Logo
শিরোনাম

পরকিয়া সন্দেহে স্ত্রীকে অমানবিক নির্যাতন, স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:Thursday ০১ December ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 


নওগাঁর মান্দার ছোট-মুল্লুক আদর্শ গ্রামের নুরজাহান বেগম (২৭) নামের এক গৃহবধূকে বুধবার সকালে মাথার চুল কেটে দিয়ে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগে ঐ গৃহবধূর স্বামী আবদুল কুদ্দুসকে (৩২) কে গ্রেফতার করেছে মান্দা থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আবদুল কুদ্দুস ছোট-মুল্লুক গ্রামের মৃত বাবর আলীর ছেলে ও তার স্ত্রীর নুরজাহান বেগম নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার রামগাঁ গ্রামের জহির উদ্দিনের মেয়ে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, স্বামী আবদুল কুদ্দস রাজধানী ঢাকা শহরে থেকে রিকসা চালিয়ে উপার্জন করেন। গত ২৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি আসেন এবং ঐ রাতেই স্ত্রী'র পরক্রিয়া সম্পর্ক রয়েছে এমন সন্দেহ করে 'ভিত্তিহীন' অভিযোগ তুলে স্ত্রীকে বেদম মারধর করা হয়। একই অভিযোগে পরদিন রাতে দ্বিতীয় দফায় স্ত্রীকে মারধর করেন তার স্বামী আবদুল কুদ্দুস। এ সময় কাঁচি দিয়ে তার মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বলেন, বুধবার সকালে আবারও মারধর করে তার গলায় ছুরি ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করলে এ সময় মেয়ে কারিমা খাতুন বাবার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করেন। এমন সুযোগে বাড়ি থেকে পালিয়ে জয়বাংলা মোড়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) বিষ্ণুপদ সাহার দোকান ঘরে আশ্রয় নিয়ে জীবন রক্ষা করেন।

কালিকাপুর ইউনিয়ন পরিষদ এর সদস্য বিষ্ণুপদ সাহা বলেন, ঘটনার বিষয়ে অবহিত হয়ে গ্রাম পুলিশের সহায়তায় আবদুল কুদ্দুসকে আটক করে ভিকটিম সহ তাকে ইউনিয়ন পরিষদে নেওয়া হয়। পরে পুলিশ এসে আবদুল কুদ্দুসকে থানায় নিয়ে যায়।

মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, এঘটনায় ভিকটিম গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বাদী হয়ে স্বামী আবদুল কুদ্দুস এর বিরুদ্ধে মামলা করলে কুদ্দুসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


আরও খবর



ত্বক উজ্জ্বল করার ঘরোয়া উপায়

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

উজ্জ্বল ও নরম ত্বকের জন্য ঘরে তৈরি ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন নিয়মিত। প্রাকৃতিক উপাদানের তৈরি প্যাক ব্যবহারের নেই কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। এছাড়া নির্দিষ্ট কিছু যত্ন সম্পর্কেও থাকতে হবে সচেতন। জেনে নিন উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কোন কোন প্যাক ব্যবহার করবেন।

১। টমেটো থেঁতো করে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মেশান। ১ চা চামচ টক দই মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে ত্বকে লাগান। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

২। সমপরিমাণ বেসন ও হলুদের গুঁড়ার সঙ্গে প্রয়োজন মতো টক দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট ত্বকে লাগিয়ে রাখুন না শুকানো পর্যন্ত।

৩। আধা কাপ পাকা পেঁপে চটকে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

৪। ১ টেবিল চামচ বেসনের সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া ও পরিমাণ মতো দুধ মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন। প্যাকটি ত্বকে ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৫। ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল, আধা চা চামচ লেবুর রস ও ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৬। মুলতানি মাটির সঙ্গে পরিমাণ মতো টমেটোর রস মিশিয়ে বানিয়ে ফেলুন প্যাক। এটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন না শুকানো পর্যন্ত।

ঘরোয়া যত্নে যেভাবে পাবেন উজ্জ্বল ত্বক

ত্বক পরিষ্কার করুন মাইল্ড ক্লিনজার দিয়ে।

ম্যাসাজ ক্রিমের সাহায্যে ত্বক ম্যাসাজ করুন নিয়মিত।

ত্বক ধোয়ার পর মুছে ভেজা ভাব থাকতে থাকতেই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

ত্বক ভালো রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করবেন ও সবুজ শাকসবজি রাখবেন খাদ্য তালিকায়।


আরও খবর



ঊনসত্তরের শহিদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

অধ্যাপক আ ব ম ফারুক :

