Logo
শিরোনাম

অনিবন্ধিত ক্লিনিক আর থাকছে না

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

দেশের কোথাও কোনো অনিবন্ধিত ক্লিনিক না রাখার ঘোষণা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির বলেছেন, আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় সরকারি বলেন আর বেসরকারি বলেন একটি ন্যূনতম স্বাস্থ্যসেবা যদি না থাকে, সেই প্রতিষ্ঠান মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করবে সেটা আমরা সহ্য করতে পারব না।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) ইউএসএআইডির ‘মামনি’ ও নবজাতক স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় (ইপিআই) এই কর্মশালায় তিনি একথা বলেন ।

অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির বলেন, ‘অনিবন্ধিত ক্লিনিক এবং যারা প্রতারণা করছে স্বাস্থ্যসেবার নামে সেগুলো কিন্তু প্রায় সবই বন্ধ করে দিয়েছি এবং বলেছি যে অনিবন্ধিত কোনো ক্লিনিক বাংলাদেশে থাকতে পারবে না। এটি একটি খুবই প্রিমেটিভ কাজ, তবে তার মানে এই নয় আমরা খুব ভালো কাজ করে ফেলেছি। যদি কেউ নিবন্ধন নম্বর তাদের প্রতিষ্ঠানে না টাঙিয়ে রাখেন তাহলে অনিবন্ধিত হিসেবেই ধরে নেওয়া হবে।

ডা. আহমেদুল কবির আরো বলেন, আমরা আপনাদের খুব স্ট্রং মেসেজ দিতে চাই। আপনাদের জেলায় কোনো অনিবন্ধিত ক্লিনিক থাকতে পারবে না। এটি একটি পরিষ্কার বার্তা। অনিবন্ধিত ক্লিনিকের অস্তিত্ব বাংলাদেশের মাটিতে থাকতে পারবে না। প্রতিপক্ষ যত শক্তিশালী হোক। দ্বিতীয়ত নিবন্ধিত ক্লিনিক মানেই মানুষের সেবা করছে, সেটাও বলার সুযোগ নেই। এরই মধ্যে আমি হাসপাতাল শাখার পরিচালককে বলেছি, স্বাস্থ্যসেবার ক্যাটাগরাইজেশন করার জন্য একটি স্ট্যান্ডার্ড সেটআপ তৈরি করতে।


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




বাসভাড়া কমবে কিনা জানা যাবে বিকালে

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

ডিজেলের দাম কমানোর পরিপ্রেক্ষিতে ডিজেলচালিত বাস ও মিনিবাসের ভাড়া পুনর্নির্ধারণ সংক্রান্ত বৈঠক ডেকেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

বুধবার বিকাল ৫টায় বনানীতে বিআরটিএর প্রধান কার্যালয়ে এ বৈঠক হবে। সোমবার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর ঘোষণা দেয় বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

নতুন দাম অনুযায়ী, ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি লিটার ডিজেল ১১৪ টাকা থেকে কমে ১০৯ টাকায় বিক্রি হবে। আর প্রতি লিটার কেরোসিন ১১৪ টাকা থেকে কমে বিক্রি হবে ১০৯ টাকায়, অকটেন ১৩৫ টাকা থেকে কমে ১৩০ টাকা এবং পেট্রল ১৩০ টাকা থেকে কমে ১২৫ টাকায় বিক্রি হবে। এ দাম কার্যকর হচ্ছে রাত ১২টার পর থেকে।

এর আগে গত ৬ আগস্ট জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে মহানগরে প্রতি কিলোমিটারে বাস ও মিনিবাসে ভাড়া ৩৫ পয়সা বাড়ায় বিআরটিএ। আর দূরপাল্লায় বাসভাড়া বাড়ায় ৪০ পয়সা।

