Logo
শিরোনাম

সম্রাটকে জামিন দেননি আপিল বিভাগ

প্রকাশিত:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

দুর্নীতির মামলায় যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে জামিন দেননি আপিল বিভাগ। বুধবার জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন ৩ সদস্যের আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

গত ১১ মে সব মামলায় জামিনের পর মুক্তি পান ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট। ১৮ মে সম্রাটের জামিন বাতিল করেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে ৭ দিনের মধ্যে তাকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়।

হাইকোর্ট বলেন, আইন মেনে জামিন দেননি নিম্ন আদালত। গত ২৪ মে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলেও, তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান নিম্ন আদালত।

২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।


আরও খবর



হাছেন আলী ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের সহায়তায়

হুইলচেয়ার পেলেন,মজিদ পাগলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

উত্তম কুমার মোহন্ত কুড়িগ্রাম ঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম অনন্তপুর মৌজার বাকুয়ার ভিটা গ্রামের আব্দুল মজিদ পাগলা (৬৫)কে হুইলচেয়ার সহ-নগদ অর্থ প্রদান করেন হাছেন আলী ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশন।১৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে তার বাড়িতে গিয়ে সহায়তা প্রদান করেন হাছেন আলী ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক মোঃ হাছেন আলী (চেয়ারম্যান) নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ ও সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী নাওডাঙ্গা  ইউনিয়ন।

সাম্প্রতিক সময়ে অনলাইন পোর্টাল বিডি- টুডেজ,ও নগর বার্তা লাইভ টিভিসহ-বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জন্মগত শারীরিক অক্ষমতা সম্পন্ন আব্দুল মজিদ পাগলার শেষ আশ্রয়স্থল বিধবা দুই বোনের সংসার। এই শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিল, সেই প্রকাশিত প্রতিবেদনে মজিদ পাগলার জীবনের অসহায়ত্বের ঘটনার বর্ণনা নজরে আসে হাছেন আলী ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের। পরবর্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে হাছেন আলী ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তার বাড়িতে গিয়ে সহায়তা প্রদান করেন।

হুইল চেয়ারের পেয়ে আবেগ আল্পুত হয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে যায় মজিদ পাগলার দু নয়ন। তিনি বলেন আমি খুব অসহায় জন্মগত ভাবে শারীরিক অক্ষমতা সম্পন্ন হত্তয়ায় হাঁটাচলা করতে পারিনা।আর আমাকে সবসময় বন্ধ ঘরে সুইয়ে,থাকতে হবে না এখন হুইলচেয়ারে বসে বাহিরে চলাফেরা করতে পারব। স্ত্রী সন্তান কেউ না থাকায় শেষ বয়সে এসে বিধবা দুটি ছোট বোনের অভাবের সংসারে এসে তিন ভাইবোনে খুব কষ্ট করে দিনযাপন করছি। আমার জন্য ছোট বোনদের ও খুব কষ্ট হচ্ছে।এই বোন দুইটি ছাড়া পৃথিবীতে আপনজন বলতে আর কেউ নেই। তিনি আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে বলেন যারা আমাকে এই হুইল চেয়ারটি সহায়তা করলো তাদের জন্য আল্লাহর দরবারে হাজার, হাজার শুকরিয়া।

মজিদ পাগলার বিধবা দুই বোন,জমিলা বেওয়া ছালেহা বেওয়া বলেন,এতদিন আমরা দুইবোন মিলে খুব কষ্টে পাগলা ভাইটাকে ঘরবাহির করতাম। ভাইটা বন্ধ ঘরে থাকতে থাকতে কান্নাকাটি করত বাহিরে আসার জন্য আমারা সময় মতো তাকে বাহির করতে পারতাম না, কারণ আমাদের ও অনেক বয়স হয়েছে, দুই বোনের খুব কষ্ট হয়েছে, এখন হুইলচেয়ারে বসে পাগলা ভাইটা বাহিরে চলাফেরা করতে আর কষ্ট হবে না।তাতে আমার দুই বোনের ও কিছুটা কষ্ট লাঘব হলো।যারা আমার ভাই ও আমাদের সহায়তা করলো আল্লাহ যেন তার ভালো করে।

