Logo
শিরোনাম
শবে বরাত পালন মুসলিম জাতিকে একতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে। ৫৭ তম খোশরোজ শরীফ ও মইনীয়া যুব ফোরামের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন বাঙালি সাংস্কৃতিতে মাইজভাণ্ডারী ত্বরীকার সাথে সম্পর্ক রয়েছে সীমান্তে হত্যা বন্ধের দাবীতে প্রতীকী লাশ নিয়ে হানিফ বাংলাদেশীর মিছিল লক্ষ্মীপুরে কৃষক কাশেম হত্যা: স্ত্রী, শ্বশুরসহ গ্রেপ্তার ৫ কুমিল্লা সিটি’র উপনির্বাচন: মেয়র পদে প্রতীক বরাদ্দ অবৈধ মজুদকারীরা দেশের শত্রু : খাদ্যমন্ত্রী ফতুল্লায় সিগারেট খাওয়ার প্রতিবাদ করায় কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা বকশীগঞ্জে মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা নোবিপ্রবিতে সিএসটিই এলামনাই এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন

নওগাঁয় গৃহবধূ'র মৃত্যু, স্বামী সহ পরিবারের লোকজন পলাতক

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


নওগাঁয় মাত্র দু' বছর বয়সি এক শিশু সন্তানের মা গৃহবধূ'র মৃত্যু, স্বামী সহ পালিয়েছে পরিবারের লোকজন। মৃত্যু বরণকারী গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমা (২১)

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার

দক্ষিণ আন্ধারকোঠা গ্রামের সুমন এর স্ত্রী। তাদের রিমন হোসেন নামে মাত্র দু' বছর বয়সি এক ছেলে সন্তান রয়েছে। এঘটনায় গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমা'র বাবা বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার ১১ নভেম্বর সন্ধার পর গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমাকে গুরুতর অবস্থায় তার স্বামী সহ স্বামীর বাড়ির স্বজনরা নওগাঁ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক রিমা আক্তার রুমাকে মৃত ঘোষনা করে বলেন হাসপাতালে নেওয়ার পূর্বে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর বিষয় জানার পরই গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমা'র মৃতদেহ হাসপাতালে রেখেই হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান তার স্বামীসহ স্বজনরা। এক পর্যায়ে মেয়ে হাসপাতালে আছেন এমন খবর পেয়ে নওগাঁ সদর উপজেলার কুমুরিয়া গ্রাম থেকে হাসপাতালে ছুটে আসেন রিমা আক্তার রিমা'র বাবা মা সহ স্বজনরা। হাসপাতালে এসে তারা তাদের মেয়েকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। স্বজনদের অভিযোগ যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমাকে তার স্বামী শ্বশুর ও শাশুড়ি মাঝে মাঝেই নির্যাতন করতো। এসময় তারা অভিযোগ করেন, রিমা আক্তার রুমাকে মারপিট 'নির্যাতন' করে মারার পর গলায় ওড়না'র ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রেখে এবং পরবর্তীতে হাসপাতালে এনে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নিতে অপচেষ্টা করেছে তার স্বামী, শ্বশুর সহ স্বজনরা।

গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমার স্বামীর বাড়ি দক্ষিন আন্ধারকোঠা গ্রামের বেশ কয়েক জন তাদের নাম-পরিচয় গোপন রাখার শর্তে প্রতিবেদককে জানান, রিমা আক্তার রুমার স্বামী সুমন একজন মাদক সেবি। সে মাঝে মাঝেই তার স্ত্রীকে মারপিট করতো, এমনকি ঘটনার দিনও হাসপাতালে নেওয়ার পূর্বেও তাকে মারপিট করা হয় জানিয়ে তারা বলেন, প্রশাসন তদন্ত করলে সত্য ঘটনা উদর্ঘাটন হবে।