বাড়ানোর আগে ভাড়া ছিল মহানগর পর্যায়ে কিলোমিটারে বাসে ২ টাকা ১৫ পয়সা, মিনিবাসে ২ টাকা ১০ পয়সা। দূরপাল্লার বাসে ভাড়া কিলোমিটারপ্রতি ১ টাকা ৮০ পয়সা ছিল। সর্বনিম্ন ভাড়া বাসে ১০ টাকা, মিনিবাসে ৮ টাকা।

জ্বালানি তেলের দাম কমায় ভাড়া সমন্বয়ের দাবি করেছেন যাত্রী সাধারণ। সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসবে বিকালে। 


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রেড ক্রিসেন্ট দল বাধ্যতামূলক

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মানবিক জাতি গঠনে রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে রেড ক্রিসেন্ট দল গঠনের বিকল্প নেই। তাই শিক্ষার্থীদের মানবিক কাজে সম্পৃক্ততা বাড়াতে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রেড ক্রিসেন্ট দল বাধ্যতামূলক জরুরি।

সোসাইটির জাতীয় সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আবদুল ওয়াহ্হাব। সভায় সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন।

এটিএম আবদুল ওয়াহ্হাব বলেন, রেড ক্রিসেন্ট দল গঠন বাধ্যতামূলক করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়নে ‘মানবিক হও’ শ্লোগানে রেড ক্রিসেন্ট শিক্ষা বোর্ডের সঙ্গে একাত্ম হয়ে কাজ করতে হবে।

বোর্ড চেয়ারম্যানদের সুচিন্তিত মতামত শোনার পর অঞ্চলভিত্তিক কমিটি গঠন করে এ কার্যক্রম গতিশীল করতে দ্রুত উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানান সোসাইটির মহাসচিব কাজী শফিকুল আযম। পরে শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন সোসাইটির চেয়ারম্যান।

উল্লেখ্য, দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে রেড ক্রিসেন্ট দল গঠন বাধ্যতামূলক করতে ২০০৯ সালে প্রজ্ঞাপন জারি হয়। প্রজ্ঞাপনটি সংশোধিত হয়ে ২০২০ সালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষা বোর্ড ও রেড ক্রিসেন্টের দায়িত্ব সুস্পষ্ট করা হয়। 


আরও খবর

বিশ্বজয় করে দেশে ফিরল ক্ষুদে হাফেজ

শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




উদ্বোধনের অপেক্ষায় রংপুর বাস টার্মিনাল

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

চল্লিশ বছর ধরে কাঁদাপানি আর খানাখন্দে মাখামাখি করে চলাচলের দুঃখ ঘুচতে যাচ্ছে রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে আসা যাত্রী এবং পরিবহন সংশ্লিষ্টদের। এখান থেকে প্রতিদিন উত্তরের ১৬ জেলাসহ পুরো বাংলাদেশে অর্ধ লাখেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন। দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে এই টার্মিনাল নির্মাণ করেছে সিটি করপোরেশন। চলতি সেপ্টেম্বর মাসেই আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে টার্মিনালটির।

নান্দনিক স্থাপত্যশৈলীতে অত্যাধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত দ্বিতল ভবনের দৃষ্টিনন্দন বাস টার্মিনাল নজর কাড়ছে সবার। শেষ মুহূর্তে ভবনের অসমাপ্ত কাজগুলো চলছে দ্রুতগতিতে। ৩১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই স্থাপনার উদ্বোধন হবে। এটির উদ্বোধন করবেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি।

