Logo
শিরোনাম

বন্ধ কুয়াকাটার সব রেস্তোরাঁ

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় খাবার হোটেলে মোবাইল কোর্টের নামে হয়রানির অভিযোগ তুলে অনির্দিষ্টকালের জন্য সব ধরনের রেস্টুরেন্ট বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন কুয়াকাটা রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি।

অভিযোগ তুলে মোঃ সেলিম জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত মোবাইলকোর্টের নামে রীতিমতো হয়রানি করে আসছে। কারণে অকারণে কোনো কোনো হোটেলে একাধিকবার জরিমানা করা হচ্ছে। ফলে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, হয়রানি বন্ধ করা না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের খাবার হোটেল বন্ধ রাখার।

সভাপতি বলেন, সামুদ্রিক মাছ ভেজে রান্না করতে হয়। তা না হলে ভেঙে যায়। বৈশাখি হোটেলে কিছু মাছ একটা ভাজা দিয়ে রাখা হয়েছিল রান্নার জন্য, ঠিক এই সময়ে ম্যাজিস্ট্রেট এসে পচা মাছ বলে প্রায় ১০ হাজার টাকার মাছ ফেলে দেন এবং ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। আল মদিনা হোটেলে ১১ আগস্ট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করার পর রেস্টুরেন্টের মালিক সমস্যা সমাধানের জন্য ১৫ দিন সময় নিয়েছিলেন, কিন্তু ১৬ আগস্ট তাকে আবারও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বর্তমানে কুয়াকাটার কোনো হোটেলে বাশি খাবার বিক্রি হয় না। ৪০-৫০ জনের খাবারের প্রি-অর্ডার পেলে আমরা আগে রান্না করে রাখি। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, আমাদের মোবাইলকোর্টের নামে হয়রানি না করে রেস্টুরেন্টে যে ত্রুটি রয়েছে তা সংশোধনের জন্য সময় দেয়া হোক। পর্যটকদের স্বার্থে অবশ্যই স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পরিবেশনে আমরা সচেষ্ট থাকবো।

পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা খাবার হোটেল বন্ধ থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, পর্যটন এলাকায় খাবার হোটেল বন্ধের প্রভাব সরাসরি পর্যটকদের উপর পড়বে। এটা যেন দীর্ঘায়িত না হয়। দ্রুত এ সমস্যা সমাধান করে খাবার হোটেলগুলো খুলে দেয়ার আহ্বান জানান।


আরও খবর



জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে বিদায় সংবর্ধনা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

উত্তম কুমার মোহন্ত,ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম


কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে উপজেলা প্রসাশনের আয়োজনে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব সুমন দাস এর সভাপতিত্বে,৩০(নভেম্বর)বুধবার সন্ধ্যা ছয়টায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে জেলা প্রশাসক ও ম্যাজিস্ট্রেট কুড়িগ্রাম জনাব মোহাম্মদ রেজাউল করিম মহোদয়ের বদলি জনিত বিদায় উপলক্ষে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত।

বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন,স্থানীয় সরকার কুড়িগ্রাম উপ-পরিচালক মিনহাজুল ইসলাম, ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানী সরকার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সুমন কান্তি সাহা, ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ, আমিনুল ইসলাম রিজু, ফুলবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ ফজলুর রহমান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সহ-আরো অনেকে।

এসময় বিদায়ী জেলা প্রশাসক মহোদয় কে, উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বিদায়ী সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানী সরকার, উপজেলা প্রসাশনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ,উপজেলা ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ। পরিশেষে বিদায়ী জেলা প্রশাসক মহোদয় রাত আটটার দিকে নবনির্মিত উপজেলা অফিচার্স ক্লাব ভবনটি ফলোক উন্মোচন করে উদ্বোধন করে, ক্লাব প্রাঙ্গণে উপজেলা প্রসাশনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দের মধ্যে সৌজন্য মূলক একটি প্রীতি ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট উপভোগ করেন।


