের কারনে সড়ক দূর্ঘটনায় মাত্র কিছু দিনের ব্যবধানে ৪ জন শিক্ষক/শিক্ষিকা, স্বামী-স্ত্রী ও বাবা-ছেলে সহ আরো কয়েক জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় এবং মাটিবাহী অবৈধ্য ট্রাক্টর বন্ধ সহ বৈধ্য বাহন যোগে মাটি ঢেকে বহনের দাবিতে এলাকার সচেতন সমাজ ও প্রথম সংবাদ বন্ধু ফোরাম এর উদ্যোগে মহাদেবপুর উপজেলার চৌমাশিয়া "নওহাটামোড়" বাজারে কিছুদিন পূর্বে পরপর দু'  বার মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করেন।


অপর দিকে অতিরিক্ত মাটি ভর্তি যানবাহন চলাচলে লোকাল রাস্তা গুলোর পিচ-পাথর উঠে যাওয়ায় দিন দিন এলাকাবাসীর দুর্ভোগ বাড়ছে। দেশের খাদ্য চাহিদা পুরনে সহায়ক হিসেবে ধান চাষের পাশাপাশি রবিশষ্য উৎপাদনে তিন ফসলি জমিতে পুকুর খননে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিষেধাজ্ঞা অমান্য হচ্ছে এ উপজেলায়। উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের একটি সূত্র জানায়, ৩৯৭ দশমিক ৬৭ বর্গ কিঃমিঃ আয়োতনের এ উপজেলায় ৩০৭টি মৌজা এবং ২৯৮ টি গ্রামে ৩০ হাজার ৩৫০ হেক্টর তিন ফসলি কৃষি আবাদী জমি রয়েছে। সূত্র মতে উপজেলার ১০ ইউনিয়নে গত দু'দশকে পুকুর খননের ফলে তিন ফসলি জমি কমছে প্রায় দের হাজার হেক্টর। পুকুর খননের ফলে প্রায় দের হাজার হেক্টর তিন ফসলের জমি কমছে এর সত্যতা অস্বীকার করে উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ মোমরেজ আলী বলেন এ পরিসংখ্যানে ত্রুটিপূর্ণ। মহাদেবপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভুমি) নুসরাত জাহান সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি নীতিমালা লংঘন করে পুকুর খননের বিষয়টি তিনি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন। স্থানীয় সচেতন মহলের মতে তিন ফসলের জমিতে যে ভাবে পুকুর খনন শুরু হয়েছে তাতে করে উত্তরাঞ্চলের অন্যতম খাদ্য ভান্ডার খ্যাত নওগাঁ জেলা দ্রুত খাদ্য ঘাটতিতে পরার আশংকা রয়েছে। এই জেলা খাদ্য ঘাটতিতে যাতে না পরে এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা প্রশাসক, মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভুমি) এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।


আরও খবর



নওগাঁর আত্রাইয়ে ভুট্টা চাষে ঝুকেছেন কৃষকরা

প্রকাশিত:Tuesday ১০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :


খরচ কম, ফলন ও দাম বেশি পাওয়ায় ভুট্টা চাষে ঝুকেছেন কৃষকরা।

দেশের উত্তর জনপদ নওগাঁর আত্রাইয়ে এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অধিক পরিমাণ জমিতে ভুট্টা চাষ করা হয়েছে। ভুট্টার বাম্পার ফলনে আশাবাদী উপজেলার কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকূলে ও আধুনিক কৃষি প্রযুক্তিতে কৃষকদের আগ্রহ সৃষ্টি হওয়ায় স্বল্প খরচে যথাসময়ে কৃষকরা এবার ভুট্টার বাম্পার ফলন পাবে বলে তারা আশা প্রকাশ করেছেন।

আত্রাই উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, আত্রাই উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নে ৪ হাজার ৪শ' ৫০ হেক্টর জমিতে ভুট্টার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও তার চেয়ে অধিক জমিতে ভুট্টার চাষ করেছেন কৃষকরা। এবার ভুট্টা চাষে উপজেলার কৃষকরা বেশি ঝুকে পড়ছেন। ভুট্টা চাষে খরচ কম অথচ ফলন ও দাম বেশি পাওয়ায় কৃষকদের মধ্যে ভুট্টা চাষের আগ্রহ বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে। উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের কৃষক ওয়াজেদ আলী প্রামানিক বলেন, এলাকার যেসব জমিতে আগে বোরোচাষ করা হতো সেই জমিগুলোতেই আমরা এবার ভুট্টা চাষ করছি। বোরো চাষে উৎপাদন খরচ অনেক বেশি। অথচ যখন ধান কাটা মাড়াই শুরু হয় তখন ধানের বাজারে ধস নামে। ফলে অনেক ক্ষেত্রে উৎপাদন খরচই উঠে না। কিন্তু ভুট্টার উৎপাদন খরচ যেমন কম দামও অনেক বেশি থাকে। এ জন্য আমরা ভুট্টা চাষে এবার ঝুকে পড়েছি। উপজেলার চৌড়বাড়ি গ্রামের কৃষক আব্দুল জব্বার বলেন, একই কথা। 