অপরদিকে হত্যার অভিযোগ অস্বিকার করে নিহত গৃহবধূ রিমা আক্তার রুমা'র চাচা শ্বশুর দক্ষিন আন্ধারকোঠা গ্রামের হারুন অর রশিদ (৪৫) প্রতিবেদক কে জানান, ঘটনার দিন বা সময় তার ভাইস্তা বউ নিজ শয়ন ঘড়ের ভেতর ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে ঝুলছিলো, দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এসময় প্রতিবেশি নারী সহ অপর একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ঘটনার দিন স্বামী-স্ত্রী বিবাদের এক পর্যায়ে রিমা আক্তার রুমাকে তার স্বামী নির্যাতন করেন। এর পরই তারা হৈ চৈ করেন এবং হাসপাতালে নিয়ে যান।

এঘটনায় ঐ দিন রাতেই রিমা আক্তার রুমার বাবা ইলিয়াস কবিরাজ বাদী হয়ে মহাদেবপুর থানায় রিমা আক্তার রুমার স্বামী সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এস আই জিয়াউর রহমান জানান, তদন্ত পূর্বক জড়ীতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



রমজানে কোনো জিনিসের অভাব হবে না

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, রমজানে কিন্তু কোনো জিনিসের অভাব হবে না। ইতোমধ্যে সমস্ত কিছু ব্যবস্থা করা আছে। এটা নিয়ে অনেকে কথা বলবে, কিন্তু কোনো অসুবিধা হবে না। রমজান তো কৃচ্ছতা সাধনের জন্য, রমজানে মানুষ একটু কম খায়। আমাদের দেশে রমজানে খাবার-দাবারের চাহিদা একটু বেড়ে যায়।

জার্মানি সফরের বিষয়ে আজ (শুক্রবার) সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান শেখ হাসিনা। ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি জার্মানির মিউনিখ শহরে অনুষ্ঠিত হয় ৬০তম মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্স। সে বিষয়েই আজকের সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, রমজানে ছোলা, খেজুর, চিনি পর্যাপ্ত পরিমাণে আনার ব্যবস্থা আছে, এগুলো নিয়ে সমস্যা হবে না। সেই ব্যবস্থা অনেক আগেই করে রেখেছি।

তিনি আরো বলেন, গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে একটা দেশ উন্নত হয়। গত পনেরো বছরে আত্মসমাজিক উন্নয়ন হয়েছে, মানুষের মন-মানসিকতার পরিবর্তন হয়েছে, সব দিক থেকে বাংলাদেশ অনেক উপর উঠে আসতে সক্ষম হয়েছে। আমরা এখন স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমরা যথাযথভাবে এগিয়ে যেতে পারি সেই কাজটাই আমাদের বড় কথা। এদিকে আমার মনোযোগ দিয়েছি।

শেখ হাসিনা বলেন, রাজনৈতিক দলের অভাব বাংলাদেশে। আওয়ামী লীগ ৪৯ সালে গঠিত হয়েছিল গণমানুষের কথা বলে। সেই সময় থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করেই আওয়ামী লীগ এগিয়ে গেছে। আমি যদি আমার প্রতিপক্ষ কয়েকটি দল দেখি, একটা হচ্ছে যুদ্ধাপরাধী দল জামাত। যাদের রাজনীতি নিষিদ্ধ ছিল। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে জিয়াউর রহমান সংবিধান সংশোধন করে তাদেরকে রাজনীতি করার সুযোগ করে দেয়। পাসপোর্ট নিয়ে যারা পাকিস্তান গেছে তাদেরকে ফিরিয়ে এনে ভোটের অধিকার দিয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে সরকারপ্রধান বলেন, তারা চায় এমন একটা পরিবেশ হোক, তাদেরকে কেউ ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে। সেটা করতে গিয়ে তারা যে প্রথম ধরা খেল, সেটা ২০১৮ নির্বাচন। প্রচার-প্রচারণা সব দিক থেকে আওয়ামী লীগ বিএনপি সমান-সমান ভাব ছিল। ২০০৮ নির্বাচন নিয়ে কেউ প্রশ্ন করতে পারেনি। সেই নির্বাচনের রেজাল্টটা কি? গণতান্ত্রিক ধারাকে আমরা স্থায়ী করেছি, যার সুফল মানুষ পাচ্ছে। তাদের জীবনমান উন্নত হয়েছে। আমরা চাই এ ধারাবাহিকতা যেন বজায় থাকে।