যাত্রীসহ পরিবহন সংশ্লিষ্টদের ভোগান্তি লাঘবে পুরাতন স্থাপনা ভেঙে নতুন করে অত্যাধুনিক রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে পার্কিং, যাত্রীদের বসার স্থান, ১৪টি টিকিট কাউন্টার, ড্রাইভার-কন্ডাক্টরদের বিশ্রামাগার, ডে কেয়ার সেন্টার, শিশুদের খেলার ঘর, নারী-পুরুষের আলাদা নামাজ ঘর, এটিএম বুথ, পাবলিক টয়লেট, ভিআইপি লাউঞ্জ, অত্যাধুনিক মানসম্মত খাবার হোটেল, সাতটি দোকান, অত্যাধুনিক ট্রাফিক কন্ট্রোল রুম, টেকনিক্যাল বিভাগ, প্রশাসনিক বিভাগ, অত্যাধুনিক সভাকক্ষসহ নানা সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে উত্তরবঙ্গসহ দেশের প্রায় সব জেলাতে গাড়ি চলাচলা করে থাকে। সেইসঙ্গে টার্মিনালটি উত্তরাঞ্চলের মধ্যে বৃহৎ বাস টার্মিনাল হিসেবেও পরিচিত। ১৯৮১ সালে রংপুর পৌরসভার তত্ত্বাবধানে এটি নির্মিত হয়। এতে অর্থায়ন করেছিল রাজশাহী বিভাগ উন্নয়ন কমিটি। এরপর ২০১৭ সাল পর্যন্ত এর কোনো উন্নয়ন হয়নি। জরাজীর্ণ ভবন, জলাবদ্ধতা ও নানা সমস্যায় জর্জরিত ছিল এটি। এখানে যাত্রীদের ভোগান্তি ছিল চরমে।



আরও খবর



সরকার ও মিল মালিক একে অপরের পরিপূরক

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

সরকার ও মিল মালিক একে অপরের পরিপূরক, প্রতিপক্ষ নয় বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।  বাংলাদেশ অটো মেজর এ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মিল মালিকেরা কখন, কোথায় এবং কতটুকু চাল বিক্রি করেন তারা ছাড়া কেউ জানে না। খুচরা বিক্রেতারা চালের দাম বাড়িয়ে সরাসরি মিল মালিকদের উপরে দায় চাপিয়ে পার পেয়ে যায়। খুচরা বিক্রেতাদের অভিযোগ খন্ডন না করে আপনারা (মিল মালিক) চুপ করে থাকেন, কোন প্রতিবাদ করেন না। এর ফলে সবার মধ্যে ধারনা কাজ করে যে মিল মালিকরা দাম বাড়াচ্ছে।

সমাজ কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের বাজারে মিনিকেট নামে চাল নেই। অনেকে বলেন মিলাররা চাল কেটে সরু করেন। এটা সত্য নয়। চাল সরু করতে গেলে ভেঙ্গে যায়। তবে বিভিন্ন মেশিনের মাধ্যমে পোলিশ করে চকচকে করা হয়। এ সময় তিনি ধান চালের দাম নির্ধারণে মিলারদের প্রতিনিধি রাখার অনুরোধ জানান।

খাদ্য সচিব ইসমাইল হোসেন বলেন, মিলারদের প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভোক্তাদের কাছে জানিয়ে দিতে হবে যে, মিলগেটে আজ কত টাকা দামে চাল বিক্রয় হলো। তাহলে খুচরা বিক্রেতা যে দাম বাড়ানোর জন্য মিলারদের দোষ দেয়, সেটা থেকে মিলাররা মুক্তি পাবে।


আরও খবর



শতাধিক নদী সংস্কার করবে পাউবো

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

নদীর স্রোতধারা ফিরিয়ে আনতে দেশের মৃত শতাধিক নদী সংস্কারের কথা ভাবছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। পার্বত্য তিন জেলা বাদে জেলাওয়ারি দুটি নদী চিহ্নিত করে এ সংস্কার কর্মযজ্ঞ চালাবে সংস্থাটি। 

এরই মধ্যে বিশাল এই কর্মযজ্ঞ সফল করতে জেলা পর্যায়ে পাউবোর প্রকৌশলীর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সম্পৃক্ত করা হয়েছে। নদী পাড়ের স্টেকহোল্ডারদের অংশীজন হিসেবে মতামত নেওয়ার প্রস্তাব রাখা হয়েছে। 