আমাদের এলাকা আলু চাষের জন্য দীর্ঘদিন থেকে বিখ্যাত। উপজেলার সিংহভাগ আলু আমাদের এলাকায় উৎপন্ন হয়ে থাকে। মৌসুমের শেষ দিকে আলুর দাম বাড়লেও এর মুনাফা কৃষকরা পায়নি। মুনাফা পেয়েছে মজুতদাররা। তাই এবার ভুট্টা চাষ করছি। আশা করি ফলনও বাম্পার হবে। তবে ন্যায্য দাম পেলে কষ্ট সার্থক হবে।

আত্রাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেরামত আলী বলেন, এলাকার কৃষকরা যাতে যথাযথভাবে স্বল্প খরচে উচ্চ ফলনশীল ভুট্টা উৎপাদন করতে পারে এ জন্য আমরা প্রতিনিয়ত কৃষকদের কাছে গিয়ে পরামর্শ দিচ্ছি। বিভিন্ন রোগ-বালাই থেকে ভুট্টাকে মুক্ত রাখতেও পরিমিত পরিমান ওষুধ প্রয়োগের পরামর্শ দিয়ে থাকি।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেএম কাউছার হোসেন জানান, সব ধরনের ফসল উৎপাদনে আমরা কৃষকদের আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করছি। যাতে করে কৃষকরা সহজভাবে কৃষি উপকরণ পায়। বিশেষ করে বীজ, সার ও তেল এর জন্য সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছি। এবার ভুট্টার ফলন বাম্পার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


আরও খবর



সামরিক শক্তি সূচকে ৪০তম বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ January ২০২৩ |
Image

সামরিক সক্ষমতার ওপর নির্ভর করে তৈরি করা আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ারের (জিএফপি) চলতি বছরের সামরিক শক্তি সূচকে বিশ্বের ১৪৫টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ৪০তম অবস্থানে রয়েছে। এই সূচকে গত বছরের মতো শীর্ষ সামরিক ক্ষমতাধর দেশ নির্বাচিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে, ২০২০ ও ২০২১ সালে বাংলাদেশের এই অবস্থান ছিল যথাক্রমে ৪৬ ও ৪৫ তম।

জিএফপির চলতি বছরের সূচকে দেশগুলোর শক্তি বৃদ্ধির প্রবণতার ওপর ভিত্তি করে জাতীয় সামরিক শক্তিকে তুলে ধরা হয়েছে। জিএফপির পর্যালোচনায় ‘পাওয়ারস অন দ্য রাইজ’ তালিকায় ১২তম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। জিএফপির ২০২৩ সালের বার্ষিক প্রতিরক্ষা পর্যালোচনায় ‘পাওয়ারস অন দ্য রাইজ’ হিসেবে ৫৩টি দেশকে বেছে নেওয়া হয়।

আন্তর্জাতিক এই সংস্থার ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, বিশ্বের ১৪৫টি দেশের সামরিক সক্ষমতার সর্বশেষ সহজলভ্য সামরিক সরঞ্জাম, প্রতিরক্ষা বাজেট, সৈন্য সংখ্যাসহ বিভিন্ন ধরনের ৬০টির বেশি মাপকাঠির ওপর ভিত্তি করে চলতি বছরের সূচক তৈরি করা হয়েছে।

‘২০২৩ মিলিটারি স্ট্রেন্থ র‍্যাংকিং’ নামে প্রকাশিত এই সূচকে সামরিক শক্তিমত্তা বিচারে দেশগুলোর স্কোরও নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীকে বিশ্বের ৪০তম হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। সামরিক শক্তিসূচকে বাংলাদেশ স্কোর পেয়েছে শূন্য দশমিক ৫৮৭১।

গত ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশের সামরিক সক্ষমতাকে এই সূচকের ভিত্তি হিসেবে ধরে নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জিএফপি।

এদিকে, গত বছরের মতো এই সূচকে শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়া-ইউক্রেন চলমান যুদ্ধের পটভূমিতে ১৪৫টি দেশের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর তালিকায় ১৫তম স্থানে রয়েছে ইউক্রেন।

অন্যদিকে, জিএফপির সূচকে দ্বিতীয় সামরিক ক্ষমতাধর দেশ নির্বাচিত হয়েছে রাশিয়া। দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ০৭১৪। আর সামরিক শীর্ষ ক্ষমতাধর দেশের এই সূচকে চীন রয়েছে তৃতীয় স্থানে। চীনের স্কোর শূন্য দশমিক ০৭২২।

