Logo
শিরোনাম

রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতিক বরাদ্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image

রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ঃ

আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচন আগামী ১৭ অক্টোবর ২০২২ এ উপলক্ষে প্রার্থীদের মধ্যে জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে আজ সকালে প্রার্থীদের মধ্যে নির্বাচনী প্রতিক বরাদ্ধ করেছেন জেলা রিটানিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান । 

চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী একেএম শফিকুল মোরর্শেদ আরুজ (তালগাছ), দিপক কুন্ডু ( মটর সাইকেল), ও ইমামুজ্জামান চৌধুরী ( আনারস ) প্রতিক পেয়েছেন। 

উল্লেখ্য ২ নং ওর্য়ার্ডের সংরক্ষিত সদস্য সফুরা বেগম বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে ৫টি উপজেলা, ৩টি পৌরসভা ও ৪২ টি ইউনিয়নের ৫৯৮ জন জনপ্রতিনিধি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। 

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন , সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য পদে ৮ জন ও সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য পদে ১৮ জন মোট ২৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।


আরও খবর



নওগাঁয় আওয়ামীলীগের কার্যালয় ভাঙচুর

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ |
Image
বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর পৌর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বিস্ফোরণ ও ভাঙচুরের ঘটনায় বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ৯ জন নেতা-কর্মীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার ২০ নভেম্বর দিনগত রাতে নজিপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রাণেশ্বর হালদার বাদী হয়ে বিস্ফোরক দ্রব্য আইন ও দণ্ডবিধি-১৮৬০-এর ১৪৩, ৪৪৮, ৪২৭, ১১৪ ও ৩৪ ধারায় পত্নীতলা থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

পত্নীতলা থানার ওসি সেলিম রেজা মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে এই মামলায় এখন পর্যন্ত "সংবাদ সংগ্রহকালে" কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

উল্লেখ্য- শনিবার দিবাগত রাতে নজিপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের মামুদপুর মোড়ে অবস্থিত পৌর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এ হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবু তাহের, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক বায়েজিদ হোসেন, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল কাদের, পত্নীতলা ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে বিএনপি'র ২০ থেকে ২৫ জন নেতা-কর্মী এ হামলায় অংশ নেন। এ সময় তারা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের তালা ভেঙে কার্যালয়ের ভেতর ঢুকে চেয়ার, টেবিল ও টিভি ভাঙচুর করেন। এছাড়া আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য অফিসের ভেতরে বিস্ফোরণ ঘটানো হয় বলেও এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নজিপুর পৌরসভার মেয়র রেজাউল কবীর চৌধুরী জানান, বিএনপি-জামায়াত ত্রাস সৃষ্টি করার জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে। মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

এব্যাপারে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা নিজেরাই দলীয় অফিসে ভাঙচুর চালিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছেন। যাতে করে আগামী ৩ ডিসেম্বর বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশে নেতা-কর্মীরা যেন অংশ নিতে না পারেন, সে জন্য আওয়ামী লীগ এই মিথ্যা মামলা সাজিয়েছে। সমাবেশে যেতে বাধাগ্রস্ত করতে আরো নতুন নতুন চক্রান্ত করা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন তিনি।


আরও খবর



বৈশ্বিক মন্দা ঠেকাতে প্রস্তুতি নিন এখনই

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবিলায় এখন থেকে প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, করোনাভাইরাসের অভিঘাত, রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ এবং স্যাংশন, কাউন্টার স্যাংশনের ফলে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে। এজন্য আমি আহ্বান জানাচ্ছি, যার যেখানে কর্মস্থান; প্রত্যেকেই, যা পারেন তরকরি-ফলমূল কিছু না কিছু উৎপাদন করবেন। নিজেরাই নিজেদের চাহিদা পূরণের চেষ্টা করবেন। বিশ্বমন্দার ধাক্কা যেন আমাদের দেশে না পড়ে।