আরও খবর



নাইক্ষ্যংছড়ি: আতঙ্কে ঘরছাড়া ৩ গ্রামের মানুষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ |

Image

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে বিদ্রোহী ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে চলমান সংঘাত-সংঘর্ষ থামছেই না। দুই বাহিনীর গোলাগুলি ও মর্টার শেলের বিকট শব্দে সীমান্তজুড়ে ভীতিকর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে বিদ্রোহীদের অবস্থান লক্ষ্য করে হেলিকপ্টার থেকে ছোঁড়া হচ্ছে গুলি ও মর্টার শেল। গুলির মুহুর্মুহু শব্দে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় ঘর ছেড়েছেন ঘুমধুম ইউনিয়নের তিন গ্রামের মানুষ। এরই মধ্যে দুপুরে মিয়ানমার থেকে ছুটে আসা একটি মর্টার শেলের আঘাতে নিহত হয়েছেন স্থানীয় জলপাইতলী গ্রামের গৃহবধূ ও এক রোহিঙ্গা। এ সময় আহত হয় এক শিশুও।

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান অস্থিরতায় টেকনাফের হোয়াইক্যং উলুবনিয়া সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় এক রোহিঙ্গা পরিবারকে আটক করেছে বিজিবি। এর আগে মিয়ানমার বিদ্রোহীদের প্রচণ্ড গোলাগুলির মুখে টিকে থাকতে না পেরে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে ১০৩ জন মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) সদস্য।

চলমান পরিস্থিতিতে সীমান্তের ওপারে বসবাস করা মিয়ানমারের চাকমা জাতি ও রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় জড়ো হচ্ছেন। তবে, বিজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সীমান্তে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন তারা।

সোমবার মর্টার শেলের আঘাতে নিহতরা হলেন নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম তুমব্রু জলপাইতলী এলাকার বাসিন্দা হোসনে আরা (৫৫) ও উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৮/ই এর ডি ব্লকের বাসিন্দা মৃত ধলু হোসেনের ছেলে নবী হোসেন (৬০)। আহত নুসরাত মনি (৬) স্থানীয় শহিদুল ইসলামের মেয়ে। নিহতরা চাষের জমিতে কাজ শেষে দুপুরের খাওয়ার জন্য বাড়িতে অবস্থান করছিলেন বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের আরাকান রাজ্য স্বাধীনের নামে সরকারি বাহিনীর বিভিন্ন ক্যাম্পে হামলা চালিয়ে আসছে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মি। প্রতিদিন মিয়ানমারের অভ্যন্তরে কোনো কোনো এলাকায় চলছে দুই বাহিনীর তুমুল সংঘর্ষ। এরই মধ্যে আরাকান রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল দখলের দাবি করেছে আরাকান আর্মি। দুই পক্ষের চলমান সংঘর্ষে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়ন, উখিয়ার পালংখালী ও টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সীমান্তে বসবাসকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

ঘুমধুম ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার দ্বীন মোহাম্মদ বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে সীমান্তে বসবাসকারীদের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে গোলাগুলির আতঙ্কে ইউনিয়নের তিন গ্রামের সহস্রাধিক মানুষ বসতবাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন। দুজন নিহত হওয়ার পর আতঙ্ক আরও বেড়েছে।

মর্টার শেলের আঘাতে নিহতদের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মান্নান। তিনি বলেন, সীমান্তের ওপারে গোলাগুলি চললেও আমাদের দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তবে, সীমান্তে বসবাসকারীদের সরানোর বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন বলতে পারবে।

