Logo
শিরোনাম

র‌্যাবের অভিযানে পাঁচ শত পিছ ইয়াবা সহ দু'জন গ্রেফতার

প্রকাশিত:Monday ২১ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


র‌্যাবের অভিযান- ৫শ' ৯ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ১৫ পিস বুপ্রেনরফিন ইঞ্জেকশনসহ দু'জন মাদক কারবারি গ্রেফতার।

সত্যতা নিশ্চিত করে প্রতিবেদক কে র‌্যাব জানায়, 

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকস আভিযানিক দল কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান, আর্টিলারি এর নেতৃত্বে রবিবার ২০ নভেম্বর দিনগত রাতে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানাধীন সেনাপট্টি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৫শ' ৯ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১৫ পিস, বুপ্রেনরফিন ইঞ্জেকশন, ১ টি মোটর সাইকেল, ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ ২ হাজার ৬শ' ৫০ টাকা সহ দু'জন মাদক কারবারিকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকৃত মাদক কারবারিরা হলেন, জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার বালিঘাট বাজার এলাকার মৃত আলী হোসেন এর ছেলে জামাল হোসেন (৫০) ও আব্দুর রহমান শেখ এর ছেলে শেখ রানা (৩০)।

র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামীরা দীর্ঘদিন যাবৎ নেশা জাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট এবং বুপ্রেনরফিন ইঞ্জেকশন অবৈধভাবে সংগ্রহ করে অভিনব কায়দায় জয়পুরহাট জেলার বিভিন্ন স্থানে মাদকসেবী ও মাদক কারবারীদের নিকট সরবরাহ করে আসছিল বলে শিকার করেছেন। 

এব্যাপারে গ্রেফতারকৃত দু'জনের বিরুদ্ধে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুসারে মামলা দায়ের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব।


আরও খবর



নওগাঁয় পাতকুয়ার পানি সেচ বিলিং সিস্টেম করায় ক্ষুদ্র চাষিরা দিশেহারা

প্রকাশিত:Wednesday ০৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁয় পাতকুয়ার পানি নিয়ে ক্ষুদ্র চাষিরা চাষ করতেন মৌসুমী ফসল, বিলিং সিস্টেম চালু করায় চাষীদের মাঝে ক্ষোভ।

তৎকালীন কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর আমলে নওগাঁর বরেন্দ্র এলাকা খ্যাত সাপাহারের বরেন্দ্র ভুমিতে পাতকুয়া খননের মাধ্যমে স্বল্প সেচে ফসল উৎপাদন প্রকল্পের অধিনে স্থাপিত পাতকুয়াগুলির কিছু কিছু কুয়া সচল থাকলেও অধিকাংশ কুয়া অচল হয়ে পড়ে রয়েছে। সাপাহার উপজেলা বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অফিস কে জানিয়েও কোন কাজ হয়নি বলে বেশ কিছু কুয়ার তত্বাবোধায়করা জানিয়েছেন।

গত ২০১৭-১৮ সালের দিকে স্থাপিত সচল কুয়ার পানি দিয়ে এলাকার বেশ কিছু দরিদ্র শ্রেণীর মানুষ (কৃষকরা) কুয়ার আসে পাশে সামান্য জমিতে রসুন, পিয়াজ, মরিচ ও শাক সব্জী চাষাবাদ করে আসছিল। হঠাৎ করে গত নভেম্বর মাস হতে সচল ওইসব কুয়াগুলিতে উপজেলা বরেন্দ্র অফিস হতে বিলিং সিস্টেমে একটি করে পানির মিটার স্থাপন করে মাসিক বিল আদায় করায় ক্ষুদ্র ও দরিদ্র ওই সব সব্জী চাষীরা হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের কথা প্রথমে প্রকল্প স্থাপনের সময় সোলার সিস্টেম এসব কুয়ার পানি ব্যবহারে কোন পয়সা দিতে হবেনা বলে জানানো হলেও হঠাৎ করে এখন পানির বিল করায় ক্ষুদ্র সব্জী চাষীরা বিপাকে পড়েছেন।

ক্ষুদ্র সবজি চাষীদের কথা একটি কুয়ার অধিনে কয়েক জন করে চাষী থাকায় প্রতমত প্রত্যেকের নিকট হতে পানির বিল তুলতে ঝামেলা বা গোল মালের সৃষ্টি হতে পারে। তাই তারা সোলার চালিত এসব কুয়া হতে পানির বিল প্রত্যাহার করে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যেতে চান। তা না হলে হয়তো ক্ষুদ্র এসব সব্জী চাষীরা সব্জী চাষে তাদের আগহ্র হারাবে বলেও তারা মনে করছেন।

