Logo
শিরোনাম

নওগাঁয় গাঁজা সহ দুই যুবক আটক

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ |

Image

স্টাফ রিপোর্টার :

নওগাঁয় থানা পুলিশ এর অভিযানে গাঁজা সহ দু'জন যুবক কে আটক। 

নওগাঁর রাণীনগর থানা পুলিশ শুক্রবার সন্ধায় দু' জন যুবককে আটক করার পর রাতে মামলা দায়ের পূর্বক শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর আটককৃতদের নওগাঁর বিজ্ঞ আদালতে সোর্পদ করেন। 

আটককৃত দু'জন হলেন, রাণীনগর উপজেলার মিরাট দক্ষিনপাড়া গ্রামের জাবেদ মোল্লার ছেলে সানাউল্লাহ মোল্লা (২৮) এবং একই গ্রাামের গোপাল চন্দ্র'র ছেলে কিশোর কুমার (২৬)। সত্যতা নিশ্চিত করে রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান,মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা কালে শুক্রবার সন্ধায় উপজেলার মিরাট এলাকা থেকে এক জনের কাছে ৪০ গ্রাম গাঁজা ও আরেক জনের কাছ থেকে ৩০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার সহ তাদের আটক করা হয়। 

আটককৃতদের বিরুদ্ধে রাতে মাদক আইনে মামলা রুজু পূর্বক আজ শনিবার আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টার আগে খালেদা জিয়ার অবস্থা সম্পর্কে কিছু বলা যাবে না

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ |

Image



বিডি টুডেস ডিজিটাল ডেস্ক:


হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে আগামী ২৪ ঘণ্টার আগে কিছু বলা যাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও তার মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।


রোববার (২৩ জুন) রাতে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের গেটে সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানান তিনি।



ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, খালেদা জিয়ার তিনটি ব্লক ছিল, সেগুলো সারানো হয়েছে। আমি বারবার বলছিলাম, যেকোনো সময় যেকোনো অঘটন ঘটে যেতে পারে।


 সেই অঘটনটি গত শুক্রবার রাতে ঘটতে যাচ্ছিল এবং সেই অবস্থায় মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা দ্রুত তাকে হাসপাতালে ট্রান্সফার করে, তার যেই অবস্থা সেই অনুযায়ী তার চিকিৎসা শুরু করে। 



সবশেষ অবস্থা অর্থাৎ আজকে (গতকাল) পারমানেন্ট পেসমেকার লাগানো হয়েছে। তিনি এখন চিকিৎসকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। আগামী ২৪ ঘণ্টা না গেলে তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করা বিব্রতকর হয়ে যেতে পারে।


দেশবাসীর কাছে খালেদা জিয়ার সুস্থতার জন্য তার পরিবার ও দলের পক্ষ থেকে দোয়া চান ডা. জাহিদ।


এর আগে, হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে শুক্রবার (২১ জুন) দিবাগত রাতে খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


৭৯ বছর বয়সী বিএনপির এই নেত্রী ডায়াবেটিস, আর্থারাইটিস, হৃদরোগ, ফুসফুস, লিভার ও কিডনির বিভিন্ন জটিল রোগে ভুগছেন।


আরও খবর



বাস টার্মিনালে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড়

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ |

Image

একদিন পরই পবিত্র ঈদুল আজহা। নাড়ির টান আর প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে শেষ সময়ে রাজধানী ছাড়ছেন অসংখ্য মানুষ। নির্দিষ্ট গন্তব্যে যেতে বাস টার্মিনালগুলোতে ইতোমধ্যে যাত্রীদের ঢল নেমেছে। শনিবার (১৫ জুন) সকালে রাজধানীর মহাখালী বাস টার্মিনাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শনিবার সকাল থেকে সড়ক পথে মানুষের চাপ চোখে পড়ার মতো।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যারা মূলত বেসরকারি চাকরি করেন তারাই আজ ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরছেন। শনিবার বাধ্যতামূলক অফিসে হাজিরা দিতে হবে, তাই কোনরকম হাজিরা দিয়েই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন অনেকে। আর সরকারি চাকরিজীবীদের অধিকাংশই শুক্র-শনিবার সরকারি ছুটি থাকায় আগেই নিজ নিজ গন্তব্যে পাড়ি জমিয়েছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদকে কেন্দ্র করে যারা ঢাকা ছাড়ছেন, তাদের অধিকাংশই সন্তান পরিবার নিয়ে বাস টার্মিনালে এসেছেন। আবার কেউ কেউ সমবয়সীদের সঙ্গে কেউবা একাই এসেছেন। কর্মব্যস্ত এসব মানুষের যেন সময় নেই। কত দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছাতে পারেন সেই তাড়া দেখা গেল সবার মাঝে। যাত্রাপথে ভোগান্তি হলেও পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে গন্তব্যের উদ্দেশ্য যাত্রা করতে পেরে বেশ খুশি তারা।

