Logo
শিরোনাম

শোকের মাস মহররম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মহান রাব্বুল আলামিন কোরআনুল কারিমে ইরশাদ করেন, ষড়যন্ত্র ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির উদ্দেশে যে ব্যক্তি কাউকে অন্যায়ভাবে হত্যা করল, সে যেন সমগ্র মানবজাতিকে হত্যা করল।

আর যে ব্যক্তি কারও প্রাণ রক্ষা করল, সে যেন সমগ্র মানবজাতিকে রক্ষা করল, আল কোরআন। আল্লাহর পিয়ারা হাবিব, আখেরি নবী, বিশ্বনবী মুহাম্মাদুর রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রিয় দৌহিত্র, হজরত আলী (রা.)-এর আদরের দুলাল, জান্নাতি রমণীদের সরদার, নবী নন্দিনী হজরত ফাতিমা (রা.)-এর কলিজার টুকরা, আহলে বাইতের অন্যতম সদস্য, জান্নাতের সরদার, বিশ্ব মুসলিমের নয়নমণি, হজরত হুসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু আশুরা দিবসে উত্তপ্ত মরুভূমি কারবালা প্রান্তরে, ফুরাত নদীর তীরে, ক্ষমতালোভী ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে নির্মম, নৃশংসভাবে শাহাদাতবরণ করেন।

এ নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনা বিশ্ব মুসলিমের হৃদয়ে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি করেছে। কারবালা ফোরাত নদীর তীরে অবস্থিত একটি প্রান্তর। যেখানে ৬২ হিজরির মহরম মাসের ১০ তারিখ শুক্রবার, হজরত হুসাইন (রা.) শাহাদাতবরণ করেছিলেন।

ইতিহাসে এটি একটি মর্মান্তিক বিয়োগান্তক ঘটনা। ইসলামের নামে ক্ষমতালোভী এজিদ বাহিনীর দুঃশাসনে যখন কুফার শান্তিপ্রিয় সরলমনা নিরীহ মুসলিমরা কোণঠাসা হয়ে গিয়েছিল এবং ইসলামকে চিরতরে নির্মূল করে দেওয়ার গোপন পরিকল্পনা চলছিল তখন সেই অত্যাচারী শাসকের বিরুদ্ধে, নিরীহ কুফাবাসী মুসলিমদের পক্ষ অবলম্বন করে তাদের সান্ত¡না দেওয়ার জন্য কুফাবাসীর অনুরোধে নবীবংশের ধারক-বাহক হজরত হুসাইন (রা.) মদিনা মুনাওয়ারা থেকে রওনা হন।

কিন্তু আতঙ্কিত ক্ষমতালোভী এজিদ, ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার আশঙ্কায় নবী দৌহিত্র হজরত হুসাইন (রা.)-কে কারবালার ময়দানে প্রতিহত করে এবং তার ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার লক্ষ্যে হিংস্রতার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে নবী দৌহিত্রকে হত্যা করতেও তার হাত প্রকম্পিত হয়নি।

কারবালার এ হৃদয় বিদারক ঘটনা, মহিমাময় মহররম মাসের ঐতিহাসিক মহান আশুরার দিনে সংঘটিত হওয়ায় এতে ভিন্নমাত্রা যোগ হয়েছে। এতে শাহাদাতের মাহাত্ম্য যেমন বহু গুণে বেড়েছে, তেমনি আশুরা পেয়েছে ইতিহাসের নতুন পরিচিতি। হুসাইনি কাফেলা যখন কারবালায় অবস্থান করছে, তখন তাদের পানির একমাত্র উৎস এই ফুরাত নদী, যা ওবায়দুল্লাহ ইবনে জিয়াদ বাহিনী ঘিরে রাখে, অবরুদ্ধ করে রাখে নিরস্ত্র অসহায় আহলে বাইতকে, এ নদী থেকে পানি সংগ্রহ করতে গেলে ফুলের মতো নিষ্পাপ দুগ্ধপোষ্য শিশুপুত্র আলী আসগার এক ফোঁটা পানির জন্য সীমার বাহিনীর তীরের আঘাতে নির্মমভাবে শহীদ হন।

সেদিন ফোরাতকূলে পানি পানি বলে অবর্ণনীয় মাতম উঠেছিল। সত্য ও ন্যায়ের ওপর প্রতিষ্ঠিত কারবালার প্রান্তরে প্রতারিত নির্মম নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হোসাইনি কাফেলা বিশ্ব মুসলিম ইতিহাসে চির স্মরণীয় ও বরণীয় এবং কুচক্রী, ক্ষমতালোভী, স্বৈরাচারী এজিদ বাহিনী চির কলঙ্কিত ও ঘৃণিত।

