Logo
শিরোনাম

যেসব অভ্যাসে মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়ে

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

মাইগ্রেনের সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। এমন সমস্যা হলে মাথায় যন্ত্রণার পাশাপাশি নানাবিধ শারীরিক সমস্যা হয়। প্রতিদিনের কিছু অভ্যাসে মাইগ্রেনের ব্যথা হতে পারে। তাই এই ব্যথা কমাতেই এসব অভ্যাস পরিত্যাগ করতে হবে।

ঘুমে অনিয়ম

প্রতিদিন অন্তত ৮ ঘণ্টা ঘুমাতেই হবে। যদি তা সম্ভব না হয় তবে ৬ ঘণ্টার কম ঘুমালে মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়বেই। রাত জেগে ওয়েব সিরিজ দেখা কিংবা মোবাইল দেখার অভ্যাস নিয়ন্ত্রণে আনুন। সমাধান মিলবে।

চিনি

এমন খাবার এড়িয়ে চলুন যেগুলোতে অতিরিক্ত চিনি আছে। রক্তে সুগার বাড়লে মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়ে। তাই পরিমিত বোধ রেখে মিষ্টি খান।

খালি পেট রাখা

দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকলে গ্যাস্ট্রিকের প্রকোপ বাড়বে। মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়াতে গ্যাস্ট্রিকের জুড়ি মেলা ভার। তাই কখনও খালি পেটে থাকবেন না এবং প্রচণ্ড ব্যস্ততায় তো নয়ই।

কফি খাওয়ার অভ্যাস

যাদের ক্যাফেইন আসক্তি রয়েছে তাদের এই অভ্যাস কমাতে হবে। মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়ানোর ক্ষেত্রে কফি একটি কারণ। কফির অভ্যাস সহসাই ছাড়ানো কঠিন। এক্ষেত্রে একজন পুষ্টিবিদের সঙ্গে আলাপ করে নিন। 


আরও খবর



নারায়নগঞ্জের শ্রেষ্ঠ ওসি মাহাবুব, শ্রেষ্ঠ তদন্ত আহসান

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

জহিরুল কবির আমজাদ:  নারায়ণগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন ইনচার্জ মাহাবুব আলম ও শ্রেষ্ঠ তদন্ত ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আহসান উল্লাহ।

মাসব্যাপী বিভিন্ন মামলার তদন্ত, আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখা, ওয়ারেন্ট তামিল, মাদক উদ্ধার সহ বিভিন্ন বিষয়ে পর্যালোচনা করে মঙ্গলবার (১৭ই জানুয়ারি)  দূপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ ও শ্রেষ্ঠ তদন্ত ওসির নাম ঘোষণা করেন জেলা পুলিশ সুপার।

মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় জেলার পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল পিপিএম (বার) শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাবুব আলম এবং শ্রেষ্ঠ তদন্ত ওসি হিসেবে একই থানার আহসান উল্লাহ এর নাম ঘোষণা করেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জনাব আমির খসরু,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাই লাও মারমা সহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাগণ।

 
 

আরও খবর



র‍্যাবের কারনে জঙ্গি নিমূল সম্ভব হয়েছে- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক :

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এম পি বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে যেসব শহীদদের কবর দেশের বাহিরে আছে। তাদের কবর দেশে এনে করব দেয়ার ইচ্ছে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। 

মঙ্গলবার দুপুরে দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় লালমনিরহাট ও নীলফামারী জেলার শীতার্ত মানুষজনের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) আয়োজনে এ শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোতাহার হোসেন।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, সীমান্তে হত্যাকান্ড বন্ধ হচ্ছে না-এটা দু:খজনক। বিজিবি ও বিএসএফ তাদের সাধ্যমতে সীমান্তে হত্যাকান্ড বন্ধে চেষ্টা করছেন। 

অনুষ্ঠানে র‍্যাব'র মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন,  ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক টি এম মমিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম প্রমুখ


আরও খবর



খাবারের অভাবে, আহত ঈগল কৃষকের বাড়ীতে

প্রকাশিত:Friday ০৩ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি :

খাবারের অভাবে, আহত ঈগল লালমনিরহাটের কৃষকের বাড়ীতে লালিত পালিত হচ্ছে।  

জেলা সদরের কালমাটি নামক গ্রামে  খাবারের অভাবে শারিরিক অসুস্থ ও আহত ঈগল  তিস্তা নদী পারের তামাক ক্ষেতে বসে থাকা দেখে নিজ বাড়ীতে নিয়ে এসে গেলো দুদিন ধরে লালন পালন করছে কৃষক হাছেন আলী।  

হাছেন আলী জানান, নিত্যদিনের মতো নিজন

 তামাক  ক্ষেত পরিচর্যার জন্য গিয়ে দেখে একটা ঈগল বসে আছে।  কাছে গেলেও উড়তে না পারায় তাকে ধরে নিয়ে আসে বাড়ীতে।  তাকে বেকারির বিভিন্ন প্রকার খাবার দিলে সে না খাওয়ায় ভেঙে পরেন হাছেন।  আজ শুক্রবার সকালে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে, ঈগল দেখতে ভীড় জমায় বিভিন্ন এলাকার নানান বয়সী মানুষ।  

পরে তাকে একটি মুরগী ছিলে খেতে দিলে এক পা দিয়ে টেনে ধরে খাওয়া শুরু করে।  কয়েক মিনিটের মধ্যে মুরগির অর্ধেক খেয়ে নেয় ওই ঈগল। তার একটি পা কে বা কাহারা কেটে দেয়ায়  নিজে শিকার করতে না পাওয়ায় হয়তো কদিন থেকে সেই কারণে শারীরিক দূর্বল হয় এবং পাখিটি ক্ষুধার্ত হয়ে পরলে চলাফেরায় দেহ না চলায় মাটিতে লুটিয়ে পরেছে। তাই এই কৃষক তাকে ধরতে পেরেছে।  অনেকের ধারণা পাখিটি হয়তো ইউক্রেনের যুদ্ধপর সময় একটি পা হারিয়ে উড়িয়ে এখানে এসে পরেছে।


