Logo
শিরোনাম

রাণীনগর-আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৬জন মাদক কারবারী-জুয়ারী আটক

প্রকাশিত:Wednesday ০৯ November ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

 কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :

নওগাঁর রাণীনগর এবং আত্রাই থানাপুলিশ পৃথক পৃথকভাবে অভিযান চালিয়ে ৩জন মাদক কারবারী ও ৩জন জুয়ারীসহ ৬জনকে আটক করেছে। এর মধ্যে দুইজনের নিট থেকে মাদক উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে বুধবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

রাণীনগর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সেলিম রেজা বলেন,মঙ্গলবার রাতে উপজেলার পূর্ব বালুভরা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় পূর্ব বালুভরা গ্রামের আক্কাছ আলীর ছেলে মুঞ্জ প্রামানিক (৪৮) ও আফজাল মন্ডলের ছেলে ইউনুছ মন্ডল (৪৫) কে ৯০গ্রাম গাঁজা আটক করা হয়। রাতেই তাদের বিরুদ্ধে মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে। এছাড়া একই রাতে মাদক মামলায় আদালতের পরোয়ানাভুক্ত আসামী খট্রেশ্বর গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আব্দুর রশিদ (৩৮)কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

অপর দিকে আত্রাই থানাপুলিশ মঙ্গলবার সন্ধায় উপজেলার জাত আমরুল গ্রাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘোষপাড়া গ্রামের মিন্টু খামারু (৩২),জাত আমরুল গ্রামের নজরুল ইসলাম (৫০) ও সুজন (৪০) কে আটক করেছে। তাসের মাধ্যমে জুয়া খেলা হচ্ছিল জানিয়ে থানার ওসি তারেকুর রহমান সরকার বলেন রাতেই আটককৃতদের বিরুদ্ধে জুয়া আইনে মামলা রুজু করে বুধবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর



মোংলায় বিশ্বের দীর্ঘতম বিলাসবহুল রিভার ক্রুজ ‘গঙ্গা বিলাস

প্রকাশিত:Saturday ০৪ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট প্রতিনিধি :                 

ভারতের উত্তর প্রদেশের বারাণসী থেকে বাংলাদেশ হয়ে আসাম পর্যন্ত ৩২০০ কিলোমিটার নৌপথ পাড়ি দেয়া বিশ্বের দীর্ঘতম বিলাসবহুল রিভার ক্রুজ ‘গঙ্গা বিলাস’ দুপুরে মোংলায় এসে পৌঁছেছে। গত ১৩ জানুয়ারি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্ধোধনের ২২ দিন পর সুন্দরবনের আংন্টিহারা রুট দিয়ে মোংলায় এসেছে প্রমোদ তরীটি। বিলাসবহুল রিভার ক্রুজটি আজ শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ২ টা নাগাদ মোংলা বন্দর জেটিতে নোঙ্গর করলে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিদেশী পর্যটকদের অভ্যর্থনা জানান নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চেীধুরী। এসময়ে ভারতীয় হাই কমিশনার প্রনয় ভার্মা,  নৌপরিবহন মন্ত্রনালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলী, অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক সহ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।  

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ৩২০০ কিলোমিটার নৌপথে ৫০ দিনের যাত্রায় বিলাসবহুল রিভার ক্রুজ গঙ্গা বিলাসের পর্যটকরা দুই দেশের ২৭টি নদ-নদী পাড়ি দিয়ে ৫০টি ঐতিহাসিক স্থাপত্য ও বিশ্বঐতিহ্য স্থান (ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ সাইড) ঘুরে দেখার সুযোগ পাবেন। দৈর্ঘ্য ৬২.৫ মিটার এবং প্রস্থ ১২.৮ মিটার ও ১.৩৫ মিটার ড্রাফটের প্রমোদ তরীটিতে ১৮টি অত্যাধুনিক স্যুইটসহ একসাথে ৮০ জন পর্যটককের ভ্রমণের সুযোগ রয়েছে। রেস্টুরেন্ট, স্পা, সুইমিংপুল, সানডেকের ব্যবস্থাসহ রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের সব রকম সুযোগ-সুবিধা। উদ্ধোধনী যাত্রায় সুইস ও জার্মানসহ ৩০ জন পর্যটক নিয়ে মোংলায় এসেছে প্রমোদতরী গঙ্গা বিলাস।

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে অভ্যন্তরীণ নৌপথ অতিক্রম ও বানিজ্য প্রটোকল চুক্তির আওতায় বিশ্বের দীর্ঘতম বিলাসবহুল রিভার ক্রুজ গঙ্গা বিলাস প্রমোদতরীটি বাংলাদেশের সুন্দরবনের আংন্টিহারা- বাগেরহাট- বরিশাল- আরিচা- সিরাজগঞ্জ- দৈখাওয়া নৌপথ অতিক্রম করে ভারতের আসামে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।


