Logo
শিরোনাম

ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআই’র অভিযান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই। সোমবার ফ্লোরিডায় ট্রাম্পের বিলাসবহুল মার-এ-লাগো রিসোর্টে এই অভিযান চালানো হয়েছে।

অভিযানের সময় সেখানে ছিলেন না সাবেক প্রেসিডেন্ট। ট্রাম্পের অভিযোগ, বিপুল সংখ্যক এফবিআই এজেন্ট তার বাড়িতে অভিযান চালাতে গিয়েছিলেন। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি মার্কিন বিচার বিভাগ। মুখ খোলেনি এফবিআইয়ের ওয়াশিংটনের সদর দপ্তর বা মিয়ামির ফিল্ড অফিসও। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার সময় হোয়াইট হাউজ থেকে কয়েকটি বাক্সে করে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সরকারি কাগজপত্র ফ্লোরিডায় নিয়ে গিয়েছিলেন, এমন অভিযোগের তদন্ত করতেই তার বাড়িতে গিয়েছিলেন এফবিআই এজেন্টরা।


আরও খবর

তেলের দাম কমে ৯ মাসে সর্বনিম্ন

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

মিয়ানমারে জান্তার গোলায় নিহত ২ শিশু

মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২




১০ দিন যাবৎ গ্যাস নেই শনির আখড়ায়

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

অন্যান্য বছর শীতে গ্যাস সঙ্কট তীব্র হলেও এবার শীতের আগেই রাজধানীতে গ্যাস সঙ্কট তীব্র হচ্ছে। রান্নার জন্য গভীর রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে অনেক এলাকায়।

গত কয়েকদিন ধরেই রাজধানীর মিরপুরের ১১, ১২ কালশী, লালমাটিয়া; যাত্রবাড়ি, শনির আখড়া, বনশ্রী, মান্ডা, মোহাম্মদপুর বেড়ীবাধ ও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় সংকট তীব্র হচ্ছে। শিল্প কারখানায় গ্যাসের অভাবে উৎপাদন কমছে। গ্যাসের চাপ না থাকায় সিএনজি স্টেশনেও দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয় বিভিন্ন পরিবহনকে। এমন পরিস্থিতিতে গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলো বলছে, সঞ্চালন কোম্পানি গ্যাস কম দিতে পারায় সরবরাহও কমেছে। এছাড়া পুরোনো লাইনের কারণেও বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ কমেছে।


আরও খবর

এক এনআইডিতে ১৫টির বেশি সিম নয়

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে শেখ হাসিনাকে গার্ড অব অনার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে, দেশটির রাষ্ট্রপতি ভবনে গার্ড অব অনার দেয়া হয়েছে। এ সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেখানে উপস্থিত ছিলেন। দুপুরে, দু'দেশের প্রধানমন্ত্রী দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে বসবেন।

এর আগে সকালে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, রাষ্ট্রপতি ভবনে পৌঁছালে তাকে আনুষ্ঠানিক অভ্যর্থনা জানানো হয়। এ সময় তাকে শুভেচ্ছা স্মারক উপহার দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। পরে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সেখানকার স্মারক বইয়ে সাক্ষর করেন প্রধানমন্ত্রী। এদিকে বাংলাদেশ সময় বেলা বারোটায়, ভারতের রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন হায়দ্রাবাদ হাউজে, বৈঠকে বসবেন দু'দেশের প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকে, কুশিয়ারা নদীর পানি বন্টনসহ ৭টি চুক্তি ও সমঝোতা সই হবার কথা রয়েছে। এছাড়া বিকালে, রাষ্ট্রপতি ও উপ রাষ্ট্রপতির সাথে, সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 


আরও খবর

এক এনআইডিতে ১৫টির বেশি সিম নয়

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




দিল্লিতে আমাদের নামও পরিবর্তন করতে হয়েছিল' -শেখ রেহানা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

সেই সময়ে আমাদের পরিবার...