আজ ছিল শহিদ আসাদ দিবস। ১৯৬৯ সালের এই দিনে অর্থাৎ ২০শে জানুয়ারি পাকিস্তানের কুখ্যাত স্বৈরাচার আইয়ুব খানের কুশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত ছাত্র-গণমিছিলে পুলিশের গুলিবর্ষণে আসাদ (পুরো নাম আমানউল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান) শহিদ হন। তিনি ছিলেন ঊনসত্তরের তীব্র গণ-আন্দোলনে পথিকৃত শহিদ। এই আন্দোলনে অগণিত শহিদদের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত অন্য দুজন হলেন শহিদ রুস্তম ও শহিদ মতিউর। 

১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর ঐতিহাসিক ৬-দফা দাবিনামা পেশের পর থেকে বাঙালি এর স্বপক্ষে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলে। এই আন্দোলনে ৬-দফাকে সমর্থন করে তার সাথে গণমুখী শিক্ষার দাবি একত্রিত করে দেওয়া ছাত্রদের ১১-দফা দাবি পেশ এই আন্দোলনকে সুতীব্র করে। এই আন্দোলন-হরতালের সাথে আইয়ুব খানের ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা’ দায়ের ও কথিত এই মামলায় ‘প্রধান আসামী’ শেখ মুজিবসহ (তিনি তখনও ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি লাভ করেননি) মোট ৩৫ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ৬-দফা ও ১১-দফার সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে ১৯৬৯ সালের ৪ঠা জানুয়ারি। দেশের সর্বত্র এই প্রতিবাদ-আন্দোলন আরো বেগবান হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভা থেকে ছাত্র-নেতৃবৃন্দ কর্তৃক ১৭ই জানুয়ারি দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ডাকে । এর বিরুদ্ধে তখনকার পূর্ব পাকিস্তানের কুখ্যাত গভর্নর মোনায়েম খান দেশব্যাপী ১৪৪ ধারা জারি করে। কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ২০শে জানুয়ারি দুপুরে এক ছাত্র-গণমিছিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের পাশে চাঁন খাঁর পুলে সমবেত হলে পুলিশের গুলিতে আসাদ শহীদ হন। এর প্রতিবাদে লাখো ছাত্র-জনতা কান্না ও ক্ষোভে  পুনরায় আসাদের রক্তমাখা শার্ট পতাকার মতো নিয়ে সমবেত হয়ে মিছিল নিয়ে শহিদ মিনারে আসে। সেখানে ছাত্র নেতৃবৃন্দ ২২, ২৩ ও ২৪শে জানুয়ারি শহিদ আসাদের স্মরণে সারা দেশে ধর্মঘট ও গণ-বিক্ষোভের ডাক দেয় এবং দেশবাসী তা শ্রদ্ধার সাথে পালন করে। এর শেষ দিনে অর্থাৎ ২৪শে জানুয়ারি পুলিশ আবার ক্ষোভে উত্তাল ছাত্র-জনতার উপর গুলিবর্ষণ করে এবং ঢাকার মালিবাগ মোড়ে মতিউর রহমান শহিদ হন। 

ঊনসত্তরে সারা দেশব্যাপী এই গণ-আন্দোলনের ফলস্বরূপ বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন আরো বেগবান হয়, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা তুলে নিতে সরকার বাধ্য হয়, বাংলার অবিসংবাদিত জননেতা শেখ মুজিব ষড়যন্ত্রমূলক মৃত্যুর হাত থেকে ফিরে আসেন এবং স্বৈরাচারী আইয়ুব সরকারের পতন হয়।

শহিদ আসাদ, শহিদ মতিউর ও ঊনসত্তরের আরো অগণিত নাম না জানা শহিদদের আত্মদান দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের জন্য প্রবল শোক ও সেই সাথে প্রবল অনুপ্রেরণার উৎস। এই ঐতিহাসিক গণ-আন্দোলন পাকিস্তানের অমানবিক শোষণের প্রতি বাঙালির তীব্র ঘৃণা ও প্রতিবাদের প্রতীক এবং অধিকার আদায়ের আন্দোলনের প্রেরণা হয়ে বেঁচে থাকবে।

আসাদের আত্মদানের খবরে সমগ্র দেশ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিক্ষুব্ধ জনতা সর্বত্র আইয়ুবের ছবি অপসারণ করে, ঢাকার আইয়ুব গেটের নামফলক ভেঙ্গে নতুন নামকরণ করে ‘আসাদ গেট’, আইয়ুব রোডের নাম রাখে ‘আসাদ রোড’ এবং আইয়ুব পার্কের নাম রাখে ‘আসাদ পার্ক’।