আরও খবর



ধামরাইয়ের বিখ্যাত মিষ্টি ক্ষীরমোহন

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন (স্টাফ রিপোর্টার):


ঢাকার ধামরাইয়ের কাওয়ালীপাড়া বাজারের ইসমাইল সুইটস এর ক্ষীরমোহন অনন্য এক মিষ্টান্নের নাম। অনেকেই ভীষণ ভোজনপ্রিয় মানুষ। খাবারের নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে। আর যদি সেটা হয় মন জুড়ানো মিষ্টি গন্ধ, তাহলে তো কথাই নেই। এই সুস্বাদু মুখরোচক খাবারটি হচ্ছে কাওয়ালীপাড়ার ‘ক্ষীরমোহন’। দুধ, চিনি, ঘি, দুধের ছানা, ময়দা, তেজপাতা, ছোট এলাচ ইত্যাদি দিয়ে তৈরি ঘন রসযুক্ত মিষ্টান্ন।

ধামরাই উপজেলার গ্রামাঞ্চলে প্রাকৃতিক উপায়ে বেড়ে ওঠা সবুজ ঘাস, লতা-পাতাসহ নানা গো-খাদ্য বাড়িতে পালা গাভিকে খেতে দেয়া হয়। তাই এই এলাকার গরুর দুধ খাঁটি দুধের গুনাগুণ সমৃদ্ধ। সেই দুধ থেকে তৈরি হয় এই ক্ষীরমোহন।

প্রসঙ্গত,ক্ষীর ও মোহনের সংমিশ্রণে তৈরি হয় ক্ষীরমোহন। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভেতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় অমৃত স্বাদের ক্ষীরমোহন।

ইসমাইল সুইটস এর কর্মচারী মোঃ বাদশা মিয়া বলেন, খাঁটি ছানা থেকে তৈরি মিষ্টি প্রথমে গরম চিনির রসে জ্বাল দেয়া হয়। মিষ্টি হয়ে এলে তা থেকে রস ঝরিয়ে নিয়ে দুধে জ্বাল দেয়া হয়। দুধ ক্ষীরে পরিণত হলে ও মিষ্টির ভিতরে ক্ষীর ঢুকে গেলে তৈরি হয় লোভনীয় ‘ক্ষীরমোহন’। সাধারণত ১ মণ দুধ জ্বাল দিয়ে ১৭ থেকে ১৮ কেজি ক্ষীর তৈরি করা হয়। এতে যুক্ত হয় ২৫০ গ্রাম ঘী। এর সাথে ৮ কেজির মত মিষ্টি ক্ষীরে জ্বাল দিয়ে ২৪/ ২৫ কেজি ক্ষীরমোহন বানানো হয়। এর স্বাদ নিতে আসেন ছোট-বড় সকলেই। প্রতিটি ক্ষীরমোহন ৫০ টাকা এবং ৩৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয় ।

ক্ষীরমোহন খেতে আসা ভোজনপ্রিয় মানুষ মোঃ বাবুল হোসেন বলেন, ক্ষীরমোহনের স্বাদ ও গন্ধ থেকেই জিভে পানি আনার মতো। এই খাবার খেতে খুবই সুস্বাদু আত্মীয় স্বজনদের বাড়ি নিয়ে গেলেও এই রসমালাইকে গুরুত্ব দেয়।


আরও খবর



রাঙ্গামাটি জেলার শীতার্থ মানুষেমানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন

প্রকাশিত:Thursday ০৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি 


রাঙ্গামাটি জেলার শীতার্থ ও সাধারণ অসহায় পাহাড়ী বাঙ্গালী জনগনের পাশে

দাঁড়িয়েছে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন। বৃহস্পতিবার ৫ জানুয়ারী রাঙ্গামাটি রিজিয়ন

প্রাঙ্গনে অসহায় ও শীতার্থ মানুষের হাতে শীত বস্ত্র ও নগদ অর্থ তুলে দেন

রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইমতাজ উদ্দিন এনডিসি

পিএসসি।

এ সময় রাঙ্গামাটি রিজিয়নের ব্রিগেড মেজর মোঃ খায়রুল হাসান, রাঙ্গামাটি

রিজিয়নের জিটুআই মেজর পারভেজ রহমান সহ অন্যান্য সেনা কর্মকর্তারা উপস্থিত

ছিলেন।

রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইমতাজ উদ্দিন এনডিসি

পিএসসি বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী জাতী, বর্ণ, ধর্ম নির্বিশেষে জাতী,