আরও খবর



সৃজিত-মিথিলার সংসার ভাঙনের গুঞ্জন

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা এবং ওপার বাংলার নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সংসারে বিচ্ছেদের গুঞ্জন চাউর হয়েছে। সম্প্রতি তাদের আলাদা আলাদা দুটি স্ট্যাটাস ঘিরে দেখা দিয়েছে নানা জল্পনা। তবে কী ভেঙে যাচ্ছে সৃজিত-মিথিলার সংসার? এমন প্রশ্ন অনুরাগীদের মধ্যে।

জোয়ান বায়েজের লেখা 'ফেয়ারওয়েল অ্যাঞ্জেলিনা' গানের লাইন কোড করেছেন সৃজিত। একই সাথে সৈকতে ডালপালাহীন এক গাছে ভর করে দাঁড়িয়ে সমুদ্রের দিকে তাকিয়ে, পোস্ট করেছেন একটি ছবি। যা দুঃখ, বিচ্ছেদে আর একাকিত্বকেই প্রকাশ করে। সৃজিতের পোস্টের পর শনিবার প্রায় একই সময়ে নিজের কিছু ছবি পোস্ট করেন অভিনেত্রী মিথিলা। সেখানেও ভাঙনের সুর। প্রায় একই সময়ে এই দুই বিচ্ছেদের পোস্ট ঘিরে তৈরি হয়েছে জল্পনা। কেন এই হেয়ালি তারকা দম্পতির! এর আগেও বেশ কয়েকবার সৃজিতের সঙ্গে মিথিলার সম্পর্কে বিচ্ছেদের গুঞ্জন উঠেছিল। 


আরও খবর

নোরাকে অশালীনভাবে স্পর্শ !

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২




আত্রাইয়ে চুলার ধোঁয়াকে কেন্দ্র করে হামলায় যুবক নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :

নওগাঁর আত্রাইেেয় চুলার ধোঁয়াকে কেন্দ্র করে হামলায় আলমগীর হোসেন (৪০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলার ব্রজপুর খন্দকার পাড়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত আলমগীর ওই গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে। এঘটনায় থানাপুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। 

নিহতরে স্ত্রী নাজমা আক্তার বলেন,মাস খানেক আগে প্রতিবেশি আব্দুল জব্বারের ছেলে আক্তার হোসেনের দেয়াল সংলগ্ন স্থানে ভাত রান্নার চুলা নির্মান করে রান্নাবান্না করে আসছিলেন।ওই চুলার ধোঁয়া আক্তারের জানালা দিয়ে ঘরে প্রবেশ করছে এবং চালের টিন নষ্ট হচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে গ্রামের কয়েক জনের মাধ্যমে রান্নার চুলা বন্ধ করতে বলে। আমরা অল্প দিনের মধ্যে চুলা অপসারণ করে নিবো বলে তাদেরকে জানিয়েছিলাম। এর পরও মঙ্গলবার সকাল অনুমান সাড়ে ৯টায় আলমগীর হোসেন খাবার খেয়ে বাড়ী থেকে পাশের্^ সিংসাড়া মোড়ে নিজ দোকানে যাচ্ছিলেন। এসময় প্রতিবেশি আক্তার ও তার পরিবারের লোকজনসহ কয়েকজন আলমগীরের রাস্তা অবরোধ করে মারপিট করতে থাকে। এসময় আলমগীরের লোকজন দেখতে পেয়ে ছুটে গেলে আক্তার ও তার লোকজন পালিয়ে যায়। আলমগীরকে উদ্ধার করে আত্রাই সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক আলমগীরকে মৃতু ঘোষনা করেন। ঘটনার পর থেকে আক্তার ও তার লোকজন পলাতক রয়েছে।

আত্রাই থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) লুৎফর রহমান বলেন,নিহত আলমগীরের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুুতি চলছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



রাণীনগরে কৃষকরা দিন দিন ঝুঁকছে আধুনিক কৃষি যান্ত্রীকরণের দিকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) ;