মহাখালী বাস টার্মিনালে ঢুকতেই ময়মনসিংহগামী এনা পরিবহনের কাউন্টারে দেখা গেলো যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড়। যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাদের কেউ কেউ টিকিটের জন্য ২০ থেকে ৩০ মিনিট পর্যন্ত লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। এরপর কিশোরগঞ্জগামী অনন্যা পরিবহন কাউন্টারে গিয়েও দেখা যায় যাত্রীদের দীর্ঘ লাইন। তাদের প্রত্যেকেই ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ ফিরছেন। একইচিত্র দেখা গেছে জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোনা ও টাঙ্গাইলগামী বাসগুলোর কাউন্টারেও।

রাজিব আহমেদ নামে এক যাত্রীর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ঈদের আগে জামালপুর রোডে প্রচুর যানজট হয়, যাত্রীদের ভিড় দেখে মনে হচ্ছে আজও এরকমটাই হবে। কাউন্টার এসে দেখি প্রচুর মানুষের ভিড়। যে সময়ে কাউন্টার এসেছি, অনেক দূর চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু এনা পরিবহনের গাড়ির এখনো সিরিয়ালে আছি।

তিনি বলেন, ঈদের আগে এই ঝামেলা হতে পারে ভেবে সপ্তাহখানেক আগেই স্ত্রী-সন্তানদের পাঠিয়ে দিয়েছি। এখন একাই যাচ্ছি, কষ্ট হলেও এখন তেমন একটা খারাপ লাগছে না।

কিশোরগঞ্জগামী মওদুদ আহমেদ বলেন, গতকাল রাতে থেকেই ঈদের একটা ফিল শুরু হয়ে গেছে। তাই সকাল থেকেই কখন বাড়ি ফিরবো সেই চিন্তা। বাড়ির উদ্দেশ্যে পরিপূর্ণ প্রস্তুতি নিয়েই সকালে অফিসে গিয়েছি। এরপর অফিসে গিয়েই বসকে বলে আবার বেড়িয়ে চলে এসেছি। যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড় হলেও ভালো লাগছে।

অনন্যা পরিবহনের টিকেট কাউন্টারে দায়িত্বরত রফিকুল ইসলাম বলেন, পুরোদমে ঈদের ছুটি শুরু হওয়ায় ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। ভোর ৫টা থেকেই যাত্রীরা কাউন্টারে আসতে শুরু করছেন। প্রতিটি বাসই একদম পূর্ণ হয়ে যাচ্ছে। তবে কিশোরগঞ্জ থেকে আসা বাসগুলোর এখন সিট ফাঁকা রেখেই ঢাকায় ঢুকছে।

ভাড়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঈদ উপলক্ষে আমরা কোন বাড়তি ভাড়া নিচ্ছি না। মালিক সমিতি থেকে কড়া নির্দেশ, লস হলেও এক টাকা ভাড়া অতিরিক্ত নেওয়া যাবে না।


আরও খবর



যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে হামাসের কিছু সংশোধনী কার্যকরী নয় : ব্লিঙ্কেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ |

Image



সদরুল আইন,আন্তর্জাতিক ডেস্ক:



যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, তার দেশের গাজা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে হামাসের প্রস্তাবিত কিছু কিছু সংশোধনী কার্যকরী নয়, তবে একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। খবর আলজাজিরার।