হুইলচেয়ার প্রদান কালে আরো উপস্থিত ছিলেন

ফুলবাড়ী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি, উত্তম কুমার মোহন্ত, প্রচার ও সাংগঠনিক সম্পাদক নুরনবী মিয়া, স্থানীয় সমাজকর্মী এরশাদুল হক চৌধুরী,পল্লি চিকিৎসক, জাহাঙ্গীর আলম, কিন্ডার গার্ডেন পরিচালক, আব্দুল জব্বার, সমাজ সেবক,শাহ আলম মিয়া সহ আরো অনেক।


আরও খবর



গজারিয়ার বাউসিয়া চর কুমারিয়া গ্রাম থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

 গজারিয়া প্রতিনিধিঃ 

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নের চর কুমারিয়া গ্রামে আগের দিন সন্ধ্যায় ইমাম নিয়ে বিতর্কের পরের দিন সকালে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনা রহস্যের সৃষ্টি করেছে সাধারণ মানুষদের মনে। স্বজনরা বিষয়টিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবি করে সঠিক তদন্তপূর্বক দোষীদের বিচার দাবি করেছেন।

নিহতের নাম বাহাদুল্লাহ মোল্লা (৫০)। সে চর কুমারিয়া গ্রামের জলিল মোল্লার ছেলে। সে স্থানীয় চর কুমারিয়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বলে জানা গেছে।

 নিহতের ভাই শহীদুল্লাহ জানান,   আমার ভাই বাহাদুল্লাহ  স্থানীয় চর কুমারিয়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন। গত প্রায় ১৫দিন ধরে মসজিদের বর্তমান ইমামকে রাখা না রাখার ব্যাপারে মুসলিরা দ্বিধা বিভক্ত হয়ে পড়েন। কিছু মুসল্লি বর্তমান ইমামকে বিদায় করে দেওয়ার পক্ষে আর কিছু মুসুল্লি তাকে রাখার পক্ষে অবস্থান নেন। মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইমামকে রাখার পক্ষে অবস্থান নেন। এদিকে সর্বশেষ গতকাল ( শনিবার) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে তুমুল হট্টগোল শুরু হয়। 

গতকাল শনিবার  রাত ১০ ঘটিকার সময় আমার ভাই বাহাদুল্লা রাতের খাবার খেয়ে  চা দোকানে সময়   ব্যয় করে। তারপরে তিনি আর বাসায় ফিরেননি, দীর্ঘ সময় তার খোঁজখবর না পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। পরবর্তীতে  ( রবিবার) সকালে প্রতিবেশী সুরুজ মিয়ার আম বাগানে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ দেখতে পায় লোকজন। পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

নিহত বাহাদুল্লার পরিবার এবং ভাই শহীদুল্লাহ সহ মহল্লাবাসীর ধারণা    এই ঘটনার জের ধরে হত্যাকাণ্ড হতে পারে ।

এদিকে নিহতের স্ত্রী ফারজানা বেগম বলেন, তার স্বামীর আত্মহত্যা করার মতো কোনো কারণ নেই। তাদের অনেক সুখের সংসার ছিল। তার স্বামীকে  পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এই ঘটনাই দোষীদের শাস্তির দাবি করেন তিনি।

নিহতের মা খবিরন নেছা তার ছেলেকে খুন করা হয়েছে দাবি করে বলেন,যাদের সাথে তার ঝামেলা হয়েছে, তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলেই কে হত্যাকারী তা জানা যাবে। 

 প্রত্যক্ষদর্শী ও গ্রামবাসীদের প্রশ্ন ক্ষুদ্র একটি রশি দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা হতে পারে না ।  

গজারিয়া থানা এসআই সেকান্দার আলী বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে লাশটি উদ্ধার করি। বিষয়টি হত্যা নাকি আত্মহত্যা সেটি ময়নাতদন্তের পরেই নিশ্চিত হওয়া যাবে। এর আগে কোন মন্তব্য করতে চাই না।


আরও খবর

সোনারগাঁয়ে দলিল লিখককে হত্যার অভিযোগ

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




পটুয়াখালীতে পুলিশের ওপর হামলা, আহত তিন

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার নাজিরপুরে নির্বাচনী কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা শেষে ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত হয়েছেন তিন পুলিশ সদস্য।