১৫ নভেম্বর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ ২০২২-এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন তিনি। তিনি গণভবন থেকে মিরপুরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্সে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা, সেবার ক্ষেত্র এবং কর্তব্যরতদের মর্যাদাও বৃদ্ধি করা হয়েছে। কারণ আগুন লাগলে বা কোনো দুর্ঘটনা বা ভূমিকম্প বা কোনো কিছু ঘটলে অথবা কোনো ভবন ধসে গেলে ফায়ার সার্ভিসই সবার আগে ছুটে যায়। এমনকি কোনো জাহাজ বা লঞ্চ যখন দুর্ঘটনায় পড়ে তখনো এই ফায়ার সার্ভিসকেই আমরা পাই। তাই তাদের আরো যুগোপযোগী করা একান্ত প্রয়োজন। আর সেই পদক্ষেপই আমরা নিয়েছি। এর সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং সেবার ক্ষেত্র আরো সম্প্রসারণে বিভিন্ন পদক্ষেপও আমরা গ্রহণ করেছি। প্রতিটি উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠার যে ঘোষণা আমরা দিয়েছিলাম তা এখন শেষপর্যায়ে। যারা এই কাজে সম্পৃক্ত তারা যেন উন্নতমানের প্রশিক্ষণ ও যন্ত্রপাতি পান সেদিকে লক্ষ রেখেই আমরা বঙ্গবন্ধু ফায়ার অ্যাকাডেমি প্রতিষ্ঠারও উদ্যোগ নিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে সাম্প্রতিক বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে কর্তব্যপালনকালে নিহত ৩০ জন অগ্নিনির্বাপণ কর্মীকে কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি তাদের আত্মার শান্তি কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সেবার সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিপুল পরিমাণ উন্নত, আধুনিক, প্রযুক্তি সুবিধাসংবলিত বিশ্বমানের অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধার সরঞ্জাম সংগ্রহ করেছি। সর্বশেষ আমরা বিশ্বের সর্বাধিক উচ্চতার ৬৮ মিটারের লেডারসংবলিত টিটিএল গাড়ি ফায়ার সার্ভিসের বহরে যোগ করেছি। ৬৮ মিটারের ৫টি গাড়ি কেনা হয়েছে। এ ছাড়া এ অর্থবছরেই ১১টি টার্নটেবল লেডার (টিটিএল) কেনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুটি রিমোট কন্ট্রোল ফায়ার ফাইটিং ভেহিক্যাল দেওয়া হয়েছে। নদীপথে সক্ষমতা বাড়াতে ২৪টি রেসকিউ বোট ও ১০টি ফায়ার ফ্লোট কেনা হয়েছে।

সরকার প্রধান বলেন, লিঙ্গসমতা দূর করতে ‘ফায়ারম্যান’ পদের নাম ‘ফায়ার ফাইটার’ করা হয়েছে। পরিদর্শকের সংখ্যা ৫০ থেকে ২৬৮, ডুবুরির সংখ্যা ২৫ থেকে ৮৫, অ্যাম্বুলেন্স সংখ্যা ৫০ থেকে ১৯২, আগুন নেভানোর পানিবাহী গাড়ি ২২৭ থেকে ৬১৭ এবং ফায়ার পাম্প ৪৫০ থেকে ১ হাজার ৫৪৬টিতে উন্নীত করা হয়েছে। তিনি বলেন, আগে ফায়ার সার্ভিসের কেমিক্যাল টেন্ডার, ব্রিদিং টেন্ডার, ফোম টেন্ডার, হ্যাজমেট টেন্ডারের মতো বিশেষ ধরনের কোনো গাড়ি ছিল না। আমরা এ ধরনের ৩৫টি বিশেষায়িত গাড়ি প্রদান করেছি। যুগের চাহিদার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে একসময়ের অবহেলিত এই প্রতিষ্ঠানটিকে আমরা একটি সম্মানজনক স্থানে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি জানি, সারা জীবন আগুন ও ধোঁয়ায় কাজ করতে হয় বিধায় এই প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের অনেকেই অবসর বয়সে নানা রকম রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হন। এ কারণে আমরা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের আজীবন রেশন দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছি। এ ছাড়া এই প্রতিষ্ঠানের জনবল ৩০ হাজারে উন্নীত করার কাজও হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সীতাকুণ্ডে সাম্প্রতিক বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৩ জন অগ্নিবীরের পরিবারসহ ৪৫ জন দমকলকর্মীর হাতে ৪টি কাটাগরিতে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স পদক-২০২২ তুলে দেন। প্রধানমন্ত্রী বাহিনীর কুচকাওয়াজ প্রত্যক্ষ করেন এবং রাষ্ট্রীয় সালাম গ্রহণ করেন।


আরও খবর

কর্মবিরতিতে নৌযান শ্রমিকরা

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




সরকার মিথ্য বলে জনগণকে ভাউতা দিয়ে ক্ষমতায় টিকে আছে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ঃ

