Logo
শিরোনাম

শহিদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের সমাধীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Saturday ০৭ May ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

সদরুল আইন,গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি'র ১৮তম  শাহাদাৎবার্ষিকীতে তার সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তারই বড় ছেলে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি। 

আজ শনিবার (৭ মে) সকালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৯ নং ওয়ার্ডের হায়দরাবাদ গ্রামে অবস্থিত সমাধিতে তিনি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া সচিব মেজবাহ উদ্দিন, মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন দফতর- সংস্থার শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাবৃন্দ। 

যুব উন্নয়ন অধিদফতরের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মহাপরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম খান। অধিদফতরের সর্বস্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণও উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনা জাতীয় যুব উন্নয়ন ইনস্টিটিউট এর পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মহাপরিচালক এ কে এম শামীমুল হক সিদ্দিকী। 

বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন এর পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ফাউন্ডেশনের সচিব কৃষ্ণন্দুে সাহা। 

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ, বিকেএসপি ও ক্রীড়া পরিদফতর সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানসমূহের পক্ষ হতেও শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মরহুম এর আত্মার শান্তি ও মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।


আরও খবর



দশমিনায় কনকনে শীতে পুরনো কাপড়েই চলছে জীবন

প্রকাশিত:Wednesday ১১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

মোঃ নাঈম হোসাইন,দশমিনা, পটুয়াখালী :

পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের তেতুলিয়া নদীপাড়ের  গোলখালী গ্রামের।মোসা.ফাতেমা বেগম (৪৯)। স্বামী পরিত্যাক্তা ফাতেমা বেগম ছেলে জহিরুল ইসলাম (১৪) এবং শাররীক প্রতিবন্ধী মেয়ে তাছলিমাকে (১২) নিয়ে একটি কবরস্থানের পাশে ভাঙা পরিত্যাক্ত ঘরে বসবাস করছেন। ফাতেমা বেগম বলেন, মুজিববর্ষের ঘর পাননি তিনি। এছাড়া কোন রকম সরকারী সহায়তাও পাননা। প্রতিবন্ধী মেয়ে থাকায় কেউ কাজ দেয়না, তাই অভাবের তাড়নায় তার ছেলেকে তেতুলিয়া নদীতে জেলে নৌকায় দৈনিক ১৫০ টাকা মজুরীতে মাছ ধরার কাজে দিয়েছেন কিন্তু নদীতে মাছ না পাওয়া গেলে মজুরীর টাকা দেয়না তারা।তাই কোনদিন খাবার জোটে আবার কোনদিন না খেয়েই কেটে যায় দিন।আমার ভাঙা ঘরে কনকনে শীতের ঠান্ডা হাওয়া ঢুকে আমাদের শরীরে কাপন ধরেযায়। ছেড়া পুরনো কাথা কাপড় শরীরে জড়িয়ে জুবুথুবু হয়ে কাটাচ্ছেন শীতের রাত, অভাবের তাড়নায় জীবন যেন আর চলছে না।স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ অলিউল ইসলাম বলেন, অসহায় ফাতেমা বেগম মুজিববর্ষের ঘর বরাদ্দ পায়নি কিন্তু অনেক স্বচ্ছল পরিবার ঘর বরাদ্দ পেয়েছেন। তিনি ফাতেমা বেগমকে সহয়তা করার আশ্বাস দেন। ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ইকবাল মাহামুদ লিটন বলেন, ফাতেমা বেগমকে ভিজিডি সুবিধার আওতায় আনা হবে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মহিউদ্দিন আল হেলাল বলেন, ফাতেমা বেগমের ব্যাপারে খোজ খবর নিয়ে তার প্রাপ্যতা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


আরও খবর



ভারতীয় সিরাপ খেয়ে ১৮ শিশুর মৃত্যু উজবেকিস্তানে

প্রকাশিত:Friday ৩০ December ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ২৬ January ২০২৩ |
Image

গাম্বিয়ার পর এশিয়ার উজবেকিস্তানে ভারতে তৈরি সর্দি কাশির সিরাপ খেয়ে ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তারা জানিয়েছে, ভারতীয় ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মেরিয়ন বায়োটেকের তৈরি কাশির সিরাপ সেবনে এসব শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াই তীব্র শ্বাসযন্ত্রের রোগে আক্রান্ত শিশুদের 'ডক-ওয়ান ম্যাক্স' সিরাপ সেবন করানো হয়। পরীক্ষা করে দেখা গেছে সিরাপের এক ব্যাচে বিষাক্ত পদার্থ ইথিলিন গ্লাইকোল রয়েছে। এঘটনায় অবহেলাজনিত কারণে সংশ্লিষ্ট সাত জনকে বরখাস্ত করেছে উজবেকস্তান। এদিকে, নয়ডার ওষুধ প্রস্তুতকারী ওই সংস্থাকে প্রোপিলিন গ্লাইকলযুক্ত অন্য ওষুধগুলোর উৎপাদনও বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। 