বাউফল থানার পরিদর্শক মোহাম্মদ হাফিজ জানান, মঙ্গলবার ছিলো নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচন। ভোটগ্রহণ শেষে ছোট ডালিমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর এক প্রার্থীর এজেন্টদের নিরাপত্তা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলো চারজন পুলিশ সদস্যের একটি দল। হঠাৎ করেই প্রতিপক্ষ প্রার্থীর সমর্থকরা পুলিশের ভ্যানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এসময় তাদের ইটপাটকেলে আহত হন পুলিশের তিন সদস্য।


আরও খবর



টানা যানজটের কবলে রাজধানী

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

বৃষ্টির ভোগান্তির সাথে যানজট মিলে, প্রায় অচল হয়ে পড়েছে পুরো রাজধানী। রাত থেকে টানা বৃষ্টিতে সড়কের বিভিন্ন জায়গায় জমেছে পানি। এতে যানজট আরো তীব্র আকারে রূপ নিয়েছে।

কর্মস্থলের উদ্দেশে বের হয়ে যানজটে পড়ে নাকাল হতে হয়েছে অনেককেই। রাজধানীর ফার্মগেট থেকে কারওয়ান বাজার, পান্থপথ থেকে তেজগাঁও এবং বিজয় সরণী এলাকায় যানবাহনের প্রচুর চাপ রয়েছে। এছাড়া কল্যাণপুর এবং মিরপুর সড়কেও রয়েছে যানজট। এদিকে, গাজীপুর থেকে বিমানবন্দর সড়কে বিআরটি প্রকল্প ও মেট্রোরেলের কাজ চলার কারণে গত কদিন ধরেই তীব্র যানজট তৈরি হচ্ছে। আজও এর ব্যতিক্রম দেখা যায়নি। যানজটে আটকা পড়ে, ফ্লাইট মিস করার মতো ঘটনাও ঘটছে কদিন ধরে 


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




মাছ-পশুখাদ্যে ট্যানারির বিষাক্ত বর্জ্য

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ট্যানারি বর্জ্য থেকে পোলট্রি ও মাছের খাদ্য তৈরি করা সম্পূর্ণ নিষেধ। কিন্তু কখনো গোপনে, কখনো প্রকাশ্যেই ট্যানারির বর্জ্য জ্বালিয়ে তৈরি করা হচ্ছে বিষাক্ত পোলট্রি ফিড। আর এসব ফিড সরবরাহ করা হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকার পশু, পোলট্রি ও মাছের খামারে। এসব ফিডে আছে ট্যানারির চামড়ায় ব্যবহৃত রাসায়নিক ক্রমিয়াম, সালফিউরিক অ্যাসিড, লাইম, সোডা, ফরমিকা, ক্লোরাইড, সালফেট, অ্যালুমিনিয়াম সালফেট প্রভৃতি। এসব বিষাক্ত উপাদান মুরগি ও মাছের মাধ্যমে পৌঁছে যাচ্ছে মানব-শরীরে। এতে জনস্বাস্থ্য রয়েছে হুমকিতে।

সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেট থেকে কঠিন বর্জ্য নিয়মিত একটি চক্র অবৈধভাবে বের করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অবৈধভাবে বের করা এসব কঠিন বর্জ্য নেওয়া হচ্ছে পশু, পোলট্রি ও মাছের খাদ্য তৈরির কারখানায়। ২২ সেপ্টেম্বর সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটের সলিড ওয়েস্ট ডাম্পিং স্টেশনে গেলে পরিবহন শ্রমিকরা এ তথ্য জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শ্রমিক বলেন, নিয়মিত একটি চক্র গভীর রাতে ও ভোরবেলা ট্রাকবোঝাই করে কঠিন বর্জ্য সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটের পেছনের গেট ও ১ নম্বর গেট দিয়ে বের করে নিয়ে যায়। সেগুলো দেশের বিভিন্ন পশু, পোলট্রি ও মাছের কারখানায় বিক্রি করা হয়। এ চক্রের সঙ্গে ট্যানারির কিছু নিরাপত্তাকর্মী, কর্মচারী ও স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা জড়িত।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা বলেন, এ ট্রাক দুটি কঠিন বর্জ্য নিয়ে বের হওয়ার সময় জব্দ করা হয়েছে। আমরা মাঝেমধ্যেই এরকম ট্রাক জব্দ করি। পুলিশেও দেই। কিন্তু, পুলিশ ছেড়ে দেয়। এই কঠিন বর্জ্য দিয়ে পোলট্রি-পশুখাদ্য তৈরি করা হয়। বিষয়টি বন্ধ করা দরকার।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেট ওয়েস্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট কোম্পানি লিমিটেডের নির্বাহী প্রকৌশলী সতেন্দ্রনাথ পাল বলেন, আমরা মাঝেমধ্যেই কঠিন বর্জ্যবোঝাই ট্রাক বের হওয়ার সময় আটক করি। মাঝেমধ্যে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ ছাড়া পুলিশ ফাঁড়িতেও দেওয়া হয়। আমরা এ চক্রটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে চাই। তা ছাড়া এই চক্রটিকে প্রতিহত করা যাবে না। আগামী বোর্ড মিটিংয়ে আমরা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব এবং একটা সিদ্ধান্তে আসব।

