Logo
শিরোনাম

বিসিএস প্রশাসন ক্যাডার হওয়ার গল্প শুনালেন নিষাদ হাবিব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ আগস্ট ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ |

Image

মোঃ হৃদয় হোসাইন, মাভাবিপ্রবি প্রতিনিধি :

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আহসান হাবিব নিষাদ প্রথমবার বিসিএস দিয়েই প্রশাসন ক্যাডার হয়েছেন।

জীবনের প্রথম বিসিএস ছিল মাভাবিপ্রবি এই মেধাবী  শিক্ষার্থীর।বিসিএস বা অন্যান্য চাকরি পরীক্ষার জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নিয়েছেন, দৈনন্দিন জীবনের পড়াশোনার নিয়মতান্ত্রিক ক্যালেন্ডার কেমন ছিল ও কখন থেকে চাকরি বা বিসিএস এর জন্য প্রস্তুতি নেওয়া উচিৎ এই বিষয়ে নিয়ে কথা বলেছেন ৪১তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন নিষাদ। ভোলা সদরের চরনোয়াবাদের ফরহাদ হোসেনের ছেলে তিনি। প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে আহসান হাবিব নিষাদ জানান, বিশ্ববিদ্যালয় বলতে তিনি বুঝতেন ক্লাব আর মুক্তমঞ্চ। ধ্রবতারা ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং মাভাবিপ্রবি ব্যান্ড মিউজিক কমিনিটি সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। পড়াশোনা একদমই করতেন না। ছিলেন ব্যাকবেঞ্চার। সিজিপিএ ছিল ২.৯২।তিনি মূলত করোনার সময়  পড়াশোনা শুরু করেছেন।

নিষাদ বলেন, তখন কেবল অনার্সের পরীক্ষা দিলাম। পরীক্ষার ফলাফলও প্রকাশ হয়নি। বিসিএস দেয়ার কোনো ইচ্ছে ছিল না। বিসিএস সম্পর্কে আমার খুব একটা ধারণাও ছিল না। আমি প্লান করেছিলাম আইবিএ করব। ইএসআরএম বিভাগের সেলিম ভাই এখন দুদক’র এডি। গণিতের রিওন ভাই এখন অগ্রনী ব্যাংকে কর্মরত। তারা জোর করেই আমাকে বিসিএস’র আবেদন করান।

অনার্সের এপিয়ার্ড দিয়ে আবেদন করেছিলেন নিষাদ। তারা না জোর করলে কিছুই সম্ভব হতো না। বাসায় বসে পড়াশোনা করেছেন।বিসিএস প্রস্ততিতে আপনি কোন কোচিং সেন্টারে পড়েছেন? এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিসিএস জন্য কোথায় কোচিং করিনি। তবে অনলাইনে এমসিকিউ পরীক্ষা দিতাম। নিয়মমাফিক পড়াশোনা করি নাই।তবে অনেক অনেক বেশি পড়াশোনা করেছি। করোনার সময়   বাসায় বসে প্রস্তুতি নিয়েছি।  বাজারে নোট বই তেমন ফলো করি নাই। নিজেরমত নোট তৈরি করে পড়াশোনা করেছি

 ।তাছাড়া আমার ডিপার্টমেন্টের রিফাত ফারাবি সৌরভ ভাই( এখন অডিট ক্যাডার)  উনি বেশ হেল্প করেছিল। ভাইদের কাছে সারাজীবন  কৃতজ্ঞ থাকবো।সফলতা নিয়ে আপনার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন অনুভূতি বলতে অনেক রিলাক্স লাগছে এই ভেবে আগামী সপ্তাহ থেকে আর কোনো প্রিলি,রিটেন দেওয়া লাগবে না কিংবা নতুন কোনো চাকরিতে আবেদন করতে হবে না।

আশেপাশের সবাই খুব সম্মান দিচ্ছে।সম্মান পেতে তো ভালোই লাগে।

আর ভিতরের  অবস্থা টা যে কেমন আমি নিজেও বুঝছি না।ওয়ার্ল্ডকাপ পাবার পর মেসির কেমন লাগছিল বুঝতেছি। আপনার বিসিএস হওয়ার পিছনে অবদান কাদের বেশি ? তিনি বলেন  বিসিএস পরীক্ষা দেওয়ার  নিজের উদ্দ্যেগ ছিল। বিসিএস পরীক্ষা দেওয়ার শুরু করার পর আমার আম্মু সাহস দিয়েছে।তাছাড়া আমার ছোট ভাই সেনাবাহিনীর সদস্য,  আমি প্রিলি উত্তীর্ণ হওয়ার পর  আমাকে ফিনানশিয়ালি সার্পোট দিয়েছেন।  পরিবার আমার পরীক্ষার বিষয়ে পূর্ণ সহায়তা প্রদান করেছে।  তাদের জন্য আমি সাফল্য অর্জন করতে পেরেছি।