নওগাঁর রাণীনগরে দিন দিন আধুনিক কৃষি যান্ত্রিকরনের দিকে ঝুঁকছে কৃষকরা। শ্রমিক সংকট দূর করতে, স্বল্প সময়ে জমি চাষ করতে, জমিতেই ফসল বিশেষ করে ধান কাটা-মাড়াই ও সময়-খরচ বাঁচাতে প্রতিবছরই সরকারের পক্ষ থেকে ভর্তুকিতে প্রদান করা হচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন নানা ধরনের কৃষি যন্ত্র। আর এই কৃষি যন্ত্রগুলো ব্যবহার করে উপকৃত হচ্ছেন কৃষকরা আর সফল হচ্ছে সরকারের গৃহিত কৃষিকে আধুনিকায়ন করার গৃহিত কর্মসূচি। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বছরের প্রতি মৌসুমে সরকারের পক্ষ থেকে ভর্তুকিতে সিডার পাওয়ার ট্রেলার, হার্ভেস্টার মেশিন, গার্ডেন ট্রেলার, ধান মাড়াইয়ের মেশিনসহ নানা ধরনের কৃষি যন্ত্রগুলো প্রদান করা হচ্ছে। পুরাতন চাষাবাদ থেকে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কৃষিতে দেশের কৃষকদের যুক্ত করতে সরকারের এই পদক্ষেপ দারুন ভাবে প্রভাব ফেলেছে। এই কৃষি যান্ত্রিকরণের কারণে কম সময়ে ও কম খরচে চাষাবাদের পাশাপাশি ফলনও বৃদ্ধি পেয়েছে অনেকগুন। যেসব কৃষকদের কৃষি যন্ত্রগুলো নেওয়ার সামর্থ নেই সেই বিষয়টি সমাধান করার লক্ষ্যে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে কৃষি সমবায় সমিতির মাধ্যমে ধান কাটা ও মাড়াইয়ের মেশিনগুলো প্রদান করা হয়েছে। যে কোন কৃষক এই যন্ত্রগুলো ভাড়া নিয়ে তাদের চাষাবাদের প্রয়োজন পূরণ করতে পারছেন। এছাড়াও অল্প জমি চাষের জন্য গার্ডেন ট্রিলার মেশিনটি কৃষকদের মাঝে ব্যাপক ভাবে সাড়া ফেলেছে। উপজেলার রাণীনগর বাজারের টুটুল বলেন, বাগানসহ অন্যান্য ছোট ছোট পরিত্যক্ত জায়গায় বড় পাওয়ার ট্রেলার মেমিন দিয়ে চাষ করা সম্ভব নয়। তাই আমি কৃষি অফিস থেকে একটি গার্ডেন ট্রেলার মেশিন নিয়েছি। মেশিন দিয়ে আমার বাগানসহ ছোট ছোট পরিত্যক্ত জায়গা ইচ্ছে মাফিক চাষ করে এখন বিভিন্ন ধরনের ফসল ফলাচ্ছি। ওই মেশিন দিয়ে আশেপাশের মানুষেরও চাহিদা পূরন করছি। আমি গার্ডেন ট্রেলার মেশিন নিয়ে অনেক উপকৃত হয়েছি। উপজেলার রাজাপুর গ্রামের কৃষক হামিদুল হক বলেন, চলতি আমন মৌসুমে ধান কাটা ও মাড়াইয়ের জন্য তেমন শ্রমিক খুজতে হয়নি। হার্ভেস্টার মেশিন দিয়ে প্রতি বিঘা জমির ধান ২হাজার টাকা করে কাটা ও মাড়াই করে নিয়েছি। এতে করে আমার খরচ ও সময় অনেক কম লেগেছে। এই সব মেশিন পাওয়াতে আমরা কৃষকরা অনেক ভাবে উপকৃত হচ্ছি। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহীদুল ইসলাম বলেন, আমাদের মূল চালিকা শক্তিই হচ্ছে কৃষি। তাই কৃষিকে পুরাতন পদ্ধতিতে রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সম্ভব নয়। তাই কৃষিকে আধুনিকায়ন করা নিয়ে বর্তমান সরকারের মিশন ও ভিশনকে মাঠ পর্যায়ে শতভাগ বাস্তবায়ন করতে আমরা কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি। উপজেলার কৃষকদের পুরাতন চাষাবাদ পদ্ধতি থেকে ফিরিয়ে এনে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কৃষি যান্ত্রিকরণের দিকে নিয়ে আসতে চলতি আমন মৌসুমে ভর্তুকিতে ৫টি সিডার পাওয়ার ট্রেলার মেশিন ৫জন কৃষককে প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ১৪টি গার্ডেন ট্রেলার মেশিন ইতিমধ্যেই বিতরন করা হয়েছে। বর্তমানে এই মেশিনটি কৃষকদের মাঝে ব্যাপক ভাবে সাড়া ফেলেছে। জমি ফেলে না রেখে একই জমিতে একাধিক ফসলের দ্বিগুন ফলন পেতে এই কৃষি যান্ত্রিকরনের কোন বিকল্প নেই। আমি আশাবাদি একসময় দেশের সকল কৃষকই আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কৃষি যন্ত্রের মাধ্যমে সকল চাষাবাদ করবেন। এতে করে দেশের কৃষকরা যেমন লাভবান হবেন তার সঙ্গে সরকারের কোষাগারে জমা হবে দ্বিগুনের চেয়ে বেশি রাজস্ব।