বিষয়টি জানতে চাইলে চামড়া শিল্প নগরী ট্যানারি ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. রাসেল মোল্লা বলেন, আমাদের কাছে শুধু একটি ট্রাক হস্তান্তর করা হয়েছিল। কিন্তু, ট্যানারি কর্তৃপক্ষ ট্রাকটির বিরুদ্ধে মামলা না দেওয়ায় পরবর্তীতে ডাম্পিং স্টেশনে ওই বর্জ্যগুলো আনলোড করে ট্রাকটি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা তো ট্রাক আটক করার কেউ না। ট্যানারি কর্তৃপক্ষ ট্রাক আটক করে মামলা দিলে আমরা মামলা নেব।

সাভার এলাকায় তিনটি পোলট্রি ফিড প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে ১ লাখ ৫ হাজার টন ট্যানারি বর্জ্য পাওয়া গেছে। এর মধ্যে সাভারের ভার্কুতাতেই এক লাখ টন, আমিনবাজারে দুই হাজার টন ও ভার্কুতা মোগড়াকান্দায় তিন হাজার টন বর্জ্য পাওয়া যায়। রাজধানীর হাজারীবাগের ট্যানারি শিল্পকে ঘিরে এর আশপাশে গড়ে উঠেছিল অসংখ্য বিষাক্ত পোলট্রি ফিড তৈরির কারখানা। এখন এসব ট্যানারি রয়েছে সাভারের হেমায়েতপুরে। হেমায়েতপুরের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের হরিণধরা গ্রামে গড়ে ওঠা চামড়া শিল্প নগরীর একেবারে উত্তর প্রান্ত ঘেঁষে গড়ে উঠেছে বর্জ্য পোড়ানোর খামারগুলো। বর্জ্য পোড়াতে সেখানে প্রায় ৪০টির মতো চুলা রয়েছে। আর সেখানেই তৈরি হচ্ছে বিষাক্ত পোলট্রি ফিড।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (ডিএলএস) ডা. এ বি এম খালেদুজ্জামান বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পোলট্রি ফিডে ট্যানারি বর্জ্য দেওয়ার অপচেষ্টা করছে। নিয়মিত সম্মিলিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিচ্ছি। পোলট্রি ফিডে ট্যানারির বর্জ্য মেশানোর অপরাধে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ৯ এপ্রিল মাছ, মুরগি ও পশুখাদ্য তৈরিতে ট্যানারির বর্জ্য ব্যবহার বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছিলেন আপিল বিভাগ। ওইদিন শিল্প মালিকদের করা আপিল পুনরুজ্জীবিত করার আবেদন খারিজ করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধী চার সদস্যর বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, পোলট্রি ও মাছের খাবার প্রস্তুতকারক সমিতির করা আপিল পুনরুজ্জীবিত করার আবেদন আপিল বিভাগ খারিজ করে দিয়েছে। ওই আদেশের ফলে ট্যানারি বর্জ্য দিয়ে মুরগি ও মাছের খাবার তৈরি বন্ধে আগের রায়ই বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন মনজিল মোরসেদ।

 ২০১০ সালের ২৬ জুলাই পরিবেশবাদী সংস্থা হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে জনস্বার্থে করা একটি রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১১ সালের ২১ জুলাই এক মাসের মধ্যে ট্যানারি বর্জ্য দিয়ে মাছ, মুরগি ও পশুখাদ্য তৈরির কারখানা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পরে এর বিরুদ্ধে একটি কারখানার মালিকের করা লিভ টু আপিলও খারিজ করে দেয় আপিল বিভাগ।


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২