Logo
শিরোনাম

প্রত্যেক মানুষের একটা নিজের পৃথিবী থাকে

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মাজহারুল ইসলাম মাসুম, সিনিয়র সাংবাদিক ও কলাম লেখক ঃ

আপনার মাঝে আমি অচেনারে খুঁজি। অচেনারে খুঁজতে খুঁজতে কোথায় হারিয়ে যাই তা আমি জানি না। তারপরও খুঁজি। এমন করে অনুসন্ধান করতে গিয়ে আমি নিজেকে যেখানটায় আবিষ্কার করি সেটা ভিন্ন একটা পৃথিবী। যে পৃথিবী একান্ত আমার আর কারো নয়। সে পৃথিবীর বাসিন্দা কেবল আমি আর কেউ নয়। সেটা মানুষের পৃথিবীর মতো এতো ছোট নয়। সেটা অনেক গুণ বড়। এতটা বড় যে তার কোনো মানচিত্র থাকে না। তবে সেখানে অসংখ্য কল্পনার শেকড় থাকে। যে শেকড়কে মাটিতে শক্ত করে ধরে রেখে মানুষ একটার পর একটা কল্পনার বৃক্ষ গড়ে তোলে।

   সে কল্পনার শক্তি মানুষের পৃথিবীর যে কোনো শক্তির চেয়ে অনেক বড়। তৃষিত হৃদয়ের কল্পনাশক্তি মানুষের ভিতরে নতুন নতুন চিন্তার জন্ম দেয়। সে চিন্তা গতানুগতিক পৃথিবীর মতো নয়। সে চিন্তা মৌলিক চিন্তার অন্তর্গত। পৃথিবীর মানুষ যা আগে কখনো ভাবতে পারেনি এমন এক একটা নতুন চিন্তা মানুষ তার নিজের পৃথিবীর কল্পনাশক্তির নির্যাস থেকে বের করে আনে। সে এক অভূতপূর্ব বিস্ময়, সে এক অলৌকিক শিহরণ, সে এক আপনা মাঝে শক্তি ধরো নিজেরে করো জয়ের মতো অভিজ্ঞতা। মানুষটা তখন সে পৃথিবীর সৃজনশীল মানুষ হয়। মানুষের পৃথিবী তার মূল্য দিবে কি দিবে না মানুষটা সেটা কখনো ভাবে না। কারণ সে জানে তার পৃথিবী তাকে ত্যাগ করতে শেখায় আর মানুষের পৃথিবী স্বার্থপর হতে শেখায়। স্বার্থপর পৃথিবী মানুষটার নিজের গড়া পৃথিবী থেকে শুধু কেড়ে নিতে জানে, প্রতিদান দিতে জানে না। পৃথিবীর মানুষ তাই হারিয়ে যায়, কিন্তু নিজের অচেনার মাঝে চেনা পৃথিবী গড়া মানুষটা বেঁচে থাকে কাল থেকে কালান্তরে, যুগ থেকে যুগান্তরে, মহাকাল থেকে মহাস্রোতে। মানুষ যদি নিজের পৃথিবী তৈরী করতে পারে তবে সে পৃথিবী মানুষের মনে স্বপ্ন তৈরী করে। 

সে স্বপ্ন মানুষটা নিজের স্বার্থে দেখেনা তার পৃথিবীর বাইরে মানুষের যে পৃথিবী রয়েছে সে পৃথিবীর মুখোশ পরা মানুষগুলোর জন্য দেখে। তাদের জন্য মানুষটা স্বপ্নের ঘুড়ি তার নিজের পৃথিবীর আকাশে উড়ায় যেন সে ঘুড়িটা সুতো ছিঁড়ে গোলকধাঁধার আবর্তে ঘুরতে ঘুরতে মানুষের পৃথিবীতে উড়তে থাকে। আনন্দের বার্তা হাতে নিয়ে, সবার চোখের আয়নায়। তৃতীয় নয়নে। তারপর ঘুড়িটা জীবের আবরণ ছেড়ে জীবন পেয়ে পাখি হয়ে উড়ে বেড়ায় নীল আকাশ থেকে নীল আকাশে। শীতের দেশে, নদীর জলে, প্রকৃতির কোলে। তারপর কোনো এক মহাকাব্যের লেখক তার নিজের পৃথিবী ছেড়ে নেমে আসে মানুষের পৃথিবীতে। স্বপ্ন শুধু একটাই তার, যদি বদলানো যায় মানুষ। যদি বদলানো যায় মানুষের জীবন। যে জীবন সব বস্তুবাদী চিন্তাধারাকে বিসর্জন দিয়ে নিজের পৃথিবী গড়বে। 