এই গণ-আন্দোলন ও আত্মত্যাগের স্মরণে আমাদের কবি-সাহিত্যিকরাও অনেক প্রবন্ধ-কবিতা-গল্প লিখেছেন। কয়েকটি বিখ্যাত কবিতা হলো কবি শামসুর রাহমানের ‘আসাদের শার্ট’, কবি হেলাল হাফিজের ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয়’ এবং তখনকার পাকিস্তানি সৈন্য আর পুলিশ বোঝাই  অসংখ্য ট্রাক নিয়ে কবি আল মাহমুদের নিম্নরূপ কবিতাটি -

‘ট্রাক ট্রাক ট্রাক

শুয়োরমুখো ট্রাক আসছে 

দুয়োর বেঁধে রাখ।

বাঁধবো কেন দুয়ার ওগো

তুলবো কেন খিল।

আসাদ গেছে মিছিল নিয়ে

আসবে সে মিছিল।

ট্রাক ট্রাক ট্রাক 

ট্রাকের বুকে আগুন দিতে

মতিউরকে ডাক।

কোথায় পাবো মতিউরকে

ঘুমিয়ে আছে সে।

তোরাই তবে সোনা মাণিক

আগুন জ্বেলে দে।’

বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে শহিদ আসাদ ও শহিদ মতিউরসহ ঊনসত্তরের সব বীর শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।

জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

লেখক ঃ

সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু পরিষদ


আরও খবর



নেপালে শক্তিশালী ভূমিকম্প

প্রকাশিত:Wednesday ২৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো নেপাল। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৪৩ মিনিটে দেশটিতে আঘাত হানে এ ভূকম্পন। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পটির এর মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৯ ।

স্থানীয় সূত্রগুলো জানিয়েছে, ভূমিকম্পের রেশ ছিল প্রায় ২৫ সেকেন্ড। আতঙ্কিত মানুষজন বাড়ি-ঘর ও অফিস ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসে। তবে এখন পর্যন্ত এতে কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল ছিল জুমলা শহর থেকে ৬২ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে এবং ভূপৃষ্ঠ থেকে ২৫ দশমিক ২ কিলোমিটার গভীরে। শক্তিশালী এ ভূমিকম্পের প্রভাব সুদূর দিল্লিতেও অনুভূত হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো। 


আরও খবর



নওগাঁয় স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোরদান বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:Monday ০২ January 2০২3 | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁয় ‘ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সপ্তাহে ২৪ ঘন্টায় সার্বক্ষণিক স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোরদান বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে নওগাঁ সদর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় এর আয়োজন করেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের যুগ্ম সচিব সারোয়ার মোর্শেদ চৌধুরী।

কর্মশালায় জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ ইব্রাহীমের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালক (এমসিএইচ-সার্ভিসেস) ডাঃ মাহমুদুর রহমান, রাজশাহী বিভাগীয় পরিবার পরিকল্পনার কার্যালয়ের পরিচালক দেওয়ান মোর্শেদ কামাল, নওগাঁর ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মুনির আলী আকন্দ, নওগাঁ পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক কস্তুরী আমিনা কুইন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, নির্বাহী অফিসার মির্জা ইমাম উদ্দিন, নওগাঁ পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের সহকারী উপ-পরিচালক ডাঃ কামরুল আহসান টিপু, সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিক ছোটন সহ প্রমুখ। 


আরও খবর



টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু

প্রকাশিত:Tuesday ১০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

১১০ টাকা লিটারে বোতলজাত সয়াবিন তেল, প্র‌তি‌ কে‌জি ৬০ টাকায় চি‌নি ও ৭০ টাকায় ১০ জানুয়ারি থেকে মসুর ডাল বিক্রি করবে সরকারের বিপণন সংস্থা টিসিবি।

মাসজুড়ে দেশব্যাপী এক কোটি ফ্যামিলি কার্ডধারী নিম্নআয়ের পরিবারের কা‌ছে ভর্তুকি মূল্যে এ পণ্য বিক্রি করবে সংস্থাটি।

৯ জানুয়ারি টিসিবির পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নিম্নআয়ের এক কোটি উপকারভোগী পরিবারের মধ্যে ভর্তুকি মূল্যে টিসিবির পণ্য (তেল, চিনি ও ডাল) পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে টিসিবি ঢাকা মহানগরীসহ সারাদেশে জানুয়ারি মাসের বিক্রয় কার্যক্রম ১০ জানুয়ারি থেকে শুরু করবে। এই বিক্রয় কার্যক্রম ডিলারের দোকান বা নির্ধারিত স্থায়ী স্থাপনা থেকে সিটি করপোরেশন, জেলা ও উপজেলায় নির্ধারিত তারিখ ও সময় পরিকল্পনা অনুযায়ী পরিচালনা করা হবে।


আরও খবর