প্রতিটি মহররম ও আশুরা আমাদের সত্য ও ন্যায়ের ওপর দৃঢ়পদ থাকার মাহাত্ম্য স্মরণ করিয়ে দেয়। ইসলামী জীবনযাপনে সঠিক শিক্ষা ও আত্মমর্যাদাবোধ জাগ্রত করে, ভয়কে জয় করে নিজের জীবন উৎসর্গ করে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য সহজ, সুন্দর ও নিরাপদ সমাজ বিনির্মাণে কারবালা উদ্বুদ্ধ করে।

আল্লাহুম্মা আমীন।


আরও খবর

ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবন-বিধান

শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

শিরক থেকে দূরে থাকতে হবে

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




শীর্ষ সন্ত্রাসী সাবেক ছাত্রদলের সভাপতি জাকির খান বিদেশি পিস্তলসহ গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ঃ

পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী সাবেক ছাত্রদলের সভাপতি জাকির খান বিদেশি পিস্তলসহ গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী জাকির খানকে বিদেশী পিস্তলসহ গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১১। শনিবার দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান র‍্যাব- ১১ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল তানভীর মাহমুদ পাশা। 

র‍্যাব জানায়, নারায়ণগঞ্জের একসময়কার শীর্ষ সন্ত্রাসী, একচ্ছত্র, ক্ষমতার অধিকারী আন্ডার ওয়ার্ল্ড এর গডফাদার এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যপক আলোচিত নাম জাকির খান। যার নামে ০৪টি হত্যাসহ অসংখ্য মামলা রয়েছে এবং বিভিন্ন সময়ে তিনি এসকল মামলায় জেল খাটেন। জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তিনি আরও দুর্ধর্ষ হয়ে ওঠেন। এসময় তিনি নারায়ণগঞ্জ এর দেওভোগ এলাকায় বিশাল সন্ত্রাসী বাহিনী ও মাদকের সাম্রাজ্য গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে দেওভোগ এলাকার অপর শীর্ষ সন্ত্রাসী দয়াল মাসুদকে শহরের সোনার বাংলা মার্কেটের পিছনে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করে শহরের ত্রাস হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠেন। সর্বশেষ ২০০৩ সালে সাব্বির আলম হত্যাকান্ডের পরে তিনি দেশ ছেড়ে থাইল্যান্ডে পাড়ি জমান। এ সময়ে বিভিন্ন মামলায় বিজ্ঞ আদালতে জাকির খান দোষী সাব্যস্থ হলে বিজ্ঞ আদালত তাকে সাজা প্রদান করেন। এর পর থেকেই গ্রেফতার এড়াতে জাকির খান দেশের বাইরে অবস্থান করছিলেন। 

র‍্যাব আরও জানায়, ৩ সেপ্টেম্বর রাতে র‍্যাব -১১ এর নারায়ণগঞ্জের একটি বিশেষ অভিযানে ডিএমপি ঢাকার ভাটারা থানার বসুন্ধরা এলাকা থেকে ১টি বিদেশী পিস্তলসহ নারায়ণগঞ্জের শীর্ষ সন্ত্রাসী ও সাব্বির হত্যা মামলার অন্যতম আসামি জাকির খানকে গ্রেফতার করা হয়। 

প্রাথমিক অনুসন্ধান ও আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, জাকির খানের বিরুদ্ধে ১৯৯৪ সালে সন্ত্রাসমূলক অপরাধ দমন বিশেষ আইনে মামলা দায়ের করা হয়। উক্ত মামলায় আসামি জাকির খানের ১৭ বছরের সাজা হয়। পরবর্তীতে উচ্চ আদালতে তার সাজা কমে ৮ বছর হলেও তিনি গ্রেফতার এড়াতে দেশে ও বিদেশে প্রায় ২১ বছর পলাতক ছিলেন। মূলত ২০০৩ সালে সাব্বির আলম হত্যা মামলায় আসামি হলে তিনি আত্মগোপনে চলে যান। 

তাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তিনি দীর্ঘ দিন থাইল্যান্ডে আত্মগোপনে ছিলেন এবং সম্প্রতি ভারত হয়ে তিনি বাংলাদেশে আসেন। এরপর থেকে তিনি পরিচয় গোপন করে ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় স্বপরিবারে বসবাস করছিলেন। গ্রেফতারকৃত জাকির খানের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানায় র‍্যাব।


আরও খবর



ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

মোঃ মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জঃ

বৃষ্টি ও বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের বর্ধিত সভাপতি অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

১৩ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) দুপুরে ইটনা উপজেলা আ.লীগ কার্যালয়ে এ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইটনা উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরি কামরুল হাসান।ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পরিমল কুমার সাহার সভাপতিত্বে সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু। 

ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক বজলু মিয়ার পরিচালনায় আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য রাখেন ইটনা উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন ঠাকুর (খসরু),শহর কৃষকলীগের সভাপতি আলমগীর হোসেন,জেলা কৃষকলীগের সম্পাদক এস এম আলমগীর,ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি আবু বক্কর,শরিয়ত উল্লা,ইটনা সদর ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি মো:শাহজাহান প্রমুখ।

বর্ধিত সভায় ইটনা উপজেলা কৃষকলীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে প্রতিটি ইউনিয়ন সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়।


আরও খবর



কু‌মিল্লা চা‌ন্দিনায় গ্রামীণ অবকাঠামোর প্রকল্পের কাজ

লটারীর মাধ্যমে চেয়ারম্যান মেম্বারদের বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

নিজস্ব প্রতি‌বেদক , কু‌মিল্লা  :

গ্রামীণ অবকাঠা‌মো সংস্কার কা‌বিখা, কা‌বিটা ও গ্রামীণ অবকাঠা‌মো রক্ষণা‌বেক্ষণ টিআর কর্মসূচীর আওতায় প্রকল্প গ্রহণ প্রকল্প বাস্তবায়ন ক‌মি‌টি গঠন ও প্রকল্প বাস্তবায়ন বিষ‌য়ে এক মত‌বি‌নিময় অনু‌ষ্ঠিত হয়ে‌ছে। এ‌তে প্রধান অ‌তি‌থির বক্তব‌্য রা‌খেন কু‌মিল্লা ৭ চা‌ন্দিনার সংসদ সদস‌্য বীরমু‌ক্তি‌যোদ্ধা ডাঃ প্রাণ গোপাল দত্ত।           

                                          মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জেলার চা‌ন্দিনা উপ‌জেলার অ‌ডিট‌রিয়া‌মে দূ‌র্যোগ ব‌্যবস্থাপনা অ‌ধিদপ্ত‌রের আ‌য়োজ‌নে উপ‌জেলা নির্বাহী অ‌ফিসার তাপস চন্দ্র শীল এর সভাপ‌তি‌ত্বে অনু‌ষ্ঠিত মত‌বি‌নিময় সভায় বক্তব‌্য রা‌খেন চা‌ন্দিনা উপ‌জেলা চেয়ারম‌্যান বীরমু‌ক্তিযোদ্ধা তপন বকসী , পৌরসভার মেয়র শওকত আলী ভূইয়া, ম‌হিলা ভাইস চেয়ারম‌্যান সা‌ফিয়া আক্তার,প্রকল্প কর্মকর্তা দেবেস চন্দ্র দাস।  মত‌বি‌নিময় সভায় চ‌া‌ন্দিনা উপ‌জেলার ১৩‌টি ইউ‌নিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম‌্যান, মেম্বার ও পৌরসভার কাউ‌ন্সিলাররা অংশ নেন। প‌রে কোন রকম তদবির ও রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ছাড়াই   গ্রামীন অবকাঠামোর প্রকল্পের কাজ সরাসরি লটারীর মাধ্যমে চেয়ারম্যান মেম্বার ,কাউ‌ন্সিলদের বিতরণ করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত।  এসময় তিনি ব‌লেন জনগ‌ণের টাকায় যেন উন্নয়ন কর্মকান্ড গু‌লো টেকসই উন্নয়ন কর্মকান্ড প‌রিচালনার আহবান জানান।


আরও খবর



কুমিল্লায় এসএসসি পরীক্ষার্থী ১ লাখ ৮৯ হাজার ৬৬৪ জন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

কু‌মিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৬ জেলায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৮৯ হাজার ৬৬৪ জন। এর মধ্যে মেয়ে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৮ হাজার ১৪৫ জন এবং ছেলে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৮১ হাজার ৫২৯ জন। নোয়াখালী, ফেণী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২৭৪ টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই ৬ জেলার ১ হাজার ৭৬৭টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। এবছর এসএসসি’র জন্য ২ লাখ ২০ হাজার ২৮৮ জন রেজিষ্ট্রেশন করলেও পরীক্ষার জন্য ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৪৩ জন শিক্ষার্থী। ২০২১ সালে এসএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ২ লাখ ১৯ হাজার ৭০৪ জন।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে,   কুমিল্লা বোর্ডে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী কুমিল্লা জেলায়- ৬৫ হাজার ১৫৪ জন। এছাড়া নোয়াখালী জেলায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩২ হাজার ৮১৭ জন, ফেণী জেলায় ১৮ হাজার ৫৩৯ জন, লক্ষ্মীপুর জেলায় ১৬ হাজার ৭৫৮ জন, চাঁদপুর জেলায় ২৮ হাজার ১৮৫ জন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ২৮ হাজার ২১১ জন।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আবদুস ছালাম জানান, কুমিল্লা বোর্ডের এসএসসির সকল পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা সবাই যথা সময়ে পরীক্ষায় আসবেন বলেই আশা করছি।