প্রত্যেক মানুষের একটা নিজের পৃথিবী থাকে। তবে নিজের মাঝে বাস করা অচেনা পৃথিবীকে কেউ খুঁজে পায়, কেউ পায় না। যারা পায় তারা কখনো কাউকে সেটা জানায় না, বরং সে পৃথিবী তৈরির বোধ তার মধ্যে তৈরী করে। আমি সেই পৃথিবী খুঁজে পেয়েছি কিনা জানি না, তবে সে পৃথিবী যতই অচেনা-অজানা হোক, অন্তর্নিহিত হোক, সে পৃথিবী খোঁজার মহাযজ্ঞে নামুক মানুষ। কারণ সে পৃথিবীর যারা মানুষ হতে পারে তাদের মতো মানুষ আর কেউ হতে পারে না। নিজেকে যারা চিনতে পারে তারাই তো মানুষ আর যারা নিজেদের চিনতে পারে না তাদের মতো অভাগা আর কেউ নেই।


আরও খবর



যাত্রাবাড়ীর মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসায়

শিশু বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষককে গণপিটুনি

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসায় দুই ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে দুই শিক্ষককে আটক করে গণপিটুনি দিয়েছেন অভিভাবকরা। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, এর আগে একাধিকবার এমন ঘটনা ঘটলেও তারা ভয়ে জানাতে পারেনি।

যাদের বিরুদ্ধে বলাৎকারের অভিযোগ তারা হলেন- ওই মাদরাসার আরবি শিক্ষক আবু বকর ও আল আমীন।

২৩ সেপ্টেম্বর এই ঘটনার পর ওই মাদরাসার সাড়ে ৪০০ বেশি শিক্ষার্থীকে বাড়ি নিয়ে গেছে অভিভাবকরা । 

 নির্যাতনের শিকার ওই ছাত্রদের অভিভাবকরা জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে সন্তানদের হাফেজ বানাতে যাত্রাবাড়ীর মারকাজুত তাহফিজ মাদরাসায় ভর্তি করান। কিন্তু আবাসিক এই মাদরাসায় বছরের পর বছর শিক্ষার্থী বলাৎকারের অভিযোগ ছিলো। হাতে নাতে যার প্রমাণ মেলে শুক্রবার। হেফজ শাখার আট ও দশ বছরের দুই শিক্ষার্থী বহুদিন ধরে বলাৎকারের শিকার হয়ে আসছিল। শুক্রবার তারা বাড়ি গিয়ে পরিবারে ঘটনা জানালে অভিভাবকরা এসে দুই  শিক্ষক আবু বকর ও আল আমীনকে গণপিটুনি দেয়।


এদিকে মাদরাসার বাকি শিক্ষক ও কর্মকর্তারাও বলৎকারের অভিযোগ স্বীকার করেছেন। তবে ঠিক কত দিন ধরে এমন ঘটনা ঘটে আসছে সেই তথ্য দিতে রাজি হয়নি।

মাদরাসাটির শিশুরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে ওই শিক্ষকরা বলাৎকার করে আসছিলেন। তারা মাদরাসাটির চতুর্থ ও পঞ্চম তলা নিয়ে শিশুদের বলাৎকার করতেন।

ওই ছাত্র জানায় হুজুর আরও কয়েক ছাত্রকে বলাৎকার করেছেন। বেশ কয়েকটি ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীও সে। তবে ভয় ও লজ্জায় সবাই চুপ থাকে।

মাদরাসা কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষকরা বিষয়টি অর্থের বিনিময়ে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন এবং বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিয়ে দিচ্ছেন।

মাদরাসাটির প্রতিষ্ঠাতা হাফেজ নেসার আহমদ আন নাছিরী একজন ধর্মীয় বক্তা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার লাখ লাখ ফলোয়ার। তিনি নিজেও এই ঘটনায় গণপিটুনীর শিকার হয়েছেন । তার বিরুদ্ধে আট ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ রয়েছে ।


 ২০০৯ সালে চালু হওয়া এই মাদরাসায় এখন নারী-পুরুষ তিন শাখায় এক হাজারের বেশি  আবাসিক শিক্ষার্থী রয়েছে।

জানা গেছে, মাদরাসাটির খরচও ব্যয়বহুল। ভিআইপি হলে প্রতিমাসে খরচ ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। আর সাধারণ হলে ১২ থেকে ১৪ হাজার টাকা। মাদরাসাটির আয় মাসে কয়েক কোটি টাকা ।