আরও খবর



লালমনিরহাটে পুলিশ পরিচয়ে শিক্ষককে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

নিজস্ব  প্রতিনিধি:


লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের নামুড়ী গ্রামে পুলিশ পরিচয়ে বাড়িতে ঢুকে এক ব্যক্তিকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। বাধা দিতে গেলে দুজনকে কুপিয়ে জখম করা হয়। তবে থানা পুলিশ জানিয়েছে, পুলিশের পরিচয়ে অন্য কেউ এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে পলাশী ইউনিয়নের নামুড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অপহরণের শিকার শিক্ষক নুরুল আমিন (৫৪) দোলাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

শনিবার (৭ জানুয়ারি) নুরুল আমিনের পরিবারের সদস্যরা বলেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে সাদা রঙের একটি প্রাইভেট কার ও কালো রঙের একটি মাইক্রোবাস বাড়ির বাইরে এসে দাঁড়ায়। প্রধান দরজা ভেতর থেকে বন্ধ থাকায় দেয়াল টপকে একজন বাড়িতে ঢুকে সেটা খুলে দেয়। এরপর ১২-১৫জনের একটি দল তাঁদের উঠানে ঢুকে নুরুল আমিনের নাম ধরে ডাকতে থাকে। তাদের পরনে প্যান্ট-শার্ট ছিল।

এ সময় নুরুল আমিনের বাবা আজিজার রহমান ও ছোট ভাই রুহুল আমিন ঘর থেকে বের হন। এরপর বহিরাগত ব্যক্তিরা নুরুল আমিনের ঘরে ঢুকে তাঁকে বের করে আনে। গাড়িতে তোলার সময় পরিবারের সদস্যরা তাঁদের পরিচয় জানতে চান এবং বাধা দেন। এ সময় তারা নিজেদের পুলিশ বলে পরিচয় দেয়। তাদের নানা প্রশ্ন করলে ওই লোকজন নুরুল আমিনের চাচা আবু তালেব (৭০) এবং রুহুল আমিনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এরপর তারা নুরুল আমিনকে গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে চলে যায়।

তখন বাড়ির লোকজন চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে আহত ব্যক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। বর্তমানে আহত আবু তালেব ও রুহুল আমিন সেখানে চিকিৎসাধীন।

আজিজার রহমান বলেন, ওরা নিজেদের ডিবি পুলিশের পরিচয় দেয়, কিন্তু পরিচয়পত্র দেখায় নাই। নুরুল আমিনকে ঘর থেকে বাহির করে ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। আমি আমার ছেলেকে ফেরত চাই।

তবে আদিতমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোক্তারুল ইসলাম বলেন, তিনি ঘটনাটি শুনেছেন। পুলিশ নয়; বরং পুলিশের পরিচয়ে অন্য কেউ এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। এ ঘটনায় শনিবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নুরুল আমিনের স্ত্রী রওশন আরা বেগম বলেন, তিনি তাঁর স্বামীর নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত। তাঁকে উদ্ধারে সবার সহায়তা চান।


আরও খবর



নওগাঁয় চাকুরি দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা আটক

প্রকাশিত:Sunday ২৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Saturday ০৪ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁয় চাকুরি দেওয়ার নামে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

শনিবার দুপুরের দিকে নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর বাজার এলাকা হতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভূয়া নিয়োগ পত্র প্রদানের মাধ্যমে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা মঞ্জুর আলম (৩৯) কে গ্রেফতার করেন র‍্যাব। গ্রেফতারকৃত মঞ্জুর আলম নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর মাদ্রাসা পাড়ার মৃত আলীম উদ্দীনের ছেলে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদক কে জানানো হয়, অভিযুক্ত ও গ্রেফতারকৃত মঞ্জুরুল আলম এবং মোঃ রেজাউল করিম উভয়েই একটি প্রতারক সিন্ডিকেট হিসাবে কাজ করছে এবং ২০১৫ ইং সাল থেকে দরিদ্র লোকদের সাথে প্রতারণা মূলক কর্মকান্ড করছে যেখানে মঞ্জুরুল আলম মূলহোতা। মঞ্জুরুলের স্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা। সে সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে চাকরির প্রলোভন ও মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে কখনো বা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চাকরির ভূয়া নিয়োগ পত্র দিয়ে সে প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত। মোঃ রেজাউল করিম তার সহকারী হিসেবে কাজ করতেন এবং ভূয়া কাগজ পত্র তৈরির দায়িত্বে ছিলেন। ২০২০ ইং সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি দেওয়ার জন্য মঞ্জুরুল লিপি পারভিন নামে এক ভিকটিম এর কাছ থেকে ১০ লাখ  টাকা নেয়। পরে রেজাউল করিমের মাধ্যমে তাকে ভূয়া নিয়োগরপত্র দেয়। সে নিয়োগ পত্র নিয়ে ঢাকায় ওই চাকরিতে যোগ দিতে গেলে সেটা ভুয়া বলে জানতে পারেন ভিকটিম। পরে ভুক্তভোগী (ভিকটিম) বাদী হয়ে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করলে, র‌্যাব-৫,  সিপিসি-৩, এর অভিযানিক দল তাকে অনেক ভূয়া নথিপত্র সহ আটক করেন।

এব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে র‍্যাব।


আরও খবর