সকাল বেলায় আব্বা বাইরে থেকে মর্নিং ওয়াক করে আসতেন। আমাদের ৩২ নম্বরের যে বারান্দাটা আমরা ওখানে, আব্বা ইজি চেয়ারে আর সব মোড়ায়। টোস্ট বিস্কুট চা নিয়ে আমরা সবাই খবরের কাগজ পড়ে যার যার স্কুল-কলেজে যেতাম। এই জিনিসটা আমরা ওই যে একটা পরিবেশের মধ্যে বড় হওয়া। ওখান থেকে আর বের হইনি। কামাল ভাইয়ের সবচেয়ে প্রিয় ছিলাম আমি। মায়েরও। শেকড়টা আমরা ভুলব না। আমাদের বাড়ি টুঙ্গিপাড়া। আমি যে একটা গ্রামের মেয়ে সেটি বলতে খুব গর্ববোধ করি।


গণভবন প্রসঙ্গ...

গণভবনটাও আমাদের অনেক স্মৃতির। আমরা থাকিনি এখানে। আমরা কোনো ভাইবোনই সেখানে থাকতে চাইনি। জানি না থাকলে অন্যদিক থেকে ভালো হতো কী খারাপ হতো। মা থাকতে চাননি ৩২ নম্বরের বাড়ি রেখে। কামাল ভাই থাকবে না। আপা থাকবে না। আমি না। জামাল, রাসেল না। আব্বা বলতেন যে, তোমরা থাকবে না। তাহলে আমি কেন শুধু এখানে থাকব?

দাদার নাতবউ...

আমার দাদার খুব শখ ছিল নাতির বউ দেখবে। কামাল ভাই তখন যুদ্ধ থেকে এলেন। আমরা খুকী আপার ভক্ত ছিলাম। মেঝো ভাইয়ের রুমে বিশাল একটা ছবি ছিল স্পোর্টসের। ওরা একসঙ্গে প্র্যাকটিস করত। মাকে বললাম। মা বলল, হ্যাঁ, ঘরের বউ খেলবে লোকে কী বলবে। তো মা চুপচাপ। আমরা কয়েক ভাইবোন তাকে বললাম, মা এত ভালো একটা বউ। তুমি যার কাছ থেকেই নাও, এ মেয়ে কিন্তু পাবে না। মা বলল, কামাল কী বলে। কামাল যদি বলে তাহলে আমি রাজি। বললাম, তবে মা। বিয়ের পর কিন্তু খেলতে দিতে হবে। তখন বলতে পারবে না, ঘরের বউ খেলতে পারবে না। বলছে না, বলব না।

বেলজিয়াম-জার্মানি...


মাকে বললাম- মা, আপা (জার্মানি) যাবে জয় পুতুলকে নিয়ে কষ্ট হবে। আমি গেলে একটু সাহায্য হবে। মা আব্বাকে বলল, ঠিক আছে ও যাক হাসুর সঙ্গে। ক'দিন পর চলে আসবে। এই আমাদের যাওয়া। ১৪ আগস্ট রাতে ক্যান্ডল লাইট ডিনার। ব্রাসেলসে এই বয়সে ক্যান্ডল লাইট ডিনার। মেয়েরা সব আমার বয়সী, আমরা খুব হাসাহাসি গল্প। দুলাভাই এসে আমাদের খুব বকলেন। যে কান্না আছে। এত হাসি। বললাম, আপনি ঘুমাতে পারেন না। উনি যত বকে আমরা তত হাসি। কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মানুষের যে পরিবর্তন। ক্যান্ডল লাইট ডিনার থেকে আমাদের বের করে দেয় এ রকম অবস্থা।

আপা ভাবছে আমি জানি না। আমি ভাবছি আপা জানে না। জানি তো দু'জনেই। বাংলাদেশে বাঙালিরা আমার বাবাকে মারবে, এটা তো ধারণারও বাইরে ছিল। ৩২ নম্বরে হৈচৈ, একটা পলিটিক্যাল বাড়ি। টুঙ্গিপাড়ায় ওই আমাদের দাদাবাড়ি আর সেখানে ছোট্ট একটা বাসার মধ্যে দুইটি রুম। ওখানে গিয়ে তো দুই বোন একটা কিসের মধ্যে পড়লাম আমরা। কিচ্ছু বুঝি না। কিচ্ছু করি না। কী খাব। কই যাব। আল্লাহর একটা রহম আমাদের ওপর যে, আমাদের পাগল বানিয়ে রাস্তায় ফেলেনি। আপা কান্নাকাটি করে এই পাশে, আমি ওই পাশে। দুটি বাচ্চা জয়-পুতুলই ছিল আমাদের সান্ত্বনা।


দিল্লিতে...