এ বিষয়ে সাপাহার উপজেলা করেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল ইসলাম বলেন, প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার পরে ওই প্রকল্পের ফান্ডে কোন অর্থ জমা নেই। কোথাও কোন পাতকুয়া বিকল হয়ে গেলে সেটি পুনরায় মেরামত করার উপায় থাকেনা। তাই সরকারী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পর্যায় ক্রমে প্রতিটি পাতকুয়াকে বিলের আওতায় আনা হবে এবং কৃষকের পানির বিলের আদায়কৃত ওই অর্থ দিয়ে বিকল হওয়া কুয়াগুলি সচল করা হবে, সাপাহারে স্থাপিত প্রায় ১২০টি পাতকুয়া হতে ইতো মধ্যে বেশ কিছু কুয়া হতে পানির বিল আদায়ও করা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে ৩ কোটি ২০ লাখ টাকার হেরোইন উদ্ধার করেছে ডিবি

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল  :

আজ দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল জানান, ১৫ জানুয়ারি দিবাগত রাত ২ টা ১০ মিনিটে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাং রোড এলাকার বন্ধু পরিবহনের বাস কাউন্টারের সামনে পাকা রাস্তার উপর থেকে ১ কেজি ৬’শ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত আসামীর নাম মো. মাসুম সরকার। সে কুমিল্লার হোমনা ভবানীপুরের হাসান আলী সরকারের ছেলে। বর্তমানে ঢাকার রামপুরার হাজিপাড়ায় থাকতেন।উদ্ধারকৃত মাদকের পরিমান ১ কেজি ৬’শ গ্রাম। পুলিশ এ ঘটনায় আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ আসামির বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার জানান, এ ঘটনায় আরও কে কে জড়িত, কোথায় যাচ্ছিল বিষয় গুলো নিয়ে অনুসন্ধান চলছে।আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।


আরও খবর



বান্দরবানে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, ৫ জঙ্গি আটক

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

রোকসানা মনোয়ার :বান্দরবানের পাহাড়ে নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়া’র আস্তানায় একাধিক অভিযান চালালেও শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার করা যায়নি। সেখানে নানারকম প্রশিক্ষণ চললেও তাদের লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্ট কোনো তথ্য পায়নি র‌্যাব । তবে, বান্দরবান ক্যাম্পের অভিযানে আটক পাঁচজনের কাছে মিলেছে নিখোঁজ ৫৫ ব্যক্তির তথ্য।

গেল বৃহস্পতিবার বান্দরবানের থানচি ও রোয়াংছড়ি উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে র্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার ৫ সদস্যকে ছয় দিনের রিমান্ড দেয় রাঙ্গামাটি আদালত।এই রিমান্ডে তারা ঐ নব্য জঙ্গি সংগঠন সম্পর্কে নানা তথ্য দিয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।

তারা জানিয়েছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাকিঁ দিয়ে নতুনভাবে জঙ্গীবাদকে সংগঠিত করতে চেয়েছিল নতুন এই সংগঠনটি। তবে তাদের লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্ট তথ্য পায়নি র‌্যাব ।

এদিকে এখন পর্যন্ত র্যা বের হাতে দেশব্যপী নিখোঁজ তালিকার ৫৫ জনের মধ্যে ৭ জন গ্রেফতার আছে, মারা গেছে ২ জন। কেএনএফের প্রশিক্ষণদাতা ১৪ জন এবং নতুন জঙ্গী সংগঠনটির মোট ৩৫ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তবে এখনো ধরা পড়েনি কোন সর্বোচ্চ নেতা।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি এবং রাঙামাটির বিলাইছড়ি সীমান্তবর্তী পাহাড়ের গহীন অরণ্যে অর্থের বিনিময়ে এই জঙ্গীদের প্রশিক্ষণ দেয়া ‘কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট’ (কেএনএফ)-এর সর্বোচ্চ পর্যায়ের নেতাদেরও এখনো ধরা যায়নি।


আরও খবর



কোরআনে সত্যের সহযাত্রী হওয়ার নির্দেশ

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

সত্য মানুষকে মুক্তি দেয়, আর মিথ্যা মানুষকে ধ্বংস করে। এ জন্য ইসলাম জীবনের সর্বক্ষেত্রে সত্যের অনুসরণ করার নির্দেশ দেয়। মিথ্যার অনুসরণ ও সত্য-মিথ্যার মিশ্রণ থেকে বিরত থাকতে বলেছে। সত্যের অনুসরণে কোরআনের নির্দেশনাগুলো নিম্নে তুলে ধরা হলো।

১. সত্যের অনুসন্ধান : ইসলাম সত্যের অনুসরণের আগে, তা অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘হে মুমিনরা, যদি কোনো পাপাচারী তোমাদের কাছে কোনো বার্তা নিয়ে আসে, তবে তোমরা তা পরীক্ষা করে দেখবে। যেন অজ্ঞতাবশত তোমরা কোনো সম্প্রদায়কে ক্ষতিগ্রস্ত করে বসো এবং পরে তোমাদের কৃতকর্মের জন্য তোমাদের অনুতপ্ত হতে হয়।’ (সুরা হুজরাত, আয়াত : ৬)

২. সত্য-মিথ্যার মিশ্রণ নিষিদ্ধ : আল্লাহ সত্য-মিথ্যার মিশ্রণে সত্যকে আড়াল করতে নিষেধ করেছেন। মহান আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা সত্যকে মিথ্যার সঙ্গে মিশ্রিত কোরো না এবং জেনেশুনে সত্য গোপন কোরো না।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ৪২)

৩. সত্য উপেক্ষা করা নিষিদ্ধ : জেনে-বুঝে সত্য উপেক্ষা করাও নিন্দনীয়। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘তাদের কাছে সত্য প্রকাশিত হওয়ার পরও, কিতাবিদের মধ্যে অনেকেই তোমাদের ঈমান আনার পর ঈর্ষামূলক মনোভাবের কারণে আবার তোমাদের অবিশ্বাসীরূপে ফিরে পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা করে।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ১০৯)

৪. সত্যগ্রহণে দ্বিধা নয় : সত্য প্রকাশিত হওয়ার পর তা গ্রহণে দ্বিধাগ্রস্ত হওয়া উচিত নয়। আল্লাহ বলেন, ‘সত্য তোমার প্রতিপালকের কাছ থেকে প্রেরিত। সুতরাং তুমি সন্দিহানদের অন্তর্ভুক্ত হয়ো না।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ১৪৭)

৫. মিথ্যার কোনো ভবিষ্যৎ নেই : সত্যই চূড়ান্ত। মিথ্যার কোনো ভবিষ্যৎ নেই। তা যেকোনো সময় ধ্বংসের মুখোমুখি হবে। ইরশাদ হয়েছে, ‘আল্লাহ মিথ্যাকে মুছে দেন এবং নিজ বাণী দ্বারা সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করেন। অন্তরে যা আছে সে বিষয়ে তিনি তো সবিশেষ অবহিত।’ (সুরা আশ-শুরা, আয়াত : ২৪)

৬. সত্যের সহযাত্রী হওয়ার নির্দেশ : মহান আল্লাহ সত্য ও সত্যবাদীদের সহযাত্রী হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘হে মুমিনরা, তোমরা আল্লাহকে ভয় কোরো এবং সত্যবাদীদের অন্তর্ভুক্ত হও।’ (সুরা তাওবা, আয়াত : ১১৯)


আরও খবর

বিশ্ব ইজতেমা শুরু

Friday ১৩ January ২০২৩




ভোক্তা পর্যায়ে দাম বাড়লো বিদ্যুতের

প্রকাশিত:Friday ১৩ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

জহীরুল কবির আমজাদ :ভোক্তা পর্যায়ে বাড়ল বিদ্যুতের দাম। ইউনিটপ্রতি বাড়ানো হয়েছে ১৯ পয়সা। ১ জানুয়ারি থেকে নতুন এ দাম কার্যকর করা হবে। একইসঙ্গে এখন থেকে প্রতিমাসে বিদ্যুতের খুচরা দাম নিয়মিত সমন্বয় করা হবে।

১২ জানুয়ারি এক নির্বাহী আদেশে এ দাম বাড়ানো হয়। এর আগে গত ৮ জানুয়ারি বিদ্যুৎ কোম্পানিগুলোর গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির আবেদনের প্রেক্ষিতে গণশুনানি করেছিল বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

ওইদিন সকাল ১০টায় রাজধানীর বিয়াম ফাউন্ডেশনের শহীদ এ কে এম শামসুল হক খান অডিটোরিয়ামে ওই গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে জানুয়ারির মধ্যেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বিইআরসি চেয়ারম্যান আবদুল জলিল।

তবে সরকার চাইলে জনসাধারণের কথা বিবেচনায় যে কোনো সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম সমন্বয় করতে পারবে। সম্প্রতি এমন বিধান যুক্ত করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (সংশোধন) আইন, ২০২৩ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ৯ জানুয়ারি নবনিযুক্ত মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন জানিয়েছেন, বিদ্যমান আইন অনুযায়ী বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম ৯০ দিন সময় নিয়ে নির্ধারণ করে বিইআরসি। তবে বিশেষ পরিস্থিতিতে সরকারও যেন তা নির্ধারণ করতে পারে এ জন্যই প্রস্তাবিত এই সংশোধনী মন্ত্রিসভা অনুমোদন করে।

ইতোমধ্যেই এটি রাষ্ট্রপতির কার্যালয় থেকে অধ্যাদেশ আকারে জারিও করা হয়েছে। তবে ওই সময় জাতীয় সংসদের অধিবেশন চলমান না থাকায় আইনে কার্যকর করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে সংসদের অধিবেশন চালু রয়েছে। তাই নিয়ম অনুযায়ী সংসদে উত্থাপনের জন্য মন্ত্রিসভায় আইনটি অনুমোদন করে নেওয়া হয়েছে।


আরও খবর