দোহায় কাতারের প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুলরহমান বিন জসিম আল থানির সঙ্গে আলোচনা শেষে ব্লিঙ্কেন বলেন, হামাসের সাড়া দেওয়ার ওপর নির্ভর করছে গাজা যুদ্ধ আরও দীর্ঘায়িত হবে কিনা।


ব্লিঙ্কেন বলেন, ‘আলোচনার টেবিলে ওঠা প্রস্তাবনার বিষয়ে বেশ কিছু পরিবর্তন আনার প্রস্তাব দিয়েছে হামাস। গত রাতে আমরা এই পরিবর্তনের বিষয়গুলো নিয়ে মিসরীয় সহকর্মীদের সঙ্গে এবং আজ কাতারের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছি। প্রস্তাবনার কিছু পরিবর্তন কার্যকরী, আবার কিছু কার্যকরী নয়।’


গাজায় স্থায়ী যুদ্ধবিরতি কার্যকরের লক্ষ্যে গত মাসে ওয়াশিংটন এই পরিকল্পনা প্রণয়ন করে। গত মঙ্গলবার হামাস ও ইসলামি জিহাদ যৌথভাবে এতে সাড়া দেয়। এই পরিকল্পনা ‘ইতিবাচক’ ও ‘দায়িত্বপূর্ণ’ বলে উল্লেখ করে সংগঠন দুটি।


এক বিবৃতিতে হামাস জানায়, ফিলিস্তিনি জনগণের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে গাজায় চলতে থাকা আগ্রাসন পুরোপুরি বন্ধ করতে এবং সমগ্র গাজা উপত্যকা থেকে ইসরায়েলি সৈন্য প্রত্যাহারের কথা বিবেচনা করেই এই সাড়া প্রদান করা হয়েছে।


গত ৩১ মে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কয়েক ধাপের যে প্রস্তাবনার ঘোষণা দেন, তাতে গাজা থেকে ইসরায়েলি সৈন্য প্রত্যাহার ও স্থায়ীভাবে শত্রুতা বন্ধ করতে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা হয়। তবে হামাসের অবস্থান ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবে কী কী অসঙ্গতি রয়েছে, তা এখনও পরিষ্কার নয়। মঙ্গলবার অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে ব্যর্থতার জন্য ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাসকে দায়ী করেন।


ব্লিঙ্কেন বলেন, ‘গত ৬ মে হামাসের দেওয়া প্রস্তাব এবং বর্তমানে আলোচনার টেবিলে থাকা চুক্তির বিষয়গুলো কার্যত অভিন্ন। এই চুক্তির পেছনে পুরো বিশ্ব রয়েছে, এই চুক্তি ইসরায়েলও গ্রহণ করেছে। আর এক্ষেত্রে হামাস একটিমাত্র শব্দ উচ্চারণ করতে পারে সেটা হলো–হ্যাঁ। তবে তা না করে হামাস দুই সপ্তাহ অপেক্ষা করেছে এবং আরও পরিবর্তনের প্রস্তাব দিয়েছে। আর এগুলোর মধ্যে এর আগে মেনে নেওয়া অবস্থানের বাইরে চলে গেছে তারা।’



হামাসের একজন কর্মকর্তা তাহের আল নানু মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিতর্কিত ভূমিকা পালনের অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে এই শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক এমন আচরণ করছেন যেন তিনি ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ব্লিঙ্কেনের নিরপেক্ষতার অভাব রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তাহের আল নানু।


আরও খবর



রোববার সন্ধ্যায় তৃতীয় মেয়াদের জন্য শপথ নেবেন নরেন্দ্র মোদি

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ |

Image

বিডি টু ডে রিপোর্ট:


নরেন্দ্র মোদি আগামীকাল রবিবার সন্ধ্যায় টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিবেন নরেন্দ মোদি।


 মোদির দল বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (এনডিএ) গতকাল শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে প্রধানমন্ত্রী পদে সমর্থন দেয়। এরপরই রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু নতুন জোট সরকার গঠনের জন্য নরেন্দ্র মোদিকে আহ্বান জানিয়েছেন।


 মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আজ দিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


এছাড়া শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্পকমল দহল, ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়াল ওয়াংচুক।


টানা দুই মেয়াদে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়েই ক্ষমতায় ছিল মোদির বিজেপি। তবে এবারের নির্বাচনে তারা একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে। যদিও সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। 