আমরা অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকতাম যে, একটা সাইকেলের ওপর চারটা গ্যাস সিলিন্ডার। একটা মোটরসাইকেলের ওপর সামনে একটা বাচ্চা, হাসবেন্ড-ওয়াইফ, আরেকটা বাচ্চা। তারপর ব্রিফকেস একটা। জানালা দিয়ে ওই বসে বসে দেখতাম। আরেকটা কথা কখনও বলিনি। ৪০ বছর হয়ে গেছে, এখন বলা যায়। দিল্লি থাকাকালীন আমাদের নামও পরিবর্তন করতে হয়েছে। মিস্টার তালুকদার, মিসেস তালুকদার, মিস তালুকদার আশপাশে যেন কেউ না জানে। আমি বলি, এটা কী ব্যাপার। দেশ ছাড়া, বাড়ি ছাড়া, বাপ-মা ছাড়া। আবার নামও বদলাব? দরকার নাই আমি থাকব না এখানে। কিন্তু তখন উপায় নাই তো। সবসময় রাগ-অভিমান আর হুট করে কোনোকিছু করা যায় না। মানে দিন কাটে না, রাত কাটে না। আমার খোকা চাচা লন্ডন থেকে চিঠি লিখতেন। চিঠি আসতে লাগত এক সপ্তাহ। আমরা দুটি বোন জানালা দিয়ে তাকিয়ে থাকতাম পোস্টম্যান কখন আসবে। চাচার চিঠিগুলো পড়ব।

আপা লিখতেন বসে বসে। আজকে চিনি অতটুকু, বিস্কুট অতটুকু, সুজি অতটুক। ওপর পাশেই আমার লেখা। আল্লাহ তুমি কেন আমাদের বাঁচিয়ে রেখেছো জানি না। কিন্তু এই খুনিদের ধরব, বিচার করব ইনশাল্লাহ। তারিখ দিয়ে লেখা। তো আপা সেদিন আমাদের দেখালেন। এই দেখো।

মা-আপা...


বাংলাদেশের জনগণ যেখানে যে আছে। নির্যাতিত-নিপীড়িত দুঃখী মানুষ। তারা তো বঙ্গবন্ধুকে, তার অভাবটাকে দেখতে পাচ্ছে। আমরা বাবা হিসেবে পাচ্ছি। আমাদের তার থেকে বেশি ক্ষতি হয়ে গেছে মা চলে যাওয়াতে। আপা (হাসিনা) ইউনিভার্সিটিতে যাবেন, কোন শাড়ি পরবেন- সেটা মা রেডি করে দিত। এসে খাবার ফাঁকি দিয়ে ঘুম। আমি শুধু চিন্তা করি, মাকে যদি বলতে পারতাম যে, মা তোমার হাসু এখন আর আলসেখানায় থাকে না। মাকে না বলা পর্যন্ত আমাদের শান্তি নেই। এখন আমার মনে হয় দৌড় দিয়ে যদি বনানীতে গিয়ে মাকে একটা চিঠি লিখে পাঠাতে পারতাম বা আব্বাকে পাঠাতে পারতাম। এগুলো খুব অনুভব করি।


-শেখ রেহানা

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা


আরও খবর



সুনামগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি দুই মেয়ে, বাড়িতে ৪ গরু চুরি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

শফিউল আলম,স্টাফ রিপোর্টার:

'মরার উপর খাড়ার ঘা' সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুই মেয়ে বাড়িতে ৪ গরু চুরির এমনই ঘটনা ঘটেছে 

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নে রামজীবনপুর গ্রামে। ১৫ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে হতদরিদ্র কৃষক

