Logo
শিরোনাম

অনুমোদনহীন মেডিকেল কলেজের অনুমোদন বাতিল

প্রকাশিত:Sunday ০৪ December ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে কেয়ার মেডিকেল কলেজের সব ধরনের অনুমোদন বাতিল করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

 স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মাহবুবা বিলকিস সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। মেডিকেল কলেজটি মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডে অবস্থিত।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কলেজে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীদের আবেদন, কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ও অধ্যক্ষের বক্তব্য এবং স্থগিত করা কেয়ার মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক কলেজ পরিচালনায় তাদের অপারগতা স্বীকার করায় বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজ আইন, ২০২২ এর ধারা-২৪ অনুসারে বেসরকারি কেয়ার মেডিকেল কলেজের অনুমোদন বাতিল করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এদিকে অন্য কলেজে স্থানান্তরের দাবিতে গেলো দুই সপ্তাহ ধরে অনুমোদনহীন আশুলিয়া নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজ তালাবন্ধ করে রেখেছে ৫৯ জন এমবিবিএস শিক্ষার্থী। শর্ত পূরণে ব্যর্থ এই মেডিক্যাল কলেজের অনুমোদন বাতিল করেছে বিএমডিসি ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু উচ্চ আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকার সুযোগে চলছে কলেজটি ।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




চৌদ্দগ্রামে ধানক্ষেত থেকে অটোচালকের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

‌কু‌মিল্লা ব্যুরো :

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ধান‌ক্ষেত থে‌কে রাশেদ নামের এক অটোরিক্সা চালকের মরদেহ  উদ্ধার করেছে পু‌লিশ। রা‌শেদ মিয়া চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সীরহাট ইউনিয়নের বাসন্ডা গ্রামের মশিউর রহমানের ছেলে। তার বয়স ১৪-১৫বছর। সন্ধায় এ বিষ‌য়ে নিশ্চিত করে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শুভরঞ্জন চাকমা জানান .বৃহস্পতিবার বিকাল  ৪টার দি‌কে স্থানীয়রা সংবাদ দেয় উজিরপুর ইউনিয়নের শামুকসার নামক স্থানে একটি ধানক্ষেতে অজ্ঞাতনামা একটি মরদেহ দেখতে পে‌য়ে‌ছে।পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহটি সুরতহাল তৈরি করে থানায় নিয়ে আসে।

মরদেহটির পেটে একটি গভীর ক্ষত রয়েছে। ধানক্ষেতের পাশেই রয়েছিল তার চালিত অটোরিক্সাটি। পরে জানা গে‌ছে উদ্ধাকৃত মর‌দে‌হের গ্রামের বাড়ি উপজেলার মুন্সীরহাট ইউনিয়নের বাসন্ডা গ্রামে।

ও‌সি ব‌লেন, রাশেদ  বুধবার সকালে প্রতিদিনের মতো অটোরিক্সা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। কিন্তু ওই দিন রাত হলেও আর বাড়ি ফিরেননি।

 রাশেদের বাবা মশিউর রহমান বলেন, রাশেদ প্রতিদিনের মতো গত বুধবার অটোরিক্সা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। রাতে বাড়িতে না ফেরায় আমরা সম্ভাব্য সকল স্থানে খুঁজেও তাকে পাই নাই। আজকে একটি লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে থানায় এসে দেখি এটি আমার ছেলে রাশেদের লাশ। তাকে কে বা কাহারা হত্যা করেছে আমি কিছুই বলতে পারছিনা।এ ব‌্যাপা‌রে চৌদ্দগ্রাম থানায় এক‌টি মামলা প্রক্রিয়ার্ধীন র‌য়ে‌ছে।


আরও খবর



সাত মাসে সর্বনিম্ন পর্যায়ে ডলারের দাম

প্রকাশিত:Saturday ২১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে অন্যান্য মুদ্রার বিপরীতে যুক্তরাষ্ট্রের ডলারের দাম ব্যাপক কমেছে। গত ৭ মাসের মধ্যে যা সর্বনিম্ন। 

গত ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে ভোক্তা মূল্য সূচক (সিপিআই) হ্রাস পেয়েছে। এ নিয়ে বিগত আড়াই বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো তা কমলো। ফলে সুদের হার কমানোর পূর্বাভাস দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ (ফেড)। তাতে মার্কিন মুদ্রার দরপতন ঘটেছে।

সোমবার (১৬ জানুয়ারি) ডলার সূচক শূন্য দশমিক ৪৬ শতাংশ নিম্নমুখী হয়েছে। বর্তমানে সেটা ১০১ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এতে প্রায় প্রতিটি বৈশ্বিক মুদ্রার মান বেড়েছে।