আরও খবর



আদিতমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষ

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ


লালমনিরহাটে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের অনন্ত ২০ জন আহত হয়েছে।বর্তমানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে উপজেলা শহরে।

২৬ নভেম্বর(শনিবার) বিকেলে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর সামনে এ সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদ্য ঘোষিত নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ দেশব্যাপী বিএনপি ও জামাতের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে উপজেলার জিএস স্কুলের মাঠে এক বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল আয়োজন করে।একই সময়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের পদ বঞ্চিত নেতারা উপজেলা আঃ লীগ কার্যালয় এর সামনে সমাবেশে ডাকে।

আজকে উভয় পক্ষের পাল্টা পাল্টি সমাবেশ ডাকাকে ঘিরে সকাল থেকে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিলো।নব নির্বাচিত কমিটির সভাপতি, সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ অন্যান্য নেতাদের নেতৃত্ব দেওয়া সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল উপজেলা শহরের মুল সড়ক প্রদক্ষিণ করার জন্য বের হয়।মিছিলটি উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় অতিক্রম করার সময় উপজেলা আওয়ামী কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেওয়া গ্রুপের সাথে বাকবিতন্ডা হয়।পরে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর পিছন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা মিছিলকে লক্ষ করে ঢিল ছোড়ে এতে মিছিল ও আশপাশে আতংক ছড়িয়ে পরে।পরে মিছিল ছুট নেতাকর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় এর সামনে অবস্থান নেওয়া গ্রুপের সাথে থেমে থেমে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে।এসময় দু গ্রুপ ঢিল ছোড়ে এবং দেশীয় অস্ত্র প্রদর্শন করে আতংক ছড়াতে থাকে।বৃহৎ সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশ টানা দু'ঘন্টা চেষ্টা ও তিনটি সাউন্ড গেনেট ছুড়লে উভয় পক্ষের নেতাকর্মীরা দুদিকে চলে যায়।সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পুলিশ সহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।

এ বিষয়ে আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ মোক্তারুল ইসলাম জানান,আদিতমারী আওয়ামী লীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশের ৫/৬  সদস্যসহ উভয় পক্ষের কয়েকজন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিনটি সাউন্ড গেনেট ছোড়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

উল্লেখ;চলতি বছরের গত ১৯ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ আলীকে সভাপতি ও রফিকুল আলমকে সাধারণ সম্পাদকসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে।ঘোষিত কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মাহমুদ ওমর চিশতী পদ না পেয়ে কমিটি ঘোষণার পর থেকে নব নির্বাচিত কমিটির বিরোধীতা করে আসছে।


আরও খবর