 বোরহান উদ্দিন'র ৪ টি গরু চুরি হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,বোরহান উদ্দিনের পরিবারের ২ জন সদস্য সহ গ্রামের দু'পরিবারের ৭ জন মানুষ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে  সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।এদিকে বাড়ি খালি থাকায় বোরহান উদ্দিন'র প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ৪ টি গরু চুরি হয়েছে।রামজীবনপুরের রিয়াদ তালুকদার বলেন, বোরহান উদ্দিন উনার পরিবারের দুই সদস্য সহ গ্রামের ৭ জন মানুষ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তারা আমার আত্মীয় স্বজন,  গ্রামের মানুষ তাই ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে সার্বক্ষণিক তাদের পাশে মেডিকেলে আছি।

গরু চুরির ঘটনা শোনার পর অত্যন্ত মর্মাহত হয়েছি।দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলী আহমদ মুরাদ ঘটনার সত্যতা জানিয়ে বলেন, বোরহান উদ্দিন'র ২ জন মেয়ে অসুস্থ পানিবাহিত রোগ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে তাদের কে নিয়ে স্ব-স্ত্রীক সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে রয়েছেন। 

এমতাবস্থায় বাড়ি খালি পেয়ে চোর তার দুটি ষাঁড়ও একটি গাভী বাছুর সহ নিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, ইতিপূর্বে চুরি সংক্রান্ত বিষয়  মাসিক উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা মিটিংয়ে উত্থাপন করেছি  কিছুদিন চুরি-চামারি  বন্ধ ছিল এখন আবার শুরু হয়েছে। 

চুরি সহ সব ধরনের অপরাধ দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আহ্বান জানান তিনি।


আরও খবর

ফকিরহাটের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




রাঙ্গামাটির সাফ বিজয়ী রুপনা চাকমার পরিবার

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নতুন ঘর পাচ্ছেন

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ |
Image

 উচিংছা রাখাইন কায়েস,রাঙ্গামাটি ঃ

-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাফ উইমেন্স চ্যাম্পিয়ানশিপ, ২০২২ এর শিরোপা বিজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের একজন গর্বিত সদস্য রুপনা চাকমার জন্য তার নিজ শহর রাঙ্গামাটিতে একটি ঘর নির্মাণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। বাংলাদেশ সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশীপের ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম৭78± সম্মেলনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রুপনা চাকমার জীর্ণ কুটিরের ছবি ভাইরাল হলে তা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এবং তিনি এই নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান-যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থারত প্রধানমন্ত্রী রুপনা চাকমার ঘর নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন। রুপনা চাকমা সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের সেরা গোলরক্ষক হয়েছেন।

এব্যপারে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী সেরা গোলকিপার রুপনা চাকমার বাড়ি তৈরি করে দেয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি জানান, নির্দেশনা পেয়েই আমরা কাজ শুরু করেছি। আমি ইতোমধ্যে নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশনা দিয়েছি। বুধবার বিকালে এলজিইডির প্রকৌশলী নিয়ে ঘর নির্মাণের বিষয়ে সরেজমিন দেখে আসবেন। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা এটি করে দিতে পারবো।

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ফজলুর রহমান জানান, দুপুরে জেলা প্রশাসক প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার বিষয়ে জানান। নির্দেশনা অনুযায়ী এলজিইডি প্রকৌশলীকে নিয়ে রুপনা চাকমার বাসায় দিয়ে ঘরের বিভিন্ন স্থান ও জায়গা পরিদর্শন করেছি। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে পারবো। আগামী এক মাসের মধ্যেই কাজ সম্পন্ন করার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ইউএনও।

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলার দুর্গম ভুঁইয়া আদাম গ্রামে রুপনা চাকমার বাড়ি। সাফজয়ী বাংলাদেশ দলের আরেক গর্বিত সদস্য ঋতুপর্ণা চাকমার বাড়ি কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়নের মগাছড়ি গ্রামে। রাঙ্গামাটি জেলার দুই ফুটবলারের কীর্তিতে আনন্দের জোয়ার বইছে পুরো রাঙ্গামাটি জুরে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) নেপালের কাঠমান্ডুতে নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছেন বাংলাদেশের ফুটবল দল। খেলায় সেরা গোলরক্ষকের স্বীকৃতি পেয়েছেন রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের বাসিন্দা বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের গোলরক্ষক রূপনা।


আরও খবর

ফকিরহাটের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২