বাংলাদেশের প্রতিবেশি ভারত শীর্ষ সামরিক ক্ষমতাধর দেশের এই তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছে ভারত; দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ১০২৫। পাকিস্তান রয়েছে ৭ম স্থানে; স্কোর শূন্য দশমিক ১৬৯৪। আর মিয়ানমার রয়েছে ৩৮তম স্থানে। দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ৫৭৬৮।

জিএফপির এই সূচকে ইরান ১৭তম, ইসরায়েল ১৮তম, ভিয়েতনাম ১৯তম, সৌদি আরব ২২তম, তাইওয়ান ২৩, থাইল্যান্ড ২৪তম ও উত্তর কোরিয়া ৩৪তম সামরিক ক্ষমতাধর দেশের অবস্থানে রয়েছে।

আর এই তালিকার একেবারে তলানিতে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভুটান। ১৪৫তম অবস্থানে থাকা দেশটির স্কোর ৬ দশমিক ২০১৭।


সূত্র : জিএফপি।


আরও খবর



রাশিয়াকে অবহেলা বিপজ্জনক হবে :ন্যাটো

প্রকাশিত:Friday ০৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

রাশিয়াকে খাটো করে দেখালে সেটি বিপজ্জনক হবে বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমাদের সামরিক জোট ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ।

বৃহস্পতিবার নরওয়েতে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি। স্টোলটেনবার্গ বলেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন তার পরিকল্পনা ও ইউক্রেনে লক্ষ্য পাল্টেছেন বলে কোনও ইঙ্গিত নেই। ফলে রাশিয়াকে খাটো করে দেখা হবে বিপজ্জনক। তবে, এই মুহুর্তে রাশিয়া ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও দুর্ভোগ মেনে নেয়ার সদিচ্ছা দেখাচ্ছে। এদিকে, এদিন ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের রাশিয়ার সাথে তুমুল লড়াইয়ের কথা জানিয়েছেন ইউক্রেন। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি পশ্চিমা মিত্রদেরকে ইউক্রেনে সেনাবাহিনীকে ট্যাংক সরবরাহের আহ্বান জানিয়েছেন।  


আরও খবর



মোরেলগঞ্জ প্রেস ক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন

প্রকাশিত:Saturday ৩১ December ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদক: 


বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ প্রেস ক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের বার্ষিক নির্বাচন শনিবার উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে দৈনিক যুগান্তর প্রতিনিধি মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম মাসুম সভাপতি, দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি ফজলুল হক খোকন সহসভাপতি, দৈনিক পূর্বাঞ্চল মোরেলগঞ্জ অফিস প্রধান নজরুল ইসলাম শরীফ সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক পিরোজপুরের কথা'র প্রতিনিধি মল্লিক আবুল কালাম খোকন সহ-সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক অবজারভার প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম কবির (বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায়) অর্থ ও দপ্তর সম্পাদক, দৈনিক ইত্তেফাক প্রতিনিধি মেহেদী হাসান লিপন (পদাধিকার বলে) নির্বাহী সদস্য ও একুশে টেলিভিশন জেলা প্রতিনিধি এইচ.এম মাইনুল ইসলাম  নির্বাহী সদস্য নির্বাচীত হয়েছেন। মোরেলগঞ্জ প্রেস ক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত প্রেস ক্লাবের ১৭ জন সদস্যের মধ্যে ১৭ জনই ভোট প্রদান করেন। ফলাফল ঘোষণা করেন প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা পল্লী উন্নয়ণ কর্মকর্তা মো. শামসুর রহমান। নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বর্তমান সভাপতি মেহেদী হাসান লিপন। 


আরও খবর



৭২ জন আরোহী নিয়ে নেপালে বিমান বিধ্বস্ত

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

৭২ জন আরোহী নিয়ে নেপালে একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৪০ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ।

রবিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে ইয়েতি এয়ারলাইন্সের বিমানটি রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে পোখারার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। পোখারায় অবতরণ করার সময় পুরাতন বিমানবন্দর ও নতুন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মাঝামাঝি এলাকায় এটি বিধ্বস্ত হয় বলে জানিয়েছেন ইয়েতি এয়ারলাইন্সের মুখপাত্র সুদর্শন বারতুলা। বিমানটিতে ৬৮ জন যাত্রী এবং চারজন ক্রু ছিলেন। যাত্রীদের মধ্যে ৫৩ জন নেপালের, পাঁচজন ভারতের, চারজন রাশিয়ার, আয়ারল্যান্ডের একজন, দক্ষিণ কোরিয়ার দুইজন, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স এবং আর্জেন্টিনার একজন করে নাগরিক বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। উদ্ধারকাজ চলছে। আপাতত বন্ধ আছে পোখারা বিমানবন্দরের কার্যক্রম।  


আরও খবর