Logo
শিরোনাম

যোগাসনে ব্যায়াম হবে পুরো শরীরের

প্রকাশিত:Monday ১২ September ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

সূর্য নমস্কার একটি যোগব্যায়াম। সূর্য নমস্কার একটি হাই ইন্টেনসিটি ওয়ার্কআউট। শুধু ওজন কমাতেই নয়, নিয়মিত করলে রক্ত সঞ্চালন ও কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে থাকে। একইসঙ্গে কমবে স্ট্রোকের আশঙ্কা।

চলুন আসনটি শুরু করি : সূর্য নমস্কার করলে গোটা শরীরের ব্যায়াম হয়। প্রথম প্রথম ৫ বার করবেন। ধীরে ধীরে সংখ্যা বাড়াবেন। প্রথমে এটি করলে পেশি ও নার্ভ ব্যথা হতে পারে। পরে স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

পোজ-১ : প্রথমে ইয়োগা ম্যাটে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে সূর্যকে প্রণামের মতো হাত দুটো তুলে সূর্য নমস্কারের জন্য শরীরকে প্রস্তুত করুন। এটি করলে মন ও শরীর শান্ত হবে।

পোজ-২ : এবার দুই হাত মাথার ওপর তুলে টান টান করুন। ওপরের ছবিতে দেখানো হয়েছে। এটা করলে শরীরে রক্ত চলাচল বাড়িয়ে শরীর চাঙ্গা হবে।

পোজ-৩ : মাথার ওপর হাত দুটো এবার ধীরে ধীরে সামনের দিকে ঝুঁকে পায়ের আঙুল ছোঁয়ার চেষ্টা করুন। এটির ফলে পা ও পেটের পেশির উন্নতি ঘটিয়ে শরীরকে চনমনে করে তুলবে। একইসঙ্গে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বাড়বে।

পোজ-৪ : এবার বাম পা ও দুই হাত সামনে রেখে অশ্বারোহী মতোন করুন। ছবির ভঙ্গির মতন। কিছুক্ষণ এভাবে অবস্থানের পর দুই পা পেছনে ঠেলে দিন। হাত দুটো কিন্তু সামনের স্থানেই থাকবে। এভাবে করলে গোটা শরীর সুস্থ হয়ে ওঠবে। শুধু তাই নয়, ভেরিকোস ভেনের মতো রোগ সারাতে সহায়ক এ পোজটি।

পোজ-৫ : পুরো শরীর মাউন্টের মতোন করুন। এই ভঙ্গিটি করলে কাঁধ এবং বুকের ওপরও জোর পড়ে তাই ফিগার সুন্দর হয়।

পোজ-৬ : মুখের থুঁতনি ইয়োগা ম্যাটের সঙ্গে লাগিয়ে পুশআপের মতো করুন। যেমন ছয় নম্বর ছবির ভঙ্গিটি। এটি করলে বুক, হাত এবং পা চাঙ্গা হয়ে ওঠবে। বুকের পেশির কর্মক্ষমতা ও শিরদাঁড়ারের ফ্লেক্সিবিলিটি (নমনীয়তা) বাড়ে।

পুনরায় একইভাবে আবার করুন। কিন্তু চার নম্বর পোজটি করার সময় ডান পা সামনে রাখবেন। সবশেষে এক মিনিট চোখ বন্ধ করে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকুন। আর অনুভব করুন আপনার শরীরের কী কী হচ্ছে। বেশি খারাপ লাগলে ম্যাটের ওপর শুয়ে পড়ুন।

-ইন্টারনেট।


আরও খবর



ভারতীয় সিরাপ খেয়ে ১৮ শিশুর মৃত্যু উজবেকিস্তানে

প্রকাশিত:Friday ৩০ December ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