এদিকে ২০২২ সালের কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৬ জেলায় এসএসসির জন্য রেজিষ্ট্রেশনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ২ লাখ ২০ হাজার ২৮৮ জন, এর মধ্যে পরীক্ষার জন্য ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৪৩ জন। রেজিষ্ট্রেশন করলেও পরীক্ষায় বসছে না প্রায় ৩৭ হাজার শিক্ষার্থী। এর মধ্যে মেয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ হাজারেরও বেশি। পরীক্ষায় না বসা বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই ঝরে গেছেন শিক্ষা জীবন থেকে। বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও স্কুল প্রধানরা বলছেন, মেয়ে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার মূল কারণ বাল্য বিবাহ, আর ছেলেরা ঝুঁকছে উপার্জনে। আর প্রত্যন্ত এলাকায় এই ঝরে পড়ার হার বেশি। ১৫ সেপ্টেম্ব থেকে শুরু হচ্ছে এবছরের এসএসসি পরীক্ষা।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোঃ আসাদুজ্জামান জানান,  পরীক্ষার জন্য ফম পূরণ না করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে সবাই শিক্ষা জীবন থেকে ঝরে পড়েছে এমন নয়, এর মধ্যে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় স্থানান্তরিত শিক্ষার্থীও রয়েছে। তবে বেশির ভাগই পড়াশুনা ছেড়ে দিয়েছেন এমন।

তিনি আরো বলেন, করোনা মহামারির পর যে বিষয়টি লক্ষ্যনীয় অর্থনৈতিক সংকটের কারণে অনেক শিক্ষার্থীকেই দেখা যাচ্ছে অষ্টম শ্রেণী পাশের সনদ দিয়ে কোন না কোন চাকরি খুজছেন। যে কারণে অনেকে রেজিষ্ট্রেশন করলেও পরীক্ষায় বসছে না।  আর মেয়ে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার মূল কারণ বাল্য বিবাহ।

১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষাবোর্ড থেকে প্রাপ্ত তথ্য সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে. কুমিল্লা ফেণী, নোয়াখালী, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবং লক্ষীপুর জেলায় এসএসসির জন্য মোট রেজিষ্ট্রেশনকারীর সংখ্যা ২ লাখ ২০ হাজার ২৮৮ জন। কিন্তু পরীক্ষার জন্য ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৪৩ জন। রেজিষ্ট্রেশন করলেও পরীক্ষায় বসছে না ৩৬ হাজার ৯৪৫ জন পরীক্ষার্থী। রেজিষ্ট্রেশন করা ৮৯ হাজার ৫৮১ জন ছাত্রের মধ্যে ফরম পূরণ করেছেন ৭৮ হাজার ৩৯৬ জন; ঝরে পড়েছে ১১ হাজার ১৮৫ জন। অপরদিকে রেজিষ্ট্রেশন করা ১ লাখ ৩০ হাজার ৭০৭ জন ছাত্রীর মধ্যে ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ৪ হাজার ৯৪৭ জন; এর মধ্যে ঝরে পড়েছে ২৫ হাজার ৭৬০ জন। পরিসংখ্যান বলছে, ছেলে শিক্ষার্থীদের চেয়ে মেয়ে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার সংখ্যা বেশি। ঝরে পড়া মেয়ে শিক্ষার্থীর হার ১৯ দশমিক ৭ শতাংশ এবং ছেলে শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার হার ১২ দশমিক ৪ শতাংশ।     

এদিকে ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে এসএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যাও কমেছে ৩০ হাজার, যদিও বোর্ড কর্তৃপক্ষ বলছে- অনিয়মিত পরীক্ষার্থী না থাকায় কমে এসেছে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো: আসাদুজ্জামান বলেন, ২০২১ সালের পরীক্ষা পদ্ধতিতে পাশের হার প্রায় শতভাগ থাকায় অকৃতকার্যের সংখ্যা নেই, যে কারনে এবছর অনিয়মিত হিসেবে পরীক্ষার্থী নেই।


আরও খবর

বিশ্বজয় করে দেশে ফিরল ক্ষুদে হাফেজ

শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




আমদানি শুল্ক কমলো চাল ও ডিজেলের

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর 20২২ |
Image

চাল ও ডিজেলের বাজার নিয়ন্ত্রণে আমদানি শুল্ক কমানো হয়েছে। রোববার এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় 

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সুগন্ধি চাল ছাড়া যে কোনও চাল আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। এ সুবিধা চলতি বছরের ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত বহাল থাকবে। অন্যদিকে আরেক প্রজ্ঞাপনে ডিজেলের আগাম কর অব্যাহতি ও আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। এই সুবিধাও আগামী ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। 


আরও খবর

পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে ২৪ জন নিহত

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবার ৩২ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা

রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২