তবে ঘটনা জানাজানি হলে অভিভাবকরা বেশিরভাগ শিক্ষার্থীকে বাড়ি নিয়ে গেছে । 

অভিযোগ আছে, স্থানীয় এক মহিলা কাউন্সিলারের ছত্রছায়ায় মাদরাসা মালিক নেছারী এবং   কিছু অসাধু কিছু ব্যক্তির ভয়ভীতির মুখে ভুক্তভোগীরা মামলা করার সাহস পাচ্ছে না।


আরও খবর

এক এনআইডিতে ১৫টির বেশি সিম নয়

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




নারায়ণগঞ্জে নদী দূষণকারি চারটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের

বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ঃ

নারায়ণগঞ্জে নদী দূষণের অভিযোগে চারটি শিল্প প্রািতষ্ঠানের বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমান আদালত। সংস্থাটির জেলা কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ এর নেতৃত্বে বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার বিভিন্ন এলাকায় এই অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে অবস্থিত গোদনাইল এলাকার ইব্রাহীম নীট কম্পোজিট, হাজীগঞ্জ এলাকার ওয়েস্ট নীট ওয়্যার লিমিটেড, সাইলো রোড এলাকার রানস্ এ্যাপারেলস লিমিটেড ও জালকুঁড়ি এলাকার শাকিল নীটেক্স লিমিটেড এর বিরুদ্ধে নদী দূষণের প্রমান পাওয়া গেলে এই চার প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে ভ্রাম্যমান আদালত। পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় পরিচালিত এই অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের জেলা উপ-পরিচালক মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুনসহ বিদ্যুৎ বিভাগ ও তিতাস গ্যাস কার্যালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারা। 

পরিবেশ অধিদপ্তরের জেলা উপ-পরিচালক জানান, এই প্রতিষ্ঠানগুলো পরিবেশ অধিদপ্তরে ছাড়পত্র গ্রহণ না করে অবৈধভাবে কারখানা পরিচালনা করে আসছে। পাশাপাশি তরল বর্জ্য পরিশোধনাগার বা ইটিপি প্লান্ট ছাড়াই উৎপাদন কাজ চালিয়ে আসছে। যে কারণে এই প্রতিষ্ঠানগুলোর তরলে বর্জ্য নদীতে সরাসরি মিশে নদী দূষণ করে আসছে। নদী দূষণ রোধ করতে দূষণকারি সকল শিল্প প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর

ফকিরহাটের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




রাশিয়া সফরে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং আগামী সপ্তাহে রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন। ইস্টার্ন ইকনোমিক ফোরামের সম্মেলনে যোগ দিতে দেশটি সফরে যাচ্ছেন তিনি। মিয়ানমারের গণমাধ্যমগুলো এ খবর নিশ্চিত করেছে।

চীন, ভারত, জাপানসহ বেশকিছু দেশের প্রতিনিধিরাও ইস্টার্ন ইকনোমিক ফোরামের ওই সম্মেলনে অংশ নেবেন। দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে জোরদারে রাশিয়া সফরে দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন মিন অং হ্লাইং। বৈঠকে দুই দেশের অর্থনীতি ও সরকারের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হবে। 


আরও খবর

তেলের দাম কমে ৯ মাসে সর্বনিম্ন

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

মিয়ানমারে জান্তার গোলায় নিহত ২ শিশু

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২




সব রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ দামে সোনা

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

দেশের বাজারে আবারও সোনার দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি। ভালো মানের সোনার দাম ভরিতে এক হাজার ২৮৩ টাকা বাড়ানো হয়েছে। ফ‌লে ২২ ক্যারেটের প্রতি ভ‌রি সোনার দাম দাঁড়াচ্ছে ৮৪ হাজার ৫৬৪ টাকায়, যা ছিল ৮৩ হাজার ২৮১ টাকা।

বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এম এ হান্নান আজাদের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। রবিবার থেকে সোনার এই নতুন দাম কার্যকর করা হবে বলে জানিয়েছে বাজুস। এর আগে কখনো দেশের বাজারে সোনার এতো দাম হয়নি।

নতুন দাম অনুযায়ী, ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ভালো মানের ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম ১ হাজার ২৮৩ টাকা বাড়িয়ে ৮৪ হাজার ৫৬৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর আগে, দেশের বাজারে ভালো মানের প্রতি ভরি সোনার সর্বোচ্চ দাম ৮৪ হাজার ৩৩১ টাকা হয়েছিল। সে হিসাবে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে রোববার থেকে সর্বোচ্চ দামে সোনা বেচাকেনা হবে।

এ ছাড়া, ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ২২৫ টাকা বাড়িয়ে ৮০ হাজার ৭১৫ টাকা করা হয়েছে। ১৮ ক্যারেটের দাম বেড়েছে ১ হাজার ৫০ টাকা, এখন বিক্রি হবে ৬৯ হাজার ১৬৮ টাকায়। সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ১৬৭ টাকা বাড়িয়ে বাড়িয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৭ হাজার ৩৮৭ টাকা।

তবে রুপার দাম অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী, ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি রুপার দাম ১ হাজার ৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেটের রুপার দাম ১ হাজার ৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের রুপার দাম ১ হাজার ২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপার দাম ৯৩৩ টাকা অপরিবর্তিত আছে।


আরও খবর

স্বর্ণের দাম কমেছে

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




পাকিস্তানের প্রশংসা কোহলির মুখে

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

ইয়াশফি রহমান : অর্ধশতরান করেছেন বিরাট কোহলি। তবুও এশিয়া কাপের সুপার ফোরে পাকিস্তানের কাছে হেরে গেছে ভারত। দলের এ হারের জন্য কোনো ক্রিকেটারকে দোষ দিতে চাইলেন না কোহলি। ম্যাচের মোড় ঘোরানো মুহূর্ত বেছে নিয়েছিলেন ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক। রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে দুবাইয়ের মাঠে বাবর আজমদের বিপক্ষে নিজে অর্ধশতরান করেও দলকে জেতাতে পারলেন না কোহলি।

সংবাদ সম্মেলনে কোহলি বলেছেন, ‘মোহাম্মদ নেওয়াজের ইনিংসটাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিল। ওকে আগে পাঠিয়ে একটা চমক দেখাল পাকিস্তান, যাতে পরের দিকে পরিস্থিতি কঠিন হলে তাদের হাতে উইকেট থাকে। সবাই বাবর বা রিজওয়ানের থেকে বড় ইনিংসের প্রত্যাশা করে। নেওয়াজ যদি ১৫-২০ রানের ইনিংস খেলত, তা হলে কিছু হতো না। কিন্তু তিনি ৪২ রানের ইনিংস খেলেছে। এ রকম একটা ইনিংস ম্যাচে প্রভাব ফেলতে বাধ্য। বিশেষত এ রকম টান টান উত্তেজনার ম্যাচে। ওর ইনিংস থেকেই আমাদের ওপর চাপ শুরু হয়।

ম্যাচের ১৯তম ওভারে লোপ্পা ক্যাচ ফেলায় গোটা দেশের কাছে খলনায়ক হয়ে গিয়েছেন অর্শদীপ সিংহ। নেটমাধ্যমে সমালোচনা চলছে তার। তবে সতীর্থের পাশে দাঁড়িয়েছেন কোহলি। বলেছেন, ‘চাপের মুখে যেকোনো খেলোয়াড়ই ভুল করে। এ রকম একটা বড় ম্যাচ, এত কঠিন পরিস্থিতি। আমার মনে আছে, একবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিলাম। সেই প্রথম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলা। শহীদ আফ্রিদির বলে একটা খারাপ শট মেরেছিলাম। ভোর ৫টা পর্যন্ত জেগেছিলাম। 

ভারতের সাবেক এই অধিনায়কের মতে, ‘এখন আমাদের দলের পরিবেশ অনেক ভালো। আবার যখন সবাই একসঙ্গে হব, হাসাহাসি করব, সেটা দেখে অর্শদীপ নিশ্চয়ই অনেকটা চাপমুক্ত হবে। আমি দল পরিচালন সমিতিকে কৃতিত্ব দেব। ওরা এমন একটা পরিস্থিতি তৈরি করেছেন, যেখানে কেউই ব্যর্থতায় ডুবে যায় না। নতুন উদ্যমে ফিরে আসে। এ রকম পরিবেশে যেকোনো ক্রিকেটার চাইবে। আবার সুযোগ আসুক। তখন সে নিজের ক্ষমতা দেখিয়ে দেবে।

সূত্র : আনন্দবাজার


আরও খবর

বিশ্বকাপ নিশ্চিত নারী ক্রিকেট দলের

শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

মুকুট নিয়ে আজ ফিরছে বাঘিনীরা

বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২