সরকার মিথ্য বলে জনগণকে ভাউতা দিয়ে ক্ষমতায় টিকে আছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যর সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেছেন মানুষ এই সরকারের পরিবর্তন চায়। শুক্রবার বিকেলে নগরীর চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গনতন্ত্র মঞ্চ আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, দেশের ১৭ কোটি মানুষ। তার মধ্যে ৮ কোটি মানুষই গরিব, ২ কোটি শিক্ষিত যুবক বেকার। এই সরকারের পরিবর্তন চায় বলে  বিএনপির সামাবেশে মানুষ নানা ভাবে ছুটে গেছে। ঢাকায়ও মানুষকে আটকে রাখা যাবে না। 

রাজনৈতিক সভা-সমাবেশে বাধা, হামলা-মামলা, দমন-পীড়ন, গুলি-হত্যা বন্ধ করার দাবিতে ৭টি দলের রাজনৈতিক জোট ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ এ সমাবেশের আয়োজন করে।

সামবেশে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেছেন, আমরা সরকারের পদত্যাগ চাই। জনগন যদি চায় তাহলে কারো শক্তি নাই অবৈধ ভাবে নির্বাচন করার। সরকারের নানা সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিদেশীরা এখন তাদের সাথে নেই। এ কারনে এখন সরকারের পায়ের তলায় মাটি নেই। এখন তারা ভয়ে আছে। কখন ক্ষমতা ছাড়তে হয়।

সমাবেশে আরও বক্ত্য রাখেন  বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহবায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী, হাসনাত কাউয়ুম। 

বক্তারা বলেন , সরকারি দলের নেতারা বলছেন ‘খেলা হবে’।  এই খেলার কথা বলতে- ক্ষমতাশীনরা মনে করে, গায়ের জোর ছারা ক্ষমতায় থাকার আর কোন পথ নাই।

কারণ এই সরকার ভোটে জিততে পারবে না। কেউ আর তাদের ভোট দিবেনা।


আরও খবর



ভয়াবহ আকার ধারণ করছে হুন্ডি

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

হুন্ডির কারণে কত বিদেশি মুদ্রা থেকে বাংলাদেশ বঞ্চিত হচ্ছে, কাদের মাধ্যমে এই মুদ্রা পাচার হচ্ছে, তার একটি ধারণা পাওয়া গেল এরকম একটি চক্রের ২০ সদস্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) হাতে ধরা পরে।

বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায়সহ বিভিন্ন মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) অন্তত পাঁচ হাজার এজেন্ট হুন্ডি চক্রে জড়িত। আর এদের কারণে বছরে আনুমানিক ৭ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার থেকে বাংলাদেশ বঞ্চিত হয়।

দেশে ডলারের দামে অস্থিরতা শুরুর পর বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামে সিআইডি। এর অংশ হিসেবে ঢাকা ও চট্টগ্রামে তিন দফা যৌথ অভিযান চালিয়ে ওই ২০ জনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডির ফিন্যান্সিয়াল ক্রাইম এবং সাইবার ক্রাইম ইউনিট।


গত ৪ মাসে ২০ কোটি ৭০ লাখ টাকা তাদের মাধ্যমে পাচার হওয়ার তথ্য পেয়েছেন তারা।

আর সাইবার ইন্টেলিজেন্সের মাধ্যমে সিআইডি ৫ হাজারের বেশি এজেন্টের সন্ধান পেয়েছে,যারা এমএফসের মাধ্যমে হুন্ডির কারবারে জড়িত।

 এই চক্র অবৈধভাবে হুন্ডির মাধমে বিদেশে অর্থপাচার করছে। আবার বিদেশে অবস্থানরত ওয়েজ অর্নাদের কষ্টার্জিত অর্থ বিদেশ বাংলাদেশে না এনে স্থানীয় মুদ্রায় মূল্য পরিশোধ করে মানি লন্ডারিংয়ের অপরাধ করছে।

“প্রাথমিক পর্যায়ে বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায় এর বহু এজেন্ট এই অবৈধ হুন্ডি ব্যবসার সাথে জড়িত বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।”

পাঁচ হাজার এমএফএস এজেন্টের মাধ্যমে চার মাসে হুন্ডি হয়েছে আনুমানিক পঁচিশ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ, বৈধ ব্যাংকিং চ্যানেলে দেশে আনা আসায় ওই পরিমাণ রেমিটেন্স থেকে বাংলাদেশ সরকার বঞ্চিত হয়েছে।


 সিআইডি বলছে, এসব এমএফএস এজেন্টের মাধ্যমে বছরে হুন্ডি হয়ে দেশে আসছে আনুমানিক পঁচাত্তর হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ, সরকার প্রায় ৭ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলারের রেমিটেন্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