নতুন বিসিএস পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন অনার্স প্রথম বা দ্বিতীয়  বর্ষে বিসিএস প্রস্তুতি নেওয়ার কথা চিন্তা  করলে তুমি বিসিএস হতে পারবে না। এমনকি অনার্স পড়াশোনা করা অবস্থায় বিসিএস পড়াশোনা করা উচিৎ না। এই সময় একাডেমি রেজাল্ট ভালো করা উচিৎ। একাডেমিক রেজাল্ট ভালো করতে হবে  এবং বিসিএস দেওয়ার ইচ্ছা থাকলে কেউ  ষষ্ট শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের একটা গণিত এবং একটা ইংরেজি নিয়মিত টিউশনি করাতে হবে। অনার্স পড়াশোনা  অবস্থা  ক্যাম্পাস লাইভটাকে উপভোগ করা বুদ্ধিমানের কাজ। সর্বশেষ  তিনি বলেন

ভবিষ্যতে আমি দেশের জন্য ভালোভাবে কাজ করতে চাই ইনশাআল্লাহ।  আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া  করবেন।


আরও খবর

ভালো থাকুক পৃথিবীর সব মা

রবিবার ১২ মে ২০২৪




দেশব্যাপী ‘নো হেলমেট নো ফুয়েল’ কার্যকরের কড়া নির্দেশ

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ |

Image



 ডিজিটাল ডেস্ক:


সারাদেশে আজ থেকে ‘নো হেলমেট নো ফুয়েল’ কার্যকরের কড়া নির্দেশ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।


বুধবার (১৫ মে) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ আইন ২০১৭-এর অধীনে গঠিত উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম বৈঠকে এ নির্দেশ দেন তিনি।

 


বনানীতে বিআরটিএর সদর কার্যালয়ে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ঢাকার দুই সিটি মেয়র, বিআরটিএ চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।


এসময় আজ থেকেই সারাদেশে নো হেলমেট, নো ফুয়েল কার্যকরের নির্দেশ দেন মন্ত্রী। 



আরও খবর



দ্বিতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ শেষে চলছে গণনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ |

Image

বিডি টু ডে ডিজিটাল ডেস্ক:

কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। এখন চলছে গণনা। মঙ্গলবার (২১ মে) বিকেল ৪টার দিকে ভোটগ্রহণ শেষ হয়।

সকাল ৮টা থেকে দেশের ১৫৬ উপজেলার ১৩ হাজার ১৬টি ভোটকেন্দ্রে দ্বিতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এর মধ্যে ২৪টিতে ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারে ভোট হয়।

তবে তফসিল ঘোষণার পর বিভিন্ন কারণে পাঁচটি উপজেলার ভোট স্থগিত রয়েছে।
সকাল থেকে কেন্দ্রে আসতে থাকেন ভোটাররা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতিও বাড়ে। পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন তারা।

সকাল ৮টায় দ্বিতীয় ধাপে ১৫৬ উপজেলায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এরমধ্যে ২৪ উপজেলায় ইভিএমে ভোট হয়। বাকি ১৩২ উপজেলায় ভোট নেয়া হয় ব্যালট পেপারে।

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে তিনপদে এক হাজার ৮২৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্য চেয়ারম্যান পদে ৬০৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬৯৩ জন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫৯৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। সেই সঙ্গে তিন পদে ২২ প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন।

দুই উপজেলায় তিনপদে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় লাভ করেছেন।

এবার দেশের ৪৯৬ উপজেলার মধ্যে ৪৭৬টি উপজেলা নির্বাচনে চার ধাপে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। প্রথম ধাপে ১৫২ উপজেলায় তফসিল দিলেও নানা জটিলতায় গত ৮ মে ভোট হয় ১৩৯টিতে।

প্রথম ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন ২৮ জন প্রার্থী (চেয়ারম্যান আট জন, সাধারণ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ১০ জন করে)। আগামী ২৯ মে তৃতীয় ধাপে ১১২ উপজেলায় এবং ৫ জুন চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।


আরও খবর



লালমনিরহাটে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ১৯ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া চক্রের প্রধান গ্রেফতার

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ |

Image

নিজস্ব প্রতিনিধি, লালমনিরহাট : চাকুরি দেওয়ার প্রলোভনে ভুয়া নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ ও ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া এক চক্রের প্রধান প্রতারককে গ্রেফতার করেছে লালমনিরহাট পুলিশ।

তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে লালমনিরহাট থানা পুলিশ গেলো বুধবার  রাত ৮টার দিকে দেশের রাজধানী ঢাকার উত্তরা থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৯ লাখ টাকার মামলায়  শিবলু লোমান চৌধুরীকে গ্রেফতার করে। পরে আসামীকে ঢাকা থেকে লালমনিরহাটে এনে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ। গ্রেফতার শিবলু সাবেক সেনা সদস্য, বাড়ি নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ এলাকায়।

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমান নামে এক ভুক্তভোগী বাদী হয়ে চক্রের প্রধান শিবলু লোমান চৌধুরীসহ ৬জনের নাম উল্লেখ করে লালমনিরহাট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, প্রতারক শিবলু লোমান চৌধুরী নিজেকে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ঢাকা প্রধান কার্যালয়ের ডিজি'র এপিএস-এর পরিচয় দিয়ে চাকুরি দেওয়া প্রলোভনের ফাঁদ পাতে। সে রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় নেটওয়ার্ক তৈরি করে।


প্রতারক শিবলু গত ২০২২ সালের নভেম্বর  মাসে ঢাকা ফার্মগেটে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়িতে অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে জনবল নিয়োগের একটি ভুয়া বিজ্ঞপ্তি তৈরী করে প্রতারণা চক্রের সদস্যদের মাধ্যমে তা খবর ছড়িয়ে দেয়। পরে ওই পদে চাকুরি দেওয়ার প্রলোভনে প্রতারণা চক্রের সদস্য আলমগীর ও ভুয়া ডিবি কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী আব্দুর রহমানের মাধ্যমে কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী চামটারপাড় এলাকায় মোবারক হোসেনের ছেলে মিজানুর রহমানের (৩২) কাছ থেকে ১৯লাখ, একই জেলার ভুরুঙ্গামারি উপজেলার আসাদুজ্জামানের কাছ থেকে ৫লাখ, লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের ধনঞ্জয় গ্রামের শাহজাহান আলীর ছেলে ইউনুস আলীর (২৫) কাছ থেকে ৫লাখ, রংপুর মিঠাপুকুর এলাকার শোয়েব আলীর কাছ থেকে ৫লাখ, একই এলাকার আতিকুর রহমানের কাছ থেকে ৪লাখ টাকাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। টাকা নেওয়ার পর প্রতারক চক্রটি গত বছরের ২৭ নভেম্বর কৌশলে ঢাকা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ৪তলার একটি কক্ষে ভুয়া নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ করে। পরবর্তীতে গত ১ জানুয়ারী ২০২৪ চাকুরি প্রত্যাশিদের হাতে একটি করে ভুয়া নিয়োগপত্র তুলে দেয়। পরে নির্ধারিত তারিখে চাকুরিতে যোগ দিতে গিয়ে তারা বুঝতে পারে এটি ভুয়া নিয়োগপত্র এবং নিয়োগ পরীক্ষা ছিলো সাজানো।

পরবর্তীতে তারা টাকা ফেরতের চাপ দিলে প্রতারক চক্রের সদস্যরা উল্টো ভুক্তভোগী চাকুরি প্রত্যাশিদের নামে মামলা দেয়। সম্প্রতি চক্রের সদস্য আব্দুর রহমান চাকুরি প্রত্যাশি কুড়িগ্রামের মিজানুর রহমানের নামে অপহরণ মামলা দিয়েছে। এছাড়াও চাকুরির নামে টাকা নিয়ে প্রতারণার ঘটনায় নিউজ করায় রংপুর বিভাগীয় শহরের দৈনিক গণকন্ঠ, দৈনিক লাখোকন্ঠ পত্রিকা ও স্থানীয়  দৈনিক দাবানল  পত্রিকার প্রতিবেদকদের নামেও মামলা দিয়েছে ওই প্রতারক চক্র।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে প্রতারক চক্রের সদস্য আব্দুর রহমান জানান, কুড়িগ্রামের মিজানুর রহমানের সাথে আমার যে লেনদেন ছিলো তা প্রায় শোধ করে দিয়েছি। বাকী টাকাও দ্রুত পরিশোধ করবো। তবে পত্রিকার প্রতিবেদকদের নামে কেন মামলা করেছেন? এমন প্রশ্নের কোন উত্তর দেন নি তিনি।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক জানান, গ্রেফতার ব্যক্তি চাকুরি দেওয়ার প্রলোভনে প্রতারনা করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী। তাকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে লালমনিরহাটে এনে শুক্রবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



বন্দর উপজেলা: চেয়ারম্যান মাকসুদ, আলমগীর-ছালিমা ভাইস চেয়ারম্যান

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ |

Image

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি :

নারায়ণগঞ্জের  বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ঘোষিত বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আনারস প্রতীকের মাকসুদ হোসেন৷ এছাড়া, ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মাইক প্রতীকের মো. আলমগীর এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পুনরায় বিজয়ী হয়েছেন ফুটবল প্রতীকের ছালিমা শান্তা৷

রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী ইস্তাফিজুল হক আকন্দ সাড়ে নয়টার দিকে এ ফলাফল ঘোষণা করেন৷

 বুধবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে উপজেলার ৫৪টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলে৷

ফলাফল অনুযায়ী, সদ্য বহিষ্কৃত জেলা জাতীয় পার্টির সহসভাপতি মাকসুদ হোসেন ২৯ হাজার ৮৭৩ ভোট পেয়েছেন৷ তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি  দোয়াত-কলম প্রতীকের এমএ রশিদ ১৪ হাজার ৮৩৮ ভোট পেয়েছেন৷ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রশিদ গতবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় চেয়ারম্যান নির্বাচন হন৷ এছাড়া, দুইবারের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপির সাবেক সহসভাপতি (বহিষ্কৃত) চিংড়ি প্রতীকের প্রার্থী আতাউর রহমান মুকুল ১২ হাজার ৬২২ ভোট এবং মাকসুদের ছেলে হেলিকপ্টার প্রতীকের প্রার্থী মাহমুুুুদুল হাসান ২৫৫ ভোট পেয়েছেন৷

ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. আলমগীর ১৭ হাজার ৬০৬ ভোট পেয়েছেন৷ তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী গত দুইবারের ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু ১৭ হাজার ১ ভোট পেয়েছেন৷ অপর দুই প্রার্থী, টিউবওয়েল প্রতীকের শাহিদুল ইসলাম জুয়েল ১৩ হাজার ৪২৮ ভোট এবং তালা প্রতীকের মোশাঈদ রহমান ৮ হাজার ৪০৬ ভোট পেয়েছেন৷

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী ছালিমা হোসেন পেয়েছেন ২৯ হাজার ৪৫৬ ভোট৷ পরাজিত কলস প্রতীকের প্রার্থী মাহমুদা আক্তার ২৬ হাজার ২৮৪ ভোট পেয়েছেন৷

এ উপজেলায় ৪৫ দশমিক ৮৬ শতাংশ ভোট পড়েছে জানিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, উপজেলার ৫৪টি কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিলেন ১ লাখ ৩১ হাজার ৫৬৪ জন৷


আরও খবর



বারাণসী কেন্দ্রে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন নরেন্দ্র মোদি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ |

Image

  ডিজিটাল ডেস্ক:


ভারতের উত্তরপ্রদেশের বারাণসী কেন্দ্রে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি প্রার্থী নরেন্দ্র মোদি।


 আজ মঙ্গলবার (১৪ মে) সকাল ১১টা ৪০ মিনিটে বারাণসীর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে মনোনয়নপত্র জমা নিয়েছেন জেলা প্রশাসক এস রাজালিঙ্গম। খবর এনডিটিভি।


মনোনয়নপত্র জমার আগে বারাণসীতে কাল ভৈরব মন্দিরে এবং দশাশ্বমেধ ঘাটে গঙ্গাপুজা করেন। এর পর নমো ঘাটে ক্রুজে ভ্রমণ করেন মোদি। 


মনোনয়নপত্র জমা উপলক্ষে বিজেপির পক্ষ থেকে গতকাল (সোমবার ১৩ মে) বিকালে প্রায় ৬ কিলোমিটার দীর্ঘ রোড শো করা হয়।



মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় তার সঙ্গে ছিলেন চার প্রস্তাবকের অন্যতম পণ্ডিত জ্ঞানেশ্বর শাস্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথসহ এনডিএ শরিক দলগুলির নেতারা। 


আগামী ১ জুন সপ্তম ও শেষ দফায় ভোট দেওয়া হবে এই বারাণসী কেন্দ্রে। আজ মঙ্গলবারই ছিল এ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। 


এ নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য বারাণসী কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদি। এর আগে ২০১৪ সালে উত্তর প্রদেশের বারাণসী লোকসভা কেন্দ্র থেকে জিতে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। ২০১৯ সালেও এই কেন্দ্র থেকেই জিতে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হন তিনি।


এবার মোট সাত দফায় দেশটির ৫৪৩ টি লোকসভা আসনে ভোট নেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে প্রথম চার দফার ভোটের মধ্যে ৩৭৯ আসনে ভোট নেওয়া সম্পন্ন হয়েছে।  বাকি আছে আরো তিন দফা। পঞ্চম দফার ভোট আগামী ২০ মে, ষষ্ঠ দফা ২৬ মে এবং সপ্তম ও শেষ দফার ভোট ১ জুন। 


আরও খবর