উপজাতী ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য

কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় আজকের আমাদের এই ক্ষুদ্র চেষ্টা। এধরনের সেবামূলক

কার্যক্রমে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন তার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা দিয়ে শান্তি,

সম্প্রীতি ও উন্নয়ন নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে কাজ করতে এবং দুর্গম এই পাহাড়ী

এলাকার জনসাধারণের কল্যানার্থে সকল কার্যক্রমে সকলের পাশে থাকতে সর্বদা

বদ্ধপরিকর। এধরণের সেবামূলক কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

আজ অনুষ্ঠানে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে সেলাই মেশিন, ঘর মেরামতের

জন্য ঢেউ টিন, ৩ শতাধিক শীতার্থদের জন্য শীতবস্ত্র, মসজিদের উন্নয়ন কল্পে

সহায়তা প্রদান এবং চিকিৎসার জন্য মানবিক সহায়তার নিমিত্তে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়।



আরও খবর



নেত্রকোনায় মোহনগঞ্জে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু

প্রকাশিত:Monday ৩০ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

নেত্রকোনা প্রতিনিধি :

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে অজ্ঞাত এক যুবকের (৪০) মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার বিকেল চারটার দিকে মোহনগঞ্জ স্টেশন থেকে ঢাকাগামী মহুয়া কমিউটার ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার সময় স্টেশন এলাকাতেই ট্রেনে কাটা পড়ে ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

মোহনগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. আলমগীর হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ওই যুবকের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। তবে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হচ্ছে।

মোহনগঞ্জ স্টেশন মাস্টার আতাউর রহমান জানান, বিকাল চারটার দিকে বেসরকারি মহুয়া কমিউটার ট্রেনটি স্টেশন ছাড়ার পর প্লাটফর্মের বিপরীত দিক থেকে এক ব্যক্তি উঠার চেষ্টা করে।

স্থানীয় সংবাদকর্মী কামরুল ইসলাম রতন জানান, মহুয়া কমিউটার ট্রেনটি মোহনগঞ্জ স্টেশন থেকে বিকেল চারটার দিকে ঢাকার উদ্দেশ্য ছাড়ে। এসময় ওই যুবক উঠতে গেলে পা পিছলে ট্রেনের নিচে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। তবে কোথা থেকে এসেছে  কোথায় যাচ্ছিল নাম ঠিকানা কিছুই জানা যায়নি। ওই ব্যক্তিকে কেউ চিনতেও পারছেনা।


আরও খবর



পদত্যাগ করলেন জেলেনস্কির উপদেষ্টা

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির প্রভাবশালী উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্তোভিচ পদত্যাগ করেছেন। রাশিয়ার চালানো একটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা নিয়ে ‘নেতিবাচক’ মন্তব্য করে সাধারণ ইউক্রেনীয় ও রাজনীতিবীদদের রোষানলে পড়েন তিনি। এর জেরেই প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টার পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

১৪ জানুয়ারি দানিপ্রোর একটি আবাসিক ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনা ঘটে। ইউক্রেন দাবি করে রাশিয়া এ হামলা চালিয়েছে। তবে রাশিয়া দাবি করে, তাদের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পাল্টা ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে ইউক্রেন। যেটির আঘাতে রুশ ক্ষেপণাস্ত্রটি আবাসিক ভবনের ওপর গিয়ে পড়ে। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৪ জন নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ আছেন আরো ২০ জন।

জেলেনস্কির উপদেষ্টা অলেক্সি আরেস্তোভিচ বলেছিলেন, ইউক্রেনের সেনাদের কারণেই হয়তো ওই আবাসিক ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র পড়েছে। তার এ মন্তব্যকে ভিত্তি করে রাশিয়ায় পরবর্তীতে এ ঘটনার জন্য ইউক্রেনকে পুরোপুরি দায়ী করে প্রচারণা চালানো হয়।

ওলেক্সি আরেস্তোভিচ যুদ্ধ শুরুর পর ইউক্রেন এবং রাশিয়া দুই দেশেই বেশ পরিচিত হয়ে ওঠেছেন। কারণ ইউটিউবে যুদ্ধ নিয়ে নিয়মিত আপডেট দেন তিনি।

সাধারণ মানুষের রোষানলে পড়ার পর আরেস্তোভিচ একটি বিবৃতিতে নিজের পদত্যাগ করার কথা জানান। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, আমি ভিকটিম ও তাদের পরিবার, দানিপ্রোর বাসিন্দা এবং বাকি সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি, যারা দানিপ্রোর আবাসিক ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা নিয়ে আমার ভুল তথ্যের কারণে কষ্ট পেয়েছেন।

সূত্র : বিবিসি।


আরও খবর