টেকনাফ হোয়াইক্যং উলুবনিয়া এলাকার জালাল আহমেদ বলেন, সকাল সাড়ে ১০টার দিক থেকে মিয়ানমারের ওপারে ব্যাপক গোলাগুলি ও মর্টার শেলের শব্দ আমরা শুনতে পারছি। ভয়ে সীমান্ত থেকে লোকজন সরে যাচ্ছেন। অনেকে ঘর থেকে বের হচ্ছেন না।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আদনান চৌধুরী বলেন, ওপার থেকে রোহিঙ্গা ও বিজিপি সদস্যরা পালিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারেন এমন আশঙ্কায় সীমান্তে বিজিবি সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন। সাগরে কোস্টগার্ড সদস্যরাও প্রস্তুত রয়েছেন। কোনো অবস্থাতেই আমরা রোহিঙ্গা কিংবা অন্য কাউকে ঢুকতে দেব না।

টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, সীমান্তে আমরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছি।

৩৪ বিজিবি কক্সবাজার রিজিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মাশরুকী বলেন, কোনো অবস্থাতেই মিয়ানমারের কোনো নাগরিককে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

বিজিবি কক্সবাজার রিজিওয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোরশেদ আলম বলেন, মিয়ানমার অভ্যন্তরে চলা সংঘাতের কারণে আমরা সদর দপ্তরের অনুমতিক্রমে ১০৩ জন বিজিপি সদস্যকে আশ্রয় দিয়েছি। তাদের মিয়ানমার হস্তান্তর করার জন্য পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

 


আরও খবর



বিভক্তি’ নিয়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পাকিস্তানে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ |

Image

পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করতে পাকিস্তান ৮ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছে। কিন্তু ভোটাররা জানান, পাকিস্তানের মানুষ এতটাই বিভক্ত যে তারা নির্বাচনের বিষয়ে কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করছে। আমনা নামের লাহোরের এক শিক্ষার্থী বিবিসিকে বলেন, যখন পাকিস্তানের রাজনীতির বিষয় আসে, কারোরই স্বাধীনভাবে কথা বলার অধিকার নাই। 

এ ছাড়া রাজনীতি এখন এতটাই মেরুকরণ হয়ে গেছে যে এ নিয়ে মতানৈক্যের ঘটনায় নিজের সন্তান আতা উর রেহমানকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বাবার বিরুদ্ধে।

আতার ভাই আরিফ বিবিসিকে জানিয়েছেন, তাঁর পুরো পরিবার শোকাহত। তাঁর ভাই কাতারে চাকরি করতেন। ছুটিতে এসে পেশোয়ারে বাবার সঙ্গে থাকছিলেন। আতা বাড়ির ছাদে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআইয়) পতাকা টাঙাতে চাইলে দুজনের মধ্যে তর্ক শুরু হয়। যদিও তাঁর বাবা কোনো রাজনৈতিক দল সমর্থন করেন না, তিনি এটি পছন্দও করেন না।

 

২০২২ সালে বিরোধী দলগুলোর অনাস্থা ভোটে ইমরান খানকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। এখন তিনি দুর্নীতি ও গোপন নথি ফাঁসের অপরাধে কারাভোগ করছেন। তাঁর নির্বাচনে অংশগ্রহণের ওপরও দেওয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা।

আরিফ জানান, উত্তপ্ত বাগবিতণ্ডার পর তাঁর বাবা আতাকে গুলি করে পালিয়ে যান। পরে পুলিশ আতার মৃত্যু নিশ্চিত করেছে।

যদিও এটি একটি বিরল ঘটনা, তবে অনেক লোকজন বলেছে, নির্বাচনের সময় তারা পরিবারের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ে।

ইমরান খানের অন্ধ সমর্থক নিদা জিশান বলেন, আমার বোন ও আমি বাবার সঙ্গে তিন মাস কথা বলিনি।

ইমরান খানেকে জেতানোর জন্য নিদা ও তাঁর বোন ২০১৮ সালের নির্বাচনে পিটিআইকে ভোট দিয়েছিলেন।