এদিন সবচেয়ে বেশি লাভের মুখ দেখেছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রধান মুদ্রা ইউরো। প্রতি ইউরোর দর স্থির হয়েছে ১ দশমিক ০৮৭২৫ ডলারে। গত ৯ মাসের মুদ্রা যা সবচেয়ে বেশি।

প্রধান আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিরুদ্ধে বেশ শক্তিশালী হয়েছে জাপানের মুদ্রা ইয়েন। ডলারপ্রতি দর নিষ্পত্তি হয়েছে ১২৭ দশমিক ৩৮ ইয়েনে। গত ৭ মাসের মধ্যে তা সর্বাধিক।

ব্রিটিশ মুদ্রা পাউন্ড স্টার্লিংয়ের মূল্যমান বৃদ্ধি পেয়েছে শূন্য দশমিক ৪৫ শতাংশ। প্রতি স্টার্লিং বিক্রি হয়েছে ১ দশমিক ২২৮৮ ডলারে। গত এক মাসের মধ্যে যা সর্বোচ্চ। এছাড়া নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলীয় ডলারের দামও ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে।

২০২২ সালে গত ৪০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যস্ফীতি চড়া হয়। এতে মার্কিন অর্থনীতি ধীর হয়। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সেই জায়গা থেকে তা ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। এতে কঠোর মুদ্রানীতি থেকে সরে আসছে ফেড।

ওসিবিসির বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামী মাসগুলোতে সিপিআই আরও কমতে পারে। সবশেষ ভোক্তা মূল্য সূচক তথ্য সেই আশা জাগাচ্ছে।

গত বছর মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে দফায় দফায় সুদের হার বাড়ায় ফেড। ৪বার ৭৫ এবং ১বার ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ায় তারা। এতে গ্রিনব্যাকের দর বাড়ে ৮ শতাংশ।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




বিশ্ব ইজতেমা শুরু

প্রকাশিত:Friday ১৩ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে ৫৬তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। শুক্রবার বাদ ফজর উর্দুতে পাকিস্তানের মাওলানা জিয়াউল হকের আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ইজতেমার প্রথম পর্ব। এ বয়ান বাংলাসহ কয়েকটি ভাষায় অনুবাদ করে শুনানো হয়।

শুক্রবার জুমাবার হওয়ায় ইজতেমা ময়দানে একসাথে লাখো মুসল্লি জুমার নামাজ আদায় করবেন।বৃহত্তর এ জুমায় শরিক হতে গাজীপুর, ঢাকাসহ আশপাশের জেলা থেকে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ইজতেমা ময়দানের দিকে আসতে শুরু করেছেন। বেলা দেড়টার দিকে জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে ইমামতি করবেন মাওলানা জুবায়ের আহমদ। এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরের মধ্যেই মুসল্লিদের পদচারণায় পূর্ণ হয়ে যায় ইজতেমা মাঠ। ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




স্কুলকে মোবাইল অ্যাপে নিয়ে আসলেন ব্রাহ্মণপাড়ার ইউএনও

প্রকাশিত:Sunday ২৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো :

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য শিখন ব্যবস্থাপনা অ্যাপ তৈরি করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে উপজেলা প্রশাসন।       নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সোহেল রানার উদ্ভাবিত মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে উপজেলা ও জেলার বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাদের শিখন ব্যবস্থাপনায় এনেছে অভাবনীয় পরিবর্তন। রুটিন থেকে শুরু করে লেসন প্ল্যান, শিক্ষা সহায়ক ডিজিটাল উপকরণসহ শিখন কার্যক্রমের পুরোটা এখন চলছে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে। নতুন বছরের শুরুতে অ্যাপ ভিত্তিক শিখন শেখানো কার্যক্রম হাতের মুঠোয় পেয়ে চরম খুশি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নেও এ অ্যাপ হতে পারে দারুণ সহায়ক।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে শিখন কার্যক্রমকে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসা হয়। তবে, বাংলাদেশের স্কুল কলেজের জন্য এক নতুন ধরণের লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম উদ্ভাবন করলেন কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার ইউএনও সোহেল রানা। ‘শিক্ষায়তন’ নামের এই লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম একটি স্যাস ( সফটওয়ার এজ এ সার্ভিস) মডেল অনুসারে তৈরী করা ই-সার্ভিস এপ্লিকেশন যাতে দুইটি ওয়েব বেজড প্ল্যাটফর্ম ও একটি মোবাইল এ্যাপ। পুরো সিস্টেমটির স্পেসিফিকেশন ডিজাইন করেছেন ইউএনও সোহেল রানা। এই ডিজাইনটিকে বাস্তবায়ন করতে জেলা প্রশাসন, কুমিল্লা পরবর্তীতে বিজনেস একসিলারেট বিডি নামে একটি টেকনোলজি পার্টনার নিযুক্ত করে যারা সফলভাবে এই লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ডেভেলাপ করে। সফল পাইলটিং শেষে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্তমানে কুমিল্লার ৫টি স্কুলে বাস্তবায়নাধীন আছে সফটওয়ারটি। স্কুল ৫টি হলো কুমিল্লার কালেক্টরেট স্কুল, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলাধীন শিদলাই আশরাফ স্কুল, ভগবান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ওশান হাই স্কুল এবং সদর দক্ষিণ উপজেলার শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজ। 