২০২১-২২ অর্থবছরে প্রবাসীরা ২ হাজার ১০৩ কোটি ডলার দেশে পাঠিয়েছিলেন, যা দেশের মোট জিডিপির ৭ শতাংশের মত।


আরও খবর

কর্মবিরতিতে নৌযান শ্রমিকরা

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




নারীর সাথে উলঙ্গ ভিডিও করে মুক্তিপণ আদায়, ৪ জন আটক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ


নওগাঁয় নারীর সাথে উলঙ্গ ছবি তুলে আদায় করতো মুক্তিপণ, র‌্যাবের অভিযানে ভিকটিম উদ্ধার, মুক্তিপণ আদায় চক্রের মূলহোতা সহ ৪ জন আটক।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদককে জানানো হয়, 

নওগাঁয় একটি অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষকে অপহরণ করে নওগাঁ শহরের একটি ভাড়া বাসায় আটকে রেখে নারীর সাথে উলঙ্গ ছবি তুলে ও ভিডিও ধারণ করে মুক্তিপণ দাবি ও আদায় করতো। সম্পতি একজন কে আটক করে রেখে মুক্তিপণ আদায়কালে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের একটি চৌকস আভিযানিক দল কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ  মোস্তফা জামান, আর্টিলারি ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা এর নেতৃত্বে বুধবার দিনগত রাতে নওগাঁ জেলা সদর থানাধীন পাটালিরমোড়ে অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিম কে উদ্ধার সহ মুক্তিপণ নেওয়া ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ২ টি বাঁশের লাঠি ও ৫ টি মোবাইলসহ অপহরণকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ দুলাল হোসেন (৩৮), পিতা-মোঃ আব্দুর রহিম, স্থায়ী সাং- হাট নওগাঁ ফকিরপাড়া, বর্তমান সাং-আর্জি নওগাঁ পাটালি মোড়, মোঃ ইমরান হোসেন ওরফে হিরা (৩৬), পিতা-মোঃ লুৎফর রহমান, সাং-আর্জি নওগাঁ পাটালিমোড়, মোঃ হুজুর আলী (৪০), পিতা-মৃত তাহের আলী, সাং-কাঠ খইর, সর্ব থানা-নওগাঁ সদর, নওগাঁ ও মোঃ মেহেদী হাসান ওরফে রনি (২০), পিতা-মোঃ আক্তারুল জামান, স্থায়ী সাং-বাঘের আওয়াত, থানা-মাহাদেবপুর, বর্তমান সাং-হাট নওগাঁ, থানা- নওগাঁ সদর, সর্ব জেলা-নওগাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেফতারকৃত ৪ জন অপহরণকারী দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষকে অপহরণ করে অপহরণকারী মূলহোতা মোঃ দুলাল হোসেন এর ভাড়া বাসায় আটকে রেখে বিভিন্ন নারীর সাথে উলঙ্গ ছবি তুলে মুক্তিপণ দাবি ও আদায় করতো। এই সিন্ডিকেটের সদস্য সংখ্যা ৮/১০ জন যার নেতৃত্বে রয়েছে মূলহোতা দুলাল হোসেন। বুধবার ১৬ নভেম্বর সকাল ১১ টারদিকে ভিকটিম মোঃ আব্দুস সামাদকে জমির কাগজ দেখানোর নাম করে চক্রের মূলহোতা মোঃ দুলাল হোসেন (৩৮) ও হুজুর আলী ওরফে ভুনা (৫০) দুলালের বাসায় ডেকে নেয়। এরপর ভিকটিমকে এক নারীর সাথে উলঙ্গ ছবি তুলে ও ভিডিও ধারন করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া এবং ভিকটিমের আত্মীয়-স্বজনের কাছে বিলিয়ে দেওয়ার নাম করে তার কাছে দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। এরপর মুক্তিপণ হিসেবে ভিকটিম তার পরিবারের কাছে ফোন দিয়ে ৭৫,০০০ টাকা নিয়ে অপহরণকারীদের প্রদান করেন। পরবর্তীতে অপহরণকারীরা আরোও ৭৫,০০০ টাকা দাবি করে এবং টাকা না দিলে তাকে মুক্তি প্রদান করবে না মর্মে দুলালের বাসায় আটকে রাখেন।  গোপন সোর্সের মাধ্যমে উক্ত ঘটনার তথ্য প্রাপ্তি স্বাপেক্ষে জয়পুরহাট র‍্যাব ক্যাম্পের একটি চৌকস অপারেশন দল অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিমকে উদ্ধার সহ চক্রের মূলহোতা সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেন। 

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে নওগাঁ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছে র‍্যাব।


আরও খবর