আরও খবর



গজারিয়ায় ছাত্রলীগ এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

প্রকাশিত:Wednesday ০৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

গজারিয়া প্রতিনিধিঃ 


গজারিয়ায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে উপজেলা ছাত্রলীগ এর উদ্যোগে বনাঢ্য আয়োজনে আলোচনা সভা ও আনন্দ র‍্যালী অনুষ্ঠিত। 

 বুধবার সকাল ১১ঘটিকায় উপজেলার শিল্পকলা একাডেমীতে এই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ পৌর মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব,উদ্ধোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাঃসম্পাদক, উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম,উপজেলা ছাত্রলীগ এর সভাপতি মোঃহাবিবুর রহমান সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী মহসিন চৌধুরী,এ সময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা মোঃহাফিজুর রহমান খাঁন,জেলা আওয়ামী যুবলীগ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃশাহজাহান খাঁন,উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম সম্পাদক মুনসুর আহম্মেদ খাঁন জিন্নাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব মুমিনুল হক টিটু, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আতাউর রহমান নেকী,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা আক্তার আঁখি,জেলা ছাত্রলীগ এর সভাপতি ফয়সাল মৃধা,সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এর উপ গনশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আশ্ররাফুল ইসলাম জয়,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর সভাপতি হাজী মোজাম্মেল হক,সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ এর সভাপতি মাহাবুবুল আলম শাহীন,উপজেলা যুবলীগ নেতা আবুল বাশার,আজিজুল হক পার্থ, উপজেলা কৃষক লীগের আহবায়ক মোশারফ হোসেন মিন্টু,উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনু আক্তার,সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ইসমাঈল হোসেন,সেতু খাঁন,আবু বক্কর সিদ্দিক,শামীম আহম্মেদ জয়সহ সকল ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ছাত্রলীগ এর সভাপতি/সাঃসম্পাদকসহ বিপুল সংখ্যক ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর



গজারিয়ায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

প্রকাশিত:Wednesday ০৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মানবতার সেবা নিয়ে অবিরত কাজ করে যাচ্ছে "মানুষ মানুষের জন্যে ছোটদের ফাউন্ডেশন"। ২০২০ সাল থেকে পথচলা অরাজনৈতিক  এই সংগঠনটি অসহায় দুস্তদের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে সবসময়। পাশাপাশি যুবকদেরকে মাদক ইভটিজিং ও অনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে দুরে রেখে কল্যানমুলক কাজ করতে উৎসাহিত করছে ছোটদের এই সংগঠনটি।মুন্সীগঞ্জ গজারিয়া উপজেলা বালুয়াকান্দি  ইউনিয়নে

 ছোটদের ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে উপহার সামগ্রী ও শীতার্ত মানুষের মাঝে  (৩০০) তিনশত কম্বল বিতরন করা হয়েছে।  বুধবার সকাল ১১ টায় বোরহান উদ্দিনের বাসভবনে অসহায় মানুষের মাঝে এই কম্বল বিতরন করা হয়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বোরহান উদ্দিন ভূইয়া। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিন ভূইয়া,নাসির উদ্দিন ভূইয়া জাহিদুজ্জামান জুয়েল, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও দেওয়ান মোঃ হারুন অর রশীদ, মোহাম্মদ জুবায়ের। এছাড়াও অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন  সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক-ইফরাত আলম রিমন, সভাপতি ফুহাদ রহমান জিসান, সাধারণ সম্পাদক মিম বায়েজিদ রাব্বি, সিনিয়র সভাপতি তানভীর আহমেদ, সহসভাপতি ফয়সাল দেওয়ান, কোষাধ্যক্ষ জুয়েল মিয়াসহ সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহরিয়ার ইসলাম সাকিব। উল্লেখ্য, শীতবস্ত্র বিতরণের পূর্বে ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ সংগঠনের সকল সদস্যদের সম্মাননা পদক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শেষে আলোচনা সভায় সকল বিত্তবানদের মানবিক কল্যানে আর্থিক সহায়তা প্রদান করে সংগঠনটির পাশে থাকার উদাত্ত আহ্বান জানান উপস্থিত সকলে।


আরও খবর



জমে উঠেছে লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ২৭ January ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল :

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে চলছে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনে চলছে মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব। দেশের ঐহিত্যবাহী লোককারু শিল্পের নিদর্শন সংগ্রহ সংরক্ষন, প্রদর্শন ও পুনরুজ্জীবিত করে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার জন্যই প্রতি বছর এ মেলার আয়োজন। দর্শনার্থীদের কাছে সব আয়োজন ঠিকঠাক থাকলেও অভিযোগ উঠেছে মূল ভিষণ থেকে সরে যাচ্ছে ফাউন্ডেশন, চারুকারু শিল্পীদের দেয়া হয়নি পর্যাপ্ত স্টল, কনস্ট্রাকশন কাজ বিনষ্ট হচ্ছে প্রাকৃতিক রূপ।

বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের ভেতরে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন কারুশিল্প যাদুঘর এবং লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর।  গ্রাম বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক এ দুটি যাদুঘরে স্থান পেয়েছে প্রাচীন লোক ও কারুশিল্প।  মাসব্যাপী এ উৎসবেকে কেন্দ্র করে পুরো ফাউন্ডেশন চত্বরকে সাজানো হয়েছে বর্নিল সাজে।  প্রতিদিনই বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রদর্শন করছে লোক জীবন প্রদর্শনী,গ্রাম্য নালিশ,কনে দেখা, বিয়ে,জামাইকেও পিঠা আপ্যায়নের দৃশ্য, গ্রামীন খেলা হা-ডু-ডু ও কানামাছি। 

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা কারুশিল্পীদের প্রদর্শনী,  পুতুল নাচ, বায়স্কোপ, নাগর দোলা, মুন্সিগঞ্জ ও মৌলভী বাজারের শীতল পাটি, মাগুরা ও ঝিনাইদহের শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাড়ি ও মুখোশ, চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁওয়ের জামদানী নিয়ে অংশ গ্রহন করেছেন চারু কারু শিল্পিরা। 

এদিকে দর্শনার্থীদের বিনোদনকে আরো প্রানবন্ত করতে ফাউন্ডেশনের ভেতরের লেকে নৌকায় চড়ে ঘুরে বেড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিদিন সন্ধ্যায় লোকজ এই উৎসবে থাকছে পালাগান, বাউল ও জারিসারি গানের।করোনা ভাইরাসের কারনে গত কয়েক বছর মেলা বন্ধ থাকায় এবার অন্তত একলাখ দর্শনার্থী লোকজ এ উৎসবে অংশ নেবেন বলে আশাবাদী আয়োজকরা।

মেলায় দর্শনার্থীরা গ্রামীন এসব ঐতিহ্যে দেখে ও ছেলে মেয়েদের পরিচয় করিয়ে দিতে পেরে অনেকটাই আবেগ আপ্লুত। 

এদিকে বিভিন্ন জেলা থেকে আগত শিল্পিরা জানালেন প্রতিবছরই এ মেলায় অংশ গ্রহণ করেন তারা। তবে প্লাস্টিক ও বিদেশী পণ্যের দাপটে আজ বিপন্ন হওয়ার পথে এসব গ্রামীন ঐতিহ্য। বংশ পরম্পরায় অংশ গ্রহন কারী এসব শিল্পীরা বললেন সরকারী ভাবে পিষ্ট পোষকতা ছাড়া এ শিল্প ধরে রাখা যাবেনা। তারা বললেন যাদের জন্য এ মেলার আয়োজন তাদেরকেই অবমূল্যায়ন করা হয়েছে এবার। কয়েকটি স্টলেই দুজন করে শিল্পকে দেয়া হয়েছে। 

মেলা পরিদর্শনে আসা কবি শাহেদ কায়েস বলেন, ফাউন্ডেশনের মূল  উদ্দেশ্য থেকে সরে যাচ্ছে। চারু কারুশিল্পীদের প্রমোট করা,আর্থিকভাবে স্বচ্ছল করা ও গবেষণা কেন্দ্র গড়ে তোলার লক্ষেই জয়নুল আবেদিন প্রতিষ্ঠা করেছিল এ ফাউন্ডেশন। প্রতিবছর মেলার আয়োজন ছাড়া তেমন কোন কার্যক্রমই চোখে পড়েনা। আবার যাদের জন্য এ মেলার আয়োজন তাদেরকেও অবহেলা করা হচ্ছে। ১শটি স্টলের মধ্যে ৩২ স্টল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে শিল্পীদের। কোন কোন স্টলে দুজন শিল্পীকে বরাদ্ধ দেয়া হচ্ছে। এখানেতো অন্তত ৬৪ জেলার জন্য ৬৪টি স্টল বরাদ্ধ দিয়ে দেশের সব প্রান্ত থেকে অন্তত একজন করে শিল্পীকে জড়োকরা সম্ভব। তা না করে বেশীরভাগ স্টল দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ব্যাবসায়ীদের। যারা এখানে প্লাস্টিক ও চায়না প্রডাক্ট বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে।  কোটি টাকার বাজেটে বিভিন্ন ভবন তৈরী হচ্ছে। যা এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ বিনিষ্ট করা হচ্ছে।

এসব ব্যাপারে ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল করিম বলেন,তিনি মাত্র একমাস হয়েছে দায়িত্বে বসেছেন। অভিযোগ গুলো তদন্ত করে ব্যাবস্থা নেবেন। এ বছর কর্মরত কারুশিল্পীদের প্রদর্শনীর জন্য ৩২টি স্টল সহ ১০০টি স্টল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। মেলা চলবে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত।


আরও খবর