মূলত এই প্ল্যাটফর্মে স্কুলের সকল কার্যক্রম প্রধান শিক্ষক ওয়েব প্ল্যাটফর্মে, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা মোবাইল অ্যাপে করতে পারবেন। শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি কোর্সে আলাদা আলাদাভাবে সাজানো আছে। কোর্সের ভেতরে সেই কোর্সে সকল ক্লাসের আলাদা ডাইনামিক সেকশন আছে যেখানে শিক্ষকেরা অতিরিক্ত লার্নিং ম্যাটেরিয়াল জমা করতে পারবেন এবং শিক্ষার্থীরা তা দেখতে পাবেন। শিক্ষকেরা  অ্যাপে লেকচার নোট আপলোড করতে পারবেন, শিক্ষার্থীদের গ্রুপে ভাগ করতে পারবেন, ক্লাসে নোটিফিকেশন পাঠাতে পারবেন, এসাইনমেন্ট দিতে পারবেন ও জমা নিতে পারবেন, গ্রেড বসাতে পারবেন। ক্লাসে বসে সফটওয়্যার ব্যবহার করে শিক্ষকেরা হাজিরা নিতে পারবেন। অর্থাৎ স্কুলের সকল কার্যক্রম মোবাইল অ্যাপে করতে পারবেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও, প্রত্যেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের রয়েছে নিজস্ব ওয়েব পেইজ। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে  ইউএনও সোহেল রানা বলেন, ‘ লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের ধারণাটি বেশ পুরনো। স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ক্যানভাস, মুডল, স্কুলজি, ব্ল্যাকবোর্ড ইত্যাদি নানা ধরণের লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার আছে। এগুলো স্কুল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার থেকে কিছুটা ভিন্ন ধাচের। তবে, নানা ধরণের সফটওয়্যার এর ডিজাইন বিশ্লেষণ করে, শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনান্তে স্থানীয় চাহিদা নআমরা কুমিল্লার সকল স্কুলে এটি বাস্তবায়ন করতে চাই ও পরবর্তীতে সরকার বড় পরিসরে পুরো বাংলাদেশে এটি ছড়িয়ে দিতে পারে। শিক্ষার মানোন্নয়নে ও সরকারের স্মার্ট বাংলাদেশের রূপকল্প বাস্তবায়নেও এটি সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে। তবে, এটি বাস্তবায়নের অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ আছে যেগুলো মোকাবিলা করে সামনে এগুতে হবে।’ 

কু‌মিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক  ও বর্তমানে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব জনাব মোহাম্মদ কামরুল হাসান জানান,“ আমি জেলা প্রশাসনে যোগ দেওয়ার পর থেকেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন স্মার্ট বাংলাদেশ বাস্তবায়নে ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কাজ করে আসছি। কাজ করতে গিয়ে শিক্ষা ব্যবস্থাপনাকে যুগোপযোগি করে তোলার কথা মাথায় আসে। ব্রাহ্মণপাড়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা শিক্ষাক্ষেত্রে লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আধুনিকায়নের কথা বললে আমরা সেই অভাব পূরণের লক্ষ্যে লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম তৈরী করার উদ্যোগ গ্রহণ করি এবং পরবর্তীতে তা প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দেই। সেখান থেকেই মূলত শিক্ষায়তনের যাত্রা শুরু।”

শিক্ষায়তনের টেকনিক্যাল বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছেন বিজনেস একসিলারেটের সিইও কামরুল হাসান সুমন। তিনি বলেন এ ধরণের সফটওয়্যারের ব্যবহার দেশে নেই। “ দেশে প্রচলিত সফটওয়্যারগুলোতে  ক্লাসরুমে কি পড়ানো হচ্ছে সে বিষয়টি সংযোগ করার অপশন কম। শিক্ষায়তনের মাধ্যমে অভিভাবক, শিক্ষার্থীরা জানতে পারবেন তার বাচ্চারা কি পড়ছে। যেগুলো আছে (যেমন টেন মিনিট স্কুল) তাদের অধিকাংশ কনটেন্ট নির্ভর সেবা দেয়। আমাদের এই সফটওয়্যার কনটেন্ট নির্ভর নেই। জেলা প্রশাসনের মতো প্রতিষ্ঠান থেকে এরকম সফটওয়্যার এর ডিজাইন অভাবনীয়। আমরা এই উদ্যোগের অংশীদার হতে পেরে গর্বিত এবং ভবিষ্যতে এটিকে সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে ইচ্ছুক।” 