জানতে চাইলে পাউবোর একজন অতিরিক্ত সচিব নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, জেলায় দুটি করে নদী সংস্কারের নিমিত্তে একটি প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। এই প্রকল্পের প্রধান অংশীজন হওয়া দরকার কৃষক। তাদের মতামত নিয়ে কীভাবে নদী সংস্কার করা হলে সরকারের অর্থের যথার্থ ব্যবহার হবে তা নিশ্চিত করা। কিন্তু যাদের সম্পৃক্ততা নেই, এমন ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্ত করে মতামত নেওয়া হয়। ফলে মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যয় করে নদী সংস্কার করা হলেও প্রকৃত উপকারভোগীরা সুবিধা পান না। তাই এ ধরনের প্রকল্প নেওয়ার আগে সব দিক বিবেচনা করাই শ্রেয়। তবে প্রকল্প প্রেজেন্টেশনের দিন বোঝা যাবে কীভাবে করা হবে নদীর সংস্কার কাজ।

নদীমাতৃক বাংলাদেশে নদীর সংখ্যা নিয়ে নানা মত রয়েছে। শিশু একাডেমির শিশু বিশ্বকোষের তথ্যনুযায়ী, বাংলাদেশে নদীর সংখ্যা বলা হয়েছে ৭০০-এর অধিক। অশোক বিশ্বাস নদীকোষ গ্রন্থে একই সংখ্যা উল্লেখ করেছেন। তবে, মোকারম হোসেন বাংলাদেশের নদী গ্রন্থে দেশে নদ-নদীর সংখ্যা ১০০০-এর কথা বলা হলেও সৈয়দ শামসুল হক তার কবিতায় এ সংখ্যা ১৩০০টি উল্লেখ করেন। 

তবে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের সর্বশেষ তথ্যনুযায়ী বাংলাদেশের নদীর সংখ্যা ৪০৫টি। একই মত দিয়েছেন নদী গবেষক মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক। নদী কর্তৃপক্ষ পাউবোর তথ্যমতে, ৪০৫টি নদীর মধ্যে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের নদীর সংখ্যা ১০২টি, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ১১৫টি, উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ৮৭টি, উত্তর-কেন্দ্রীয় অঞ্চলে ৬১টি, পূর্ব-পাহাড়ি অঞ্চলের নদী ১৬টি এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের নদীর সংখ্যা ২৪টি।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ঢাকা জেলায় ১৫টি নদী রয়েছে। রাজধানীর আশপাশের গত ৫০ বছরে পাঁচটি নদী হারিয়ে গেছে। বেড়িবাঁধের মাধ্যমে নদীর প্রবাহ নষ্ট করা হয়েছে। এরপর আবার বেড়িবাঁধের দুপাশই দখল করা হয়েছে। ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর অনেক শাখা নদী ছিল, সেগুলো দখল হয়ে গেছে। আর হারিয়ে যাওয়া নদী চেষ্টা করলেও পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে পারে না সরকার।

সারা দেশের নদ-নদীর পূর্বের-বর্তমান অবস্থা বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রাজধানীর নিকটবর্তী জেলা মানিকগঞ্জে নদীর সংখ্যা ১৬টি আর খাল ১১৭টি; দখলদারের সংখ্যা ১ হাজার ৩৯৯ জন। ফরিদপুর জেলায় ১৩টি নদী ও ১৫টি খাল রয়েছে; দখলদারের সংখ্যা ১ হাজার ৮৩৪ জন। টাঙ্গাইল জেলায় নদী দখলদারের সংখ্যা ১ হাজার ৭৮৮ জন। নদী কমিশনের প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৪ জেলায় মোট ৫৭ হাজার ৩৯০ জন নদী দখলদারের ১৮ হাজার ৫৭৯টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। তবে পর্যাপ্ত অর্থায়ন ও সক্ষমতা না থাকার কারণে জেলা প্রশাসন পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রত্যাশিত উচ্ছেদ অভিযান চালাতে পারছে না।

তবে মৃত প্রায় নদীগুলোকে স্বরূপে ফেরাতে ফের সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এতে ৬১ জেলার শতাধিক নদীকে সংস্কার করা হবে। 


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২