সরকার গঠনের জন্য লোকসভায় ২৭৩ আসনের প্রয়োজন। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছে ২৯৩ আসন। তাই জোটের শরিকদের ওপর ভর করেই তৃতীয় বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মোদি।


 পার্লামেন্টের সেন্ট্রাল হলে আয়োজিত বৈঠকে আনুষ্ঠানিকভাবে এনডিএ জোটের সংসদীয় নেতা নির্বাচিত হন নরেন্দ্র মোদি। সেখানে মোদি বলেন, আমাদের গত ১০ বছর ছিল শুধু ‘ট্রেলার’। আমাদের আরও কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। 


দেশের উন্নয়ন আরও ত্বরান্বিত করতে হবে। এ সময় কংগ্রেসের সমালোচনা করে মোদি বলেন, এবারের নির্বাচনেও কংগ্রেস ১০০ আসন জিততে পারেনি। বিজেপি এবার ২৪০ আসনে জিতেছে। 


গত তিন নির্বাচন মিলেও এত আসনে জিততে পারেনি কংগ্রেস। ইন্ডি জোটের লোকেরা আস্তে আস্তে ডুবছিল, এবার আরও দ্রুত গতিতে ডুবে যাবে।


নতুন জোট সরকার টিকিয়ে রাখতে নরেন্দ্র মোদিকে যাদের ওপর নির্ভর করতে হবে তাদের একজন হলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। বৈঠকে তিনি বলেন, আমরা আত্মবিশ্বাসী যে, নরেন্দ্র মোদি ভারতের উন্নয়ন করবেন এবং আমরা তাকে আন্তরিকভাবে সমর্থন করব। 


আমরা সবাই আপনার নেতৃত্বে কাজ করব। আরেক গুরুত্বপূর্ণ নেতা চন্দ্রবাবু নাইডু বলেন, ভারত সঠিক সময়ে সঠিক নেতার নেতৃত্বে রয়েছে। আমরা আত্মবিশ্বাসী যে, নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে ভারত আগামী পাঁচ বছরে প্রথম অথবা দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ।



এরপর মোদি প্রবীণ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদভানী, মুরলী মনোহর জোশী এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাত করেন। তাদের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে রাইসিনা হিলে রাষ্ট্রপতি ভবনে যান মোদি। সেখানে তৃতীয় বারের মতো এনডিএ জোট সরকার গঠনের আনুষ্ঠানিক আহ্বান জানাতে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর কাছে আবেদন জানান তিনি। 



রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মোদি বলেন, এটুকু আশ্বাস দিতে পারি, গত দুই মেয়াদের উন্নয়নের যে গতি বজায় ছিল, তৃতীয় দফার পাঁচ বছরেও তা থাকবে। এরপরে তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি আমাকে ডেকেছিলেন। সরকার গড়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। 


আমি তাকে জানিয়েছি, ৯ জুন রবিবার সন্ধ্যায় শপথগ্রহণ হলে ভালো হয়। তার মধ্যেই মন্ত্রীদের তালিকা আমি রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠিয়ে দেব। সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, নরেন্দ্র মোদি স্থানীয় সময় রবিবার সন্ধ্যায় শপথ নেবেন। 


লোকসভায় কংগ্রেসের আসন বেড়ে ১০১

সংসদীয় রীতি অনুযায়ী না হলেও ভারতের লোকসভায় কংগ্রেসের আসন ১০০ পার হয়েছে। মহারাষ্ট্রের সাংলি লোকসভা আসন ও বিহারের পূর্ণিয়া আসন থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র দুই প্রার্থী কংগ্রেসের সঙ্গে থাকার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। 


মহারাষ্ট্রের সাংলি থেকে জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশাল পাটিল বৃহস্পতিবার দিল্লি এসে কংগ্রেসের সঙ্গে থাকার কথা জানিয়ে দেন। বিহারের পূর্ণিয়া থেকে জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী রাজেশ রঞ্জন ওরফে পাপ্পু যাদবও একই কথা জানিয়েছেন। খবর: এনডিটিভি ও হিন্দুস্তান টাইমস।


আরও খবর



গৃহহীনের অভিশাপমুক্ত হলো আরো ৭০ উপজেলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ |

Image

দেশের আরও ২৬টি জেলা এবং ৭০ উপজেলাকে ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ৫৮ জেলা ও ৪৬৪টি উপজেলা ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত হলো।

 ১১ জুন বেলা ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে পঞ্চম পর্যায়ের দ্বিতীয় ধাপে আরও ১৮ হাজার ৫৬৬ ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ ঘর বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ঘোষণা দেন।

এ সময় ঢাকা, গোপালগঞ্জ, শরীয়তপুর, ফরিদপুর, নেত্রকোণা, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, নীলফামারী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, সাতক্ষীরা, যশোর, খুলনা, নড়াইল, বাগেরহাট, বরগুনা, বরিশাল, হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জ; এই ২৬ জেলাকে ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হয়।

ঢাকা জেলার ধামরাই; গোপালগঞ্জের গোপালগঞ্জ সদর; শরিয়তপুরের নড়িয়া, জাজিরা; ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা; নেত্রকোণার খালিয়াজুরী; কক্সবাজারের কক্সবাজার সদর, মহেশখালী, ঈদগাঁও; চট্টগ্রামের চন্দনাইশ, সন্দ্বীপ, সীতাকুন্ড; চাঁদপুরের হাইমচর, চাঁদপুর সদর; লক্ষীপুরের

রামগতি, কমলনগর; নোয়াখালীর হাতিয়া, কোম্পানীগঞ্জ, সুবর্ণচর; কুমিল্লার আদর্শ সদর, মুরাদনগর; ফেনীর সোনাগাজী; গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি, সাঘাটা; কুড়িগ্রামের কুড়িগ্রাম সদর, উলিপুর, নাগেশ্বরী, রাজারহাট, চররাজিবপুর, রৌমারী; রংপুরের গংগাচড়া, মিঠাপুকুর, পীরগঞ্জ; লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ, লালমনিরহাট সদর, পাটগ্রাম, হাতিবান্ধা, আদিতমারী; নীলফামারী সৈয়দপুর, সিরাজগঞ্জের চৌহালী; বগুড়ার শেরপুর; সাতক্ষীরার আশাশুনী; যশোরের মনিরামপুর; খুলনার পাইকগাছা, কয়রা, দাকোপ; নড়াইলের লোহাগড়া, নড়াইল সদর; বাগেরহাটের বাগেরহাট সদর, শরণখোলা, রামপাল, মোল্লাহাট, ফকিরহাট, চিতলমারী, মোরেলগঞ্জ, মোংলা, কচুয়া; ভোলার বোরহানউদ্দিন, চরফ্যাশন, মনপুরা; বরগুনার বরগুনা সদর, আমতলী; বরিশালের বরিশাল সদর, হিজলা, গৌরনদী; হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ; সুনামগঞ্জের দিরাই, ছাতক, জগন্নাথপুর, জামালগঞ্জ এই ৭০ উপজেলাকে সম্পূর্ণ ভূমিহীন এবং গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। আসন্ন ঈদুল আজহার আগে শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে ঘর পেলেন অসহায় এসব পরিবার।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপকার ভোগীদের হাতে জমির দলিল এবং ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন।

পরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ, ভোলার চর ফ্যাশন ও কক্সবাজারের ঈদগাঁও এলাকার উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। ১৯৭২ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গৃহহীনদের পুনর্বাসন কর্মসূচি শুরু করেন।

বঙ্গবন্ধুর এ কর্মসূচিকে অনুসরণ করে তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৭ সালে আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে গৃহ ও ভূমিহীনদের ঘর ও জমির মালিকানা দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

আশ্রয়ণ প্রকল্প ও অন্যান্য প্রকল্পের আওতায় ১৯৯৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত সারা দেশে ৮ লাখ ৬৭ হাজার ৯০৪ ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের প্রায় ৪৩ লাখ ৪০ হাজার মানুষকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। শুধুমাত্র আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ৫ লাখ ৮২ হাজার ৫৩ ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের ২৯ লাখ ১০ হাজার ২৬৫ জনকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। শুধুমাত্র মুজিব শতবর্ষে ২ লাখ ৬৬ হাজার ১২টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।


আরও খবর