কিন্তু এটি তাঁদের পরিবারে বিভক্তি সৃষ্টি করে। নিদা বলেন, আমার বাবা খানের নির্বাচনি ইশতেহারের সঙ্গে একমত নন এবং তাঁর মতে খান ভালো রাজনীতিবিদ নন।

 

অন্য যেসব তরুণের সঙ্গে বিবিসির প্রতিবেদক কথা বলেছেন, তাঁদের মতো নিজের মত প্রকাশে ভীত ছিলেন না নিদা। তিনি বলেন, আমি আমার বাবার সঙ্গে দ্বিমত করে বলতাম, আমি খানকে ও তাঁর ব্যক্তিত্বকে ভালোবাসি। আমি তাঁর নির্বাচনী ইশতেহার পছন্দ করেছিলাম।

২০২৪ সালের নির্বাচনেও এর ব্যতিক্রম হবে না বলে জানিয়ে নিদা বলেন, কেউ যদি তাঁর সঙ্গে দ্বিমত করে, তাহলে তিনি তাঁদের সঙ্গে দেখা করা বন্ধ করে দেবেন, নয়তো সে আলাপ ঝগড়া পর্যন্ত গড়াবে।

একমত না হলেও ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা তাঁর মতামতকে শ্রদ্ধা করেন বলে জানিয়ে নিদা বলেন, আমার বন্ধুর স্বামী অন্য দল থেকে এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। তিনি খুব ভালো করেই জানেন, আমি তাঁকে ভোট দেব না, তাই তিনি আমার কাছে সমর্থন চাননি।


আরও খবর

অনুমতি ছাড়া হজ করলে শাস্তি ঘোষণা

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




ট্রাক চাপায় সড়কে ঝরলো দু'জন কিশোর এর প্রাণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ |

Image

ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে দু'জন কিশোর নিহত। মর্মান্তিক এ সড়ক দূর্ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরের দিকে বগুড়া শহরের দ্বিতীয় বাইপাস সড়কের সাবগ্রাম এলাকায়। সত্যতা নিশ্চিত করে বগুড়া ফায়ার সার্ভিস এর কর্মকর্তা মাসুদ পারভেজ জানান, মঙ্গলবার বেলা ১১টারদিকে দু'জন কিশোর একটি মোটরসাইকেল যোগে গাবতলী উপজেলা থেকে বগুড়া শহরের দিকে আসার পথে দ্বিতীয় বাইপাসের সাবগ্রাম বড়িয়া এলাকায় পৌছালে এসময় বিপরীদ-মুখী একটি ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেল এর মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে দূর্ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী গাবতলী উপজেলার বাগবাড়ী এলাকার সুমন এর ছেলে মাহিনুর রহমান (১৪) ও একই উপজেলার দূর্ঘাহাটা গ্রামের উজ্জ্বল রহমান এর ছেলে সিতাব মিয়া (১৫) দু' জনের মৃত্যু হয়। 

এব্যাপারে বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত দূর্ঘটনাস্থলে পৌছে ট্রাক ও মোটরসাইকেল পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে এবং প্রাথমিক আইনানুগ পক্রিয়া শেষে নিহত দু' জনের মৃতদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



রাণীনগরে জামে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ |

Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ)  :

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কালীগ্রাম সরদার ও দপ্তরীপাড়া জামে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন করেন বিদু’,জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নওগাঁ-৬,(আত্রাই-রাণীনগর)আসনের এমপি এ্যাড: ওমর ফারুক সুমন।

নওগাঁ জেলা জজ আদালতের পেশকার ও অত্র জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ভিত্তিপ্রস্তরের উদ্বোধন করেন এ্যাড: ওমর ফারুক সুমন এমপি। এসময় কালীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডল,গত ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনিত প্রার্থী ও আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন বিএ,সমাজ সেবক জায়তুল ইসলাম জনিসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর