Logo
শিরোনাম
লালমনিরহাট ১৫ বিজিবির সীমান্তে

ভারতীয় বিএসএফর গুলিতে ২ জন বাংলাদেশী রাখাল নিহত

প্রকাশিত:Wednesday ০৯ November ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ

লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) এর অধিনস্থ লোহাকুচি বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকার সীমান্ত পিলার ৯২১ হতে ৯২২ পর্যন্ত একটি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা। গত বছরে উক্ত এলাকায় একটি সীমান্ত দুঘর্টনা সংগঠিত হয়েছিল। বর্ণিত ঘটনার পর হতে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে সম্পৃক্ত করে জনসাধারণের মধ্যে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা এবং সীমান্ত হত্যা প্রতিরোধে লিফলেট বিতরণ করা সহ এছাড়াও বিওপিতে জনবল বৃদ্ধি করে উক্ত এলাকায় টহল কার্যক্রম জোরদার করে আসছে।  তার পরেও  বিজিবি টহলদল গুলির শব্দ শুনতে পায় কিন্তু টহলদল উক্ত এলাকা তল্লাশী করে কাউকে খুঁজে পায়নি। পরবর্তীতে আনুমানিক ০৪০০ ঘটিকায় লোহাকুচি বিওপি কমান্ডার স্থানীয় সুত্রে জানতে পারে টহলরত বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে একদল চোরাকারবারী গরু চোরাচালানের চরকিসহ অন্য এলাকা দিয়ে সীমান্ত পিলার ৯২১/৬-এস হতে ১০০ গজ ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে চরকি স্থাপন করে গরু পারাপারের চেষ্টা করলে ৭৫ ব্যাটালিয়ন বিএসএফ এর কৈমারী ক্যাম্পের টহল দলের গুলিতে ০২ জন বাংলাদেশী নাগরিক গুরুত্বর আহত হয়। আহত চোরাকারবারীদের সাথে থাকা অন্য চোরাকারবারীরা তাদেরকে উদ্ধার করে নিজ বাড়ীতে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে নিজ বাড়ীতে অবস্থানকালে মৃত্যুবরণ করে। নিহতরা হলেন  লালমনিরহাট জেলার (১) মোঃ ওয়েস কুরনী (৩৫), পিতা-মৃত সানোয়ার হোসেন, গ্রাম-মহিষতলী (২) মোঃ আয়নাল হক (৩৫), পিতা-সাদেক আলী, গ্রাম- তালুক দুলালী গ্রামে । সংবাদ পেয়ে বিজিবি টহলদল নিহতদের বাড়ীতে আসে এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করে। উক্ত ঘটনায় কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের আহবান করা হয়েছে এবং ব্যাটালিয়ন কমান্ডার পর্যায়ে প্রতিবাদলিপি প্রেরণের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন জানিয়ে মোবাইল ফোনে ৭১ টিভিকে নিশ্চিত করেন ১৫ বিজিবির হাবিলদার মেজবা উদদীন । এ বিষয়ে ১৫ বিজির সিও লে: কর্নেল তৌহিদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও এ বিষয়ে আর কোন কথা হয়নি। তবে আদিতমারি থানা পুলিশ প্রাথমিকভাবে লাশ দুটি ময়না তদন্তের জন্য আদিতমারি থানা নিয়ে যান ।ওসি মোক্তারুল জানান, ময়না তদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে।


আরও খবর



শীত আরও বাড়বে, হতে পারে শৈত্যপ্রবাহ

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

দেশের বিভিন্ন স্থানে তাপমাত্রা কমেছে, কিছুটা বেড়েছে শৈত্যপ্রবাহের আওতা। ১৬ জানুয়ারি তাপমাত্রা কমার ধারা অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। একই সঙ্গে শৈত্যপ্রবাহের আওতা আরও বাড়তে পারে।

সোমবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল দিনাজপুরে। আর রোববার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজকে তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম জানান, সোমবার সকালে দিনাজপুর, সৈয়দপুর, পঞ্চগড়, নীলফামারী ও মৌলভীবাজার জেলার ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা বিস্তার লাভ করতে পারে।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে তিনি বলেন, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।


আরও খবর

সুখবর নেই বাজারে

Saturday ০৪ February ২০২৩




এ বছর হজে যেতে পারবেন গত বছরের দ্বিগুণ

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান জানিয়েছেন, ২০২৩ সালে দেশের সম্ভাব্য হজযাত্রীর কোটা ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। ২০০৯ সালে এ হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৬২৮ জন।

রবিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তোর পর্বে এম আব্দুল লতিফের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

প্রশ্নের উত্তরে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৬২৮ জন, ২০১৯ সালে বেড়ে হয় এক লাখ ২৬ হাজার ৯২৩ জন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে ২০২২ সালে হজযাত্রীর সংখ্যা কমে দাড়ায় ৬০ হাজার ১৪৬ জনে।

তিনি আরও বলেন, চলতি ২০২৩ সালে হজযাত্রীর সম্ভাব্য কোটা বেড়ে হচ্ছে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। ২০০৯ এর তুলনায় এই সংখ্যা ১৪৮ শতাংশ বেশি। এটি সরকারের সাফল্যের একটি মাইলফলক।


আরও খবর

বিশ্ব ইজতেমা শুরু

Friday ১৩ January ২০২৩




মৃত্যুর পরও অমর সারাহ ইসলাম

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image
রোকসানা মনোয়ার :সারাহ ইসলাম, বয়স মাত্র ২০। দশ মাস বয়সে তার ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। মেয়েকে সুস্থ করে তুলতে দীর্ঘ ১৯ বছর সংগ্রাম করেছেন তার বাবা মা। দেশে বিদেশে নানা রকম চিকিৎসাতেও কোন কাজ হয়নি। ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন; সদ্য জীবন শুরু করা ফুটফুটে এই মেয়েটি। বাবা মাকে সারাহ অনুরোধ করেছিলেন; মৃত্যুর পর তার দেহটি যাতে মানুষের কল্যানে দান করা হয়।
বুধবার রাত ১০টায় সারাহ মারা যান। তার দুটি কিডনী ও চোখের দুটি কর্নিয়া সরিয়ে নিয়ে প্রায় সাথে সাথেই চারজন মানুষের দেহে প্রতিস্থাপন করেন ডাক্তাররা। রাত ১০টা থেকে টানা ভোর পর্যন্ত চলেছে এই অস্ত্রপচার। চারজন রোগীই সুস্থ আছেন। এটি হয়তো দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার এগিয়ে যাওয়ার চিত্র। কিন্তু আমি বিস্মিত অন্য কারনে।
মৃত্যুর মতো একটি কঠিন সত্যকে মেনে নিয়ে; এমন আত্মত্যাগের জীবন গড়তে কে তোমাকে শেখালো মা ? এই সার্থপর সমাজ, চারপাশে লোভের-লাভের এতো এতো প্রতিযোগিতা; এই নষ্ট সময়ে তুমি এক তরতাজা ফুল।
স্যালুট তোমাকে মা। স্যালুট তোমার মতো বীরকন্যার জন্মদাত্রী মাকেও। যে কিনা এমন একটা পবিত্র সৌরভের জন্ম দিয়েছে।

মৃত্যুতেও অমর একজন সারাহ ইসলাম । দূরারোগ্য রোগের সাথে লড়াই করে নিজে হার মানলেও, কিডনি ও কর্নিয়া দান করে নতুন জীবন দিয়েছেন চারজনকে। সারাহর অঙ্গ নেয়া চার রোগীই এখন সুস্থ আছেন। সাহসিকা সারাহর গল্প জানালেন তার মা ।

পাঁচ বছর যাবত বোনের চিকিৎসা খরচ জোগাতে গিয়ে যখন প্রায় নি:স্ব শাহাজাদা আহমেদের পরিবার তখন সারাহ ইসলাম এসেছেন জীবনের বাক বদলকারী হিসেবে। শাহাজাদা ফিরে পেয়েছেন তার বোনকে আর দশ বছরের ছোট্ট সন্তানের কাছে তার মাকে ফিরিয়ে দিয়েছে সারাহর দান করা কিডনী।

বলছি সেই ২০ বছরের সারাহর কথা। মাত্র দশ মাস বয়স থেকেই লড়েছেন টিউবেরাস স্কেলোসিসের মত দুরারোগ্য ব্যাধির সাথে।এবার ব্রেনে বাঁধা বেসেছিলো টিউমার। হয়তো বুঝতে পরেছিলেন লড়াইয়ে এবার ফিরে নাও আসতে পারেন। মৃত্যুর পরও নিজেকে বিলিয়ে বাঁচতে চেয়েছেন সারাহ। মস্তিস্ক যখন আর সারা দিচ্ছিলো না তখন সারাহর দুই কিডনী আর চোখের কর্ণিয়া নতুন করে বাঁচার আশা যুগিয়েছে চার চারটা মানুষকে।

বড় আঁকিয়ে হবেন একদিন, এমন স্বপ্ন ছিলো সারাহর চোখে। জীবন তাকে সেই সময়টুকু না দিলেও মৃত্যুতেও থমকে যাননি সারাহ! এমন সাহসী আর মানবিক মেয়েই তো চেয়েছিলেন মা শবনম।

বিখ্যাত কেউ নন কিন্তু তারপরও এমন সিলিউট থেকে সারাহ ইসলামকে চিনে নিতে আর কষ্ট হয় না। তার এই দেখিয়ে যাওয়া পথে যেদিন এমন আরও অনেক মৃত্যুঞ্জয়ের কাহিনীযুক্ত হবে সেই দিনের অপেক্ষায় সারাহর পরিবার।




আরও খবর



নওগাঁয় র‌্যাবের অভিযানে ১ হাজার ৫০ লিটার মদসহ একজন আটক

প্রকাশিত:Sunday ২৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

নওগাঁয় র‌্যাবের অভিযানে ১ হাজার ৫০ লিটার চোলাই মদ সহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদককে জানানো হয়, 

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকশ অপারেশনাল দল কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা এর নেতৃত্বে শনিবার ২৮ জানুয়ারি দিনগত রাত ৯ টারদিকে নওগাঁর বদলগাছী থানাধীন মথুরাপুর ইউপির কাষ্টগ্রাম বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১ হাজার ৫০ লিটার চোলাই মদ সহ গজেন সরদার (৫০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী গজেন সরদার নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার কাষ্টগ্রাম বাজার এলাকার মৃত রবি সরদার এর ছেলে।

অভিযানে চোলাই মদ রাখার কাজে ব্যবহারীত ২ টি প্লাস্টিক ড্রাম, ৬ টি অর্থিং পাত্র, ৫ টি প্লাস্টিকের জারিক্যান, ৬ টি প্লাস্টিকের বালতি ও ১০ টি প্লাস্টিকের কন্টিনার সহ চোলাই মদ উদ্ধার সহ মাদক ব্যবসায়ী গজেন সরদার কে হাতেনাতে গ্রেফতার করেন বলেও নিশ্চিত করেছে র‌্যাব।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উক্ত ধৃত আসামী দীর্ঘদিন যাবৎ নেশা জাতীয় চোলাই মদ অবৈধভাবে উৎপাদন করে নওগাঁ জেলার বিভিন্ন স্থানে মাদকসেবী ও মাদক কারবারীদের নিকট সরবরাহ করে আসছিল বলে শিকার করেছেন র‌্যাবের কাছে।

এব্যাপারে নওগাঁর বদলগাছী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুসারে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদক কে নিশ্চিত করেছে র‌্যাব।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে বিএনপির সভায় ড. আসাদুজ্জামান রিপন

দেশ তো খাদের কিনারে নাই খাদের মধ্যে পরে গেছে

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল :


বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল - বিএনপির নির্বাহী কমিটির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, নির্বাচন ব্যবস্থা, অর্থনৈতিক ব্যবস্থার পরিবর্তন করতে হবে, দেশে এখন তো একটি ভালো সরকার দরকার।

আজ সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের একটি কমিউনিটি সেন্টারে বিএনপির ঘোষিত যুগপৎ আন্দোলনের ১০ দফা ও রাষ্ট্র কাঠামোর মেরামতের রূপরেখা ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, দেশের দুর্দশা যারা তৈরী করেছে, যারা এই দুর্দশার জন্য দায়ী তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছি তাঁদেরকে ক্ষমতা থেকে নামাতে হবে। ক্ষমতা থেকে নামতে বললেই বলেন ষড়যন্ত্র করছি, তা আপনি কোন যন্ত্র নিয়ে বসে আছেন, ইভিএম যন্ত্র নিয়ে ক্ষমতায় থাকবেন আর আমরা আন্দোলনের কথা বললেই বলেন ষড়যন্ত্র এটাতো হতে পারেনা।

তিনি আরও বলেন, আমাদের একটা তত্ত¦াবধায়ক ব্যবস্থা আসা দরকার। আমার দেশের মানুষ যদি পছন্দ করে তত্ত¦াবধায়ক সরকার, তারা যদি মনে করে তত্ত¦াবধায়ক সরকার ব্যবস্থায় তারা খুশি তাহলে তত্ত¦াবধায়ক সরকার ব্যবস্থায়ই তো আমরা ইলেকশন করবো। আর ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেন যে পৃথিবীর কোন সভ্য দেশে নাকি তত্ত¦াবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নেই, তো পৃথিবীর অন্য সভ্য দেশের মত আপনারা কি সভ্য কাজ করেন?

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান এর সভাপতিত্বে, সদস্য সচিব আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মাশুকুল ইসলাম রাজীব, রহিমা শরীফ মায়া, দিলারা মাসুদ ময়নাসহ অনেকে।


আরও খবর