গাম্বিয়ার পর এশিয়ার উজবেকিস্তানে ভারতে তৈরি সর্দি কাশির সিরাপ খেয়ে ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তারা জানিয়েছে, ভারতীয় ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মেরিয়ন বায়োটেকের তৈরি কাশির সিরাপ সেবনে এসব শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াই তীব্র শ্বাসযন্ত্রের রোগে আক্রান্ত শিশুদের 'ডক-ওয়ান ম্যাক্স' সিরাপ সেবন করানো হয়। পরীক্ষা করে দেখা গেছে সিরাপের এক ব্যাচে বিষাক্ত পদার্থ ইথিলিন গ্লাইকোল রয়েছে। এঘটনায় অবহেলাজনিত কারণে সংশ্লিষ্ট সাত জনকে বরখাস্ত করেছে উজবেকস্তান। এদিকে, নয়ডার ওষুধ প্রস্তুতকারী ওই সংস্থাকে প্রোপিলিন গ্লাইকলযুক্ত অন্য ওষুধগুলোর উৎপাদনও বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। 


আরও খবর



নওগাঁয় গৃহবধূর মৃত্যু, মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ

প্রকাশিত:Sunday ০১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁয় সিমারানী কবিরাজ (২৩) নামে এক গৃহবধূর'র মৃত্যুর ঘটনায় আত্নহত্যা নাকি হত্যা এনিয়ে দু'পক্ষের স্বজনদের মাঝে প্রশ্ন। স্থানিয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে মহাদেবপুর থানা ও নওহাটামোড় ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে প্রাথমিক সুরতহাল রির্পোট অন্তে ময়না তদন্তের জন্য ঘটনাস্থল থেকে রবিবার সন্ধার পর মৃতদেহ টি উদ্ধার করে পুলিশি হেফাজতে নিয়েছে। এমৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর ইউপির শিকারপুর গ্রামে। নিহত গৃহবধূ 

সিমারানী কবিরাজ শিকারপুর গ্রামের ভূতনাথ এর স্ত্রী। তাদের মাত্র ৩ বছর বয়সি এক কন্যা সন্তান রয়েছে। 

মেয়েকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে সিমা রানী'র বাবা নিপেন চন্দ্র কবিরাজ জানান, আমি লোকজন মুখে জানতে পারি যে গত ৩ দিন ধরে আমার মেয়েকে জামাই ভূতনাথ মারপিট (নির্যাতন) করছে। এমন পরিস্থিতিতে আমি মেয়ের সংসার ও সুখের কথা চিন্তাকরে চালসহ খাবার সামগ্রী ও নাতনীর জন্য দুধ নিয়ে আজই সকালে মেয়ে জামাইের বাড়িতে এসেছিলাম। তিনি আরো জানান, আমি আসার পর আমাকে মেয়ে জানিয়েছিলো যে, আজ রবিবার সকালেও জামাই তাকে মারপিট (নির্যাতন) করেছে। মেয়ের মুখে মারপিটের কথা শোনার পরও আমি মেয়েকে বুঝিয়ে বলে দুপুরের খাবার খেয়ে বেলা ২ টারদিকে আমি নিজ বাড়িতে ফেরার সময় জামাই ভূতনাথ ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে বলেন আপনি আপনার মেয়েকে এখান থেকে নিয়ে যান। এসময় আমি জামাইকেও শান্ত হওয়ার পরামর্শ দিয়ে নিজ বাড়িতে আসার কিছুক্ষণ পরই খবর পাই যে আমার মেয়ে গলাই দড়ির ফাঁসদিয়ে আত্নহত্যা করেছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আমার মেয়ে আত্নহত্যা করেনি তাকে হত্যাকরে ঘড়ের ভেতর গলাই দড়ি পেচিয়ে রেখে আত্নহত্যা বলে মিথ্যা প্রচার করা হচ্ছে।

অপরদিকে গৃহবধূ সিমারানী কবিরাজ এর স্বামীর পরিবার সহ প্রতিবেশী ও স্বজনরা জানান, ঘটনার দিন রবিবার ১ জানুয়ারী সকালে সিমারানী ও তার স্বামী ভূতনাথ পারিবারিক বিবাদে লিপ্ত হয় এবং তারই জেরধরে বাড়ির লোকজনের অজান্তে শয়ন ঘরের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে বাশের তীরের সাথে গলায় দড়ির ফাঁস দেয়। বিকেল পনে ৩ টারদিকে জানাজানি হলে সাথে সাথে ঘরের দরজা ভেঙ্গে দড়ি কেটে তাকে নামানো হয় তবে নামানোর আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

মৃতদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ির এস আই জিয়াউর রহমান জানান, গৃহবধূ মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে প্রাথমিক সুরতহাল রির্পোট অন্তে ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আগামীকাল সোমবার নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়ে ময়না তদন্ত সম্পূর্ণ করার পর স্বজনদের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করা হবে। ময়না তদন্তের রির্পোট আসার পর মৃত্যুর কারন জানাযাবে, এব্যাপারে ইউডি মামলা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।


আরও খবর



প্রশ্নফাঁসে ১০ বছর কারাদণ্ডের আইন পাস

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২৩ বিল’জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) অধীনে কোনো পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস করলে সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং অর্থদণ্ডের বিধান রেখে সংসদে ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২৩ বিল’পাস হয়। এছাড়া ভুয়া পরিচয়ে অংশ নিলে ২ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে জাতীয় সংসদ একটি বিল পাস হয়েছে।

আইনে সরকারি চাকরির পরীক্ষাসংক্রান্ত বিভিন্ন অপরাধ ও তার সাজা নির্ধারণ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি পরীক্ষার্থী না হয়েও নিজেকে পরীক্ষার্থী হিসেবে হাজির করলে বা মিথ্যা তথ্য দিয়ে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করলে বা অন্য কোনো ব্যক্তির নামে বা কোনো কল্পিত নামে পরীক্ষায় অংশ নিলে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এর শাস্তি সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড।

এর আগে বিলটির ওপর আনা জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে পাঠানো হয় এবং সংশোধনীগুলো কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। তবে জাতীয় পার্টির এমপি ফখরুল ইমামের একটি সংশোধনী গ্রহণ করা হয়।

১৯৭৭ সালে প্রণীত বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন অর্ডিন্যান্স রহিত করে নতুন এ আইন প্রণীত হয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন অর্ডিন্যান্সের অধীন প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন এমনভাবে বহাল থাকবে, যেন এটি নতুন আইনের অধীন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। একজন সভাপতি এবং ছয় থেকে সর্বোচ্চ ১৫ জন সদস্যের সমন্বয়ে কমিশন গঠিত হবে। কমিশন প্রজাতন্ত্রের জনবল নিয়োগের উদ্দেশে সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধিবিধান সাপেক্ষে পরীক্ষা নেওয়ার পদ্ধতি ও শর্তাবলি নির্ধারণ করতে পারবে।

বিলে প্রশ্নপত্র ফাঁস সম্পর্কে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে পরীক্ষার জন্য প্রণীত কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য, পরীক্ষার জন্য প্রণীত হয়েছে বলে মিথ্যা ধারণাদায়ক কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য অথবা পরীক্ষার জন্য প্রণীত প্রশ্নের সঙ্গে হুবহু মিল রয়েছে বলে বিবেচিত হওয়ার অভিপ্রায়ে কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য যেকোনো উপায়ে ফাঁস, প্রকাশ বা বিতরণ করলে তা দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। এর শাস্তি সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড। এ অপরাধ আমলযোগ্য ও অজামিনযোগ্য হবে।


আরও খবর



সোনারগাঁয়ে মাসব্যাপী লোকজ মেলার উদ্বোধন করলেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

সোনারগাঁ প্রতিনিধি :


সড়ক পরিবহন, সেতু মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অসুস্থ রাজনীতি করতে করতে ফখরুল সাহেবরা নিজেরাই অসুস্থ হয়ে গেছে। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত যারাই দেশে আন্দোলনের নামে জান মালের ক্ষতি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে তাদের উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। জঙ্গীবাদ সাম্প্রদায়িকতা সংস্কৃতি ও আমাদের শত্রু। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সকল শক্তি একত্রিত হয়ে সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রুখে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন।


আজ বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের মাসব্যাপী লোকজ উৎসব উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।


সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি'র সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন,স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা,ফাউন্ডেশনের পরিচালক এসএম রেজাউল করিম,সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত,জেলা প্রশাসক মঞ্জুর হাফিজ প্রমূখ।


এবারের লোকজ মেলায় দেশীয় সংস্কৃতির পুনরুজ্জীবনে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা কারুশিল্পীদের প্রদর্শনী, লোক জীবন প্রদর্শনী, পুতুল নাচ, বায়স্কোপ, নাগর দোলা, গ্রামীন খেলা প্রদর্শন করা হবে। এ বছর কর্মরত কারুশিল্পীদের প্রদর্শনীর ৩২টি স্টল সহ ১০০টি স্টল রয়েছে। ফাউন্ডেশনের ভেতরে শিল্পাচার্য জয়নুল লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর এবং লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর। এ দুটি যাদুঘরে স্থান পেয়েছে প্রায় পাচঁ হাজার প্রাচীন লোক ও কারুশিল্প। লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম কারুশিল্প যাদুঘর। গ্রাম বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। 


এছাড়া এ বছর  মুন্সিগঞ্জ ও মৌলভী বাজারের শীতল পাটি, মাগুরা ও ঝিনাইদহের শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাড়ি ও মুখোশ। চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁয়ের জামদানী, বগুড়ার লোকজ খেলনা, প্রতিদিন সন্ধ্যায় লোকজ মঞ্চে পালাগান, বাউল গান, জারিসারি গান, হাছন রাজার গান, গ্রামীন খেলা হা-ডু-ডু, কানামাছি খেলা অনুষ্ঠিত হবে।  যাদুঘরে রয়েছে গ্রামীন লোক জীবনের নানান উপাদান যেমন, কৃষক পরিবারের ঢেঁকিতে ধান ভানার দৃশ্য, লাঙ্গল কাধে মাঠে যাওয়া ও পালকিতে নববধুর আগমনের দৃশ্য পটচিত্র ও মুখোশ গ্যালারি নদী মাতৃক বাংলাদেশের সাম্পান আর বজরা সহ বৈচিত্রময় নৌকার মডেল। কাঠ খোদাইয়ের বিভিন্ন উপাদান পালকিতে জমিদার সহ গ্রাম বাংলার কারিগরদের নানা কারুশিল্প।


আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে এ মেলা। 


আরও খবর



স্পর্শকাতর জায়গায় আঘাত করে বৃদ্ধকে খুন !

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো :


কুমিল্লার মুরাদনগরে স্পর্শকাতর জায়গায় আঘাত করে বৃদ্ধকে খুনের অভিযোগ উঠেছে।

 বুধবার (১৮ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের বকুলনগর গ্রামে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। 

নিহত আব্দুল বারেক ওরপে খোকন মিয়া (৬২) বকুল নগর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে। 

স্থানীয় মাহবুবউল আলম হানিফ জানান-, স্থানীয় ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামাল উদ্দীন নিহত খোকনসহ কয়েকজনের কাছ থেকে ১০ বছরের জন্য জমি বর্গা নেয়। সেখানে তিনি ইটভাটা করেন। ১০ বছর মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় কিছুদিন পূর্বে ইটভাটা ভেঙে ফেলেন তিনি। পরে স্থানীয় গিয়াসউদ্দিনের কাছে ভাটার স্থানে পড়ে থাকা ইটের খোয়া বিক্রি করেন। 

স্থানীয়দের অভিযোগ গিয়াসউদ্দিন ও তার ছেলে কয়েকজনকে নিয়ে ইটের খোয়া তুলে নেয়ার পর জমির মূল মাটি নিয়ে যাচ্ছিল। তাই বাধা দিতে যায় খোকন মিয়া। এসময় তাদের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে গিয়াসউদ্দিন ও তার ছেলেরা খোকন মিয়ার স্পর্শকাতর জায়গায় আঘাত করলে গুরুতর আহন হন খোকন মিয়া। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। 

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদারবলেন-, রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঝগড়ার এক পর্যায়ে গিয়াসউদ্দিন ও তার ছেলে খোকন মিয়ার স্পর্শকাতর জায়গায় আঘাত করেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


আরও খবর