ভগবান সরকারি স্কুলে শিক্ষায়তন বাস্তবায়ন করছেন বিজ্ঞান শিক্ষক মহিউদ্দিন পলাশ। তিনি  জানান শিক্ষায়তন এমন একটি সফটওয়্যার যেখানে এক কথায় শ্রেণি কার্যক্রমের সবকিছু রয়েছে। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা মোবাইলের মাধ্যমে উন্নত মানের শিক্ষা সেবা গ্রহণ করতে পারবে। অ্যাপের  মাধ্যমে শিক্ষকদের কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে। বিশেষ করে তদের টিচিং প্ল্যান সাজানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।    

বর্তমানে www.sikkhayton.gov.bd   ইউআরএলের মাধ্যমে প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করা যাবে ও গুগল প্লে স্টোরে এপের নাম ‘শিক্ষায়তন’ অথবা ‘sikkhayton’ নামে এন্ড্রয়েড অ্যাপটি পাওয়া যাবে। শিক্ষায়তন নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে চাইলে আগ্রহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জেলা প্রশাসন, কুমিল্লা অথবা উপজেলা প্রশাসন, ব্রাহ্মণপাড়ার সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।


আরও খবর



জামালপুরের বকশীগঞ্জে শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

জামালপুর প্রতিনিধি :

জামালপুরের বকশীগঞ্জে নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার (পিরামিড বিএসসি) অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন-বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থী অভিভাবকরা। মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয় মাঠে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন তারা। মানববন্ধনে সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়াকে চরিত্রহীন, দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে তার শাস্তি ও অপসারনের দাবি জানানো হয়। শিক্ষার্থী অভিভাবকদের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অভিভাবক সালেহ আহম্মেদ ময়না,কালু মিয়া,খাদর আলী,হাবিবুর রহমান ও ইউসুফ আলী সরকার প্রমূখ। 

মানববন্ধনে বক্তব্য কালে শিক্ষার্থী অভিভাবক হাবিবুর রহমান বলেন,নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার বিরুদ্ধে সীমাহীন অভিযোগ রয়েছে। স্ত্রী সন্তান থাকার পরেও সনাতন ধর্মাবলম্বী এক ছাত্রীকে বাগিয়ে বিয়ে করেছিলেন তিনি। নারী নির্যাতন মামলায় দুইবার জেলও খেটেছেন। শিক্ষার্থী অভিভাবকদের সাথে সব সময় অশালীন আচরন করেন এই শিক্ষক। তার কাছে প্রাইভেট না পড়লে পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে। আমরা এই দুর্নীতিবাজ শিক্ষকের অপসারণ চাই। 

অভিভাবক খাদর আলী বলেন, বিদ্যালয়ের সামনেই পিরামিড মিয়ার বাড়ি। যে কারনে সে সব সময় প্রভাব খাটিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে অসদাচরণ করেন। বিদ্যালয়ের পাশেই তার নিজের একটি লাইব্রেরী রয়েছে। তার লাইব্রেরী থেকে শিক্ষার্থীরা যদি খাতা কলম না কিনে তাহলে ক্লাসে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে অসাদাচরন করেন তিনি। এর আগেও একাধিকবার তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। এছাড়া তার অপসারণের জন্য বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক কর্মচারী সভাপতি বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলেও জানান তিনি। 

স্থানীয় বাসিন্দা ইউসুফ আলী সরকার বলেন, পিরামিড বিএসসির কাছে প্রাইভেট না পড়লে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার খাতায় নম্বর কম দেওয়া এমনকি ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। তার দোকান থেকে বেশি দামে শিক্ষার্থীদের খাতা কলম কিনতে বাধ্য করা হয়। এছাড়া এই শিক্ষক সকলের সাথে খারাপ আচরণ করেন। তাই এলাকাবাসীর দাবি এই দুর্নীতিবাজ শিক্ষকের অপসারণ। 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়া বলেন,আমার একটি দোকান রয়েছে সেটিতে আমি অবসর সময়ে বসি। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয়। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। 

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ সুজা উদ্দিন বলেন, সহকারী শিক্ষক পিরামিড মিয়ার বিরুদ্ধে মানবন্ধনের বিষয়টি বিদ্যালয়ের সভাপতির মাধ্যমে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে নিলাক্ষিয়া আর.জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তার বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। দ্রুত সময়ের মধ্যে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভা আহবান করা হবে। সভায় সকলের সিদ্ধান্তমতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর